অনুসন্ধান:
cannot see bangla? সাধারণ প্রশ্ন উত্তর বাংলা লেখা শিখুন আপনার সমস্যা জানান ব্লগ ব্যাবহারের শর্তাবলী transparency report

আমার লিঙ্কস

জনপ্রিয় মন্তব্যসমূহ

আমার প্রিয় পোস্ট

বাংলাদেশ নিয়ে ভাবনা, প্রত্যাশা ও সম্ভাবনার সংগ্রহমালা

বাসর রাতের গল্প:

০৫ ই ফেব্রুয়ারি, ২০০৭ রাত ১০:৪৬ |

শেয়ারঃ
0 0

ভ্যালেন্টাইন উদযাপন এবার একটু আগে আগেই হয়ে গেল। বিশ্ব ভালবাসা দিবস উদযাপন হয়ে গেল বাসর রাতেই। সেই বাসর রাতের ফ্রেশ গল্প বলতেই একটু আড্ডায় এসে বসলাম। ছবির চেয়েও রঙিন। নাটকের অভিনয়ের চেয়েও অনেক রোমান্টিক। অনেক স্বপ্নের রাত। কখনও কল্পনাও করেনি আমাদের সুপ্রিয় নায়করা এধরণের স্বপি্নল বাসর রাতের কথা। সারারাতে নাকি কোন রোমান্টিকতা ছিল না, শুধু গাল গল্পে নিদ্রাহীন রাত কেটেছে। কথাটা অবিশ্বাস্য!!! আহা, কল্পনা আর বাস্তবের ফারাকটা এতো বিশাল কেন? সকাল হতেই ছুটে এসেছিল সবাই জানতে। আপনজনরাই শুধু কাছে আসার সুযোগ পেয়েছিল। জানতে পেরেছিল সেই রোমান্টিক রাতের কথা। তারই ছিটেফোটা বর্ননা চলে আসল আড্ডার পাতায়।



কেমন কেটেছে রাতটা জিগ্যেস করতেই লজ্জায় নুইয়ে গেল কুমড়ো গাছের ডাঁটার মতো। বলল, ঘুমোতে পারেনি। অনভ্যাসের কারণে। এই শীতের রাতেও নাকি ঘেমে গোসল হয়ে গিয়েছিল। কাপড়ের সু্যটকেস গাড়ী করে তখনও আসেনি বলে পোশাক বদলাতে পারেনি। বেয়াড়া ড্রাইভারটাও রসিক হয়ে উঠল। গতকালও যে স্যার স্যার বলতে বলতে পেছনে পেছনে ঘুরতো সেও আজকে মহা বেত্তমিজ। সুপ্রিয় নায়কদের লজ্জায় ফেলতে সবাই যেন ষড়যন্ত্রে মেতেছে। একসাথে এতোগুলো রোমান্টিক নায়কের বাসর রাতের গল্প জমজমাট হতে পারতো। কিন্তু বেরসিক বাড়ীওয়ালী সব ভেস্তে দিল। জোর করে সবাইকে এক রুমে। এর মধ্যে অনেকের আছে নাক ডাকার অভ্যাস। তাই, ভয়ে তারা ঘুমোতে চাননি। একজন নাকি সারারাত পায়চারি করেছেন। প্রেয়সীকে বলার মতো কোন কথা খুঁজে পাননি।



তবে বাসর রাতের কিছু দম্পতির অভিযোগ যে ভালবাসা দিবসকে এভাবে অ্যাবিউজ করা ঠিক হয়নি। যারে দেখতে নারি তার সাথে জোর করে রাত কাটানোর বলপূর্বক চেস্টা করা অভিভাবকদের ভারী অন্যায় হয়েছে। সমমনারা একসাথে রাত কাটায়নি। কাটিয়েছে যাদেরকে সারাজীবন ভেংচি কেটেছে আর ঘেন্না করেছে। আজকালকার অভিভাবকরা কেন যে এতো বেরসিক!!! হিন্দী ছবি দেখেও যদি তাদের একটু বুদ্ধি বাড়তো। অনেকে নাকি অভিভাবকদের নিকুচি করেছে। এধরণের ভালবাসা তারা চান না। জোর করে বাসর রাতে ঢুকলেই যে ভালবাসা পয়দা হবে এই কথা ঠিক না।



তবে নায়করা একবাক্যে স্বীকার করেছেন কেউ দৈহিক নির্যাতনের শিকার হননি। এটা অনেকটা আপ্ত বাক্যের মতো। শালারা জোর করে ধরে নিয়ে গেলেও দৈহিক নির্যাতন না হওয়াতে তারা সারাদিন বেশ উৎফুল্ল্ল ছিলেন। বাড়ীওয়ালা বেশ খোশমেজাজে। কারণ, নায়করা তেমন একটা গোলযোগ করেননি। নীরবে গল্প করেছে। তারপরেও গরাদের ওপারে টানা বারান্দা থেকে সতর্ক চোখ রেখেছিলেন। বাসর রাত কাটিয়ে এখন তারা শ্বশুরবাড়ীতে বিদায় নিয়েছেন বলে [link|http://www.shamokal.com/details.php?nid=50855|evoxIqvjv wb

 

প্রকাশ করা হয়েছে: আড্ডা  বিভাগে । সর্বশেষ এডিট : ৩১ শে ডিসেম্বর, ১৯৬৯ সন্ধ্যা ৭:০০ | বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর...

 


১৮টি মন্তব্য

 

সকল পোস্ট     উপরে যান

সামহোয়‍্যার ইন...ব্লগ বাঁধ ভাঙার আওয়াজ, মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফমর্। এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

 

© সামহোয়্যার ইন...নেট লিমিটেড | ব্যবহারের শর্তাবলী | গোপনীয়তার নীতি | বিজ্ঞাপন