somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আপনি যে পোস্টটি খুঁজছেন, এই পোস্টটি পাওয়া যায়নি...

আলোচিত ব্লগ

গুলতেকিন খানের সাক্ষাৎকার পর্ব এক,দুই,তিন

লিখেছেন এডওয়ার্ড মায়া, ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ৯:০৩

গত ২০ জুলাই পরিবর্তন ডট কমে ছাপা হয়েছিল হুমায়ুন আহমেদ এর সাবেক স্ত্রী গুলতেকিন খানের প্রথম পর্ব সাক্ষাৎকার ।পরে পর্যায় ক্রমে ছাপা হয় দুটি পর্ব ।
আমি পরিবর্তন ডট কম থেকে... ...বাকিটুকু পড়ুন

এ্যাডভেঞ্চার বাইকাররা মরার আগে যে রোডগুলোতে রাইড করে....

লিখেছেন অপলক , ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১১:০৯

=< South Yungas Road:
বলিভিয়ার ভয়ঙ্কর এই রোডটা ৪৩ মাইল দীর্ঘ। একে Death Road বলা হয়ে থাকে। বছরে প্রায় ১০০০ লোক মারা যায় এই রোডে। তারপরেও সৌন্দর্যে ভরা একটা গ্রামে যেতে... ...বাকিটুকু পড়ুন

স্পর্শ

লিখেছেন অরুনি মায়া অনু, ২৪ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১২:০৪



বৃষ্টির স্পর্শে যেমন ধরণী জাগে সবুজ করে গল্প,
স্পর্শে তোমার ক্লান্তি হারাই কষ্টরা হয় অল্প |

রাতের স্পর্শে ঐ চাঁদ টি জাগে ছড়ায় নরম আদর,
স্পর্শে তোমার আমি যে হারাই ছাড়িয়ে সীমার... ...বাকিটুকু পড়ুন

বর্ণচোর

লিখেছেন মোঃ সাইফুল্লাহ শামীম, ২৪ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১:৩৯


প্রলম্বিত তৃতীয় প্রহর
স্বপ বুনার খেয়ালে,
ইচ্ছেরা সব ঝড় তুলে যায়
আমার মনের দেয়ালে।

নির্ঘুম তাই বাকিটা প্রহর
দিয়েছে দুহাত বাড়িয়ে,
আর্তনাদের ছায়ার ভেতর
স্বপ্নরা আজ দাঁড়িয়ে।

বিমর্ষ সব ইতিহাস গুলো
ভুলে যায় তার... ...বাকিটুকু পড়ুন

যে পৃথিবী মুছে যায়..... (সায়েন্স ফিকশান)

লিখেছেন পুলহ, ২৪ শে জুলাই, ২০১৬ সকাল ১০:১৬

প্রফেসর জাহিদ হাসান নিজের রুমে বসে আছেন। তার সামনে তার ছাত্র শরিফুল।
ছেলেটার বয়স খুব একটা বেশি না, সবে সেকেন্ড-ইয়ার, সেকেন্ড-সেমিস্টার পার করছে। অত্যন্ত সাধারণ চেহারার নিরীহ ভঙ্গিতে বসে থাকা ছেলেটি-... ...বাকিটুকু পড়ুন

নির্বাচিত ব্লগ

চাঁদের আলোয় অধরা, মিহি বাতাসে মাধবী......!! (নো ম্যান্স ল্যান্ড-৮)

লিখেছেন সজল জাহিদ, ২৪ শে জুলাই, ২০১৬ সকাল ১১:০২


অরণ্য একটি লজে রুম খুঁজে নিয়ে, একটু ফ্রেস হয়েই আবার বেরিয়ে পড়লো কিছু খাবারের খোঁজে। ফিরে এলো কিছু সময় পরে। রুমে এসেই বুঁদ হয়ে গেল ফেসবুকের মেসেঞ্জারে। এদিকে অধরা আর অন্যদিকে অরণ্যর বন্ধুরা। কথা বলছে... তিন তলার হোটেল রুমের পর্দা সরিয়ে জানালা খুলে দিল।

জানালার পর্দা সরাতেই এক মুঠো জ্যোৎস্না এসে পড়লো ভরা চাঁদের বুক থেকে! অরণ্যর ধবধবে সাদা বিছানায়। যা দেখে নিজের অজান্তেই হেসে ফেলল অরণ্য! আর মনে মনে ভাবলো এ যেন জ্যোৎস্না নয় অধরার হাসি, অধরার উপস্থিতি, এ যেন অধরারই আলো, চাঁদের আলো হয়ে এসে পড়েছে অরণ্যর বিছানায়! ভেসে উঠলো অধরার নির্মল আর নিস্পাস হাসির মুখখানি!

চাঁদের আলোয় অধরার সাথে... ...বাকিটুকু পড়ুন

যে পৃথিবী মুছে যায়..... (সায়েন্স ফিকশান)

লিখেছেন পুলহ, ২৪ শে জুলাই, ২০১৬ সকাল ১০:১৬

প্রফেসর জাহিদ হাসান নিজের রুমে বসে আছেন। তার সামনে তার ছাত্র শরিফুল।
ছেলেটার বয়স খুব একটা বেশি না, সবে সেকেন্ড-ইয়ার, সেকেন্ড-সেমিস্টার পার করছে। অত্যন্ত সাধারণ চেহারার নিরীহ ভঙ্গিতে বসে থাকা ছেলেটি- ছাত্র হিসেবে অসাধারণ। প্রফেসর হাসান তার দীর্ঘ অধ্যাপনা জীবনে এতো শার্প স্টুডেন্ট দেখেছেন বলে মনে করতে পারেন না।
সেই ফার্স্ট ইয়ারেই তিনি শরিফুলদের কোয়ান্টাম ফিজিক্স-১, ২ কোর্সদু’টি পড়াতেন। আর সে কোর্সগুলোর সুবাদেই শরিফুলের সাথে তার জানাশোনা; সেই সময় থেকেই কোয়ান্টাম মেকানিক্সের মতন এতো ‘এবস্ট্রাক্ট’ একটা বিষয়ে ছেলেটির দক্ষতার পরিচয় পেয়ে তিনি বিস্মিত। বলা বাহুল্য- অন্য কোর্সগুলোর অবস্থাও অনেকটা একই রকম; প্রফেসর হাসান অতটা বিস্তারিত না জানলেও এটুকু অন্তত জানেন যে- বাকি... ...বাকিটুকু পড়ুন

এ্যাডভেঞ্চার বাইকাররা মরার আগে যে রোডগুলোতে রাইড করে....

লিখেছেন অপলক , ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১১:০৯

=< South Yungas Road:
বলিভিয়ার ভয়ঙ্কর এই রোডটা ৪৩ মাইল দীর্ঘ। একে Death Road বলা হয়ে থাকে। বছরে প্রায় ১০০০ লোক মারা যায় এই রোডে। তারপরেও সৌন্দর্যে ভরা একটা গ্রামে যেতে এডভ্যানচার প্রেমীরা এই রোডে যাত্রা করে।



=ভাইটিম নদীর ব্রীজ আর সাইবেরীয়ার ভয়ঙ্কর দুর্গম রোড হচ্ছে চ্যালেঞ্জিং আর এ্যাডভেন্চারে ঠাসা একটা রোড। ৬০০ মিটারের কাঠের একটা ব্রীজ পার হতে বাঘাবাঘা রাইডারের গলা শুকিয়ে যায়। আর অন্যদিকে সাইবেরিয়ার রোড আসলে রোড বলা যায় না, মৃত্যু ভয় থাকলে এ রোডে কেউ পা বাড়ায় না। কখন কি ঘটবে, কোথায় ভাল্লুক বের হবে, কোথায় পাহার ধসে রোড বন্ধ... ...বাকিটুকু পড়ুন

অনুবাদ গল্পঃ ব্লাউজ

লিখেছেন শরীফ আজাদ, ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ১০:৪৯



মমিন গত কয়েকদিন যাবত এক ধরণের অস্থিরতায় ভুগছে। তাঁর পুরো শরীরটা যেন একটা দগদগে বিষফোঁড়া। সর্বদা সে একটা রহস্যজনক ব্যথা অনুভব করে —কাজ করতে গেলে, হাঁটতে গেলে, এমনকি চিন্তা করতে গেলেও ব্যথাটা তাঁর অনুভূত হয়। যতবারই সে এই অনুভূতিটাকে ব্যাখ্যা করতে চেয়েছে, ততবারই ব্যর্থ হয়েছে।

বসে থাকা অবস্থায় মাঝে মাঝে সে এটার একটা ব্যাখ্যা দাঁড় করানো শুরু করে। সাধারণত যেসব অস্পষ্ট এলোমেলো চিন্তাগুলো তাঁর মনে বুদ্বুদাকারে উত্থিত হয়ে আবার নীরবে মিলিয়ে যায়, সেগুলো এখন প্রচণ্ড ঝড়ের বেগে সেখানে বিস্ফোরিত হতে লাগলো।মনে হচ্ছে যেন কাঁটাওয়ালা পা নিয়ে কতগুলো পিঁপড়ে তাঁর কোমল মনটার অলিতে গলিতে হামাগুড়ি দিয়ে হেঁটে বেড়াচ্ছে। তাঁর পুরো শরীরে... ...বাকিটুকু পড়ুন

বর্ধিত আমিষ চাহিদার বিপরীতে জেগে উঠা ভয়ঙ্কর স্বাস্থ্য ঝুঁকি!

লিখেছেন এক নিরুদ্দেশ পথিক, ২৩ শে জুলাই, ২০১৬ রাত ২:৫৬

একদিকে নগরায়ন এবং তথাকথিত আধুনিকতার ছোঁয়ায় মানুষের আমিষ ভিত্তিক খ্যাদ্যাভ্যাস অতি দ্রুত প্রসারিত হচ্ছে, অন্যদিকে এই চাহিদা পূরণে অত্যন্ত ক্ষতিকর হারে উদ্ভিজ্জ (অনিয়ন্ত্রিত রাসায়নিক চাষ) এবং প্রাণীজ উৎস (বিষাক্ত খাবারে মুরগী, মেডিসিনাল হরমোনে গরু এবং বিষ মিশ্রিত পানিতে মাছ) থেকে আমিষ এর সংস্থান করা হচ্ছে।

বাংলাদেশে শিশু এবং কিশোর খাদ্যতালিকায় ভয়ঙ্কর ভাবে সবজি এবং উদ্ভিজ্জ আমিষ এর অনুপুস্থিত দেখা যাচ্চে।
শহুরে পরিবারে প্রাণীজ আমিষ ছাড়া এক বেলাও চলছে না, গ্রামীণ মানের মধ্য-উচ্চ মধ্য-উচ্চ এবং অভিজাত পরিবারেও একই প্রবণতার প্রকটতা রয়েছে। এর বাইরে রয়েছে সাধারণ আপ্যায়ন, মেহমানদারি, সামাজিক অনুষ্ঠান কিংবা আধুনিক অনুষ্ঠানের খাদ্যাভ্যাসে প্রাণীজ আমিষের অতি মাত্রার এবং বাড়াবাড়ি রকমের উপস্থিতি।... ...বাকিটুকু পড়ুন