somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

শীতকালে বাংলাদেশের মানুষ বিশেষ করে বয়স্ক, শিশু ও হাঁপানি রোগে আক্রান্ত মানুষরা বেশি শ্বাসকষ্টে ভুগে কেন?

১০ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৯:৪২
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



বায়ুদূষণ পরিমাপের জন্য যে সূচক ব্যবহার করা হয় তা হলো, প্রতি ঘনমিটারে পার্টিকুলেট ম্যাটারের পরিমাণ। এক ঘনমিটারের মধ্যে কত মাইক্রোগ্রাম পার্টিকুলেট ম্যাটার আছে। পার্টিকুলেট ম্যাটার হলো— বাতাসের মধ্যে ধূলিকণা, ময়লা, আবর্জনা, লতাপাতার ভগ্নাংশ, ফুলের রেণু ইত্যাদি। সাইজ অনুসারে পার্টিকুলেট ম্যাটারকে দুভাগে ভাগ করা হয়— ব্যাসার্ধ ২ দশমিক ৫ মাইক্রোমিটার (পিএম ২.৫) বা তার চেয়ে কম ও ১০ মাইক্রোমিটারের চেয়ে কম। ১ মাইক্রোমিটার হলো ১ মিটারের ১০ লক্ষ ভাগের এক ভাগ বা ১ মিলিমিটারের ১ হাজার ভাগের এক ভাগ। পার্টিকুলেট ম্যাটার দেখতে কত ক্ষুদ্র তা নিচের চত্রে মানুষের চুলের সাথে তুলনা করলেই বোঝা যায়। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, গ্রহণযোগ্য ২ দশমিক ৫ মাইক্রোমিটার ব্যাসার্ধের পার্টিকুলেট ম্যাটারের পরিমাণ এক ঘনমিটারের মধ্যে সর্বোচ্চ ১০ মাইক্রোগ্রাম ও ১০ মাইক্রোমিটার দৈর্ঘ্যের পার্টিকুলেট ম্যাটারের পরিমাণ প্রতি ঘনমিটারের সর্বোচ্চ ২০ মাইক্রোগ্রাম। পিএম ২ দশমিক ৫ এতটাই ক্ষুদ্র যে তা চোখে দেখা যায় না।



প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট বিভিন্ন ক্ষুদ্রাতি-ক্ষুদ্র দুষিত পদার্থ বাতাসে ভাসতে থাকে। বাংলাদেশে যেহেতু শীতকালে কোনো বৃষ্টিপাত হয় না, তাই অক্টোবর থেকে পিএম ২ দশমিক ৫ ও পিএম ১০-এর পরিমাণ বাড়তে থাকে। এই বৃদ্ধি অব্যাহত থাকে মে মাসের শেষ সময় পর্যন্ত।

ছবি কৃতজ্ঞতা: বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা

ঢাকায় অবস্থিত আমেরিকান দূতাবাস তাদের অফিস কম্পাউন্ডে একটি যন্ত্র বসিয়েছে যা ঢাকা শহরের বাতাসের গুনগত মান পরিমাপ করে থাকে (Dhaka US Consulate Air Pollution: Real-time Air Quality Index (AQI))। ঐ যন্ত্রের পরিমাণ অনুসারে আজ ১০ ই জানুয়ারি, ২০১৮ ঢাকা শহরে পিএম ২ দশমিক ৫-এর ঘনত্ব ৩০২ মাইক্রোগ্রাম। অর্থাৎ বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার গ্রহণযোগ্য মাত্রার চেয়ে প্রায় ৩০ গুণ বেশি। বাতাসে পিএম ২ দশমিক ৫-এর ঘনত্ব ৩০০ এর বেশি মাইক্রোগ্রাম থাকলে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার নির্দেশনা হলো এই মাত্রা মানব স্বাস্হ্যের জন্য ভয়ংকর বলে চিহ্নিত করেছেন (Health alert: everyone may experience more serious health effects; Everyone should avoid all outdoor exertion)। নিশ্চিত করেই বলা যায়, ঢাকার আমেরিকান দূতাবাসটি সবচেয়ে কম দূষণ পূর্ণ এলাকায় অবস্থিত। বায়ুদূষণ মাপক যন্ত্রটি আমেরিকান দূতাবাস থেকে নিয়ে শাহবাগ কিংবা ফার্মগেটে বসালে পিএম ২ দশমিক ৫-এর ঘনত্বের মান অনেক বেড়ে যাবে নিশ্চিত করেই বলা যায়।



বাতাসে ভাসমান আকারে বড় দুষিত পদার্থ নিজের ভরের কারণে ভূমিতে পতিত হয় ১-৭ দিনের মধ্যে। অত্যন্ত ক্ষুদ্র দুষিত পদার্থ বৃষ্টির পানিতে দ্রবীভূত হয়ে ভূমিতে পতিত হয়। যেহেতু বাংলাদেশে শীতকালে প্রায় বৃষ্টি হয় না বললেই চলে তাই ক্ষুদ্রাতি-ক্ষুদ্র দুষিত পদার্থ দীর্ঘ সময় ধরে বাতাসে ভাসতে থাকে। ফলে আ্যাজমা রোগে আক্রান্ত বয়স্ক ও শিশু বা শ্বাসকষ্টে ভুগা মানুষ শীত কালে বেশি পরিমাণ দূষিত বায়ুর সংস্পর্শে থাকলে ঐ দুষিত বায়ু নিঃশ্বাসের সাথে ফুস-ফুসে প্রবেশ করে। বাতাসে ভাসমান ঐ সকল ক্ষুদ্রাতি-ক্ষুদ্র দুষিত পদার্থের মধ্যে রাসায়নিক কম্পাউন্ড থাকে যা মানুষের নিঃশ্বাসের সঙ্গে সরাসরি ফুসফুসে প্রবেশ করে ফুসফুসে অবস্থিত তরল পদার্থে দ্রবীভূত হয়ে সেই পদার্থের সাথে বিক্রিয়া করে নতুন রাসায়নিক যৌগ তৈরি করে যা অনেক সময় মানুষের ফুসফুসে প্রদাহ বা খুসখুসানি সৃষ্টি করে। যে কারণে আ্যাজমা রোগে আক্রান্ত য়ষ্ক ও শিশু (যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম থাকে) বা শ্বাসকষ্ট রোগে ভোগা মানুষরা শীতকালে অনেক কষ্টে ভুগে থাকেন।



বায়ুদূষণ সারা বিশ্বে হৃদরোগ ও হাঁপানি বা আ্যাাজমা রোগের অন্যতম কারণ হিসেবে প্রমাণিত। বিশ্বের সবচেয়ে বড় ও সমৃদ্ধ স্বাস্থ্য সম্পর্কিত তথ্যভাণ্ডার Global Burden of Disease (GBD) যে ১০টি রোগে বাংলাদেশে সর্বোচ্চ সংখ্যক মানুষ অকালে মৃত্যুবরণ করে, তার পরিসংখ্যান তুলনা করেছে দক্ষিণ ও পূর্ব এশিয়ার ১৪টি দেশের সঙ্গে। ওই পরিসংখ্যানমতে, ১৪টি দেশের মধ্যে হৃদরোগ ও ফুসফুসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুর হার সবচেয়ে বেশি বাংলাদেশে। অধিকন্তু, বৈজ্ঞানিক গবেষণায় দেখা গেছে, উচ্চমাত্রার পিএম ২ দশমিক ৫-এর উপস্থিতি ব্রংকাইটিস, উচ্চ-রক্তচাপ, হাইপার টেনশন, ফুসফুস ক্যান্সার, ডায়াবেটিস রোগের সঙ্গে সরাসরি সম্পর্কযুক্ত বা ওইসব রোগ বৃদ্ধি করে।

বাংলাদেশে চলমান ও প্রস্তাবিত কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রগুলো স্থাপিত হলে বাতাসে পার্টিকুলেট ম্যাটারের পরিমাণ কয়েক গুণ বৃদ্ধি পাবে তা নিশ্চিত করেই বলা যায়। সেসঙ্গে বাড়বে শীতকালে কুয়াশাযুক্ত দিনের সংখ্যা। ফলে নিশ্চিতভাবেই বৃদ্ধি পাবে পরিবহন দুর্ঘটনার সংখ্যা। কয়লা ব্যবহার করে বিদ্যুৎ উৎপাদনের ভলে শীত কালে ভয়ংকর বায়ু দূষণের উত্তম উদাহরণ ভারত ও চিন ( Air pollution in China is killing 4,000 people every day.)
। এই দুইটি দেশের রাজধানী সারা বিশ্বে বায়ু দূষণের জন্য প্রথম ও দ্বিতীয় স্থানে অবস্থিত।

প্রাকৃতিক কারণে যেহেতু বাংলাদেশে শীত কালে বৃষ্টি হয় না সেই সাথে অর্থ-সামাজিক, বাণিজ্যিক ও রাজনৈতিক কারণে বায়ু দূষণ কমিয়ে আনার আপাত কোন সম্ভাবনা নাই তাই গ্রাম বাংলায় প্রচলিত প্রবাদ-প্রবচন "চাঁচা আপনার প্রাণ বাঁচা" মনে চলাই সুস্থ থাকার একমাত্র উপায়। নিজেদের পরিবারের বয়স্ক ব্যক্তি, শিশু ও আ্যাজমা রোগে আক্রান্ত ব্যক্তিদের বায়ু দূষণ এলাকা এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিন বা চলার ব্যবস্হা করুন।

===========================================================================
বায়ু দূষণ ও মানব দেহের উপর তার প্রতিক্রিয়া নিয়ে বিস্তারিত জানার আগ্রহ থাকলে নিম্নক্ত প্রবন্ধ গুলো পড়ার আমন্ত্রণ রইল।
===========================================================================

১) Polluted air causes 5.5 million deaths a year

২) Increased air pollution cuts victims' lifespan by a decade, costing billions

৩) Air pollution in China is killing 4,000 people every day

৪) Air pollution exposure during pregnancy linked with asthma risk

৫) Toxic air pollution particles found in human brains

৬) Researchers discover potentially harmful nanoparticles produced through burning coal

৭) Air pollution leads to more drug resistant bacteria

===========================================================================
রামপাল কয়লা বিদ্যুৎ কেন্দ্রের সাম্ভব্য প্রতিক্রিয়া নিয়ে দৈনিক বনিকবার্তা পত্রিকায় প্রকাশিত আমার লেখা উপসম্পাদকীয়:
==========================================================================

প্রথম পর্ব:

কয়লাভিত্তিক বিদ্যুত্ প্রকল্প নিয়ে কিছু কথা: প্রথম পর্ব

দ্বতীয় পর্ব:

কয়লাভিত্তিক বিদ্যুত্ প্রকল্প নিয়ে কিছু কথা: দ্বিতীয় পর্ব
সর্বশেষ এডিট : ১০ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৯:৪২
১০টি মন্তব্য ১০টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

বিজ্ঞান বক্সে বিজ্ঞান চর্চায় নতুন ধারা এবং শিশুদের স্বত:স্ফুর্ততা

লিখেছেন বিদ্রোহী ভৃগু, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:৫৫

রিং বেজেই চলছে। দ্রুত এসে ফোনটা ধরলাম। অচেনা নাম্বার । কে বলছেন জানতে চাইব, তার আগেই ওপাশ থেকে বলল- স্যার, আপনি কি অমুক!
জ্বি বলছি।
আপনার জন্য বিজ্ঞান বক্সের একটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

আবোল- তাবোল ছবি ব্লগ

লিখেছেন ওমেরা, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:৩৫

আবোল- তাবোল ছবি ব্লগ



আমি কখনো গ্রামে যাইনি আসলে শুধু গ্রাম নয় ঢাকার বাহিরে একবার মাত্র চট্টগ্রাম ক্যান্টনমেন্ট গিয়েছিলাম আর কোথাও কখনো যাওয়া হয়নি, আমাদের ঘনিষ্ঠ আত্বীয়-স্বজন সবাই... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমি আমেরিকা যাবো

লিখেছেন রাজীব নুর, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৪



শেষ কথা হলো সেই একটাই- স্বপ্নের দেশ আমেরিকা। আমেরিকা হলো স্বপ্নপূরণের দেশ। ছোটবেলা থেকেই আমি আমার অতি-অল্প জ্ঞান নিয়েই এবং কোন কারণ ছাড়াই সব বিষয়েই আমেরিকার পক্ষে। যদি... ...বাকিটুকু পড়ুন

নারায়ণগঞ্জ শহরই না শুধু ঢাকা সিটি সহ বাংলাদেশের সব শহরে হকার্স থাকবে

লিখেছেন :):):)(:(:(:হাসু মামা, ১৭ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৮:১৯


এক দল রাজনৈতিকবিধ চাইছেন নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার থাকুক আর অন্যদিকে আরেক দল চাইছেন নারায়নগঞ্জ শহর হকারস মুক্ক।
আর এ নিয়েই বেশ লড়াই হয়েছে গত কালকে । নারায়ণগঞ্জ শহরে হকার... ...বাকিটুকু পড়ুন

পাতা ঝরার দিন

লিখেছেন জুন, ১৭ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:০৩



আমাদের বাসায় কোন পঞ্জিকা নেই, থাকলেও হয়তো বুঝতে পারতুম না এখন কোন ঋতু ? তবে উত্তর দিক থেকে ধেয়ে আসা কনকনে ঠান্ডা বাতাস তিতলীর বাবা মাকে ভালো করেই জানান... ...বাকিটুকু পড়ুন

×