somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

একাত্তরের চিঠি সংকলনের টেক্স্ট কন্টেন্ট রিভার্সিং: একটি প্রকল্পের প্রস্তাবনা

১৫ ই এপ্রিল, ২০০৯ সকাল ১১:৫৬
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
একাত্তরের চিঠি বইটির কোন অফিসিয়াল সফট কপি কোথাও নেই । স্ক্যান করে কিছু পাতা পাওয়া যাচ্ছে ফেসবুক সহ নানান জায়গায়।

আমার প্রস্তাব হলো
১. চলুন প্রত্যেকে এক দুই পাতা করে টাইপ করে পুরো বইটি ডিজিটাইজ করে ফেলি।
২. আমি ছড়িয়ে ছিটিয়ে থাকা স্ক্যান করা বইয়ের লিংক জুড়ে দিচ্ছি। যদি এর চেয়ে ভাল স্ক্যান কপি থাকে জানাতে পারেন।
৩. আপনারা স্ক্যান করা পাতা দেখে টাইপ করে পর্যায়ক্রমে একেকটি চিঠি এখানকার কমেন্টে জুড়ে দিন । আমি ব্লগে আপডেট করে দেব সময় করে।
৪. যদি মনে করেন কমেন্টে আটবে না তবে নিজের ব্লগে তুলে দিন ।
ব্লগের টাইটেলটি হওয়া উচিত্‍ নিচের মত । চিঠি সনাক্তকরণের জন্য চিঠির নং অথবা বইয়ের পৃষ্ঠাকে ব্যবহার করতে পারেন। যেমন

১৯৭১ এর চিঠি (চিঠি নং .... )

৫. বলা বাহূল্য প্রত্যেক ব্লগার তার কষ্টের জন্য ক্রেডিট পাবেন।
৬. যাদের কাছে বইটি আছে, তারা স্ক্যান অথবা সরাসরি টাইপ করে আপডেট করে দিন।
৭. যারা সময় নিয়ে করতে চান, তারা কমেন্টে বলে দিতে পারেন কোন পাতা বা কোন চিঠিটিতে কাজ করছেন। যাতে একই কাজ দুজন করে সময় নষ্ট না করেন।

=========================================
এটি কী কপিরাইট ভঙ্গ হবে?
"একাত্তরের চিঠি"র সংকলনের উদ্যোগ এবং সংকলনের জন্য প্রকাশকের মুদ্রিত কপি ক্রয় করে প্রকাশকের শ্রমের স্বীকৃতি দেয়া হোক। কিন্তু গবেষণা অথবা রেফরেন্সের প্রয়োজনে এর ডিজিটাল টেক্স্ট কন্টেন্টও দরকার । ডিজিটাল টেক্স্ট কন্টেন্ট কখনো মুদ্রিত পুস্তকের বাজার নষ্ট করে না। ( প্রথম আলো পত্রিকার কন্টেন্ট অনলাইনেও প্রকাশিত হয়, তাতে সেই পত্রিকার কাটতি কী কমে যায়? )। সুতরাং প্রকাশকের উচিত্‍ নিজ থেকেই এই উদ্যোগ নেয়া। শুধুমাত্র মুনাফা লাভের উত্‍স হিসেবে গণ্য করার কারণে যদি এর ডিজিটাল কন্টেন্ট প্রকাশ না করা হয় অথবা প্রকাশ কে বাধা দেয়া হয় তবে এটি অন্যায় । তখন এর কপিরাইট মেনে চলার কোন মানে হয় না ।। বলাবাহুল যে কোন চিঠির কপিরাইট পত্রলেখকের ছাড়া অন্য কারো হতে পারে না।ব্লগার আছহাবুল ইয়ামিনের মন্তব্য অনুসারে , ... প্রকাশক এখানে লেখাগুলো সংকলন করা আর কিছু বানান শুদ্ধি করা ছাড়া কিছুই করেনি। এক্ষেত্রে লেখব স্বত্ব বিক্রি বা দান না করলে তারা কিভাবে স্বত্ব দাবী করে??? আবার, কিছু লেখা আবার মুক্তিযুদ্ধ যাদুঘর থেকে সংগৃহীত। কিছু চিঠির লেখক বেঁচে নেই। সেসবের স্বত্বও কিভাবে দাবী করে তারা??". রাগিবের মতে, "প্রথম আলো কি জেনে শুনে "কপিরাইট আমাদের" এর মতো হাস্যকর দাবী করেছে, নাকি না বুঝেই কপিরাইট নোটিশ চোথা মেরেছে, কে জানে। কারণ এসব চিঠির মালিকেরা সত্ত্ব বিক্রি না করলে কোনো ভাবেই কপিরাইট প্রথম আলো পেতে পারে না।"

প্রত্যেকে তাদের টাইপ করা কন্টেন্টটির কপি নিজেদের কম্পিউটারে রাখতে ভুলবেন না । যদি কখনো কপিরাইটের দোহাই দিয়ে ব্লগ কর্তৃপক্ষকে রিপোর্ট করা হয় তবে সেটি অবশ্যই অন্যত্র প্রকাশ হবে।

===========================================
সর্বশেষ আপডেট অনুযায়ী ডিজিটাইজড পৃষ্ঠা সমূহের তালিকা
একাত্তরের চিঠি বইটিতে প্রথম চিঠি শুরু হয়েছে ১৩ নং পৃষ্ঠা থেকে । এর আগে সম্পাদকীয়কে যুক্তিসঙ্গতকারণে বাদ দেয়া হয়েছে।

প্রকল্পের লাইভ আপডেট পাবেন এখানে: http://www.editgrid.com/user/torpon/একাত্তরের_চিঠি_কন্টেন্ট_প্রকল্প.html

তাছাড়া পৃষ্ঠানুযায়ী আপডেট দেখুন একাত্তরের চিঠি সংকলনের টেক্স্ট কন্টেন্ট প্রকল্পের আপডেট -৩
===========================================
চিঠির পিডিএফ সংকলন
মোট ১১৪ টি চিঠিকে ৩ টি সংকলনে প্রকাশ করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

১৩‌ থেকে ৫০ পৃষ্ঠার চিঠির প্রথম পিডিএফ সংকলন ডাউনলোড করুন

==========================================
অংশগ্রহণকারী ব্লগার
১. পাতলা খান
২. রুবেল শাহ
৩. অরণ্যচারী
৪. জ্বিনের বাদশা
৫. মাহবুবুল ইসলাম (সুমন)
৬. ফা্রুক হাসান
৭. তর্পন

** যদি অবশিষ্ট কোন পৃষ্ঠা টাইপ করতে চান অথবা আপনার নামটি বাদ পড়ে যায় তবে কমেন্টে জানান ।
===========================================
স্ক্যান করা চিঠির আর্কাইভ
৩৩ থেকে ১২৭ পৃষ্ঠা পর্যন্ত পৃষ্ঠা স্ক্যান করেছেন পাতলা খান
১৩-৩৫ পৃষ্ঠা পাওয়া গিয়েছিল ব্লগার পথিক!!!!!!! এর ফেসবুকে

===========================================
সর্বশেষ আপডেট:

১৩‌ থেকে ৫০ পৃষ্ঠার চিঠির প্রথম পিডিএফ সংকলন ডাউনলোড করুন
সর্বশেষ এডিট : ২৩ শে মে, ২০০৯ সকাল ১০:২৪
১১৩টি মন্তব্য ৪৮টি উত্তর পূর্বের ৫০টি মন্তব্য দেখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

'কেউ কথা রেখে নি' কবিতার পিছনের গল্প ! :)

লিখেছেন আবদুর রব শরীফ, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ৯:১৪

বাংলা সাহিত্যের সবচেয়ে বেশী আবৃত্তি করা কবিতা সুনীল গঙ্গোপাধ্যায়ের 'কেউ কথা রেখেনি ৷' এর পিছনে একটি সুন্দর গল্প আছে,
.
দেশ পত্রিকার সম্পাদক ছিল সাগর ঘোষ, তো দেশ পত্রিকার পূজা সংখ্যা... ...বাকিটুকু পড়ুন

চ্যানেল আইয়ের "তৃতীয় মাত্রা"র উপস্থাপক জিল্লুর জন্য হয়তো অপেক্ষা করছে গরম আন্ডা ; কিন্তু কেন ??

লিখেছেন এম হেলাল আহমদ, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ৯:৩৬

চ্যানেল আইয়ের "তৃতীয় মাত্রা"র উপস্থাপক জিল্লুর জন্য হয়তো অপেক্ষা করছে গরম আন্ডা ; কিন্তু কেন ?? যে মানুষ টি সারা জীবন আওয়ামীলীগের দালালী করে এসেছে তাকে আণ্ডা কেন ? ইদানীং... ...বাকিটুকু পড়ুন

কেউ নেই এই শুয়োরটাকে ধরে দেবার??

লিখেছেন গেম চেঞ্জার, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ১০:০০



আর কত । আর কত চলবে রে ভাই । এইবার হবিগঞ্জে এই ঘটনা । স্কুলের সামনে মেয়েটাকে ইভ টিজিং করলো । প্লিজ দেখেন চিনতে পারেন কি-না । পারলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

"বাস্টার কিটন"- একজন হারিয়ে যাওয়া লিজেন্ড এবং তার কিছু সেরা নির্মাণ

লিখেছেন ইমরানন, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ১০:১৪




চাদে প্রথম কে পা রেখেছেন ? এই প্রশ্ন যদি শিক্ষিত কোনো ব্যক্তিকে করা হয় তাহলে তিনি আলোর বেগে বলে দিবেন "নীল আর্মস্ট্রং" । এরপর যদি তাকে বলতে বলা হয়... ...বাকিটুকু পড়ুন

দ্য ফিয়ারনট সেভেনঃ একঃ ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর, বীরশ্রেষ্ঠ

লিখেছেন ডি এইচ খান, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ১০:২৪


ক্যাপ্টেন মহিউদ্দিন জাহাঙ্গীর, বীরশ্রেষ্ঠ

মার্চ, ১৯৭১
কারাকোরাম, পশ্চিম পাকিস্তান

পাকিস্তান-চীন সংযোগ সড়কের কাজ চলছে। ভারতের সাথে টেক্কা দিতে আপাতত চীনের সাথে ঘনিষ্ঠতা বাড়ানো ছাড়া পাকিস্তানের আর উপায় কই? কারাকোরাম আগাগোড়াই... ...বাকিটুকু পড়ুন

রহস্যময় কুদুম গুহা

লিখেছেন হাসান মাহমুদ তানভির, ০৩ রা সেপ্টেম্বর, ২০১৫ রাত ১০:২৮



কুদুম গুহা

অন্যতম এক অভিজ্ঞতা। ঘুরে এলাম বাংলাদেশের একদম দক্ষিনের এলাকা হোয়াইংকং থেকে হরিণ খোলা হয়ে চাকমা পল্লি পার হয়ে রহস্যময় কুদুম গুহা - যেই এলাকায় বিচরণ করে... ...বাকিটুকু পড়ুন