somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ব্লগীয় এক বছর উপলক্ষে কোর আই সেভেন এর একটা জ্ঞানগর্ভ (!!!) পোস্ট

০৩ রা অক্টোবর, ২০১০ সকাল ১০:৩৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



আমি আপাদমস্তক একটা ঝামেলাবাজ লোক। দিন দুনিয়ার কোন জায়গায় ক্যামনে ঝামেলা লাগানো যায় সারাদিন সেইটা নিয়া গুবিষুণা করা আর ঘুমানো ছাড়া আসলে আমার কুন কাজ নাই। এক বছর আগে এই ব্লগেও আমার আগমন ঝামেলা করার উদ্দেশ্য নিয়া। ফেসবুকের একটা লিংক ধইরা আমার এই ব্লগে পদার্পণ ঘটেছিল। তা যেই পোস্ট পড়তে আসলাম কোন একটা কথা পইড়া মেজাজ বহুত খ্রাপ হইল, সাথে সাথে একটা একাউন্ট খুইলা ফেললাম। কিন্তু খুইলা আরো মেজাজ খ্রাপ হইল। আরি শ্লার এতেতো দেখি কমেন্ট করা যায় না!!! বহু খোঁজাখোজি করলাম কুন চোরাই সিস্টেম আছে নাকি কমেন্ট করার, কিন্তু পাইলাম না। যাই হোক, আলু ব্লগে আমার কতগুলা আবাল টাইপ লেখা আসিল ওইগুলা থেইকা আস্তে আস্তে কপি পেস্ট মারতে লাগলাম। তো সেইফ হইতে প্রায় এক মাস লাগল। তারপর যথারীতি আমার প্রথম কমেন্টটাই ক্যাচাইলা। তবে দুঃখের কথা ক্যাচাল লাগানোর চেষ্টাটা সফল হয় নাই। কইতে গেলে পুরাই ধরা। ওই কমেন্টের রিপ্লাই ই পাই নাই! যাউকগা হেরপর থিকা শুরু। আবিষ্কার করলাম ব্লগটা ক্যাচাল লাগানোর লিগা আদর্শ জায়গা। তবে কোন একটা আজিব কারণে খুব একটা ক্যাচাল কারো সাথেই লাগে নাই। এর কারণ হইতে পারে আমি ব্লগে কখনোই খুব একটা নিয়মিত না। তাছাড়া সত্যি কথা কইতে হেখন ব্লগে প্রোপাগান্ডা টাইপ পাবলিক বেশি। এদের সাথে ক্যাচালে যাওয়ার মানে হয় না। যাদের খাওয়া পরা ব্লগে ক্যাচাল লাগানোর উপর নির্ভর করে, তাদের সাথে যুক্তি দিয়া ক্যাচালে যাওয়ার মানে হয় না।


যাই হোক এই এক বছরে পোস্ট দিসি মাশাল্লা ৬৬টা। এর মইধ্যে বেশিরভাগই আউল ফাউল টাইপের পোস্ট। ব্লগীয় সাহিত্যের এমন কোন জায়গা নাই যেইটায় আমি আমার বামহাত ঢুকাই নাই। আত্মকথা থিকা শুরু কইরা টেকি হইয়া কবিতা পর্যন্ত লেখসি। ক্যাচাইলা পোস্টও কম দেই নাই। সবচেয়ে মজা হইসে শেভাগরে গালিগালাজ করা নিয়া একটা পোস্ট দিসিলাম ওইটা নিয়া। রেকর্ড ২৮টা মাইনাস খাইসি। গালিগালাজও কম খাই নাই। এমনকি ব্লগের এক বিশিষ্ট ব্লগীয় বুদ্ধিজীবি পর্যন্ত আইসা গালিগালাজ কইরা গেসে। যাই হোক তার ভারত বিদ্বেষের কথা আমি পরে জানসি। আর একটা ক্যাচাইলা পোস্টের কথা মনে পড়ে। ব্লগার হাইফেন রে নিয়া একটা পোস্ট দিসিলাম। াল গালিটারে এই ভদ্রলোক রীতিমত শিল্পের পর্যায়ে নিয়া গেসিলেন। তার যে কোন কমেন্টের আগে পরে মাঝখানে এই গালি থাকতই। আর আশরাফুল এই ব্লগারের শালা সম্বুন্ধি না কি আসিল জানি না, তয় আশরাফুলরে নিয়া কিসু কইলেই তার জায়গায় জায়গায় জ্বলুনি শুরু হইত আর গালিটা বেশি শুনা যাইত। তো এই ব্লগাররে নিয়া একটা পোস্ট দিসিলাম। তার গালিগালাজের ১৫-২০ টা স্ক্রিনশট দিয়া। যদিও এইগুলা অতি ক্ষুদ্র নিদর্শন, তারপরেও দিসিলাম। মডারেটররা আমার ওই পোস্ট ডিলিট করসিল আর সেই ভদ্রলোকের কিসু পোস্ট ড্রাফট করসিল। তাতে উনি ভীষণ দুঃখিত হইয়া ব্লগ ত্যাগ করেন। তবে ব্লগে সবচেয়ে বেশী ক্যাচাল কইরা মজা পাই আমার বাস্তবে বান্ধবী আর ব্লগের সবচেয়ে বড় শত্রু নৈশচারী'র সাথে। এলিট ব্লগারদের কথাবার্তা থিকা ধারনা করি তার লেখা খুবই উন্নতমানের। ধারণা করি এই কারণে যে তার লেখা পইড়া আমি কিসু বুজি না সুতরাং পড়ার চেষ্টাও করি না। তবে আমিই তারে ঠেইলা ঠুইলা লেখানো শুরু করসিলাম এই কথা ভাবতে ভালই লাগে তয় দুঃখও কম লাগে না। এছাড়াও কয়েকটা ক্যাচাইলা পোস্ট হইল- কর্তৃপক্ষ বলে দিন, লেখকের সাথে কিভাবে যোগাযোগ করব???, আসেন দেখি কে কি বলেনঃ কমার্শিয়াল ক্র্যাক করা সফটওয়্যার vs ফ্রি (বিশেষ করে যেগুলো ওপেনসোর্স) সফটওয়্যার। কমার্শিয়াল সফটওয়্যার কি আর দরকার নাই?, কোন মোবাইল কোম্পানী কিন্তু নেটের অফার দেয়ার সময় বলে না স্পিড কেমন দিবে!!!, ইহা হইলে যাহা হইত (ফানপুষ্ট), জরিপ পোস্টঃ ব্লগে ভাল পোস্টের সংখ্যা।, আসেন আমরা একে অন্যের লুঙ্গি ধরে টানাটানি করি (আর্জেন্টিনা-ব্রাজিল ব্লগযুদ্ধ প্রসঙ্গে), এমন একটা পোস্টের বিরুদ্ধে কেন এখনো কোন ব্যবস্থা নেয়া হল না???, চট্টগ্রাম নির্বাচনের ফলাফল দেশবাসীকে যেসকল দৃশ্য থেকে বঞ্চিত করেছে।, একখানা টাইয়ের আত্মকাহিনী (একটি ডেসটিনি বিষয়ক চুলকানীমূলক পোস্ট)


মৌলিক লেখা লেখি নাই তা না, কিন্তু আমার সবচেয়ে হিট পোস্ট হইল আমার ১৮+ জোক‌্স এর সিরিজ। অন্য পোস্ট যেইখানে দুই মাসে ২০০ হিট হয় না, ১৮+ পোস্ট করার দুই মিনিটের মাঝে ২০০র উপরে হিট হইয়া যায়। আমার ১৮+ এর প্রথম পোস্টের হিট প্রায় ৩০০০! ফটকামি সিরিজটা লেইখাও মজা পাইসি। ওই সিরিজটা কন্টিনিউ করার ইচ্ছা আসে। ব্লগে অনেকের প্রিয় পোস্ট এর লিস্ট অনেক বড়। লোড হইতেও অনেক টাইম লাগে। ওইটা দেইখা আমার প্রিয় পোস্টের আলাদা একটা পোস্ট দিসিলাম। তাতে লাভ হইসে একটাই এডিট করার আলসেমিতে ওইটাতে নতুন কিসু এড করা হয় না।

ব্লগে লেখালেখি শুরু করার পরে মাথায় খালি আইডিয়া ঘুরত। এই পোস্ট সেই পোস্ট পুরা মাথাই নষ্ট। সবচেয়ে যন্ত্রণা গেসে ইয়ার ফাইনাল পরীক্ষার সময়। দুই মিনিট পরে পরে আইডিয়া আসে! সে এক মহা যন্ত্রণা!! তবে কথা সত্য যে আগে ব্লগে যে ইন্টার‍্যাকশন ছিল তা আর নাই। আগে বলতে আমি যখন লেখা শুরু করলাম। ছাগুর দল আগেও আসিল এখনও আসিল। আগে বেশি আসিল, এখন কম আসে। তবে ইদানীং আরো কিসু পেইড ব্লগার যোগ হইসে। কিসু হইলেই মাতম শুরু করা এদের প্রধান কাজ। কিসু বুঝুক আর না বুঝুক মাতম কইরা দিনে দুই তিনটা পোস্ট না দিলে তাদের পেট ক্লিয়ার হয় না। রাজনৈতিক মতাদর্শ থাকতেই পারে। কিন্তু এর মানে যদি এই হয় যে আমি ছাড়া সবাই খারাপ ওই জিনিসের কুন মানে নাই। রাজনৈতিক গ্রুপিং এর কারণে ব্লগের আগের সেই মজা আর নাই। ব্লগিং হইল ইন্টার‍্যাকশনের জায়গা। সবাই যদি গ্রুপ গ্রুপ কইরা আলাদা হইয়া নিজেরা নিজেদের পিঠ চাপড়ায় আর অন্যরে বাঁশ মারার ধান্দা করে তাইলে ক্যামনে কি!!! সচলায়তন নিজেরা এমন একটা কমিউনিটি আর সামুতে এমন অনেকগুলা কমিউনিটি এইটুকই তফাত। সবার কমেন্ট একটু খেয়াল করলেই এক গ্রুপের সাথে অন্য গ্রুপের দ্বন্দ্ খুব ভালমত বুঝা যায়। আমরা যতদিন এমুন গ্রুপিং করুম ততদিন আম্রিকা কোলে তুইলাও উন্নতি করাইবার পারব না। যেইদিন থিকা গ্রুপিং বাদ দিয়া বড় কিসু চিন্তা করতে পারুম তখন ইন্ডিয়ার বাপও টাইনা নিচে নামাইতে পারব না।

ব্যক্তিগতভাবে আমি পুরাপুরি নাকউচা আর অসামাজিক টাইপের মানুষ। তারপরেও ব্লগের বেশ কয়েকজনের সাথে ভাল খাতির হইসে। এদের মইধ্যে মাহমুদ হাসান আর কালীদাস ভাইয়ের কথা না কইলেই না। আগেই কইয়া রাখি, আমার সোজাসাপ্টা কথায় লেখা পোস্টগুলা ভাল লাগে। এন্টিনা দিয়া পোলারাইজ কইরা এক্সট্রা টেরিস্ট্রিয়াল সিগনাল ধরতে হয় এমন লেখা পড়তে আমার কোন আগ্রহ নাই। এমনেই এই বয়সে চুল পাইকা যাইতাসে। ওই জাতীয় লেখা পড়া শুরু করলে দেখা যাইব যেইগুলা বাকি আসে ওইগুলাও পাইকা গেসে! ব্লগে অনেকের লেখা ভাল্লাগে। সবার নাম কইতে গেলে দিন পার হইয়া যাইব। তারপরেও যে কয়জনের কথা মনে আসে- বড় বিলাই, ম্যাভেরিক, ইমন জুবায়ের, মাহমুদ হাসান, কালীদাস, ইরফান, রাগিব, শাহরিয়ার নির্জন, রনি রাজশাহী, শায়মা, বাবুনি সুপ্তি, বিলাস বিডি, চিকনমিয়া, নাফিস ইফতেখার, অমি রহমান পিয়াল, বিডি আইডল, শয়তান, ফিউশন ফাইভ, জিকসেস, হেমায়েতপুরী এবং আরো আরো অনেকে। আপাতত এই নামগুলাই মনে আসে।

জ্ঞানগর্ভ পোস্টের এইখানেই সমাপ্তি। এক বছরে কিমুন করলাম সে সম্পর্কে ছোটখাট রিভিউ দিয়া যাওয়ার জন্য ব্লগারদের প্রতি অনুরোধ রইল।


সর্বশেষ এডিট : ০৩ রা অক্টোবর, ২০১০ রাত ৮:২০
২৪টি মন্তব্য ২৪টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

আমার মতে ঐশীর মত মেয়েদের খারাপ হওয়ার জন্য তাদের অবিভাবক ও এই সমাজ দায়ী আপনার মত কি ?

লিখেছেন :):):)(:(:(:হাসু মামা, ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৭ সকাল ১১:১০


এই সেই ঐশী যে কিনা মালিবাগে নিজ ফ্ল্যাটে পুলিশের পরিদর্শক মাহফুজুর রহমান ও তার হ স্ত্রীকে হত্যা করেছিল ।আর সেই পুলিশ ও তার স্ত্রী ছিল ঐশীর নিজেরিই মাতা পিতা।... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমাদের সহব্লগার উনি, অথচ :(

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৭ সকাল ১১:২৩

উনি আমাদের সহ ব্লগার শাহানাজ সুলতানা। আমি আগে জানতাম না উনি ব্লগার এবং উনার বই্ও বের হইছে। অথচ সেদিন আমার লেখা উনার লেখার মাঝখানে ঢুকিয়ে পোস্ট দিলেন। ফ্রেন্ড একজন সেখানে... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমি বাংলায় ডাকি প্রভু

লিখেছেন বিদ্রোহী ভৃগু, ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৭ বিকাল ৩:১৬

আমি বাংলায় ডাকি প্রভু
খূঁজি বাংলায় অবতার
বাংলাতে বুঝি মায়ের দরদ
বাংলায় মুক্তি আমার।

বাংলা আমার প্রেম বিরহ
বাংলাতে সূখ উন্মুখ
বাংলাতেই হাসি-কান্না আমার
বাংলায় স্বর্গ সূখ।

বাংলায় করি প্রার্থনা
করি বাংলায় উপবাস,
বাংলায় করি তীর্থ ভ্রমণ
বাংলায় যোগাভ্যাস।

বাংলায়... ...বাকিটুকু পড়ুন

প্রারম্ভ ( পর্ব -২ )

লিখেছেন নীলপরি, ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৭ রাত ৮:৫১



রাত প্রায় ১টা বাজে! আবার মেসেজ করলো ছেলেটা!রাহুল মিত্তাল । দিদিয়ার শ্বশুর বাড়ির সম্পর্কের বলে, কিছু বলতেও পারেনা তিন্নি! সেই দিদিয়ার বিয়ে থেকে স্টিকি টাইপ... ...বাকিটুকু পড়ুন

গণতন্ত্রও চান, বেগম জিয়াকেও চান, এটা কি রাজনীতি?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ২৩ শে অক্টোবর, ২০১৭ রাত ৯:১১



মির্জা ফখরুল সাহেবের কথা বলছি; তিনি আদি রাজনীতিবিদ ওলি আহাদের স্মরণসভায় কথা বলছিলেন; তিনি বলেছেন যে, বাংলাদেশে গণতন্ত্র নেই; এ ব্যাপারে উনি সঠিক; তিনি গণতন্ত্র চান, এবং চান... ...বাকিটুকু পড়ুন

×