somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

অজাত/Unborn

২৮ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৪:৫১
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

সেখানে ছিলাম আমি
এক অজাত শিশু
বন্দুকের মধ্যে ক্রীড়নশীল
সূর্যোদয় ঘটে
আর আমি তোমার মৃত্যু বহন করি
গর্ভ থেকে গর্ভে

ডালিম গাছে ঝাঁকুনি শুরু
আমার মায়ের দুঃস্বপ্নে অসহায়
শাখাগুলি থেকে হাজার চাঁদ দেখা যায়।
একটা আয়না ভাঙে আর প্রতিটি ভাঙা টুকরোর মধ্যে
আমার মা জন্মদান করে।
সবগুলো টুকরোতে,
আমি ক্রন্দনরত আর ডালিমগুলো আঙুল দিয়ে ভাঙি।

কি করো এখানে তুমি? সে জিজ্ঞাসা করে
জানি না আমি
জেগে উঠলাম
একটা গানের ভেতরে কোন গাওয়া ছিল না।
তার মধ্যে তারা ছিল,
আমার মধ্যে হারিয়ে যাওয়া হ্রদ
তার ভেতরে ছিল চাঁদ,
ক্ষুদ্রতার খেলা আমার মধ্যে
তার ভেতরে ঠোঁট
আমার ভেতরে চুমু।

আমার শিরা-উপশিরায় চড়ুই ঘুমন্ত,
বুলেটগুলো যা বলছে তাতে ওরা ভীত।
আমার দেহের কোণায় ওদের মাথা আছড়ে পড়ে।
তারা আমার ছায়া বরাবর যায় উড়ে
একটা কোদালের তালে
পৃথিবীতে প্রবেশ ও বাহির,
দূরে শৈশবাবস্থা দোলে
আমার মা সেখানে ধুলোবালি ঝাড়ে

বিভিন্ন মৃত্যু
আমাকে পলায়ন করে
প্রতিটা নতুন পোশাক পরিবর্তনের সাথে
আমি একটি নতুন মৃত্যু পরতাম
তোমার মৃত্যু
তাদের সব থেকে আমাকে চুরি করে
নিজস্ব হতে চেয়েছিল।
নীরবতা থেকে নীরবতা
আমার মুখের মধ্যে ডালিমে পরিণত
নীরবতা দ্বারা নীরবতা
এটা আমার মায়ের উল্লাসে বৃষ্টির মত
নীরব থেকে নীরবতায়
আমি পৌছে যাই যেখানে তুমি আছো
শব্দ থেকে শব্দে
কবিতা থেকে কবিতায়

I was there,
an unborn child
playful among guns.
The sun rises
and I carry your death
womb by womb.

Pomegranates trees start shaking in the nightmares of my mother
thousand moons fall from the branches.
A mirror breaks and in every broken piece my mother gives birth.
In all the pieces,
I am crying and breaking pomegranates with my thumbs.

What are you doing here? She asked
I didn't know
I woke up
in a song she wasn't singing.
The stars were in her,
lost lakes in me.
The moon was in her,
waxing and waning in me.
Lips were in her,
kissing in me.

Sparrows were sleeping on the vines of my veins,
what the bullets were saying startled them.
They kept hitting their heads on the edge of my body.
They flew away through my shadow.
In the rhythm of a shovel
entering and leaving the earth,
a cradle was rocking far away and
my mother was emptying it
of sand.

Different deaths
eluded me.
With every new change of clothing
I wore a new death.
Your death
stole me from all of them.
It wanted to be mine.
Silence by silence
it turned to pomegranates in my mouth and
silence by silence
it felt like rain in my mother's lullaby and
silence by silence
I arrived where you are
word by word
সর্বশেষ এডিট : ২৮ শে জুলাই, ২০১৮ বিকাল ৪:৫১
৩টি মন্তব্য ০টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

পুরনো ভাজে নতুন করে ঠাঁই পাওয়া!

লিখেছেন নান্দনিক নন্দিনী, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২১ বিকাল ৩:০৮



একটা গণিত বই আরেকটা গণিত বইকে কী বলে জানেন? I have so many problems. পরিচিত গন্ডির সবাই আজকাল গনিত বইয়ের মতো আচরণ করে। আলাপে-সংলাপে কেবল সমস্যা নিয়ে কথা বলে।... ...বাকিটুকু পড়ুন

=নামাজ পড়ো অক্ত হলে=

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২১ বিকাল ৪:১৭



©কাজী ফাতেমা ছবি
জায়নামাজটা আছে পাতা, এসো দাঁড়াও পড়ো নামাজ,
ছুঁড়ে ফেলো আছে যত, ব্যস্ততা আর আলসেমী কাজ।
মরে গেলে কেউ যাবে না, সঙ্গে শুধু নামাজ যাবে,
সওয়াল জবাব... কালে মানুষ, নামাজটারেই... ...বাকিটুকু পড়ুন

বাংলাদেশ ক্রিকেট : আইসিসি ট্রফি ১৯৭৯ থেকে ১৯৯৭, ও বিশ্বকাপ ক্রিকেট ১৯৯৯-এ খেলার যোগ্যতা অর্জন - পর্ব-১

লিখেছেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২১ বিকাল ৪:২৯

১৯৭৯ সালে আইসিসি ট্রফি টুর্নামেন্টে যোগদানের মাধ্যমে বাংলাদেশ ক্রিকেট দল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট অঙ্গনে প্রবেশ করে। এরপর বিভিন্ন আইসিসি টুর্নামেন্টে অনেক আশা-নিরাশার দোলাচলে দুলতে দুলতে, অনেক চড়াই-উৎরাই পার হয়ে অবশেষে... ...বাকিটুকু পড়ুন

বিকর্ষণ

লিখেছেন নয়ন বিন বাহার, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২১ বিকাল ৪:৪৪

১।
আমার এ জীবনে কভু তোমারে পারিনি বুঝিতে,
বাতাসের মত তোমার মন, শুধু দিক বদলায়,
চশমার খালি ফ্রেম, তবু সান্তনা দিতে পারে
অন্ধকারে, চোখ নয়, মন জ্বলে নতুন আশায়।

২।
পৃথিবীর সব হারামীগুলো যেখানে ডিম পাড়ে,
খালি... ...বাকিটুকু পড়ুন

বাঙ্গালি পাকিলাভারদের অবস্থা হইলো সেই ছ্যাঁকা খাওয়া প্রেমিকার মতো।

লিখেছেন অন্তর্জাল পরিব্রাজক, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২১ রাত ১০:০২

বাঙ্গালি পাকিলাভারদের অবস্থা হইলো সেই ছ্যাঁকা খাওয়া প্রেমিকার মতো... যাকে ভালোবাসে তার হাতে ছ্যাঁক খাইলেও, কঠিন মাইর খাইলেও তারেই আজীবন ভালোবাসে... পাকিস্তান অতীতে কি করসে আমাদের সাথে, তার জন্য ক্ষমা... ...বাকিটুকু পড়ুন

×