somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার চোখে ২০১৮ সালঃ একটু পিছন ফিরে দেখা

০১ লা জানুয়ারি, ২০১৯ দুপুর ১২:৩০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :




প্রকৃতির অমোঘ নিয়মে বছর আসে, বছর যায়। আমাদের বয়স বাড়ে, আয়ু কমে। ধীরে ধীরে আমরা এগিয়ে যাই আমাদের সর্বশেষ গন্তব্যের দিকে। এমনিভাবে আমাদের সবার জীবনে এসেছিল ২০১৮ সাল। আবার চলেও গেল। কিন্তু রেখে গেল অনেক অনেক স্মৃতি। যার কোনটা আশার, কোনটা হতাশার; কোনটা আনন্দের, আবার কোনটা বেদনার।

একটা বছর, ৩৬৫টা দিন; ঘন্টার হিসাবে আর না যাই। এই বিশাল পৃথিবীর আনাচে-কানাচে, প্রতিটা মূহুর্তে ঘটে গিয়েছে হাজারো ঘটনা। সবটা আমরা জানতেও পারিনা। আবার অনেক ঘটনা জানার পরেও আমাদের মনে কোন রেখাপাত করে না। আবার এমন অনেক ঘটনা ঘটে যার রেশ থেকে যায় বছরের পর বছর, এমনকি কোন কোন সময় শতাব্দীর পর শতাব্দীও।

বিগত ২০১৮ সালে দেশে-বিদেশে ঘটে যাওয়া ১০টি ঘটনা নিয়ে সাজানো আমার এই লেখা, যা আমাকে সেই সময়গুলোতে নাড়া দিয়েছিল ভীষণভাবে। সব ঘটনাই আপনাদের জানা, তবু একটু পিছনে ফিরে দেখা। চলুন তবে, দেখি!


১২ই মার্চঃ

বাংলাদেশের এভিয়েশান ইতিহাসের অন্যতম বেদনাদায়ক দিন। এইদিনে নেপালের কাঠমান্ডুর ত্রিভূবন বিমানবন্দরে ইউএস-বাংলা-র একটি উড়োজাহাজ বিদ্ধস্ত হয় যার ফ্লাইট নাম্বার ছিল বিএস ২১১। এ দুর্ঘটনায় ৬৭ জন যাত্রী আর ৪জন ক্রু-র মধ্যে ৪৯ জন নিহত হন, যার মধ্যে বাংলাদেশী ছিলেন ২৬ জন।

প্রাথমিকভাবে মনে করা হয়, ত্রিভূবনের এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলারের ভূলের কারনেই এই দুর্ঘটনা ঘটে। নেপাল সরকার পরবর্তীতে ৬-সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছিল। সেই কমিটির কোন ফাইন্ডিংস কি পরবর্তীতে প্রকাশিত হয়েছিল? আমার জানা নেই, আপনারা কেউ কি কিছু জানেন?



১৮ই এপ্রিল

সিনেমা হল, তাও সৌদি আরবে? প্রথম যখন শুনলাম, বিশ্বাস হয়নি। নিশ্চিত হওয়ার পর আমার প্রতিক্রিয়া ছিল মিশ্র। সে যাইহোক, এইদিনে রিয়াদের একটা প্রেক্ষাগৃহে মার্ভেল স্টুডিও-র ব্ল্যাক প্যান্থার দেখানোর মাধ্যমে এমবিএসের একটা স্বপ্ন পূরণ হয়। ওহ হো, এমবিএস কিন্তু আমাদের স্বঘোষিত প্রিন্স মুসা বিন শমসের না। জেনুইন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমানের সংক্ষেপ।
সৌদি বাদশাহের এই গুনধর পুত্রের লক্ষ্য হচ্ছে ২০৩০ সাল নাগাদ সৌদি আরবের বিভিন্ন শহরে ৩৫০টা হলে আড়াই হাজার স্ক্রীন প্রতিষ্ঠা করা! হাউ সুইট!!!




১৯ই এপ্রিল

'ক্যাস্ট্রো' যুগের অবসান। হ্যা, এভাবে বলাটাই বোধহয় যুক্তিযুক্ত। যখন থেকে কিউবা সম্পর্কে জানি, তখন থেকেই ক্যাস্ট্রো সম্পর্কে জানি। ক্যাস্ট্রো এবং কিউবা, সারাজীবনই আমার কাছে সমার্থক, সম্ভবতঃ অন্য অনেকের কাছেও তাই। এটা পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী রাষ্ট্রের সাথে বিরোধিতা করে টিকে থাকা এক মহানায়ক আর তার দেশের গল্প। যেসকল কম ক্ষমতাসম্পন্ন দেশ তাদের শক্তিশালী প্রতিবেশীদের দ্বারা বিব্রত, অত্যাচারিত; এখান থেকে শিক্ষা নিতে পারে তারা, যদি চায়!

এইদিনে কিউবা মিগুয়েল দিয়াজ-ক্যানেলকে তাদের নতুন প্রেসিডেন্ট হিসাবে ঘোষনা দেয়। উল্লেখ্য, ১৯৬৯ সালে এক গন-অভ্যুত্থানে ফিদেল ক্যাস্ট্রো ক্ষমতা দখল করেন। দীর্ঘ শাসন শেষে ২০০৮ সালে উনি ছোটভাই রাউল ক্যাস্ট্রোর কাছে ক্ষমতা হস্তান্তর করেন। ২০১৬ সালে ৯০ বছর বয়সে এই মহান নেতার মহাপ্রয়ান হয়।




১০ই মে

তুন ড. মাহাথির বিন মোহামাদ। ইয়েস, মালয়েশিয়ার বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর কথাই বলছি যিনি জীবিত অবস্থাতেই একজন আন্তর্জাতিক লেজেন্ডে পরিনত হয়েছেন। মালয়েশিয়াকে বদলে দেয়ার এই রুপকার ১৯৮১ থেকে ২০০৩ সাল পর্যন্ত মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন। পরবর্তীতে নিজের দলের প্রধানমন্ত্রীর বিভিন্ন ব্যর্থতা আর দূর্ণীতির কারনে নিজ দল বাদ দিয়ে বিরোধীদলের হয়ে নির্বাচন করে এই দিনে ৯৩ বছর বয়সে দ্বিতীয়বারের মতো প্রধানমন্ত্রী হিসাবে শপথ গ্রহন করেন। এমন চমকপ্রদ নজীর পৃথিবীতে সম্ভবতঃ এটাই প্রথম! উনার একটা কথা আমার খুব পছন্দ, We need an opposition to remind us if we are making mistakes. When you are not opposed you think everything you do is right.




১২ই জুন

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প আর উত্তর কোরিয়ার সুপ্রীম লিডার কিম জং-উন, দু’জনকেই আমার মাথা গরম আর পাগলাটে কিসিমের মনে হয়। হুমকি-ধামকি আর পাল্টা হুমকি-ধামকি দিয়ে এই দু’জন পৃথিবীর আবহাওয়াকে গরম করে তুলেছিল। এদের কারনে পৃথিবীর মানুষ গ্লোবাল ওয়ার্মিং-এর গরমও ভূলে গিয়েছিল, প্রায়। যাই হোক, সারা পৃথিবীর মানুষের মতো আমিও এদের দু’জনের সাক্ষাতের দিকে তাকিয়ে ছিলাম। ফলাফল যাই হোক, এই দিনে অবশেষে এই দু’জনের চার চক্ষুর মিলন ঘটে!

তবে এরপরে বৈশ্বিক গরম একটু কমেছে বলে মনে হয় আমার। আপনাদের কি মত?




১০ই জুলাই

জুনের ২৩ তারিখে থাইল্যান্ডের চিয়াং রাই প্রদেশের মেসাই-তে অবস্থিত থাম লুয়াং নামের একটা প্রাকৃতিক গুহায় একটা কিশোর ফুটবল দল হারিয়ে যায়। 'ওয়াইল্ড বোর সকার টিম' নামের এই কিশোর ফুটবল দলের ১২ জন খেলোয়াড় আর তাদের কোচ প্র্যাকটিস শেষে ছোটখাটো পিকনিক করার জন্য এই গুহায় ঢোকে। এই সময় বৃষ্টিজনিত বন্যা পরিস্থিতির সৃষ্টি হলে তারা প্রায় ১০ কিলোমিটার লম্বা গুহার আরো ভিতরে ঢোকে এবং আটকা পড়ে।

নানারকমের উত্তেজনা, উৎকন্ঠা আর নাটকীয়তার পর এইদিনে তাদের সবাইকে উদ্ধার করা সম্ভব হয়। সারা পৃথিবীর মানুষের সাথে সাথে সামুর ব্লগারগনও পুরো সময়টাতে প্রচুর টেনশানে ছিলেন। আগ্রহীরা ব্লগার জুনের পোষ্টে বিস্তারিত দেখতে পারেন, view this link

স্থানীয় এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশ থেকে আগত উদ্ধারকর্মীদের আপ্রান চেষ্টায় এর সফল পরিসমাপ্তি ঘটে; তবে সাবেক থাই নেভি ডাইভার, পেটি অফিসার সামান গুনান দুঃখজনকভাবে এই অভিযানে মৃত্যুবরন করেন।




১৫ই জুলাই

সমস্ত বিশ্বের ফুটবলপ্রেমীরা ৪বছর পর পর অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপ দেখার জন্য অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করেন। এবার ১৪ই জুন থেকে রাশিয়ায় এই বিশ্বকাপ শুরু হয় আর শেষ হয় এইদিনে ফ্রান্সের চ্যাম্পিয়ন হবার মধ্য দিয়ে। ফাইনালে ফ্রান্স ক্রোয়েশিয়াকে ৪-২ গোলে পরাজিত করে। এবারের বিশ্বকাপের খেলোয়াড় আর উপস্থিত অন্যান্য সেলেবদের ছাপিয়ে যিনি বিশ্ববাসীর দৃষ্টি আকর্ষণ করেন, তিনি ছিলেন ক্রোয়েশিয়ার মহিলা প্রেসিডেন্ট কোলিন্দা গ্র্যাবার কিটারোভিক!

আমার বিশ্বকাপ অবশ্য ৩০ শে জুন-ই শেষ হয়ে গিয়েছিল, যেদিন আর্জেন্টিনা ফ্রান্সের কাছে পরাজিত হয়। মেসির হাতে বিশ্বকাপ দেখার আশা হতাশায় পরিনত হওয়ার পর ফাইনালটা দেখেছি শুধুমাত্র এই মহিলাকে দেখার জন্য। প্রতিটা ইভেন্টের যেহেতু একটা ছবি দিবো বলে ঠিক করেছি, তাই শত্রুপক্ষ, চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্সের ছবি না দিয়ে আমার ক্রাশের ফুটু দিলাম! দেখেন, প্রসাধনের চিহ্নমাত্রও নেই, তবুও কত্তো অপরুপ!!!




২ রা অক্টোবর

ভিন্ন-মতাবলম্বীদেরকে স্বৈরাচারী শাসকরা যুগে যুগে হত্যা করেছে। তবে, মাঝে মধ্যে তা এমন নিষ্ঠুর হয় যে বিবেকবান মানুষেরা কিছু বলার ভাষাও হারিয়ে ফেলে, স্তব্ধ হয়ে যায় একেবারে। সৌদি যুবরাজ এমবিএসের নির্দেশে এমনই একটি হত্যাকান্ড ঘটানো হয় এদিনে।

বিয়ে এমনিতেই একটা ঝুকিপূর্ণ কাজ, আর সেটা করার জন্য প্রানের ঝুকি নেয়ার কোন মানে হয়! সেটা করতে গিয়েই স্ব-ইচ্ছায় নিজের বিপদ ডেকে আনেন সৌদি এক ভিন্ন-মতাবলম্বী সাংবাদিক। তিনি জামাল আহমেদ খাসোগী। যুক্তরাষ্ট্রে স্ব-নির্বাসিত এই সাংবাদিক বিয়ের জন্য কিছু কাগজ-পত্র ঠিক করতে ইস্তান্বুলের সৌদি কনস্যুলেটে যান। বিপদ তিনি আগেই কিছুটা আচ করতে পেরেছিলেন, তাই বাইরে বসিয়ে রেখে যান তার হবু বধুকে। নিজের এ্যপল ওয়াচের ভয়েস রেকর্ডিং এ্যাপও চালু করেন ঢোকার আগে। তবে আর ফিরে আসতে পারেননি। সৌদি থেকে উড়ে আসা ১৫ সদস্যের ঘাতকদল তাকে জীবিত অবস্থাতেই টুকরা টুকরা করে মেরে এসিড দিয়ে পুরো শরীর গলিয়ে ফেলে!

সৌদি রাজপরিবারে এমন একজন কসাই-এর জন্ম কিসের আলামত? এমন একজন কসাই কিভাবে ভবিষ্যতে সমস্ত মুসলিম বিশ্বের অন্যতম নেতা হবে??




১৭ই অক্টোবর

গাজা; না, মধ্যপ্রাচ্যের ক্যান্সার ইসরায়েল অধিকৃত প্যালেস্টাইনী ভূ-খন্ড গাজা-র কথা বলছি না। বলছি, নেশার উপকরন গাজা বা গান্জার কথা; ইংরেজীতে যা মারিজুয়ানা বা ক্যানাবিস বা উইড নামে সমধিক পরিচিত। কানাডা এইদিনে গাজা সেবনের আইনগত বৈধতা দেয়। কাজেই এইদিনের পর থেকে কানাডিয়ানরা আর গোপনে গাজার নৌকা আকাশে ভাসাবেন না, আইনগতভাবেই সগৌরবে ভাসাবেন, নিজেরাও ভাসবেন।

এই দিনটি পৃথিবীর তাবৎ গাজাখোরদের জন্য একটি স্বরনীয় দিন, কারন অন্যদেশগুলোর গাজাখোর-রা এখন বলতেই পারে; ওয়েইট, সবে তো শুরু! আমাদেরও দিন আসবে, এ-ক-দি-ন!




২৩শে অক্টোবর

মানুষ চাইলে কি-ই না করতে পারে! না, ভূল বললাম। আসলে বলতে চেয়েছিলাম চীনারা চাইলে কি-ই না করতে পারে!!

এইদিনে বিশ্বের দীর্ঘতম সমুদ্র ব্রীজ উদ্বোধন করেন চীনা প্রেসিডেন্ট শী জিনপিং। ৫৫ কিলোমিটার লম্বা এই ব্রীজটি হংকং-ঝুহাই-ম্যাকাও ব্রীজ নামে পরিচিত। ইন্টারেস্টিং ব্যাপার হলো এই ব্রীজের কিছু অংশ টানেল, অর্থাৎ সমুদ্রের নীচ দিয়েও গিয়েছে।

আশা করা হচ্ছে, আগামী ১২০ বছরে এটার রক্ষনাবেক্ষনে বড় ধরনের কোন কাজ করতে হবে না। আচ্ছা......আমাদের ভোলা জেলাকে মূল ভূ-খন্ডের সাথে সংযুক্ত করার জন্য এমন একটা ব্রীজ বানানো যায় না? কাদেরকে দিয়ে বানালে ভালো হবে?




নতুন বছরে আর কোন বেদনাদায়ক ঘটনা না ঘটুক। ভালো থাকুক আমাদের এই ধরনী, আমার প্রিয় বাংলাদেশ আর তার সন্তানেরা। নতুন বছরের শুরুতে এটাই আমার প্রত্যাশা। ২০১৯ আমাদের সবার জীবনে বয়ে নিয়ে আনুক আনন্দ.........শুধুই অনাবিল আনন্দ!


সবশেষে এই ছবিটা দেখুন, সবাইকে হ্যাপি নিউ ইয়ার এর সাথে সাথে এই কথাগুলোও বলুন। আর হ্যা, নিজেকেও বলতে ভূলবেন না কিন্তু!!!





তথ্য ও ছবি সবই নেট থেকে নেয়া।
সর্বশেষ এডিট : ১৭ ই জানুয়ারি, ২০১৯ রাত ২:৫৯
১৮টি মন্তব্য ১৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ফ্রম সাতক্ষীরা টু বেলগাছিয়া (পর্ব-৯/প্রথম খন্ডের পঞ্চম পর্ব)

লিখেছেন পদাতিক চৌধুরি, ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ রাত ১১:৩৪





দুজনের শরীরের উপর ভর দিয়ে টলতে টলতে কোনোক্রমে দাদির খাটিয়ার উদ্দেশ্যে পা বাড়ালাম। উঠোনের এক প্রান্তে দাদিকে শায়িত করা আছে।বুঝতে পারলাম দাদির দাফনের কাজটি ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

ভুলে যাওয়া ঠিকানা

লিখেছেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৮:৫০

তখন আমার অল্প বয়স, কতই বা আর হবে
মা-চাচি আর খালা-ফুপুর কোল ছেড়েছি সবে
তখন আমি তোমার মতো ছোট্ট ছিলাম কী যে
গেরাম ভরে ঘুরে বেড়াই বাবার কাঁধে চড়ে
সকালবেলা বিছনাখানি থাকতো রোজই ভিজে
ওসব... ...বাকিটুকু পড়ুন

হালচাল- ৩

লিখেছেন জাহিদ হাসান, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ৯:৩৩

১। দেশে দুর্নীতি, খুন, ধর্ষন আর চুরি-ডাকাতির বন্যা বইয়ে যাচ্ছে। গতকাল সিলেটের এমসি কলেজে কিছু নরপশু গণধর্ষনের যে ঘটনা ঘটালো তার দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করছি। দৃষ্টান্তমূলক বিচারের জন্য আমার মাথায়... ...বাকিটুকু পড়ুন

ব্লগারদের মানবতাবোধ, অন্যায়ের বিরুদ্ধে প্রতিবাদের স্বভাব কি হারিয়ে যাচ্ছে? সবাই কি সব কিছুতে সহনশীল হয়ে যাচ্ছে?

লিখেছেন জাদিদ, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:১৩

গত কয়েকদিনে দেশে বেশ কয়েকটি ধর্ষন ও হত্যাকান্ডের ঘটনা ঘটেছে। প্রতিটি ঘটনা এতটাই পৈশাচিক ও বর্বর যে আমি ভেতরে ভেতরে প্রতি মুহুর্তে ক্ষত বিক্ষত হয়েছি ঐ নির্যাতিতদের কথা ভেবে। অদ্ভুত... ...বাকিটুকু পড়ুন

ধরছেন ? এবার মাইরা ফালান !!

লিখেছেন শাহ আজিজ, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৩:১২





সিলেটের এমসি কলেজ ছাত্রাবাসে তরুণী ধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমান (২৮) সুনামগঞ্জের দোয়ারাবাজার সীমান্ত হয়ে ভারত পালাতে চেয়েছিলেন। এ জন্য রোববার ভোর ছয়টার... ...বাকিটুকু পড়ুন

×