somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

বানর থেকে মানুষ নয় ( মানুষ থেকে বানরের আগমন )

০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৬
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


আল্লাহুর হুকুমে পৃথিবীতে সবই সম্ভব । আল্লাহ তা'আলা পবিত্র কুরআনে বলেন, " তারপর ঈমানদাররা আল্লাহর হুকুমে জালূতের বাহিনীকে পরাজিত করে দিল এবং দাউদ জালূতকে হত্যা করল। আর আল্লাহ দাউদকে দান করলেন রাজ্য ও অভিজ্ঞতা। আর তাকে যা চাইলেন শিখালেন। আল্লাহ যদি একজনকে অপরজনের দ্বারা প্রতিহত না করতেন, তাহলে গোটা দুনিয়া বিধ্বস্ত হয়ে যেতো। কিন্তু বিশ্ববাসীর প্রতি আল্লাহ একান্তই দয়ালু, করুণাময়।৷" (সুরা বাকারা-২৫১)

"আমি পর্বতমালাকে তার অনুগামী করে দিয়েছিলাম, তারা সকাল-সন্ধ্যায় তার সাথে পবিত্রতা ঘোষণা করত। আর পক্ষীকুলকেও, যারা তার কাছে সমবেত হত। সবাই ছিল তাঁর প্রতি প্রত্যাবর্তনশীল।" (সুরা সোয়াদ-১৮,১৯)

"তারা যা বলে তাতে আপনি(মুহাম্মাদ সাঃ) সবর করুন এবং আমার শক্তিশালী বান্দা দাউদকে স্মরণ করুন। সে ছিল আমার প্রতি প্রত্যাবর্তনশীল"। (সুরা সোয়াদ ১৭)

"আমি দাউদের প্রতি অনুগ্রহ করেছিলাম এই আদেশ মর্মে যে, হে পর্বতমালা, তোমরা দাউদের সাথে আমার পবিত্রতা ঘোষণা কর এবং হে পক্ষী সকল, তোমরাও। আমি তাঁর জন্য লৌহকে নরম করে ছিলাম। এবং তাকে আমি বলে ছিলাম: প্রশস্ত বর্ম তৈরী কর, কড়াসমূহ যথাযথভাবে সংযুক্ত কর এবং সৎকর্ম সম্পাদন কর। তোমরা যা কিছু কর, আমি তা দেখি।" (সুরা সাবা-১০-১১)
“ আল্লাহ দাউদকে বাদশাহী এবং নবুয়ত দান করলেন এবং তিনি যা চেয়েছেন তা শিক্ষা দিয়েছেন। (সূরা বাকারা) ”
“ হে দাউদ ! আমি আপনাকে পৃথিবীর বুকে খলীফা নির্ধারণ করেছি। (সূরা সোয়াদ) ”
“ আমি ( দাউদ ও সুলায়মান) প্রত্যেককে রাজত্ব ও জ্ঞান দান করেছি। (সূরা আম্বিয়া) ”

বোখারী শরীফে আছে যাবুর কিতাব জনাব দাউদ (আঃ) অতিদ্রুত তেলাওয়াত বা আবৃত্তি করতে পারতেন। এমনকি তিনি ঘোড়ার পিঠের গদী বাঁধতে যতটুকু সময় লাগতো, এসময়ের মধ্যেই যাবুর আবৃত্তি করে শেষ করতে পারতেন।
সূরা আম্বিয়া: ৭১ নম্বর আয়াতে আল্লাহ এই বর্ণনা দিয়েছেন,

“ আল্লাহপাক পাহাড়-পর্বত ও পশু-পাখিকে জনাব দাউদের (আঃ) অনুগত করে দিয়েছিলেন। তারা তাঁর সাথে তসবিহ পাঠ করতো বা ঈশ্বরের স্মরণসূচক আবৃত্তি করতো। বৃক্ষ, পাথর ও শিলাখন্ড থেকেও তাসবিহ ধ্বনিত হতো। ”

"বুখারী ও মুসলিমের হাদীসে রাসূলুল্লাহ (সাঃ) বলেন:মহান আল্লাহর নিকটে সর্বাধিক পছন্দনীয় হল দাঊদ (আঃ)-এর সালাত এবং সর্বাধিক পছন্দনীয় সিয়াম ছিল দাঊদ (আঃ)-এর সিয়াম। তিনি অর্ধরাত্রি পর্যন্ত ঘুমাতেন। অতঃপর এক তৃতীয়াংশ সালাতে কাটাতেন এবং শেষ ষষ্টাংশে নিদ্রা যেতেন। তিনি একদিন অন্তর একদিন সিয়াম রাখতেন। শত্রুর মোকাবিলায় তিনি কখনও পশ্চাদপসরণ করতেন না"।

সূরা সাবায় বর্ণনা করা হয়,

“ এবং আমি দাউদকে আমার তরফ থেকে মর্যাদা দিয়েছি। আর আমি আদেশ করেছি যে, হে পাহাড় ও পক্ষীকূল! তোমরা দাউদের সাথে মিলে তাসবিহ পাঠ ও পবিত্রতা বর্ণনা কর।

বনু ইস্রাঈলদের জন্য শনিবার ছিল সাপ্তাহিক ছুটির দিন এবং ইবাদতের জন্য নির্দিষ্ট ও পবিত্র দিন। এ দিন তাদের জন্য মৎস্য শিকার নিষিদ্ধ ছিল। তারা সমুদ্রোপকুলের বাসিন্দা ছিল এবং মৎস্য শিকার ছিল তাদের পেশা। ফলে দাঊদ (আঃ)-এর নিষেধাজ্ঞা অমান্য করেই তারা ঐদিন মৎস্য শিকার করতে থাকে। এতে তাদের উপরে আল্লাহর পক্ষ হতে ‘মস্খ’বা আকৃতি পরিবর্তনের শাস্তি নেমে আসে এবং তিনদিনের মধ্যেই তারা সবাই মৃত্যু মুখে পতিত হয়। আল্লাহ বলেন " তোমরা তাদেরকে ভালরূপে জেনেছ, যারা শনিবারের ব্যাপারে সীমালঙ্ঘন করেছিল। আমি বলেছিলাম: তোমরা লাঞ্ছিত বানর হয়ে যাও। অতঃপর আমি এ ঘটনাকে তাদের সমসাময়িক ও পরবর্তীদের জন্য দৃষ্টান্ত এবং আল্লাহভীরুদের জন্য উপদেশ গ্রহণের উপাদান করে দিয়েছি।" (সুরা বাকারাহ-৬৫-৬৬)। তাফসীরে কুরতুবীতে বলা হয়েছে যে, ইহুদীরা প্রথমে গোপনে ও বিভিন্ন কৌশলে এবং পরে ব্যাপকভাবে নিষিদ্ধ দিনে মৎস্য শিকার করতে থাকে। এতে তারা দুদলে বিভক্ত হয়ে যায়। সৎ ও বিজ্ঞ লোকেরা একাজে বাধা দেন। অপরদল বাধা অমান্য করে মাছ ধরতে থাকে। ফলে প্রথম দলের লোকেরা শেষোক্তদের থেকে পৃথক হয়ে যান। তাদের সাথে সম্পর্ক ছিন্ন করেন। এমনকি তাদের বাসস্থানও পৃথক করে নেন। একদিন তারা অবাধ্যদের এলাকায় চরম নীরবতা লক্ষ্য করেন। অতঃপর তারা সেখানে পৌঁছে দেখলেন যে, সবাই বানর ও শূকরে পরিণত হয়ে গেছে। ক্বাতাদাহ বলেন যে, বৃদ্ধরা শূকরে এবং যুবকেরা বানরে পরিণত হয়েছিল। রূপান্তরিত বানরেরা নিজ নিজ আত্মীয়-স্বজনকে চিনতে পেরেছিল এবং তাদের কাছে গিয়ে অঝোর নয়নে অশ্রু বিসর্জন করেছিল।

সর্বশেষ এডিট : ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২৯
১৯টি মন্তব্য ১৫টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

বাড়িওয়ালা বনাম ভাড়াটে--কে ভালো, কে খারাপ?

লিখেছেন জাহিদুল ইসলাম ২৭, ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ বিকাল ৫:১৪


ঢাকার বাড়িওয়ালাদের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ।তারা বছর বছর,সময়-অসময়ে ইচ্ছে মতো বাড়ি ভাড়া বৃদ্ধি করে।মেইনগেট রাতে বন্ধ রাখে এবং মেইন গেটের চাবি কাউকে দেয় না।বাড়ির ছাদ ভাড়াটিয়াদের... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমার জানলা দিয়ে আমার পৃথিবী ........

লিখেছেন স্বপ্নবাজ সৌরভ, ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:০৩




দার্জিলিঙের রাস্তায় কখনো হাঁটা হয়নি । রডনস্ট্রিট , গোড়িয়াহাটার মোড়, বউ বাজার, ধর্মতলা কিংবা ছত্রিশ চৌরঙ্গী লেন। না কোন কিছুই দেখিনি , যাওয়া হয়নি। 'ছত্রিশ চৌরঙ্গী লেন' নামে... ...বাকিটুকু পড়ুন

শার্লক হোমসঃ সৃষ্টি যখন স্রষ্টাকে ছাপিয়ে গিয়েছে

লিখেছেন শের শায়রী, ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:০০



শার্লক হোমসঃ সৃষ্টি যখন স্রষ্টাকে ছাপিয়ে যায় তখন তাকে কি বলবেন? এমনই ঘটনা ঘটছে গোয়েন্দা সাহিত্যের অমর সৃষ্টি শার্লক হোমসকে নিয়ে। শার্লক হোমসের নাম শোনে নি এমন মানুষ বোধ... ...বাকিটুকু পড়ুন

সত্য প্রেম (উপন্যাস) ১-৩

লিখেছেন মোহাম্মাদ আব্দুলহাক, ১৯ শে জানুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:৫৩



অলীক হলেও সত্য, রমণে রমণীয় হয় রমণী এবং রত্নশিল্পীর কলাকৌশলে নীল পাথর হয় নীলকান্তমণি। কিংবদন্তি হলেও রত্নবনিকরা বিশ্বাস করে এবং বাতাসে কানাঘুষো, নীলগিরির গুপ্ত গুহায় সংগুপ্ত নবরত্ন আছে। তাদের... ...বাকিটুকু পড়ুন

কুড়ানো ৫৫ (চেরনোবিল-৪)

লিখেছেন তানজীর আহমেদ সিয়াম, ২০ শে জানুয়ারি, ২০২০ সকাল ১১:০৭

পর্বঃ৪



অনেকটা হেঁটেছি সেদিন। গাইডসহ আমাদের ৪১ জনের একটা গ্রুপ। গ্রুপের মধ্যে সবাই ট্যুরিস্ট। বিভিন্ন দেশ থেকে আসা। বেশীরভাগই রিসার্চার বা কলেজ-ইউনিভার্সিটির লেকচারার স্টুডেন্ট আমেরিকা আর নিউজিল্যান্ড থেকে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×