somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

জেনে নিন কিছু বিখ্যাত সাহিত্যিকদের সম্বন্ধে

০১ লা ডিসেম্বর, ২০১২ রাত ১২:৩০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

সবাইকে আমার আন্তরিক শুভেছা জানিয়ে আমার লিখা আরম্ভ করছি, somewhereinblog এ আজ আমি প্রথম লিখছি, আমার লিখায় ভুল গুলু ক্ষমার দৃষ্টিতে দেখবেন। আমি আজ এখানে বিখ্যাত কিছু কবি সাহিত্যিক- দের জন্ম, মৃত্যু এবং বাংলা সাহিত্যে তাদের অবদান সম্বন্ধে লিখব। আশা করি আমার লিখা টা পড়ে আপনারা উপকৃত হবেন আর আমার এই লিখার দারা যদি কোন পাঠক ভাই কিঞ্চিৎ উপকৃত হন তবে আমি আমার খাটুনিকে সার্থক মনে করব।

উইলিয়াম কেরি
• ১৭৬১ সালে ইংল্যান্ডে জন্মগ্রহণ করেন ।
• তিনি ১৮০০ সালে ‘শ্রীরামপুর মিশন’ প্রতিষ্ঠা করেন ।
• তিনি ছিলেন ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা বিভাগের প্রতিষ্ঠাতা প্রধান ।
• ১৮৩৪ সালের ৯ জুন মৃত্যুবরণ করেন ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

মৌলিক
• কথোপকথনঃ বাংলা ভাষায় মুদ্রিত প্রথম গ্রন্থ। বাংলা ভাষায় কথ্যরীতির প্রথম নিদর্শন এই গ্রন্থে বিধৃত ।
• ইতিহাসমালাঃ বাংলা ভাষার প্রথম গল্পসংগ্রহ ।

অনুবাদ গ্রন্থ
• সর্বপ্রথম বাইবেল বঙ্গানুবাদ করেন ।


রাজা রামমোহন রায়
*১৭৭২ সালে হুগলী জেলার এক তালুকদার পরিবারে রামমোহন রায়ের জন্ম হয় । তিনি ছিলেন একাধারে সমাজ শিক্ষা ও ধর্মীয় সংস্কারক । রাজা রামমোহন রায় সংস্কৃত,আরবি,ফারসি,ইংরেজি ভাষায় পাণ্ডিত্য লাভ করেন । গ্রীক,হিব্রু,সিরীয় ভাষায়ও দক্ষতা অর্জন করেন ।
*১৮২৩ সালে সংবাদপত্র বিধি (press ordinance) পাশ করা হলে রামমোহোন রায় এর বিরুদ্ধে তীব্র আন্দলোন শুরু করেন ।তিনি সুপ্রীম কোর্টে একটি প্রতিবাদ লিপি দাখিল করেন । এ প্রতিবাদ লিপির প্রতিলিপি ইংল্যান্ডের প্রিভি কাউন্সিলে প্রেরণ করেন।
*১৮২৮ সালে রামমোহন রায় ‘ব্রাহ্মসভা’ প্রতিষ্ঠা করেন ।এ সংগঠনে সদস্যগণ ব্রাহ্মসমাজ প্রতিষ্ঠা করেন । হিন্দু-ইসলাম-খ্রিষ্টধর্মের সার সংক্ষেপ করে একেশরবাদের ওপর ভিত্তি করে রামমোহন বাহ্মধর্ম প্রতিষ্ঠা করেন ।
* সতীদাহ প্রথা নিষিদ্ধ করণে ও বিধবা বিবাহ প্রচলনের সপক্ষে তিনি জোর প্রচলনা চালান ।
* তৎকালীন নামমাত্র দিল্লিশর মোঘল বাদশা দিতীয় আকবর তার দাবি-দাওয়া ব্রিটিশ সরকারের কাছে পেশ করার জন্য ১৮৩০ সালে রামমোহন রায়কে বিলেতে পাঠান । এ উপলক্ষে সম্রাট তাকে রাজা উপাধি দেন ।রামমোহন রায় লন্ডনে গিয়ে কোম্পানির শাষণে ভারতীয়দের দূরবস্থার কথা ব্রিটিশ পারলামেন্টেকে অবহিত করেন ।
*রাজা রামমোহন রায় ছিলেন পাশ্চাত্য শিক্ষার পক্ষপতি । এ উদ্দেশ্যে তিনি কলকাতায় এংলো নামে একটি বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেন ।
১৮৩৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর ইংল্যান্ডের ব্রিস্টল শহরে রাজা রামমোহন রায় ইহলোক ত্যাগ করেন ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান
•বেদান্ত গ্রন্থঃ তার প্রথম গ্রন্থ
*বেদান্ত সার
*পথ্য দান ।
* ভট্টাচার্যের সাহিত্য বিচার
*গোস্বামীর সহিত বিচারঃ সতিদাহ প্রথার অযৌক্তিকতা প্রসঙ্গে ।
*প্রবর্তক ও নিবর্তকের সমাদঃ সতিদাহ প্রথার অযৌক্তিকতা প্রসঙ্গে।


ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
১৮২০ সালের ২৬ সেপ্টেম্বর ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মোদিনীপুর জেলার বীরসিংহ গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন । তাঁর পিতার নাম ঠাকুরদাস বন্ধ্যেপাধ্যায় এবং মায়ের নাম ভগবতী দেবী । তাঁর পারাবারিক নাম ঈশ্বরচন্দ্র বন্ধ্যেপাধ্যায় । ‘বিদ্যাসাগর’ ছিল তাঁর উপাধি । ১৮৪০ সালে সংস্কৃত কলেজ থেকে তিনি ‘বিদ্যাসাগর’ উপাধি লাভ করেন । তিনি ঈশ্বরচন্দ্র শম্য নামে স্বাক্ষর করতেন । ফোর্ট উইলিয়াম কলেজের বাংলা বিভাগের সেরেস্তাদার বা প্রধান পন্ডিত হিসাবে কর্মজীবনের আরম্ভ করেন এবং সংস্কৃত কলেজের অধ্যক্ষ পদ থেকে তিনি অবসর গ্রহণ করেন । কলকাতায় নারী শিক্ষামন্দির ‘বেথুন কলেজ’ তাঁর সহযোগিতায় গড়ে উঠেছিল । হিন্দু সমাজে বিধবাবিবাহ প্রচলনের চেষ্টা করেন । তাঁর প্রচেষ্টায় ২৬ জুলাই ১৮৫৬ বিধবাবিবাহ আইন পাশ হয় । ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরকে বাংলা গদ্যের জনক বলা হয় । ১৮৯১ সালের ২৯ জুলাই ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগরের মৃত্যু হয় ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

অনুবাদ গ্রন্থ
* বেতাল পঞ্চবিংশতি(১৮৪৭)ঃ প্রথম মুদ্রিত গ্রন্থ । হিন্দি ‘পৈতাল পিচ্চিসি’র অনুবাদ। ঈশ্বরচন্দ্র ছিলেন বাংলা সাহিত্যে বিরাম বা যতি চিহ্ন প্রবর্তক । যতি চিহ্ন ব্যবহার পূর্বক এ গ্রন্থ প্রকাশের মাধ্যমে বাংলা সাহিত্য নতন যুগের সূচনা হয় ।
* ভ্রান্তবিলাসঃ শেক্সপিয়রের ‘comedy of Errors’ এর বাংলা রূপ ।
* সীতার বনবাসঃ বাল্মীকির রামায়ন অবলম্বনে রচিত ।
* শকুন্ডলাঃ কালিদাসের ‘অভিজ্ঞান শকুন্তলম’ এর অনুবাদ ।

মৌলিক
* প্রভাবতী সম্ভাষণ(১৮৯২ খ্রিঃ)ঃ বাংলা সাহিত্যের প্রথম মৌলিক গ্রন্থ । একটি শোকগাথা ।
* বিদ্যাসাগর চরিতঃ বাংলা গদ্যে প্রথম আত্নচরিত ।
* আবার অতি অল্প হইল
* অতি অল্প হইল
* ব্রজবিলাস
* বিধবাবিবাহ প্রচলিত হওয়া উচিত কিনা এতদ্বিষয়ক প্রস্তাব
* বহুবিবাহ রহিত হওয়া উচিত কিনা এতদ্বিষয়ক বিচার

পাঠ্যবই
* বর্ণপরিচয় (১৮৫৫)ঃ ক্লাসিকের মর্যাদা লাভ করে ।
* কথামালা
* বোধোদয়
* আখ্যানমঞ্জুরী


দীনবন্ধু মিত্র
• ১৮৩০ সালে নদীয়ার চৌবেরিয়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ।
• ১৮৭৩ সালের ১ নভেম্বর মৃত্যুবরণ করেন ।

নাটক
* নীল দর্পনঃ নাটকটি ১৮৬০ সালে ঢাকার ‘বাংলা প্রেস’ প্রকাশিত হয় । এটি ঢাকা থেকেপ্রকাশিত প্রথম গ্রন্থ । নাটকটির কাহিনী মেহেরপুর অঞ্চলের এবং নীলকর সাহেবদের অত্যাচারের চিত্র অঙ্কিত হয়েছে । মাইকেল মধূসুধন দত্ত নাটকটির ইংরেজী অনুবাদ করে নাম দেন ‘Nil Darpan’ or ‘The lndigo planting Mirror’ । এই নাটকটি প্রথম মঞ্চস্থ হয় ঢাকাতে । এই নাটক দেখতে এসে ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর মঞ্চের অভিনেতাদের লক্ষ্য করে জুতো ছুরে মেরেছিলেন ।
* নবীন তপস্বীনি
*কমলে কামিনী
* লীলাবতী

প্রহসন
* সধবার একাদশীঃ উনবিংশ শতাব্দির মধ্যভাগে সুরা পান ও বেশ্যা বৃত্তি যুবকদের জীবনে বিপর্যয় সৃষ্টি করেছিল । এই সামাজিক বিপর্যয়ের কাহিনে নিয়ে নাটকটি রচিত ।
* জামাই বারিক
* বিয়ে পাগলা বুড়ো


গিরিশ্চন্দ্র সেন (ভাই)
• ১৮৩৫ সালে নারায়নগঞ্জ জেলায় জন্মগ্রহণ করেন ।
• তিনি ব্যক্তিগত জীবনে ছিলেন ব্রাহ্মধর্মালম্বী
• ১৯১০ খ্রিস্টাব্দে মৃত্যুবরণ করেন ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

অনুবাদ গ্রন্থ
*সর্বপ্রথম কুরআন শরীফ বঙ্গানুবাদ করেন । (১৮৮১-১৮৮৬ খ্রিঃ)
*তাপসমালাঃ ফারসী ভাষায় মওলানা ফরিদুদ্দিন আত্তারের ‘ তাজকেরাতুল আওলিয়া’ অবলম্বনে রচিত । ৯৬ জন ওলী আল্লার জীবনে এতে আলচিত হয়েছে । বাংলা সাহিত্যে সুফি-দরবেসদের জীবন কাহিনী সংক্রান্ত প্রথম গ্রন্থ ।

মৌলিক গ্রন্থ
* মহাপুরুষচরিত


বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়
• ১৮৩৮ সালের ২৬ জুন ভারতের পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগণার অন্তর্গত কাঁঠালপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন ।
• সাহিত্যের রসবোদ্ধাদের নিকট হতে তিনি ‘সাহিত্যসম্রাট’ উপাধি লাভ করেন ।
• তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম গ্রাজুয়েট ।
• পেশায় তিনি ছিলেন ম্যাজিস্ট্রেট ।
• মৃত্যুঃ ৮ এপ্রিল ১৮৯৪ সাল ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

কাব্যগ্রন্থ
* ললিতা তথা মানস (১৮৫৬)ঃ তাঁর প্রথম কাব্যগ্রন্থ ।

প্রবন্ধ
* কমলা কান্তের দপ্তরঃ ব্যঙ্গাত্নক রচনা । বইটি ডিকুইনসির Confession of an English opium Eater অবলম্বনে রচিত ।
* সাম্যঃ এই গ্রন্থটি তিনি বাজার থেকে প্রত্যাহার করে নেন ।
* লোক রহস্য (ব্যঙ্গ)
* মুচিরাম গুড়ের জীবনচরিত(ব্যঙ্গ)
* বিবিধ প্রবন্ধ
* কৃঞ্চচরিত
* বিজ্ঞান রহস্য
* ধর্মতত্ত

উপন্যাস
* Rajmohon`s wife (১৮৩৫খ্রিঃ): লেখকের প্রথম উপন্যাস । ইংরেজী ভাষায় রচিত।
* দুর্গেশ নন্দিনীঃ লেখকের প্রথম বাংলা উপন্যাস । বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক উপন্যাস । দুর্গেশ নন্দিনী শব্দের অর্থ দুর্গ প্রধানের কন্যা ।
* কপালকুন্ডলাঃ বাংলা সাহিত্যে প্রথম রোমান্টিক উপন্যাস ।
* কৃঞ্চকান্তের উইলঃ সর্বশ্রেষ্ঠ উপন্যাস হিসাবে বিবেচিত । সামাজিক উপন্যাস ।
* রজনীঃ বাংলা ভাষায় প্রথম মনস্তাত্ত্বিক বিশ্লেষণমূলক গ্রন্থ । (সামাজিক)
* বিষবৃক্ষঃ সামাজিক উপন্যাস ।
* রাজসিংহঃ ঐতিহাসিক উপন্যাস ।
* মৃণালিনীঃ ত্রয়োদশ শতাব্দের বাংলাদেশ ও তুর্কি আক্রমনের ঐতিহাসিক পটভূমিতে রচিত ।
* ত্রয়ী উপন্যাসঃ সীতারাম , দেবী চৌধুরাণী , আনন্দমঠ ।
* আনন্দমঠঃ ছিয়াত্তয়ের মন্বন্তরের পতভূমিকায় সন্যাসী বিদ্রোহের ছায়া অবলম্বনে রচিত । এই উপন্যাসে লেখকের দেশপ্রেম ফুটে উঠেছে ।
* চন্দ্রশেখর * রাধারাণী
* যুগলাঙ্গুরীয় * ইন্দিরা


মীর মশাররফ হোসেন
*জন্মঃ ১৩ নভেম্বর, ১৮৪৭ সালে কুষ্টিয়া জেলার গৌড়নদির তীরের লাহিনীপাড়া গ্রামে
* আধুনিক বাংলা সাহিত্যে প্রথম উল্লেখযৌগ্য মুসলিম সাহিত্যিক বা গদ্যের লেখক ।
* তিনি ‘সংবাদ প্রভাকর’ এবং ‘গ্রাম বার্তা প্রকাশিকা’ পত্রিকার সংবাদদাতা হিসাবে কাজ করতেন।
* মৃত্যঃ ১৯১২।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

কাব্যগ্রন্থ
* মোসলেম বীরত্ব

উপন্যাস
* রত্নাবতীঃ(১৮৬৯) বাংলা সাহিত্যে মুস্লিম সাহিত্যিক রচিত প্রথম উপন্যাস।
* বিষাদসিন্ধুঃ শ্রেষ্ঠ রচনা । ৩ পর্বের উপন্যাস। কারবালার ঘটনার মর্মস্পর্শী বর্ণনা এর মূল উপজীব্য ।
* গাজী মিয়ার বোস্তানিঃ আত্নজীবনীমূলক ব্যঙ্গরসাত্নক রচনা ।
* উদাসিন পথিকের মনের কথাঃ আত্নজীবনীমূলক গ্রন্থ । নীলকর অত্যাচারের কাহিনী এতে সুন্দরভাবে রুপায়িত হয়েছে ।

নাটক
* বসন্তকুমারীঃ বাংলা সাহিত্যে মুসলিম সাহিত্যিক রচিত প্রথম নাটক । নাটকটি তিনি নওয়াব আবদুল লতিফকে উৎসর্গ করেন ।
* জমিদার দর্পন
* বেহুলা গীতাভিনয়
* টালা অভিনয়

আত্নজীবনী
* আমার জীবনী
* বিবি কুলসুম

প্রবন্ধ
* গোজীবনঃ এই গ্রন্থ রচনার দায়ে তাকে মামলায় জরিয়ে পড়তে হয় ।

প্রহসন
* এর উপায় কিঃ বাংলা সাহিত্যে মুসলিম সাহিত্যিক রচিত প্রথম প্রহসন ।
* ভাই ভাই এইত চাই
* ফাঁস কাগজ
* একি

কায়কোবাদ
• ১৮৫৭ সালে ঢাকার নবাবগঞ্জের আগলা পূর্বপাড়া গ্রামে জন্মগ্রহন করেন ।
• আধুনিক যুগে প্রথম বাঙ্গালী মুসলমান কবি
• বাঙ্গালী মুসলমান কবিদের মধ্যে প্রথম মহাকাব্য রচিয়তা ।
• বাঙ্গালী মুসলমান কবিদের মধ্যে প্রথম সনেট রচিয়তা ।
• ১৯৫১ সালের ২১ জুলাই পরলোকগমন করেন ।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

মহাকাব্য
* মহাশ্মশানঃ পানিপথের তৃতীয় যুদ্ধ (১৭৬১ খ্রিঃ) অবলম্বনে রচিত ।

কাব্যগ্রন্থ
* বিরহ বিলাপঃ প্রথম প্রকাশিত কাব্যগ্রন্থ ।
* অশ্রুমালাঃ গীতিকাব্য ।
* অমিয় ধারা * মন্দাকিনী ধারা * শ্মশানভস্ম

কবিতা
* আযানঃ ‘কাব্য সামগ্র’ কাব্যগ্রন্থের অন্তর্গত ।


রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর
*জন্মঃ ২৫ শে বৈশাখ, ১২৬৮ বঙ্গাব্দ (৭মে, ১৮৬১ খ্রীঃ) সালে কলকাতার জোড়াসাঁকোর ঠাকুর বাড়িতে । পিতাঃ মহর্ষি দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর মাতাঃ সারদা দেবি । জোড়াসাঁকোর ঠাকুর পরিবারের আসল উপাধি ছিল ‘কুশারী’ পারিবারিক ভাবে তাঁরা জমিদার ছিল ।
* ১৯০১ সালে বোলপুরের শান্তি নিকেতন ‘ব্রহ্মচর্যাশ্রম’ নামক বিদ্যাপিঠ প্রতিষ্ঠা করেন যা ১৯২১ সালে ‘বিশ্বভারতী’ বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিণত হয় ।
* ১৯১৩ সালের নভেম্বর মাসে ‘গীতাঞ্জলী’ কাব্যের জন্য নোবেল পুরস্কার পান । তিনি ছিলেন সাহিত্যে নোবেল পাওয়া প্রথম ভারতীয় ।
* ১৯১৩ সালে কলকাতা তাঁকে ডক্টরেট ডিগ্রী প্রদান করে ।
* ১৯১৫ সালে তৎকালীন ভারত সরকার তাঁকে ‘স্যার’ বা ‘নাইট’ উপাধি প্রদান করেন । ১৯১৯ সালে জালিয়ানওয়ালাবাগের হত্যাকাণ্ডের প্রতিবাদে ‘নাইট’ উপাধি ত্যাগ করেন ।
* ১৯৩০ সালে জার্মানিতে আইনস্টাইন সাথে সাক্ষাত হয় । সাক্ষাতে তিনি দর্শন, মানুষ ও বিজ্ঞান নিয়ে আলোচনা করেছিলেন । তাঁকে ডক্ট
* ১৯৩৬ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে ডক্টরেট ডিগ্রী প্রদান করে ।
* ১৯৪০ সালে অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয় তাঁকে ডক্টরেট ডিগ্রী প্রদান করে ।
* হিন্দু-মুসলমান মিলনের জন্য তিনি রাখি উৎসবের প্রচলন করেন ।
* মৃত্যুঃ ২২ শে শ্রাবণ, ১৩৪৮ বা ৭ আগস্ট ১৯৪১ ।
* ২০০৪ সালের ২৪ মার্চ শান্তি নিকেতন হতে নোবেল পুরস্কার হারিয়ে যায়।

বাংলা সাহিত্যে অবদান

উপন্যাস (১২ টি)
* করুণা(১৮৭৭)ঃ অসমাপ্ত উপন্যাস ।
* বৌ ঠাকুরানীর হাট(১৮৮৩)ঃ প্রথম প্রকাশিত উপন্যাস । ঐতিহাসিক উপন্যাস ।
* শেষের কবিতাঃ একটি রোমান্টিক উপন্যাস ।এই উপন্যাসে ভাষাবিদ হরপ্রসাদ শাস্ত্রীর নাম পাওয়া যায় ।
* ঘরে বাইরেঃ স্বদেশী আন্দোলনের পটোভূমিতে রচিত ।
* চার অধ্যায়ঃ একটি রাজনৈতিক উপন্যাস । অসহযোগ আন্দোলন পরবর্তী হিংসাত্নক বিপ্লব আন্দোলনের প্রতি বিরূপ মনোভাব উপন্যাসের মূল সুর ।
* গোরাঃ একটি রাজনৈতিক উপন্যাস ।
* চোখের বালিঃ বাংলা সাহিত্যে প্রথম মনস্তাত্ত্বিক উপন্যাস ।
* নৌকাডুবিঃ সামাজিক উপন্যাস * দুই বোন
* যোগাযোগঃ সামাজিক উপন্যাস * চতুরঙ্গ
* মালঞ্চ

নাটক
* রুদ্রচণ্ড(১৮৮১)ঃ প্রথম প্রকাশিত নাটক । অনেকের মতে রুদ্রচন্ড নাটক নই এতে সামান্য নাটকীয়তা আছে মাত্র ।
* বাল্মীকি প্রতিভা(১৮৮১)ঃ অনেকের মতে প্রথম প্রকাশিত নাটক।
* বসন্তঃ নাটকটি নজরুলকে উৎসর্গ করেন ।
* কালের যাত্রাঃ নাটকটি শরৎচন্দ্রকে উৎসর্গ করেন ।
* তাসের দেশঃ নাটকটি নেতাজী সুভাস চন্দ্রকে উৎসর্গ করেন ।
* শ্যামা (নৃত্যনাট্য) * চিত্রাঙ্গদা(নৃত্যনাট্য) * নটির পূজা
* ডাকঘর * আচলায়তন * রক্তকবরী
* বিসর্জন * তাপসী * চণ্ডালিকা
* রাজা ও রাণী * মুক্ত ধারা * মালিনী
* রাজা
* অরূপরতনঃ ‘রাজা’ এর সংক্ষিপ্ত রুপ।

প্রহসন
* বৈকুন্ঠের খাতা * শেষ রক্ষা * চিরকুমার সভা।

গল্পগ্রন্থ
* গল্পগুচ্ছ

ছোটগল্প
* ভিকারিনীঃ প্রথম প্রকাশিত ছোটগল্প
* দেনাপাওনাঃ বাংলা সাহিত্যের প্রথম সার্থক ছোটগল্প ।
গল্পের বিষয়বস্তুঃ
প্রেমের গল্পঃ শেষকথা,মধ্যবর্তনী,সমাপ্তি, প্রায়শ্চিত্ত,নষ্টনীড়,একরাত্রি,শেষের রাত্রি, মাল্যদান,ল্যাবরাটরী,পাত্র ও পাত্র।
সামাজিক গল্পঃ ছুটি,হৈমন্তী,পোস্টমাস্টার,কাবুলীওয়ালা,দেনা-পাওনা,ব্যবধান,পণরক্ষা,দিদি,কর্মফল,মেঘ ও রৌদ্র ।
অতি প্রাকৃত গল্পঃ ক্ষুধিত পাষাণ,কঙ্কাল,নিশীথে,জীবিত ও মৃত,মনিহার,গুপ্তধন ।
প্রকৃতি ও মানবসংস্কৃতঃ শুভা,অতিথি,আপদ।

কাব্যগ্রন্থ
* কবি-কাহিনী (১৮৭৮ খ্রিঃ) ঃ প্রথম গ্রন্থ বা প্রথম কাব্যগ্রন্থ ।
* বনফুল (১৮৮০ খ্রিঃ) ঃ দ্বিতীয় গ্রন্থ বা কাব্যগ্রন্থ। তবে ‘বনফুল’ কাব্যগ্রন্থের কবিতা ১৮৭৬ সালে দুইটি পত্রিকাই প্রকাশিত হওয়ায় অনেকে ‘বনফুল’ কে রবীন্দ্রনাথের কাব্যগ্রন্থ বলে থাকেন।
* গীতাঞ্জলি (১৯১০ খ্রিঃ) ঃ এই কাব্যগ্রন্থের জন্য ‘নোবেল পুরস্কার’ পান। ‘গীতাঞ্জলি’র ইংরেজী অনুবাদের নাম song offerings. এটি ইংরেজীতে অনুবাদ করেন W.B.Yeates।
* ভানুসিংহ ঠাকুরের পদাবলীঃ ব্রজবুলি ভাষায় রচিত ।
* পূরবীঃ আর্জেন্টিনার কবি ভিক্টেরিয়া ওকাম্পোকে উৎসর্গ করেন।
* খেয়াঃ বিজ্ঞানী জগদীশচন্দ্র বসুকে উৎসর্গ করেন।
* বলাকা * আরগ্য * সঞ্চয়িতা * মানসী
* শ্যামলী * কথা ও কাহিনী * শেষসপ্তক * সন্ধ্যা সংগীত
* প্রভাত সংগীত
০টি মন্তব্য ০টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

এশিয়ার বৃহত্তম বিমানবন্দর "ফেনী বিমানবন্দর"

লিখেছেন নাদিম আহসান তুহিন, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১২:২৫


✈ (ছবিটি নেট থেকে সংগৃহীত)

১৯৩৮ সালে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের আগে জাপানের বিরুদ্ধে লড়াই করার জন্য বিমানবন্দরটি নির্মাণ করে ব্রিটিশ সরকার। ব্রিটিশ সরকার বিমান ঘাঁটি ও বিমানগুলো রক্ষায় বিশেষ কিছু পদক্ষেপ... ...বাকিটুকু পড়ুন

পাগলামির পংক্তিমালা

লিখেছেন শিখা রহমান, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ভোর ৬:৫১


- এই ছেলে..
- আরেহ!! এযে মেঘ না চাইতেই সুনামি...কেমন আছো সিনোরিটা?
- ব্যস্ত? ইশশ!! ভারী তো সুনামি...কাউকে তো একটু ডুব সাঁতার কাটতেও দেখি না..
- তুমি এলে আমি কখনোই ব্যস্ত... ...বাকিটুকু পড়ুন

মহা সংকোচন

লিখেছেন হাবিব স্যার, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ ভোর ৬:৫২



সতত আরম্ভ করি নামেতে আল্লার
করুনা-আকর যিনি দয়ার আধার

সনেট-০১:৮১:সূরা তাকভীর (আয়াত: ১-১৪)
বিষয়: কেয়ামতের ভয়াবহতা

যবে সূর্যটা ঢাকবে (রবে অন্ধকারে)
তারকারা নিজেদের প্রদীপ হারাবে,
যবে পর্বত হারাবে মরিচিকা ঘোরে
গর্ভবতী উষ্ট্রীগুলো উপেক্ষিত রবে।
বন্যপশু... ...বাকিটুকু পড়ুন

গল্প - নাবিলা কাহিনী - পরিণয়!

লিখেছেন নীল আকাশ, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ সকাল ৮:২৭


নাহিদ হাত ঘড়ির দিকে তাকাল, এগারোটা বেজে দশ মিনিট। মেয়েটা তো এখানে আসতে কোন দিন এত দেরী করে না? ও আজকে কি ভার্সিটিতে আসেনি? হায় হায়, বেছে বেছে আজকেই আসেনি?... ...বাকিটুকু পড়ুন

স্বাধীনতা আমার পরিচয়

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:০৪



উৎসর্গ-সকল মুক্তিযোদ্ধাকে

আমরা যুদ্ধশিশু কেউ বা বলে ভিন্ন সুরে যুদ্ধের ফুল
যে নামেই ডাকুকনা কেন জীবন যুদ্ধে বুঝে গেছি-
জন্মের দায় কেউ নিবেনা, মোদের পৃথিবীতে আসাই ভুল।

আমার প্রাণের অঙ্কুরোদগমে আমারতো অপরাধ... ...বাকিটুকু পড়ুন

×