somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

নেতা :D :P স্বরচিত কোবতে :-<

১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:২৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

জনৈক নেতা রসায়ন সাহেব কোন এক কাল্পনিক সভায় জনতার উদ্দেশ্যে ভাষণ প্রদান করিতেছিলেন । আসুন পড়ি উহা



জোরে জোরে,

জনতার নেতা রসায়ন সাহেব চিন্তা করিলেন সবে,
জীবনটা এবার দিয়াই দেই এই মানবতরে ।
আপনারা আমার ভ্রাতা হোন আমি কিসের নেতা,
আমার সংগ্রাম আপনাদের তরে ইহাই সত্যি কথা ।

মনে মনে,

তোমাদের তরে জীবন দেব ভাবলে কিসের তরে ?
ইলেকশনে জিতিয়া লই , তখন পালাইবো আপন ঘরে !
কিসের ভ্রাতা কিসের কি , আমি হলাম নেতা ;
আত্মউন্নয়ন মূল লক্ষ্য , এটাই সত্যি কথা !

জোরে জোরে ,

নির্বাচনে তব জিতিয়া লই , সবাইকে দেবো বানাইয়া ঘর ,
মাদক সন্ত্রাস আর চাঁদাবাজির বিরুদ্ধে চালাইব ধর পাকড় ।

মনে মনে,

নিজের বাড়িটা সবার আগে বানাইবো বহুতল,
সামনে থাকিবে লাগোয়া বাগান আর ফোয়ারার নীল জল;
ক্যাডার বাহিনী পুষিব আমি , হইবো বড় ভাই,
বাড়ি হোক বা রাস্তা সবখানেই আমার ১০% চাই !

জোরে জোরে,

শিক্ষার আলো ছড়াইয়া দেবো , গড়িব বিদ্যালয়;
মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে তব চালাইব মহাপ্রলয়,
নদী আর খাল বিলের উপর বানাইবো ব্রিজ কালভার্ট আর পুল ;
ব্যাগ কাঁধে বাচ্চারা তখন যাইতে পারিবে ইশকুল ।

মনে মনে,

খাইয়া দাইয়া তবে কি মোর কাম কাজ নাহি আর,
বিদ্যালয় গড়িয়া করিব কি নিজ ভবিষ্যত ছারখার !
থাকো মোর জনতা ওই ব্রিজ কালভার্টের আশে ;
জিতার পরও পার হইবা নদী , দিয়া সাঁকোর ওই বাঁশে !

জোরে জোরে,

যুবাদের জন্য কাজ দিবো কেহ থাকিবে না বেকার,
এমন যুগে আমার মত লোক পাইবে কোথা আর !
স্বাস্থ্যসেবা পৌছাইয়া দেবো জনতার দোর গোড়ায়,
ভালোবাসা আমার জনতার প্রতি প্রকাশ করিব ফুল তোড়ায় !

মনে মনে,

দলীয় ছেলেরা কাজ করিবে বাকিরা যাক গোল্লায়;
আমার ক্যাডাররা রাজত্ব করিবে প্রতি পাড়া মহল্লায়;
স্বাস্থ্যসেবার গুষ্টি মারি নিজে ভালো থাকিলেই হয়,
জনতার খেতা পুরি, নিজেকে আমি ভালো রাখিব এই আমার প্রত্যয় ।

অতঃপর,

হঠাৎ করিয়া আকাশের বুকে জমিল মেঘের সাজ;
দৃম করিয়া মঞ্চের উপর পড়িল মেঘের বাজ !
নেতা সাহেব পাইয়াছেন অক্কা একি হইল তবে !
দুর্নীতিবাজরা এভাবেই হারাইয়া যায় খোদারই গজবে !
সর্বশেষ এডিট : ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩২
৫টি মন্তব্য ৫টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

রাজনীতি ও ইবাদত কোন পথে?

লিখেছেন শাহাদাৎ হোসাইন (সত্যের ছায়া), ২১ শে জুন, ২০১৮ রাত ৮:২৯


আল্লাহ দুটি ইবাদত করার জন্য টাকা পয়সা থাকার জন্য শর্ত আরোপ করেছেন:
এক. হজ্জ।
দুই. যাকাত।

অর্থাৎ এই দুইটি ইবাদত গরীব চাইলেও করতে পারবেনা! গরীবের এই ইবাদত করার যোগ্যতা অর্জণ... ...বাকিটুকু পড়ুন

কাইকর

লিখেছেন সনেট কবি, ২২ শে জুন, ২০১৮ রাত ১২:৫৬



অভিনেতা আব্দুল্লাহ আল মামুনকে
দেখার পর এখন সে নামে নতুন
এক সাহিত্যিক দেখে ভরেগেছে মন;
যে চলে দূর্বার বেগে সবে ভালবেসে।
ব্লগপাড়া তোলপাড়ে সে সর্বদা থাকে
সকলের সাথে মিশে। সবার আপন
স্বগুণে সে হতে চায়। জীবন... ...বাকিটুকু পড়ুন

রম্যঃ আমি নাম বললে চাকরী থাকবে না :P

লিখেছেন কুঁড়ের_বাদশা, ২২ শে জুন, ২০১৮ রাত ২:২৬




খানিকটা সমবেদনা। :P

(এবার দার্শনিক কুঁড়ের বাদশা নিরপেক্ষ লুক।)
...বাকিটুকু পড়ুন

তুষার দেশে এক বাংলাদেশী কিশোরীর দিনরাত্রি - পর্ব (৮) - কানাডার প্রথম খারাপ অভিজ্ঞতা!

লিখেছেন সামু পাগলা০০৭, ২২ শে জুন, ২০১৮ সকাল ৯:৫৪

পূর্বের সারসংক্ষেপ: কানাডিয়ান স্কুলে ভর্তির পরে কাউন্সিলর আমাকে পুরো স্কুল ঘুরে দেখালেন আন্তরিকতার সাথে। তারপরে ওনার কাছ থেকে বিদায় নিয়ে স্কুল থেকে বাড়ির পথে রওয়ানা দিলাম বাবা মার সাথে।... ...বাকিটুকু পড়ুন

টগরের হোমওয়ার্ক (গল্প)

লিখেছেন কাওসার চৌধুরী, ২২ শে জুন, ২০১৮ বিকাল ৪:৩৮


লন্ডন ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ছাত্র টগর। এর আগে আরো তিনটা ক্লাস পাশ করে রীতিমতো নিজের যোগ্যতার প্রমাণ দিয়ে ক্লাস টুতে প্রমোশন পেয়েছে সে। বয়স ৭ বছর ৪ মাস ২৩ দিন।... ...বাকিটুকু পড়ুন

×