somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

অধিবাচন বিশ্লেষণ(Discourse analysis) পর্যালোচনা

১২ ই নভেম্বর, ২০২১ রাত ১১:০৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



আমরা হয়তো বলার সময় কোন শব্দ ব্যবহার করি কিন্তু বুঝানোর ক্ষেত্রে তার অর্থ বা মানে শ্রোতার কাছে ভিন্ন হয়ে যায়। কেন এমন ঘটে? বা শব্দের সাথে অর্থের সরাসরি সম্পৃক্ত থাকাটা তো জরুরী! কিন্তু অনেকসময় সেটা হয় না। অনেকেই ইতোমধ্যেই বুঝে গেছেন আমি কি নিয়ে কথা বলছি। হ্যাঁ, আজকের আলোচ্য বিষয় হচ্ছে “Discourse Analysis” নিয়ে। চলুন দেরি না করে মূল প্রসঙ্গে কথা বলা যাক।


এই Discourse Analysis মূলত কী?
Discourse Analysis: Discourse Analysis is a research method for studying written or spoken language in social communication, which aims to understand how language is used in real-life situations.

এর মানে দাঁড়াচ্ছে, Discourse Analysis হলো এক ধরণের গবেষণা। যেটা কিনা আমাদের জীবনে লিখিত বা মৌখিক ভাষাকে এমনভাবে স্টাডি করে যে সামাজিক যোগাযোগে আমরা আমাদের ভাষাকে কীভাবে ব্যবহার করছি। “Zelling Harris” হচ্ছেন প্রথম মানুষ যিনি “Discourse Analysis” নিয়ে কথা বলেন ১৯৫২ সালে। সোজা বাংলায় Zelling Harris কে Discourse Analysis এর প্রতিষ্ঠাতাও বলা হয়।


Discourse Analysis এর প্রধান লক্ষ্য কি?
Discourse Analysis এর প্রধান লক্ষ্য হলো, ভাষা কে বোঝা এবং কীভাবে ভাষার ব্যবহার হচ্ছে সে সম্পর্কে আলোকপাত করা বা জানানো। শুধু তাই নয়, আমরা আমাদের ভাষাকে বাস্তব জীবনে কীভাবে ব্যবহার করছি সেটাও কিন্তু Discourse Analysis –এর প্রধান লক্ষ্য।


Discourse Analysis এর বিশ্লেষণ
আপনি বিভিন্ন ভাবে কথা বা সংলাপ বা আলাপচারিতাকে বিশ্লেষণ করতে পারেন।
১. ভাষাগত
২. মনস্তাত্ত্বিক
৩. দার্শনিক
৪. সমাজতাত্ত্বিক
৫. রাজনৈতিকভাবে ইত্যাদি

একজন ভাষাবিদ অধ্যয়ন করেন যে, কীভাবে শব্দ ভাষায় যুক্ত হয়ে বাক্যের অর্থ পরিবর্তন, পরিবর্ধন, পরিমার্জন বা সংশোধন করছে। একজন মনোবিজ্ঞানী আগ্রহী হতে পারেন যে কীভাবে বক্তা বা লেখকের ব্যক্তিত্ব (বা তার ব্যক্তিত্বের ব্যাধি) প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে তিনি যেভাবে যোগাযোগ করেন তাতে প্রকাশ করা হয়। একজন দার্শনিক আমরা যেভাবে এটি বর্ণনা করি বা এটি সম্পর্কে কথা বলি তার দ্বারা বাস্তবতা কীভাবে (আমাদের উপলব্ধি) ব্যাখ্যা করা হয় তা বর্ণনা করার জন্য পাঠ্য বিশ্লেষণ করেন।

একজন সমাজবিজ্ঞানী টেক্সট এবং কথোপকথন বিশ্লেষণ করতে পারেন যে লোকেরা কীভাবে গোষ্ঠী পরিচয় তৈরি করতে এবং অন্যদের থেকে নিজেদের আলাদা করতে ভাষা ব্যবহার করে তা দেখানোর জন্য। একজন রাষ্ট্রবিজ্ঞানী পাঠ্য এবং বক্তৃতা অধ্যয়ন করে প্রকাশ করতে পারেন যে কীভাবে রাজনীতিবিদরা লোকেদের প্ররোচিত করছে এবং ম্যানিপুলেট করার জন্য ভাষা ব্যবহার করেন।


Discourse Analysis ও বক্তৃতা বিশ্লেষণ
বক্তৃতা বিশ্লেষণ হল একটি সামাজিক প্রেক্ষাপট অনুসারে লিখিত ভাষা বিশ্লেষণ করতে গবেষণায় ব্যবহৃত একটি পদ্ধতি। এটি অনুশীলনে ভাষা কীভাবে প্রয়োগ করা হয় তা বুঝতে সহায়তা করে।


বক্তৃতা বিশ্লেষণ পরিচালনা করার সময় ফোকাস করা গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলি হল:
১. বিভিন্ন ধরনের ভাষার উদ্দেশ্য এবং প্রভাব
২. সাংস্কৃতিক সম্মেলন অন্তর্ভুক্ত করার উপায় এবং যোগাযোগে নিয়ম বাস্তবায়ন

যেভাবে বিশ্বাস, মূল্যবোধ এবং অনুমান প্রকাশ করা হয়। যেভাবে আঞ্চলিক ভাষা ব্যবহার করা হয় ঐতিহাসিক, সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে যোগাযোগ ও চিত্রিত করার জন্য। এই বিশ্লেষণটি সমাজবিজ্ঞান, ভাষাবিজ্ঞান, সাংস্কৃতিক অধ্যয়ন এবং মনোবিজ্ঞানে ব্যবহৃত হয়, কারণ বক্তৃতা বিশ্লেষণ এই ধরনের গবেষণায় ব্যবহৃত একটি গুণগত পদ্ধতি।

প্রধান সামাজিক বিজ্ঞান এবং মানবিক, বিশ্লেষণ ব্যবহার করা হয়। এটি একটি সাধারণ গুণগত পদ্ধতি যা সমাজবিজ্ঞান, ভাষাবিজ্ঞান, সাংস্কৃতিক অধ্যয়ন এবং মনোবিজ্ঞান অন্তর্ভুক্ত করে। বক্তৃতা বিশ্লেষণ হল অধ্যয়নের একটি বিস্তৃত ক্ষেত্র যা ভাষাবিজ্ঞান, সমাজবিজ্ঞান, দর্শন এবং মনোবিজ্ঞানের মতো শাখাগুলি থেকে এর কিছু তত্ত্ব এবং বিশ্লেষণের পদ্ধতিগুলিকে আঁকে। এটি ভাষা (লিখিত, কথ্য-কথোপকথন, বক্তৃতার প্রাতিষ্ঠানিক রূপ) এবং এটি যে প্রেক্ষাপটে ব্যবহৃত হয় তার মধ্যে সম্পর্ক অধ্যয়ন করে।


Discourse Analysis ও ভাষা
ভাষা, মানুষের যোগাযোগের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ মাধ্যম হিসাবে ব্যবহ্নত একটি সামাজিক ঘটনা হিসাবে, সমাজের জীবনে অনেকগুলি কার্য সম্পাদন করে। এটি প্রধানত একটি জ্ঞানীয়/যোগাযোগমূলক উদ্দেশ্য সহ একটি প্রক্রিয়া দ্বারা চিহ্নিত করা হয়: বাস্তবতা বোঝা, সংগঠিত করা, যোগাযোগ করা ইত্যাদি।

ভাষা বিশ্লেষণ সমাজে মিথস্ক্রিয়া বোঝার চেষ্টা করে, ব্যক্তিদের দ্বারা ব্যবহৃত নিয়মগুলি চিহ্নিত করতে এবং বিশ্লেষণ করতে চায়, ভাষাগত নিয়মিততার মধ্যে সম্পর্ক, একদিকে, অর্থ এবং চূড়ান্ততা, অন্যদিকে আলোচনার মাধ্যমে করা হয়। বক্তৃতা ব্যবহার করার জন্য একটি সহজ ভাষা হিসাবে দেখা যেতে পারে, অর্থাৎ, প্রেক্ষাপটে ভাষার সাথে সম্পর্কিত নিয়ম, পছন্দ এবং প্রত্যাশাগুলির একটি সেট। এটি বাক্য স্তরের উপরে একটি ভাষা সংস্থা হিসাবেও দেখা যেতে পারে। ‘টেক্সট’ শব্দটি কখনও কখনও ‘ডিসকোর্স’ – পাঠ্য বিশ্লেষণের জায়গায় ব্যবহৃত হয়।

বিভিন্ন ধরনের ভাষাবিদরা ভাষার বিভিন্ন দিক অধ্যয়ন করেন। ধ্বনিতত্ত্ববিদরা ভাষার শব্দগুলি অধ্যয়ন করে এবং লোকেরা কীভাবে সেগুলি ব্যবহার করে। অভিধানবিদরা শব্দ, তাদের অর্থ এবং তাদের ইতিহাস অধ্যয়ন করেন। ব্যাকরণবিদরা অধ্যয়ন করে যে কীভাবে শব্দগুলিকে বাক্য এবং উচ্চারণ গঠনে একত্রিত করা হয়। এবং বক্তৃতা বিশ্লেষকরা পাঠ্য এবং মিথস্ক্রিয়া তৈরি করতে বাক্য এবং উচ্চারণগুলি কীভাবে একসাথে যায় এবং কীভাবে সেই পাঠ্যগুলি এবং মিথস্ক্রিয়াগুলি আমাদের সামাজিক জগতে ফিট করে তা অধ্যয়ন করে।


বক্তৃতা বিশ্লেষণ শুধুমাত্র ভাষার অধ্যয়ন নয়
কিন্তু বক্তৃতা বিশ্লেষণ শুধুমাত্র ভাষার অধ্যয়ন নয়, বরং ভাষাকে দেখার একটি উপায় যা বাস্তব জীবনে লোকেরা কীভাবে তামাশা, তর্ক, রাজি করানো এবং ফ্লার্ট করার মতো জিনিসগুলি করতে ব্যবহার করে এবং দেখায় যে, তারা নির্দিষ্ট ধরণের লোক।

অথবা একটি নির্দিষ্ট দলের অন্তর্গত। আমরা যেভাবে ভাষা ব্যবহার করি তা আমরা কারা এবং আমরা যে বিভিন্ন সামাজিক গোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত তার থেকে অবিচ্ছেদ্য। আমরা বিভিন্ন সামাজিক পরিচয় প্রকাশ করতে এবং বিভিন্ন গোষ্ঠীর অন্তর্গত দেখানোর জন্য ভাষা ব্যবহার করি।

ভাষা কখনই নিজের দ্বারা ব্যবহৃত হয় না। এটি সর্বদা অন্যান্য জিনিসের সাথে মিলিত হয় যেমন আমাদের কণ্ঠস্বর, মুখের অভিব্যক্তি, অঙ্গভঙ্গি ইত্যাদি। প্রায় সমস্ত যোগাযোগের অর্থের কিছু উপাদান থাকে যা সরাসরি কথ্য বা লিখিত শব্দ দ্বারা প্রকাশ করা হয় না, যেমন স্পষ্ট স্তর। ভাষা সহজাতভাবে অস্পষ্ট। লোকেরা সবসময় যা বলতে চায় তা বলে না এবং তারা যা বলে তা সবসময় বোঝায় না।


বক্তৃতা বিশ্লেষণে বাক্যটি কী বলছে সেটা নয় বরং কী বুঝাচ্ছে সেটা
এখানে কিছু নোট রয়েছে যা আমি “দ্য থিওরি অফ ডিসকোর্স” -নামে একটি কোর্স থেকে নিয়েছি। গ্রীক এবং ল্যাটিন অলঙ্কারশাস্ত্রে, বক্তৃতার প্রাথমিক কাজ ছিল বোঝানো এবং প্রভাবিত করা।

যেকোনো বক্তৃতা একটি ভাষা (একটি নির্দিষ্ট ইচ্ছাকৃতভাবে ব্যবহৃত দৈনন্দিন ভাষা) । এটি যুক্তি এবং প্ররোচনার উপর ভিত্তি করে একটি সুসংগত ভাষাগত ব্যবস্থা। আমার যা করা উচিত ছিল তা করতে আমি কীভাবে অন্য কাউকে রাজি করাতে পারি? বক্তৃতা একটি মিথস্ক্রিয়া এবং অংশগ্রহণকারীদের অবশ্যই একই সংস্কৃতি ভাগ করে নিতে হবে, একই কোডগুলি জানতে হবে, কেবল একই স্থান-কালের সেটিংয়ে বাস করতে হবে না, তবে তাদের অবশ্যই “একই ভাষায় বাস করতে হবে” (সিওরান)।


বৈশিষ্ট্য
১. যে কোনো বক্তৃতার একটি কথোপকথন ফর্ম আছে (কথোপকথনের বাইরে কোন আলোচনা নেই)। এটা জরুরী যে কমপক্ষে দুইজন অংশগ্রহণকারী বিদ্যমান: লোকুটার (ফরাসি লোকটিয়ার = স্পিকার) এবং ইন্টারলোকিউটর। এমিল বেনভেনিস্ট বলেছেন যে, ডিসকোর্স হল লোকেটার এবং ইন্টারলোকিউটরের মধ্যে ভাষা, যার উদ্দেশ্য হল অন্যকে প্রভাবিত করা।

২. যে কোনো বক্তৃতার একটি ভাষাগত রূপ থাকে যা লোকেটারের উদ্দেশ্যের জন্য নির্দিষ্ট।

৩. যে কোনো বক্তৃতা একটি সামাজিক, ঐতিহাসিক এবং সাংস্কৃতিক প্রেক্ষাপটে স্থাপন করা হয়।

একটি একক শব্দ একটি বক্তৃতা হতে পারে। একটি শব্দের সংমিশ্রণ, একটি ধারণা প্রকাশ করার জন্য ভাষায় ব্যবহৃত হয়। এটি শুধুমাত্র একটি বক্তৃতা হয়ে উঠতে পারে যখন দুটি অংশগ্রহণকারী থাকে যারা একটি নির্দিষ্ট উদ্দেশ্য নিয়ে কিছু যোগাযোগ করে।

উদাহরণস্বরূপ, “সতর্কতা” শব্দটি নিম্নলিখিত প্রসঙ্গে দুটি অর্থ প্রকাশ করতে পারে বা তারও অধিক। দুইজন শিশু পাহাড়ে উঠার পর তাদের একজন আরেকজনকে চিৎকার করে বললো, সাবধান! চিৎকার করে। এই প্রেক্ষাপটে বিতর্কিত পরিস্থিতি হল অন্যকে সতর্ক করা (ইচ্ছাকৃতভাবে) ।


পরিশেষ
সবশেষে আরো একটি উদাহরণ টেনে আমি আমার লেখা এখানেই ইতি টানছি। “কুকুর” বললে আমরা সাধারণ একটি প্রাণী বুঝি। কিন্তু “কুত্তা” বললে গালিগালাজ পর্যায়ে চলে যায়। এই বিশাল টপিক নিয়ে আলোকপাত করায় কিছু ভুল তো থেকেই গেল। এজন্য আমি পূর্বেই ক্ষমাপ্রার্থী।
সর্বশেষ এডিট : ১২ ই নভেম্বর, ২০২১ রাত ১১:০৮
৩টি মন্তব্য ২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ব্লগার জটিল ভাইয়ের কুটিল এজেন্ডা ফাঁস!

লিখেছেন জটিল ভাই, ২২ শে জানুয়ারি, ২০২২ রাত ৯:৩৩


(ছবি নেট হতে)

জটিল ভাইকে সবাই হয়তো চিনেন না। আমি কোনোকালেই তাঁর ভক্ত ছিলাম না। এমনকি কখনও আমি তাকে ব্লগার হিসেবেও স্বীকৃতি দিতে রাজি নই। তাছাড়া ভবিষ্যতে তিনি করবেন এমন একটি... ...বাকিটুকু পড়ুন

কোথায় লুকিয়ে আছো

লিখেছেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, ২২ শে জানুয়ারি, ২০২২ রাত ১০:২৩

কথা ও সুর : খলিল মাহ্‌মুদ

গানের লিংক : এখানে ক্লিক করুন - শহরের অলিগলি, যত রাজপথ

গানের কথা

শহরের অলি গলি যত রাজপথ
রেললাইন, পল্টন, শপিং মল
রমনার বটতলা, বইমেলাতে
কত যে ঘুরেছি আমি খামখেয়ালে
কত... ...বাকিটুকু পড়ুন

সালাত আদায় বনাম নামাজ পড়া বনাম সালাত কায়েম

লিখেছেন জ্যাকেল , ২২ শে জানুয়ারি, ২০২২ রাত ১১:৫৪




মুসলমান ও ইয়াহুদী ধর্মের মানুষগণ সেজদা সহ মোটামুটি মিল আছে উপায়ে প্রার্থনা করেন/নামাজ পড়েন। লোকমুখে আমাদের দেশে এভাবে ব্যাপারটা চলে-

নামাজ পড়তে হবে।
নামাজ পড়া বাদ দিলে মুসলমান থাকা যায় না। ফাসেক... ...বাকিটুকু পড়ুন

০১টি ভাপাপিঠাময় ছবিব্লগ

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২২ সকাল ১০:১৫

ঐতিহ্যগতভাবে এটি একটি গ্রামীণ নাশতা হলেও বিংশ শতকের শেষভাগে প্রধানত শহরে আসা গ্রামীণ মানুষদের খাদ্য হিসাবে এটি শহরে বহুল প্রচলিত হয়েছে। রাস্তাঘাটে এমনকী রেস্তোরাঁতে আজকাল ভাপা পিঠা পাওয়া যায়। এই... ...বাকিটুকু পড়ুন

" নারী " - তুমি আসলে কি ? স্রষ্টার শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি ,বংশগতির ধারক-বাহক , পুজারীর দেবী , নাকি শুধু পুরুষের ভোগেরই সামগ্রী? (মানব জীবন - ২৩)।

লিখেছেন মোহামমদ কামরুজজামান, ২৩ শে জানুয়ারি, ২০২২ দুপুর ২:২৭


ছবি - unsplash.com

"সৃষ্টি থেকে শেষ অবধীর কেন্দ্রে রয়েছে নারী
হাজার রূপ একটি নারীর, যেন রহস্যের ভান্ডারী,
কখনো মা, বোন, নানী বা প্রিয়তমা স্ত্রী
তাদের জন্যই সুন্দর ধরনী, স্রষ্টার করিগরী"।

নারী স্রষ্টার... ...বাকিটুকু পড়ুন

×