somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

আমার পরিসংখ্যান

আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

শীতবস্ত্র বিতরণ

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ২০ শে জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১:১০



ফুটপাতেও প্রেম থাকে,থাকে ভালোবাসার ওম।
ফুটপাতেও লোভ থাকে,থাকে নির্লজ্জ কাম।

শীত বুঝি তার অহংকার হারালো ঢাকার রাজপথে
তবু
সারারাত
জেগে থাকা মানবতা
চুপিসারে যায় শীতবস্ত্র বিতরণে
চুপিসারে।

চাহিদার বুঝি শেষ নেই। শেষ নেই চাওয়ার-আমাকে একটি দিন
আমাকে একটি দিন।
শীতবস্ত্র
বিতরণ
আহ কি সুখ?- সুখ নয় রীতিমত রণক্ষেত্র।রাত্রি দ্বিপ্রহর।ঘুম নেই তোমার চোখে?

যে মেয়েটি আচমকা ঘুম ভাঙ্গা চোখে চেয়ে দেখে,হাতে তার শীতবস্ত্র
তার মনের... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ২৬ বার পঠিত     like!

শীতকাব্য

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৯ শে জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১২:৪৫



নাঙ্গা শীত জোড় করে ভাব জমায় ইট-পাথরের দেয়ালে
শহুরে মানুষগুলির কাছে হেরে যাওয়া পাগলাটে শীত নিজেকে হারিয়ে খোঁজে
লোকাল বাসের লোহার হাতলে। শালিক শুধু সংসদ ভবনের সামনে সকালে জড় হয়,
যেমন জড় হয় স্বাস্থ্য-বাতিক খ্যাপাটে মানুষ রমনাপার্কের মধ্যে রোজ মধ্য সকালের
উড়ো বাতাসের পাখার নীচে।

কুয়াশা রুপকথার চাদর বুনে চলে মেঠো পথে,-যে পথে... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৩৩ বার পঠিত     like!

পদ মর্যাদা

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৮ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৫:৩২



চেয়ার আমাকে টেনে নেয়। না কি আমি চেয়ারকে টেনে নিই
ঠিক স্পষ্ট নয়।তবে চেয়ারের উপর উপবিষ্ট হওয়া মাত্রই চেয়ারের চারপাশে
শিকড় গজায়।আর আমার হাত শাখা-প্রশাখায় বিস্তার লাভ করে-মানুষের
পকেট হতে টাকা টেনে বের করে আনবার জন্যেই।

ঈশ্বর মানুষের মস্তিষ্কে বাসা বাঁধে।পোষাক পরিচয় বহন করে-মানুষের,
অর্থ:অবৈধ বৈভব তৈরি করে ঈশ্বরের দপ্তর,যদিও ঈশ্বরের চোখে ঠুলি
পড়া।

চেয়ার আমাকে টেনে... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৪৭ বার পঠিত     like!

ঘোর লাগা সময়ের সুর

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:৩২



আমি গান শুনছি,খুব ধীর লয়ের।সুরগুলি চূর্ন-বিচূর্ণ হয়ে ছড়িয়ে পড়ে
আমার শরীরে নয়,- মস্তিষ্কের মাঝে।রবীন্দ্র সংগীত।আমি স্বপ্ন দেখছি হয়তো।

গাছের নীচে শুয়ে আছি,আকাশ মাথার উপর।আকাশের কোন রঙ নেই
-স্বপ্নের কোন রঙ থাকতে নেই।

বালিকাটি ফিরে আসে আর ফিরে এসে আমার হাত ধরে।বলে- কত দিন পর তোমার
সাথে দেখা হলো, বলতো? অতীতে আমরা কেউ কাউকে বলতে পারিনি... বাকিটুকু পড়ুন

১ টি মন্তব্য      ২৯ বার পঠিত     like!

পরিচয়

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৫ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১১:০৫



মুখোশগুলি পথে পড়ে থাকে,আর আমরা একে একে সবাই তা পড়ে নেই
বাতাসের ঝাপটায় দরজা খুলে যায়- ঘরে আলো প্রবেশ করে
আমরা আয়নার সামনে
সবাই সবাইকে নতুন ভাবে চিনে নিই-
কোন মুখোশে লেখা আছে আমজনতা-
কোনটাতে শুধুই সুশীল অথবা পন্ডিত-
কোনটায় রাজনীতিবিদ।

বাতাসের ঝাপটায় দরজা বন্ধ হলে আঁধার নেমে আসে ঘরে
আয়নায় কোন মুখোশ নেই; আসলেই কি নেই?
আঁধারে মুখোশ... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৪৪ বার পঠিত     like!

শীতের রাতে কাক ভেজা বিছানাতে

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৪ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১২:২৮



জলের উপর বসত।সময় সামনে দোলে।পেছনে দোলে
উষ্ণতার সিঁড়ি দিয়ে নীচে নামতে থাকা তাপমাত্রা মুচকি হাসে।আমিও হাসি,
অপদার্থের হাসি,আর কি।

শীত দৌড় দেয়,- শরীর বেয়ে।তাপমাত্রা মুচকি হাসে
সময় সামনে দোলে।পেছনে দোলে।আমিও হাসি।হাসতে হয় তাই হাসি।

১৩/০১/২০১৮ বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ২৬ বার পঠিত     like!

বিভ্রান্তির বেড়াজালে নবীন প্রাণ

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১৩ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ৯:৩৫


রাতে মৃত্যু হামাগুড়ি দিয়ে চলে জঙ্গীদের আস্তানাতে
আর স্বর্গ হাম্বা ডাক ছাড়ে,
কাফনের কাপড়ের সুতোর বুননে লুকিয়ে থাকে প্রেতাত্মা।

দিনের আলোয় সাদা রঙ সাদা
রাতের আঁধারে সাদা রঙ নেই

আমরা যা দেখি তা সত্য নয়,আমরা যা শুনি তাও মিথ্যা নয়?

দোয়ানো দুধ খেয়ে ফেলে প্রেতাত্মায়
আর স্বর্গ হাম্বা ডাক দেয়।

১২/০১/২০১৮ বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৩১ বার পঠিত     like!

পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর তরুণী

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:০৬




পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর তরুণী
যে কিনা হেঁটে চলেছিল,-রাস্তার পাশ দিয়ে
তার ঠোঁট জুড়ে ছিল-মিষ্টি হাসি।

পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর তরুণী
যে কিনা দেখা দিয়েছিলো-বেইলী রোডে,
সবাই তার দিকে ছিলো তাকিয়ে।

পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর তরুণী
হাঁটছিলো তার প্রেমিকের হাত ধরে,
তাকে পর্দায় বন্দী করেছিলো আমজনতা।

পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর তরুণী
যে কিনা ছিল উচ্ছল,
এসেছিলো বাংলার শ্যামল মেঠোপথ বেয়ে।

পানপাতা মুখমন্ডলের সুন্দর... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৫১ বার পঠিত     like!

শীত ও শীতার্ত অনুভূতি

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১২ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১:২৪


শরীরে সুরসুরি দেয়,-শীতের কর্কশ হাত,যদিও গরম কাপড় শরীর জুড়ে।
একটি গাছ ধীরে ধীরে অদৃশ্য হয়ে যায় কুয়াশার নরম শরীরের গভীরে
বাতাসের ঝাপটা,গাড়ির শব্দ আর অন্ধকার রাত
সময় পার করে- - করতে হয় তাই করে ; বোধহয়।

কম্বল বিলি হয়,আবার ফিরেও আসে( বিলি হওয়া কম্বল) বাজারে।

আমাদের অনুভূতি অনন্য উচ্চতায় পৌঁছে যায়- কেবল মাত্র রোহিঙ্গাদের... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৫৪ বার পঠিত     like!

দূরত্ব

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ১১ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ৮:১১



জানুয়ারীর এক সন্ধ্যায়,বড্ড অলস সময়-অপেক্ষায় ছিল
হয়তোবা আমার জন্য।এমন সময়-ঘুমের জন্যও নয় আবার
কাজের জন্যও নয়।বারে বৃহস্পতিবার-বাড়ির রাস্তা হাত ধরে হ্যাঁচকা টান মারে।

তারা সবাই কথা বলে আমার সাথে- অর্থাৎ আমার আত্মার আত্মীয় যারা,
আমি সবার সাথেই কথা বলি।আবার কারও সাথেই কথা বলিনা। আমি সবাইকে
স্পর্শ করি-কাউকেও স্পর্শ করিনা।টিভি বাচাল ব্যক্তির ন্যায় বক বক করেই... বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ৪৪ বার পঠিত     like!

চারটি স্তবক

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ০৯ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১২:২৬



(১)

রাত যত বাড়ে,তত জমে যায় শীতে
পঞ্চাশ বছর একটি সংখ্যামাত্র যা দিয়ে শীতের তীব্রতা হিসাব করে
টুপ টুপ ঝরে পড়ে-রাতের শিশির
শিউলী তলায় বাতাসের আর্তনাদ।

(২)

সকালের জল মেপে নেয় হাতের অনুভূতি
কথা ধোঁয়া ছাড়ে- বাতাসের গায়ে
ফুটপাতে যারা থাকে তারা শীতের গায়ে স্বপ্নের জাল বুনে-
তাদের স্বপ্নে আগুনের উষ্ণতা-ফিরে আসে
ঘন
ঘন।

(৩)

শীত জাঁকিয়ে বসে গরীবের শরীরে
মানবতা শুধু কাঁদে-রোহিঙ্গার পদতলে।
শীতের... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৬০ বার পঠিত     like!

আবর্তন

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১২:৩১



যে মানুষটি লেপের নীচে শুয়ে আছে এই শীতের রাতে
উষ্ণতা তাকে ঘিরে আছে,শীতলতাও তাকে ঘিরে আছে
সে ঘুমিয়ে আছে,কিম্বা জেগে আছে- স্বপ্ন নিয়ে

আমি প্রতিদিন যখন হেঁটে যাই,খুব সকালে,পরিবাগের দিকে,ওভারব্রীজ
পার হবার সময়, নজরে আসে একটি ভাসমান পরিবার।এই শীতে শিশুটি
নিঃচিন্তে ঘুমিয়ে আছে মায়ের পাশে- উষ্ণতা তাকেও ঘিরে আছে বা থাকে
যেমন উষ্ণতা জড়িয়ে থাকে অট্টলিকার... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৬২ বার পঠিত     like!

ভ্রমণ

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ০৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:১৪



কুয়াশার বোঝা,- রাস্তার উপর।শুধু গাড়ির আলো প্রাণপন শক্তিতে
বোঝা বয়ে নেয়ার চেষ্টায় রত। সবাই ঘুমে(?), চালক কিন্তু জেগে
আঁধার চমকায় গাড়ির মাঝে।

নৌকা চলছে।কচ্ছপ গতি তার।আমি জেগে।আকাশও জেগে আছে
চেয়ে আছে আমার পানে।আমরা বন্ধু জন্ম- জন্মান্তরের।তারার দল
নীরব,নিঃশব্দ।অতীত দৌড়ে যায়,সময়ের সীমাবদ্ধ জগতে- বন্দী হতে।

আমি উপরে উঠতে শুরু করি।পৃথিবী তাকিয়ে দেখে। বাড়িগুলি ক্ষুদ্র খেলনায়
পরিণত হয়। এরপর... বাকিটুকু পড়ুন

১ টি মন্তব্য      ২৭ বার পঠিত     like!

মঞ্চ নাটক

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৮ রাত ১০:৫৪




লোকালয়ে যখন আগুন জ্বলছিল নীরো বাঁশি নিয়ে ব্যস্ত ছিল।আমাদের দেশে
অবশ্য নীরো নেই।তাই বালির ট্রাক ব্যবহৃত হয়েছিলো রাজনীতির আগুন নেভাতে।

মুক্তিযুদ্ধ সম্পর্কে তাকে কিছু লিখতে বলা হলো।অর্থাৎ পঁয়ত্রিশ ঊর্ধ যুবক যে কিনা পরীক্ষা
দিতে এসেছে,আর কি আশ্চর্য সে কিনা খাতাটি সাদা রেখেই পরীক্ষা শেষ করলো।আর পরদিন
টুইটে বুলেট নাচতে শুরু করে।নির্বাচন একটি অধ্যায় যেখানে... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৬০ বার পঠিত     like!

এক আলোক বর্ষ

লিখেছেন সুদীপ কুমার, ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৩:৪৬



শীতের এক সকালে আমি পা বাড়াই
এমন এক স্থানে যেখানে শুধু উষ্ণতাই খোঁজা হয়
আর সেই স্থানে আলো আছে,তবুও আলোর পিছেই ছুটতে হয়

ধূলোয় পড়ে থাকা বালিকণা সূর্যকে বারতা পাঠায়
আর বালখিল্য কথায় হাস্যরসের সৃষ্টি হয়

আমি পা বাড়াই
আর সবকিছুই আসতে শুরু করে আমার পিছনে
সামনে কি আছে, তা জানা হয় না আর
পিছনে ফেলা আসা পথ... বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ২৩ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ২৬৪২০ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ