somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

মহাশূন্যে নতুন পৃথিবীর সন্ধান - ১

১১ ই জুন, ২০০৮ সকাল ৯:১৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

ইউরোপিয়ান বিজ্ঞানীদের একটি টিম সম্প্রতি আবিষ্কার করেছে পৃথিবী থেকে প্রায় ২০.৫ আলোকবর্ষ দূরের একটি গ্রহ। গ্রহটির বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য পর্যবেক্ষণ করে বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, গ্রহটির সঙ্গে নানা দিক দিয়ে পৃথিবীর মিল আছে। এমন কি গ্রহটিতে প্রাণীও থাকার সম্ভাবনা রয়েছে। গ্রহটি আবিষ্কার বিজ্ঞানীদের মহাশূন্যে প্রাণের সন্ধানে আশাবাদী করে তুলেছে। বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন, পৃথিবীর খুব কাছের এ নক্ষত্রটিতে এ ধরনের বাসযোগ্য গ্রহ পাওয়া মানে হচ্ছে, এ ধরনের আরো অনেক গ্রহ মহাবিশ্বে পাওয়া যাবে।


ঠিক পৃথিবীর মতোই এখানকার শান্ত সমুদ্রের উপর লাল রঙের বিশাল সূর্যটা ধীরে ধীরে আকাশে উঠে আবার স্বাভাবিক নিয়মেই অস্ত যায়। অবশ্য পৃথিবী থেকে দেখা সূর্যের তুলনায় এটি প্রায় ১০ গুণ বড়। বালুময় বেলাভূমিতে ছোট ঢেউগুলো মৃদু শব্দে আছড়ে পড়ে। মাঝে মাঝে আবার সমুদ্র হয়ে উঠে প্রচণ্ড উত্তাল।
সৌরজগতের বাইরে খুজে পাওয়া এখন পর্যন্ত একমাত্র বাসযোগ্য গ্রহটির বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য পর্যবেক্ষণ করে বিজ্ঞানীরা এমন আশাবাদী চিত্র কল্পনা করছেন।
গত বছরের ২৫ এপ্রিল ইউরোপিয়ান অ্যাস্ট্রোনমার বা জ্যোতির্বিদদের একটি টিম যুগান্তকারী এ গ্রহটির আবিষ্কার ঘোষণা করেন। অ্যাস্ট্রোনমাররা চিলির আন্দিজ পর্বতে স্থাপিত টেলিস্কোপ লা সিলা থেকে পৃথিবীর মতো এ গ্রহটি খুজে পেয়েছেন।
সুইজারল্যান্ডের জেনিভা অবজারভেটরির মি. স্টেফানি উদরি ছিলেন এ আবিষ্কারে বিজ্ঞানীদের টিমলিডার। তিনি জানান, আমাদের হিসাব মতে, গ্রহটির গড় তাপমাত্রা হচ্ছে শূন্য থেকে ৪০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে।
পৃথিবীর মতো দেখতে গ্রহটিতে পৃথিবীর মতোই বিশাল সমুদ্র রয়েছে। গ্রহটির তাপমাত্রায় পানি তরল অবস্থায় আছে। এসব বিষয় বিবেচনা করে আমাদের সৌরজগৎ থেকে ২০.৫ আলোকবর্ষ দূরে অবস্থিত গ্রহটিতে প্রাণ ধারণের জন্য উপযুক্ত পরিবেশ আছে বলেই বিজ্ঞানীরা জানাচ্ছেন। মানুষের ইতিহাসে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এ আবিষ্কারের ফলে বিজ্ঞানীরা ধরে নিচ্ছেন মহাশূন্যে পৃথিবীর মতো এ ধরনের অনেক গ্রহ আছে যেখানে প্রাণী বাস করতে পারে।

গ্রহটি সম্পর্কে মানুষের জ্ঞান এখনো পর্যাপ্ত নয়। তবুও বিজ্ঞানীরা বিশ্বাস করছেন, এ গ্রহটির পরিবেশ প্রাণী বসবাসের জন্য উপযুক্ত। আবিষ্কৃত গ্রহটি গ্লিস ৫৮১ নামে একটি নক্ষত্রকে প্রদক্ষিণ করে।
গ্রহটির ব্যাসার্ধ পৃথিবীর চেয়ে দেড় গুণ বড়। এর আবহাওয়ামণ্ডল অনেক বড় এবং গ্রহটিতে প্রাণী বসবাস করার উপযোগী বিশাল আকারের সমুদ্র রয়েছে। সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ বিষয় হচ্ছে, নতুন গ্রহটির তাপমাত্রা আমাদের পৃথিবীর খুব কাছাকাছি। তিনি আরো জানান, গ্রহটির ব্যাসার্ধ পৃথিবীর ১.৫ গুণ এবং মডেল অনুযায়ী গ্রহটিতে মাটি বা সমুদ্র থাকার সম্ভাবনা রয়েছে।
এ পর্যন্ত আবিষ্কৃত সৌরজগতের বাইরের গ্রহগুলোর মধ্যে শুধু এ গ্রহটিরই সবকিছু পৃথিবীর মতো। এখন পর্যন্ত সৌরজগতের বাইরের প্রায় ২২০টি গ্রহ আবিষ্কৃত হয়েছে। এসব গ্রহের কোনোটি পৃথিবীর তুলনায় অনেক বড়, কোনোটি আবার সম্পূর্ণ গ্যাসীয় অবস্থায় আছে। এছাড়া সেগুলোর তাপমাত্রা এতো গরম বা এতো ঠাণ্ডা যে, সেখানে কোনো প্রাণী বসবাস করা অসম্ভব।
নতুন গ্রহটির আবিষ্কারক টিমের একজন বিজ্ঞানী জেভিয়ার ডেলফসে জানান, মহাবিশ্বের মধ্যে গ্রহটি মহামূল্যবান হিসেবে পরিচিত হবে। কারণ এর তাপমাত্রা এবং অবস্থান মানুষের জন্য অত্যন্ত সুবিধাজনক। ভবিষ্যতে জীবনের সন্ধানে মহাশূন্যে অভিযান চালানোর জন্যও গ্রহটি উপযুক্ত।
(চলবে)

উইকিপিডিয়া.....
http://en.wikipedia.org/wiki/Gliese_581_c
Click This Link
সর্বশেষ এডিট : ১৫ ই জুন, ২০০৮ সকাল ৮:১৯
৩৭টি মন্তব্য ৩৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

তৃতীয় মন্ডল

লিখেছেন সনেট কবি, ২৩ শে মে, ২০১৮ রাত ৯:২৪



নভঃমন্ডল আর ভূ-মন্ডলের পর ব্লগে এসে মোঃ নিজাম উদ্দিন মন্ডলকে পাওয়া গেল।নভঃমন্ডল অনেক বিরাট, ভূ-মন্ডলও যথেষ্ট বিরাট, তৃতীয় মন্ডলও বিরাট বলেই মনে হলো।তবে সেটা মনের দিক থেকে। আর সেটা মন্তব্য... ...বাকিটুকু পড়ুন

আঁকিবুঁকি

লিখেছেন বৃষ্টি বিন্দু, ২৩ শে মে, ২০১৮ রাত ১১:১৯




আঁকিবুঁকি
----------------

বৃষ্টির ঝাঁপটায়
চোখ বুঁজে ফেলি,
মেঘেদের হুংকারে
ভয়ে চোখ মেলি...

ফোঁটা ফোঁটা বৃষ্টিরা
মুখে এসে পড়ে,
জানালায় পর্দাটা
দুলে দুলে নড়ে...

ভেজা মনে গুনগুন
ইচ্ছের মেলা,
মেঘেদের উড়োউড়ী
লুকোচুরি খেলা...

হুটহাট বিজলীরা
নেচে নেচে যায়,
আঁকিবুঁকি গল্প
আকাশের গায়...

আহা কি আনন্দ!!!
ভেজা বৃষ্টি,
পলকেই শান্তি
কার সৃষ্টি!?!... ...বাকিটুকু পড়ুন

তাজিন আহমেদ আর মিডিয়ার প্রতি ক্ষোভিত ভালোবাসা

লিখেছেন মাহফুজ, ২৪ শে মে, ২০১৮ ভোর ৫:৪১




তাজিন আহমেদ। একসময়ের বেশ জনপ্রিয় এই অভিনেত্রীর মৃত্যুর খবরতো আমাদের অজানা নয় কিন্তু আমরা কি জানতাম তার অর্থনৈতিক দৈন্যদশার কথা?

কেউ জানতেন কি না জানিনা তবে আমি জানতামনা। তিনি... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমাদের ভিআইপি সংস্কৃতি ও নাগরিক অধিকার (ফিচার)

লিখেছেন কাওসার চৌধুরী, ২৪ শে মে, ২০১৮ দুপুর ২:৪২


কয়েকদি আগে দেশের জনপ্রিয় একটি জাতীয় পত্রিকায় নিউজ পড়ে আৎকে উঠলাম। সংবাদটি এরকম; আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী, জরুরী সেবার যানবাহন ও ভিআইপিদের চলাচলের জন্য রাজধানীর রাজপথে আলাদা লেন করতে সড়ক... ...বাকিটুকু পড়ুন

রমজানের স্মৃতি – ১

লিখেছেন খায়রুল আহসান, ২৪ শে মে, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৩১

ঠিক কত বছর বয়সে রমজানের প্রথম রোযাটা রেখেছিলাম, তা আজ সঠিক মনে নেই। অনুমান করি, ৬/৭ বছর হবে। আরো আগে থেকেই এ ব্যাপারে উৎসাহী ছিলাম, কিন্তু আম্মা রাখতে দেন নি।... ...বাকিটুকু পড়ুন

×