অনুসন্ধান:
cannot see bangla? সাধারণ প্রশ্ন উত্তর বাংলা লেখা শিখুন আপনার সমস্যা জানান ব্লগ ব্যাবহারের শর্তাবলী transparency report
আমি সাধারন,অতি সাধারন এক স্বপ্ন বিলাসি ছেলে
আর এস এস ফিড

আমার লিঙ্কস

আমার বিভাগ

    কোন বিভাগ নেই

জনপ্রিয় মন্তব্যসমূহ

আমার প্রিয় পোস্ট

বিশ্বের সেরা ১০ টি ব্যাটল ট্যাংক :পর্ব ২

১৯ শে এপ্রিল, ২০১৩ রাত ১১:০৬ |

শেয়ারঃ
0 0

গত পর্বে দেখেছিলাম সেরা ১০ টি ব্যাটল ট্যাংকের প্রথম ৫ টি । আজকে দেখব বাকি ৫ টি । যারা আগের পর্ব মিস করেছিলেন তারা নিচের লিঙ্কে ক্লিক করলেই পেয়ে যাবেন ।

বিশ্বের সেরা ১০ টি ব্যাটল ট্যাংক :পর্ব ১




৬. TK-X (Japan) :
জাপানের সবচেয়ে হালকা ও উন্নত প্রযুক্তির ট্যাংক এই TK-X । মাত্র ৪৪ টন ওজনের এই MBT গুলো স্ট্যান্ডার্ড কমার্শিয়াল ট্রেইলার দিয়ে স্থানান্তর করা যায় । এর মেইন কনট্রাক্টর হল মিতসুবিশি হেভি ইন্ডাস্ট্রিজ । অন্যান্য ট্যাংকের মতোই এটায় আছে 120 mm smoothbore মেইনগান ও দুটো মেশিনগান । নিজস্ব সুরক্ষার ব্যবস্থার কথা বলতে গেলে তুলনা করা যায় জার্মানির Leopard 2A5 ও ফ্রান্সের Leclerc এর সাথে । ২০১২ সালে জাপানী সেনা বাহিনীতে এমন ১৩ টি ট্যাংক অন্তর্ভুক্ত করা হয় । আর এই ট্যাংক গুলো শুধু জাপানের হাতেই থাকবে কারণ জাপানের আইন অনুযায়ী সামরিক যন্ত্রাদি রপ্তানি করা যায় না ।




৭. Leclrec (France) :
১৯৯১ সাল থেকে GIAT ইন্ডাস্ট্রিজ এর মাধ্যমে তৈরি হওয়া Leclrec এর নাম করন করা হয় ফ্রেঞ্চ আর্মির জেনারেল Philip Jacques Leclerc এর নাম অনুসারে । হান্টার কিলার সিরিজের এই ট্যাংকটিকে সুরক্ষিত করে রাখে স্টিল,সিরামিক আর কেভলার এর মিশ্রণে তৈরি আর্মার । ১ টা মেইন গান সহ ২ টা মেশিন গান ফিট করা আছে । এই ট্যাংকের একটা আরবান ভার্সন আছে যেটা Leclerc AZUR নামে পরিচিত । এটা দিয়ে যূদ্ধ করা ছাড়াও রিকভারি ও ইঞ্জিনিয়ারিং ভেহিকল ও ট্রেইনিং ট্যাংক হিসেবে ব্যাবহার করা হয় । এখন পর্যন্ত ফ্রান্সের কাছে এই ট্যাংক আছে ৪০৮ টি আর আরব আমিরাতের কাছে আছে ৩৮৮ টি ।




৮.T-90 MS Tagil (Russia) :
রাশিয়ার এখন পর্যন্ত সবচেয়ে মানসম্মত ট্যাংক যেটা বিশ্ব বাজারে কমার্শিয়ালি সবচেয়ে জনপ্রিয় । যদিও এটা পশ্চিমা দেশের ট্যাংক গুলোর মত এত উন্নত নয় তবুও এটিতে দরকারি সকল প্রকার টেকনোলজির উপস্থিতি দেখা যায় এবং এটার খরচ সব দিক দিয়ে খুবই কম ।লং রেঞ্জ টার্গেটে তেমন একটা কার্যক্ষম না হলেও স্বল্প দূরতের ক্ষেত্রে পুরাই ১ নাম্বার । একটা করে মেইনগান ও মেশিনগান থাকার পরেও এটায় আছে একটা ATGW(anti tank guided missiles weapon) যেটার সাহায্যে ৪-৫ কিঃ মিঃ এর মধ্যে যে কোন যানবাহন এমনকি নীচ দিয়ে উড়ে যাওয়া হেলিকপ্টার ধ্বংস করতে পারে । এটি পানির ভেতর দিয়ে ৫ মিটার গভীরতায় খুব সহজে চলাফেরা করতে পারে । বর্তমানে এই ট্যাংক গুলো আছে রাশিয়া (৭০০), ভারত(৬২০), আলজেরিয়া(৩০৫), আজারবাইন(২০), তুর্কিমেনিস্তান(৪০) ও ভেনেজুয়েলায় (৫০-১০০) ।




৯.Oplot-M(Ukraine) :
Oplpt-M হল Oplot সিরিজের T-84 এর আধুনিক সংস্করন যেটা ২০০৯ সালে সীমিত আকারে উৎপাদন শুরু হয় । সোভিয়েত ইউনিয়ন থেকে বিচ্ছিন্ন হবার পরেই ইউক্রেইন এর গবেষণা শুরু করে, যদিও ২-৩ টা অমিল বাদে পুরা ট্যাংকটাকে রাশিয়ান T-90 MS Tagil এর কার্বন কপি বলা যায় । যে কয়েকটা অমিলের কারণে একে সেরা দশে নিয়ে আসা হয়েছে সে গুলো হল- ট্যাংকটিতে Nozh-2 আর্মর লাগানো রয়েছে যা tandem warhead থেকে একে রক্ষা করে থাকে । একটি 125 mm মেইনগান, ২ টি মেশিনগান ছাড়াও এটায় আছে শক্তিশালী Atg সিস্টেম । এখন পর্যন্ত এই সিরিজের মাত্র ১০ টি ট্যাংক আছে ওই দেশের সেনাবাহিনীতে ।



১০. Type-99 (China) :
যদি সেরা ১০ টি ট্যাংকের মধ্যে রেস লাগানো হইত তাহলে ১ নং জায়গাটা দখল করত এই চাইনিজ মালটা । অন্যান্য ট্যাংক গুলো যেখানে ৫৫-৭২ km/h স্পিডে ছুটে সেখানে এই মাল ছুটে ৮০ km/h স্পিডে ।রাশিয়ান আর পশ্চিমা দেশের ট্যাংক গুলোর ডিজাইন ও প্রযুক্তির সাহায্য নিয়ে এই ট্যাংক বানানো হয়েছে । এইটার সুরক্ষা ব্যবস্থা পুরাইটাই জার্মানির Leopard 2A5 এর মত । এটার 125mm মেইনগান হুবুহু কপি করা হয়েছে রাশিয়ান ডিজাইন থেকে যদিও মেশিনগান দুইটা নিজেরাই ডিজাইন করেছে । Atg সিস্টেমটার সাথে রাশিয়ান T-90 এর Atg সামঞ্জস্য রয়েছে । এটার ইউনিক লেজার প্রটেকশন সিস্টেম অন্য ট্যাংক বা হেলিকপ্টার এর Atg কে বাধা দিয়ে থাকে । এক একটি ট্যাংকের উচ্চ মুল্যের কারণে চিনে এখন মাত্র ২০০ টি এই সিরিজের ট্যাংক অপারেশনাল আছে ।


অনেক তো কইলাম বিদেশি ট্যাংকের গুন গান । আয়েন দেহি এই বার আমাগো দেশি ট্যাংকের লগে মোলাকাত করি ।



MBT-2000 (Bangladesh) :
কয়েক মাস আগে চীন থেকে ৪৪ টি MBT-2000 ট্যাংক আমদানী করে বাংলাদেশ । এই সিরিজের ট্যাংক চীন ও পাকিস্তান আলাদা ভাবে তৈরি করে থাকে । পাকিস্তানে এই ট্যাংকের নাম আল খালিদ । ডিজাইনের দিক থেকে এই ট্যাংকটি রাশিয়ান ও পশ্চিমা দেশের ট্যাংক গুলোর চেয়ে সাইজে ছোট । মাগার এই ছোট ট্যাঙ্কেও আছে 125mm মেইনগান, ২ টা মেশিনগান আর স্মোক গ্রেনেড লাঞ্চার । ৪৬ টন ওজনের এই ট্যাংক সর্বচ্চো 70 km/h স্পিডে ছুটতে পারে ।১২০০ hp ডিজেল ইঞ্জিন নিয়ে একটানা ৫০০ km পর্যন্ত যেতে পারে । পানি পথে সর্বচ্চো ৫ মিটার গভীরতায় এই ট্যাংক চলাচল করে । সুরক্ষার জন্য এতে আছে কম্পজিট ও এক্সপ্লোসিভ রিআক্টিভ আর্মর । বর্তমানে বাংলাদেশসহ শ্রীলংকা, মরক্কো ও পাকিস্তানে এই সিরিজের ট্যাংক অপারেশনাল রয়েছে ।







 

বিষয়বস্তুর স্বত্বাধিকার ও সম্পূর্ণ দায় কেবলমাত্র প্রকাশকারীর...

 


মন্তব্য দেখা না গেলে - CTRL+F5 বাট্ন চাপুন। অথবা ক্যাশ পরিষ্কার করুন। ক্যাশ পরিষ্কার করার জন্য এই লিঙ্ক গুলো দেখুন ফায়ারফক্স, ক্রোম, অপেরা, ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার

২৯টি মন্তব্য

 

সকল পোস্ট     উপরে যান

সামহোয়‍্যার ইন...ব্লগ বাঁধ ভাঙার আওয়াজ, মাতৃভাষা বাংলায় একটি উন্মুক্ত ও স্বাধীন মত প্রকাশের সুবিধা প্রদানকারী প্ল‍্যাটফমর্। এখানে প্রকাশিত লেখা, মন্তব‍্য, ছবি, অডিও, ভিডিও বা যাবতীয় কার্যকলাপের সম্পূর্ণ দায় শুধুমাত্র সংশ্লিষ্ট প্রকাশকারীর...

 

© সামহোয়্যার ইন...নেট লিমিটেড | ব্যবহারের শর্তাবলী | গোপনীয়তার নীতি | বিজ্ঞাপন