somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

বেয়াক্কলের হানিমুন ও কীট-পতঙ্গের হাসপাতাল গমন!!!

০৫ ই মে, ২০২০ রাত ১:১৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


নজিরবিহীন করোনাকাল। নিম্নবিত্ত-মধ্যবিত্তের আকাল। আর দেখলাম, দেখছি, দেখব অদূরদর্শিতা, অস্বচ্ছতা, অব্যবস্থাপনা, অদক্ষতা, অসততা, অনিয়ম, সমন্বয়হীনতা, বাগাড়ম্বরতা, চাটুকারীতার যজ্ঞ ও ঐসব যজ্ঞ পালনকারী বেয়াক্কল। নন-সাসটেইনেবল উন্নয়নের এসব দুষ্টুক্ষত দেখে-টেখে, বুঝে-টুঝে বিববিষার উদ্রেগ ঘটলেও উটপাখির মতো কল্লার পুরোটায় বালুর মধ্যে গুঁজে দিয়েই আরামবোধ করছি। কী শখ বিপি বাড়িয়ে?

তার চেয়ে করোনাকালের একঘেয়েমীতে চিমসে মুখটাকে ভেটকি মাছের মতো করার জন্য একটি বেয়াক্কলীয় কৌতুক হয়ে যাক--

দেশে যেহেতু বেয়াক্কলের ছড়াছড়ি, এরকমই এক আক্কেলহীন প্রেমিকজুটি করোনার মাঝেও বিশাল লোকসমাগম করে শাদী মোবারকের পর হানিমুনে গেছে করোনার আতুঁরঘর স্পেনে। সেখানে হোটেলে উঠেই রূপবতী স্ত্রী পাগলপান ইয়েরে জিগায়--
-জানু, ...শুনেছিলাম হোটেলের রূমে নাকি গোপন ক্যামেরা থাকে?
বেয়াক্কল মিঞা আতঁকে উঠে সোৎসাহে, 'তাই তো'। বলেই রূমের সবখানেই চিরুনি অভিযান শুরু করে গোপন সেই ২০ নাইট্রো টলুইনের মারণাস্ত্রকে খুঁজে পেতে। কিন্তু না, পেল না। শেষে হাঁফ ছেড়ে যখন রূপবতীরে নিয়ে...তখনই চোখ পড়ল ঘরের মাঝখানে মেঝেতে ডিম্বাকার একটি আলাদা কার্পেট। তৎক্ষণিকভাবে স্বর্গ থেকে অনিচ্ছা সত্ত্বেও অবতরণ করে কার্পেট উঠে দেখে স্ক্রুর মতো কিছু একটা জিনিস। তো সাথে সাথে সিদ্ধান্তে উপনীত হল নিশ্চয় এটা গোপন কিছু যা...। সেই ভেবে অনেক কষ্টে সেটাকে খুলে রেখে গাধা মর্ত থেকে স্বর্গারোহণ করল।

পরেরদিন হোটেলের একজন অফিসার এল তাদের খোঁজ নেওয়ার জন্য।
-সিনোরিতা, কেমন কাটছে হোটেলে আপনাদের...।
-অতি মিষ্টি ও মোলায়েম।
-কোনো প্রকার ঝামেলা হয় নি তো?
-না না। অসাধারণ সময় কেটেছে সারারাত...। মেডিটেরিয়ান হাওয়ায়...ওয়াও...। আচ্ছা, কেন বলুন তো?
-না মানে, আপনাদের ঠিক নিচের রুমটা একটি হলরুম, গতকাল রাতে মিটিং চলাকালে আচম্বিতে ঝাড়বাতি খুলে পড়ে বেশ কিছু লোক এখন হাসপাতালে…!!!

***

এভাবেই এখন দেশে এসি রূমে বসে হানিমুনরত বেয়াক্কলেরা (নাকি চতুর!) করোনাকালের নব নব স্ক্রু খুলে অন্যের মাথায় ঝাড়বাতি-করোনাজাতি-লোহার পাতি-মরা হাতি ফেলে কতজনরে ও কাকে কাকে যে হাসপাতালে পাঠানোর ব্যবস্থা করছে তা খোদা মালুম!!!

**************************************************************************
আখেনাটেন/মে-২০২০
সর্বশেষ এডিট : ০৫ ই মে, ২০২০ রাত ১:২০
৩৪টি মন্তব্য ২৯টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

তেল-চাউলে তেলেসমাতি !

লিখেছেন সাইন বোর্ড, ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২৬


মুদি দোকানে গিয়েছিলাম বিরিয়ানির মসলা কিনতে । দোকানি আমাকে দেখে কিছুটা আফসোস করে বলল,ভাই ফাটাফাটি একটা ব্যবসা চলে গেল, দশ লাখ টাকার সয়াবিন তেল কিনে রাখলে এখন একেবারে লাল... ...বাকিটুকু পড়ুন

শীতের পিঠা ও রস

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ দুপুর ১২:১৯

১।



পাটি সাপটা ঃ

শীত এলেই পিটা খাওয়ার ধুম পড়ে যায় সারা বাংলাদেশে। এছাড়াও সারা বছরই অল্প-স্বল্প পিঠা বানানো ও খাওয়া হয়। এলাকা বেধে একেক পিঠার একেক নাম আবার বানানো... ...বাকিটুকু পড়ুন

» আলোকচিত্র » বাংলাদেশের ল্যাভেন্ডার ফুল

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:২৪

০১।



এবার শ্বশুর বাড়ীতে এই বেগুনি বুনোফুলের দেখা পেলাম। নাম দিয়েছি বাংলাদেশের ল্যাভেন্ডার। ফসলের ক্ষেতজুড়ে এই ফুল ফুটে আছে। এখানে সেখানে থোকা থোকা বেগুনি ফুল দেখে মনটাই আনন্দে ভরে উঠেছিলো।

একটি ক্ষেত... ...বাকিটুকু পড়ুন

গল্পানুঃ চোখ

লিখেছেন কল্পদ্রুম, ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৪:৪৫



রইছুদ্দিনের চারপাশে তার পরমাত্মীয়রা দাঁড়িয়ে আছে, নজর তার আনকোরা চোখে। একটু পরেই মোড়ক উন্মোচন হবে। তুলো দুটো সরানোর পর রইছুদ্দিন শুনতে পান, "ধীরে ধীরে চোখ খুলুন।" তিনি সেটাই... ...বাকিটুকু পড়ুন

সোহানী আপার জীবন ও জীবিকার গল্প আমার ভীষণ ক্ষতি করে দিয়ে গেলো... :-B

লিখেছেন পদ্ম পুকুর, ২৪ শে জানুয়ারি, ২০২১ বিকাল ৫:৩৯


ছোটবেলা থেকেই ‘আউট বই’ পড়ার মারাত্মক নেশা ছিলো। সে নেশা এমনই যে এসএসসি পরীক্ষা চলাকালীন এক সন্ধ্যায় হুমায়ূনের নতুন একটা বই হাতে আসলো, যেটা আবার পরদিনই ফেরত দিতে হবে, অতএব... ...বাকিটুকু পড়ুন

×