somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ফুলিশ ভেরিফিকেশন (পাসপোর্ট করা বিষয়ক জ্ঞানদান মূলক পোস্ট) [পার্ট - 2]

২৫ শে জানুয়ারি, ২০১৪ সকাল ১০:২৩
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

আমার মতো নিরীহ যারা পাসপোর্ট এর এপ্লিকেশন জমা দেয়ার পর (এ বিষয়ে আগের পোস্টে ব্যাপক জ্ঞান দিছি) কি করতে হয় সেটা বুঝে উঠতে পারছেন না - তাদের জন্যেই এই পোস্ট।

যদি পাসপোর্ট অফিসে কাগজপত্র ভালোয় ভালোয় জমা দিতে পারেন - তাহলেই অর্ধেক কাজ শেষ। বাকি থাকলো তথাকথিত পুলিশ ভেরিফিকেশন।

কাগজপত্র পাসপোর্ট অফিসে জমা দেয়ার সপ্তাহখানেকের ভেতর হঠাত্‍ একদিন ফোনে কল পাবেন।

আমার আর তেনার কথোপকথন এর বিবরণটা নিচে দিলাম:

(বেলা আড়াইটা, গোছল কইরা মাত্র বের হইছি - এমন টাইমে ফোন বাজলো, অচেনা নম্বর)

আমি: হ্যালো স্লামলাইকুম। (আমি ভাবছি কোনো চাকরির ইন্টারভিউয়ের জন্যে ফোন দিছে)
তিনি: ঘ্যের ঘ্যের ঠুস ঠাস ধাম (নেটওয়ার্ক ফল করছে+লগে মালপত্র সরানোর শব্দ)...বলছি (শুইনা স্পীকার হইয়া গেলাম)
আমি: সরি বুঝতে পারি নি - কে বলছেন?
তিনি: (আবার সেই ধুম ধাম শব্দ)
আমি: নেটওয়ার্কে সমস্যা হচ্ছে - কাইন্ডলি আবার বলুন
তিনি: আমি (...বোঝা যায় নি) অফিস থেকে বলছি
আমি: (না বুঝেই) ও হ্যা হ্যা, বলুন
তিনি: আমি এসবি অফিস থেকে বলছি (আমি তখনো এসবি কথাটার মর্মার্থ উধার করতে পারি নাই)
আমি: জ্বি বলেন।
তিনি: আপনে পাসপোর্টের এপ্লাই করছেন?
আমি: জ্বি, করেছি (ভাবলাম পাসপোর্ট অফিস থেইকা কল দিছে ভেরিফিকেশনের জন্যে)
তিনি: আপনে কি করেন?
আমি: স্টুডেন্ট।
তিনি: আপনার ঠিকানা বলেন, এইটা কোথায়?
আমি: ডিটেইল বললাম
তিনি: কালকে সকাল ৯টায় এসবি অফিসে চইলা আসবেন। সাথে বার্থ সার্টিফিকেট, বাবা মার ভোটার আইডি এর কপি, স্টুডেন্ট আইডি এর কপি নিয়া আসবেন। আমার নাম (....), আইসা আমাকে কল দিবেন - দেরি কইরেন না।

এইটুকু বলে কল কেটে দিছে। পুরা টাইম কথা বলছে খুব ভারিক্কি গলায়।

এদিকে আমার জানা ছিলো না যে পাসপোর্টের ভেরিফিকেশন এসবি করে - আমি গেছি নার্ভাস হইয়া। ভাইবেরাদারদের কাছে পাসপোর্ট ভেরিফিকেশনে আসা পুলিশ দেইখা ভয় পাওয়া জাতীয় কিছু হাস্যকর গল্প আগেই শুনছিলাম। সেই থেইকা ধারনা হইছিলো ভেরিফিকেশনে বুঝি ইউনিফর্মড কনস্টেবল আসে।
চিন্তা পইড়া গেলাম - আমারে এসবি অফিসে যাইতে কয় কেন! ভেরিফিকেশনে তো তেনারই আসার কথা। কোনো ক্যাচাল লাগলো নাকি!

কিছুক্ষণ টেনশন কইরা আবার তারে ফোন দিলাম। কল দিয়া এক্কেবারে লিকুইড গলায় কইলাম যদি তেনার অসুবিধা না থাকে তাহলে তিনি যেনো এই গরিবের বাসায় পদধূলি দিয়া যান, চায়ের দাওয়াতটাও কবুল কইরা যাইতে কইলাম।
আমি ইনভাইট করা মাত্র তার ভয়েসের সকল ভারিক্কি ভাব চইলা গিয়া উষ্ণতার পরশ পাইলাম - তিনি কবুল করিলেন।

এর পরের অংশ তেমন কিছু না - সন্ধায় তিনি পদধূলি দিলেন। হালকা চা (টা সহকারে) - নাস্তার ব্যবস্থা ছিলো - তিনি গল্প করিতে করিতে উপরে বর্ণিত ডকুমেণ্ট্স নিয়া সব ফরমালিটি (ফরমালিটি মানে এক ফর্মে আমার একটা সিগনেচার) শেষে প্রস্থান করিলেন।


মোরাল অব দ্যা স্টোরি:

১। পাসপোর্ট ভেরিফিকেশন শহর এলাকায় এসবি করে।
২। যদি আপনার ঠিকানা সংক্ষিপ্ত/দুর্বোধ্য/অপরিচিত হয় - তাহলে ইন্সপেকটর নিজে না এসে আপনাকেই এসবি অফিসে যেতে বলতে পারে। যদি এসবি অফিসে যান - সাথে বাড়তি টাকা নিয়ে যাবেন। (জাস্ট ইন কেস)
৩। ঢাকায় এখন ভেরিফিকেশনের স্ট্যান্ডার্ড রেট নাকি ১০০০। আমার পরিচিত এক বড়ভাই ৩০০ দিয়েই কাজ করে ফেলেছিলো। এভারেজ সম্ভবত ৫০০
৪। এসবি/ইউনিফর্মড পুলিশ দেখে ভয় পাবেন না - এরা খুবই ফ্রেন্ডলি হয়।
৫। যদিও ইন্সপেকটরকে টাকা দেয়ার একটা ট্রেন্ড চালু আছে (আমি নিজেও এর থেকে বের হতে পারি নি), তবু আমি বলবো এই অন্যায়টা না করাই উচিত।






গুড লাক


এডিট: যাদের স্থায়ী ঠিকানাতে নিজেরা থাকেন না (যেমন গ্রামের বাড়ির ক্ষেত্রে) - তারা অবশ্যই পাসপোর্টের আবেদন করেই নিজের বার্থ সার্টিফিকেট আর চেয়ারম্যানের সনদপত্র গ্রামে আত্মীয়স্বজনের কাছে পাঠিয়ে দেবেন। এই ডকুমেন্টসগুলো স্থায়ী ঠিকানায় ভেরিফিকেশনে লাগবে।


ক্যামনে আগারগাও অফিস থেইকা নতুন পাসপোর্ট এর জন্যে আবেদন করবেন (একটা হাউ টু মার্কা পোস্ট) পার্ট - ১
সর্বশেষ এডিট : ৩০ শে জানুয়ারি, ২০১৪ সকাল ১০:৩৫
৩টি মন্তব্য ২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

বিজ্ঞান বক্সে বিজ্ঞান চর্চায় নতুন ধারা এবং শিশুদের স্বত:স্ফুর্ততা

লিখেছেন বিদ্রোহী ভৃগু, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:৫৫

রিং বেজেই চলছে। দ্রুত এসে ফোনটা ধরলাম। অচেনা নাম্বার । কে বলছেন জানতে চাইব, তার আগেই ওপাশ থেকে বলল- স্যার, আপনি কি অমুক!
জ্বি বলছি।
আপনার জন্য বিজ্ঞান বক্সের একটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

আবোল- তাবোল ছবি ব্লগ

লিখেছেন ওমেরা, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:৩৫

আবোল- তাবোল ছবি ব্লগ



আমি কখনো গ্রামে যাইনি আসলে শুধু গ্রাম নয় ঢাকার বাহিরে একবার মাত্র চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট গিয়েছিলাম আর কোথাও কখনো যাওয়া হয়নি, আমাদের ঘনিষ্ঠ আত্বীয়-স্বজন সবাই... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমি আমেরিকা যাবো

লিখেছেন রাজীব নুর, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৪



শেষ কথা হলো সেই একটাই- স্বপ্নের দেশ আমেরিকা। আমেরিকা হলো স্বপ্নপূরণের দেশ। ছোটবেলা থেকেই আমি আমার অতি-অল্প জ্ঞান নিয়েই এবং কোন কারণ ছাড়াই সব বিষয়েই আমেরিকার পক্ষে। যদি... ...বাকিটুকু পড়ুন

নারায়ণগঞ্জ শহরই না শুধু ঢাকা সিটি সহ বাংলাদেশের সব শহরে হকার্স থাকবে

লিখেছেন :):):)(:(:(:হাসু মামা, ১৭ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৮:১৯


এক দল রাজনৈতিকবিধ চাইছেন নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার থাকুক আর অন্যদিকে আরেক দল চাইছেন নারায়নগঞ্জ শহর হকারস মুক্ক।
আর এ নিয়েই বেশ লড়াই হয়েছে গত কালকে । নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার... ...বাকিটুকু পড়ুন

পাতা ঝরার দিন

লিখেছেন জুন, ১৭ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০৩



আমাদের বাসায় কোন পঞ্জিকা নেই, থাকলেও হয়তো বুঝতে পারতুম না এখন কোন ঋতু ? তবে উত্তর দিক থেকে ধেয়ে আসা কনকনে ঠান্ডা বাতাস তিতলীর বাবা মাকে ভালো করেই জানান... ...বাকিটুকু পড়ুন

×