somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

সুনীল সমুদ্র
কেবল সমুদ্র পারে শুষে নিতে সব..

সুনীল সমুদ্রের দশটি ছোট কবিতা

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০০৯ সকাল ৮:২০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

(আমার কবিতাগুলো প্রায়শঃই বড় হয়ে যায়। একারণেই একবার 'অন্য আকাশ' নামের একটি নিক খুলে লিখতে শুরু করেছিলাম কিছু ছোট কবিতা। কিছুটা পরীক্ষামূলকভাবেই। ইদানীং 'অন্য আকাশ' নিকটি তেমন আর ব্যবহার করছিনা। তাই ভাবলাম সেখানকার কিছু ছোট কবিতা একত্রিত করে দেওয়া যাক এখানে...।)


(১) অনুভবে প্রেম

তোমার কাছে 'ভালবাসা' হয়তো শুধুই পণ্য
আমার কাছে মূল্য ভীষণ, হই খুঁজে তাই, ধন্য।

তোমার কাছে প্রেম শুধু 'তাপ'- ভীষণ রকম বন্য
আমার কাছে স্নিগ্ধ 'আকাশ'- সংজ্ঞাটি তার 'অন্য'।


(২) প্রশ্ন , চিরন্তন

কেন অমন চমক চোখে চুলের খোঁপা খুললে ?
হৃদয় ছিল শান্ত নদী, প্লাবন কেন তুললে?

না দেখা ঝড় - নিরুত্তাপে, ছিলাম আমি ভালো
এখন শীতে খুঁজতে থাকি- তোমার রোদের আলো।

দেবেই যদি অমৃত প্রেম, 'বিভেদ' কেন গড়লে ?
নামবে যদি এমন নীচে, চূড়ায় কেন চড়লে ?

কোন দোষেতে শাস্তি দিয়ে ভুলের দোলায় দুললে ?
বুকের ভেতর 'এই যে আমি', কেমন করে ভুললে ?



(৩) পার্থক্য যেরকম

ফুলগুলো সব তোমার মতো- সফল সুখে আঁকা
ভুল-গুলো সব আমার মতো- ব্যর্থ 'কালো'-য় ঢাকা।

রোদের সকাল তোমার মতো- তৃপ্ত আলোয় হাসে
বৃষ্টি বিকেল আমার মত - নিঃস ব্যথায় ভাসে ।

পূর্ণিমা রাত তোমার মতো- 'বিজয়' ছড়ায় চাঁদে
অমাবস্যা আমার মতো- 'কালো'র কষ্টে কাঁদে।

মেঘগুলো সব তোমার মতো-'খুব খুশি' আসমানে
বৃষ্টিগুলো আমার মতো- কষ্ট ফোটায় নামে।


(৪) স্বপ্নগুলোই পুড়তে থাকে...

যতোই ভাঙে গাড়ীর কাঁচ আর যতোই পোড়ে রেল-বগী,
স্বপ্নগুলোই পুড়তে থাকে, 'বোধ' যেন আজ মন-রোগী ।

মরছে মানুষ, মরছে জীবন, প্রাণ যেন এক পণ্য
আবাক চোখে বিশ্ব দেখে - রাজনীতির এই দৈন্য ।

তোমার আমার মতের মাঝে একশোটা এক দ্বন্দ্ব,
মানুষগুলো জিম্মি করে চলছে খেলা অন্ধ.... ।


(৫) অন্য এক বৃষ্টি বিকেল

বৃষ্টিটাতো ভালোই ছিল- শীতল জলের গুঁড়ি
তোমার স্মৃতি চটজলদি - খুললো ব্যথার ঝুড়ি।

ক্ষোভ গুলো সব শামিল হলো- দেই ছড়িয়ে ইথারে
তোমার টোকাই পড়লো বুঝি- হৃদয় ছেঁড়া সেতারে !

সুর জাগলো তোমার তৃষায়, বিকেল যেন অন্য
একটি নীরব প্রীতির ছোঁয়ায়- কষ্টেরা সব ধন্য !



(৬) চারপাশে যতো পুষ্প ঝরুক...

চারপাশে যতো পুষ্প ঝরুক-
না পাওয়া স্বর্গের ফুল- সে যে 'তুমি'-

চারপাশে যতো জ্যোৎস্না ঝরুক-
না দেখা পূণ্য পূর্ণিমা- সেও 'তুমি' !

তুমি না থাকলে আর কে নেবে উচ্ছসিত কথার ভেলায় ?
অপরূপ, অন্য আকাশের রথে ?

চারপাশে যতো শব্দ বাজুক-
না শোনা শুদ্ধ স্বর - সেও তুমি !



(৭) তালাবদ্ধ রেখোনা প্রেম

আর রেখোনা তালায় এটে
মন যেটি চায় নিত্য -
বাসলে ভালো কি আর ক্ষতি -
জানলে কেউ এই সত্য ?

মনের তালার চাবি খোলায়
চোখ কেন হয় ক্ষুব্ধ ?
বাসলে ভালো কি আর ক্ষতি -
জানলে জগৎ শুদ্ধ ?



(৮) সুখের খাতা, ব্যথার খাতা

সুখের খাতায় যে নাম তোমার -'নীল' রঙে জ্বলজ্বলে-
ব্যথার খাতায় সে নাম লুকাই- 'সাদা'র অন্তরালে।

তোমার দেওয়া দুঃখগুলো লুকিয়ে রেখে দূরে-
অনন্ত এক আড়াল দিলাম- হৃদয় অন্তঃপুরে।

জানলো সবাই- খুব রেখেছো- সুখের সিংহাসনে
মাঝ রাত্রির চন্দ্র জানে-কী ব্যথা দাও- প্রাণে!

তোমার দেওয়া ব্যথার সাগর সঙ্গোপনে শুষে
সুখের কথাই খুব লিখেছি- কষ্ট কালির শীষে।

জানলো শুধু অন্য আকাশ-জানলো নীলের নদী
তোমার দেওয়া কষ্ট কাঁদায়- প্রবল, নিরবধী !



(৯) 'বিভব' খুঁজে দিলাম শেষে 'হৃদয়' জলাঞ্জলী

বিত্ত ছাড়া আমার প্রেমের সবটা ছিল খাঁটি-
বললে তুমি 'টাকা'ই আসল- আর বাকী সব ফাঁকি।

তোমার জন্য 'বিভব' খুঁজে- 'বিবেক' দিলাম বলী
অর্থ আয়ের নেশায় দিলাম- 'হৃদয়' জলাঞ্জলী।

এখন দেখি- ভাসছো তুমিই কষ্টে, প্রতি রাতে-
বিত্ত নেশায় কী ভুল জড়ায়-বুঝলে সেটাই শেষে !



(১০) জানতে চেয়েছিলে....জানতে পারোনি....


জানতে চেয়েছিলে-এখনো কীভাবে পাই এমন অমিয় তেজ-
কীভাবে স্বাচ্ছন্দ্যে ওড়াই-শব্দের বাগানে আজো- কবিতার চকচকে ঘুড়ি-

জানতে পারোনি হায়- সব হয়, সব পারি, সে শুধু তোমার জন্যই
যখন শুদ্ধ ভোরে - শুধু তোমার 'মুগ্ধ দুচোখ' মনে করি !


সর্বশেষ এডিট : ২১ শে ফেব্রুয়ারি, ২০০৯ সকাল ১০:৫১
১৪টি মন্তব্য ১২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

উর্বশী!

লিখেছেন ত্রিশোনকু, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ রাত ৩:২৭

মেয়েটি সামনের বসার জায়গাটিতে ঠেস দিয়ে দাঁড়িয়ে অনর্গল সেল ফোনে কথা বলে যাচ্ছে সিলেটিতে।

এমন নয় যে খুব আস্তে। এখান থেকে শব্দগুলো সব পরিষ্কার শোনা যাচ্ছে, কিন্তু বুঝতে পারছিনা প্রায় কিছুই।... ...বাকিটুকু পড়ুন

তাবলীগ জামাতের কর্মীদের একটি ভুল মতবাদ : বস্তুর উপর থেকে বিশ্বাস সরিয়া ফেললে কোন বস্তু বা মাধ্যম ছাড়াই আপনি চলতে পারবেন ।

লিখেছেন রাতুলবিডি৫, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ সকাল ৯:৩২

কথাটা তাবলীগের অনেক বয়ানের মুল আলোচ্য বিষয় : মাখলুকের( সৃষ্টির) উপর থেকে এক্কীন হটিয়ে পুরাপুরি খালেকের (স্রষ্টার) উপর এক্কীন করতে পারলে, আপনি মাখলুকের সাহায্য ছাড়াই চলতে পারবেন । কথাটা খুবই... ...বাকিটুকু পড়ুন

যাত্রাবাড়ী ফ্লইওভারে বুদ্ধির ফাঁদ

লিখেছেন সুখী মানুষ, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ সকাল ১০:৪৬

গাড়ীর চাকা গোল। এইটা পরীক্ষিত এবং প্রমানিত সত্য। এখন কেউ যদি গাড়ীতে চাইর কোনা চাক্কা লাগায়! কেমন লাগবো?

ঢাকা শহরে অনেকগুলা ফ্লাইওভার হইছে। ছোট, মাঝারি সব কয়টাতেই বৃষ্টির পানি নিষ্কাশনের সুন্দর... ...বাকিটুকু পড়ুন

ঈদের গপ্পোসপ্পো! !:#P !:#P

লিখেছেন নীল-দর্পণ, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ সকাল ১১:১০

ঈদ চলে গেছে অনেক আগেই, তাতে কী আমি আজ ঈদের গপ্পোই করবো B-)। শেষ চারটা ঈদ (রোজা & কোরবানী) গ্রামে করা হয়েছে তাই এইবার গ্রামে যাওয়ার ইচ্ছা ছিল না। আসলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

বদনা কাব্য

লিখেছেন প্রামািনক, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ সকাল ১১:৩৫


((ঢাকা শহরের প্রত্যেক মোড়ে মোড়ে বদনাসহ টয়লেট চাই))
শহীদুল ইসলাম প্রামানিক

মদনারা সব বদনা নিয়ে
মিছিল করছে দেশে
হি-হি হা-হা অনেক লোকে
মিছেই মরছে হেসে।

দেশ স্বাধীনের অনেক পরে
এমন মিছিল হলো
বদনাবিহীন টয়লেট গিয়ে
কত লোক যে... ...বাকিটুকু পড়ুন

কাবাশরীফ সাতঁরানো সেই কিশোরের ইন্তেকাল।

লিখেছেন ওয়াছেকুজ্জামান চৌধুরী, ২৭ শে জুলাই, ২০১৫ দুপুর ১:৩২

কাবা শরীফ পানিতে ডুবে গেছে, আর একজন সাতার কেটে তওয়াফ করছে, ৭৪ বছর পুরনো সাদাকালো এই ছবিটি যিনিই দেখেছেন তিনিই অবাক হয়ে তাকিয়ে ভালো করে বোঝার চেষ্টা করেছেন ছবিটির মর্মার্থ... ...বাকিটুকু পড়ুন