somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

এই ব্লগটি স্থগিত অথবা বাতিল করা হয়েছে

আলোচিত ব্লগ

হুজুগে বাঙ্গালীর গুজবে বিশ্বাস

লিখেছেন নতুন, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ রাত ১২:৫৯

কিছুদিন পর পরেই দেশে নতুন নতুন গুজব ছড়ায়। আসেন সবাই মিলে এই সব গুজবের পোস্টমাটাম করি। আমি আমার জানা কয়েকটার বিশ্লেষন করলাম। আসুন সবাই মিলে এই গুজব গুলির যৌক্তিক দিক... ...বাকিটুকু পড়ুন

ব্লগার উড়োজাহাজকে স্বাগতম জানিয়ে

লিখেছেন চাঁদগাজী, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ রাত ৩:৫৪

স্বাগতম ব্লগার উড়োজাহাজ, ফিরে আসা উপলক্ষ্যে আবারো স্বাগতম; ফেসবুক, মেসবুক যেখানে যান না কেন, ফিরে আসতে ভুলবেন না; আমরা আছি ব্লগে, কোন ব্লগারকে কিছুদিন না দেখলে আমরা চিন্তিত... ...বাকিটুকু পড়ুন

আদমের মানিঅর্ডার !!! মূল গল্প: টি. সি. জাপ। অনুবাদ: রেজা ঘটক

লিখেছেন রেজা ঘটক, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ ভোর ৫:৩৯

১. আদমের চিঠি
একদিন এক ডাকপিয়ন আমার বাড়িতে আসলো। বলল, আদমের নামে একটা চিঠি আছে। আমাকে জিজ্ঞেস করল, মিন্টা গ্রামের আদম কে? জবাবে বললাম, আমিই আদম। আমাকে কে চিঠি দেবে? ডাকপিয়ন... ...বাকিটুকু পড়ুন

ড. মিম আপনার সবচেয়ে বড় দুর্ভাগ্য আপনি হিরক রাজার দেশে জন্ম নিয়েছেন

লিখেছেন শেখ এম উদ্‌দীন, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ সকাল ৭:০৭

ঘটনা-১:
জুন ২০১১, ডেভিড ক্যামেরুন তার ডেপুটি নিক ক্লেগ কে নিয়ে লন্ডনের গাইজ হাসপাতালে তার সরকারের স্বাস্থ্য সুবিধার উপর জনগনের আস্থা বা জনগণ কত টুকুন সন্তুষ্ট তা দেখতে যান। এমতাবস্থায়... ...বাকিটুকু পড়ুন

দেবর ভাবী

লিখেছেন নিলু, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ সকাল ১০:১৩




এক ভাবী তার স্বামীকে খুব সন্দেহও করতো কারনে অকারনে । তাই তাদের মধ্যে প্রায় সব সময়য়ই রাগারাগি ও সংসারে অশান্তি চলতে থাকে ।... ...বাকিটুকু পড়ুন

সু-পালিশ করতে করতে দেখতে থাকি কন্যার ছোট জুতা বড় হয়ে যায় দিনেদিন

লিখেছেন  কৌশিক, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ সকাল ১১:০২

সকাল বেলা মেয়ের সু পালিস করা আমার অন্যতম একটা প্রিয় কাজ। পালিশ করার আগে ছোট্ট দুটি কালো জুতো দেখে আমি বুঝতে পারি মেয়েটা আগের দিন স্কুলে কতটুকু খেলেছে। স্কুল গ্রাউন্ডের... ...বাকিটুকু পড়ুন

নির্বাচিত ব্লগ

বুক রিভিউ: মন্টেজুমার মেয়ে-হেনরি রাইডার হ্যগার্ড

লিখেছেন ভেক্টর, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ বিকাল ৩:৪৯

বুক রিভিউঃ

মন্টেজুমার মেয়ে – হেনরি রাইডার হ্যগার্ড
মন্টেজুমার মেয়ে প্রকাশিত হয় ১৮৯৩ সালে।রাইডার হ্যাগার্ডের নিজের মতে, এটাই তার শেষ সেরা লেখা।যদিও এর পরে তিনি অনেক বই লিখেছেন।উপন্যাসটি মূলত এডভেঞ্চার ঘরানার,তবে কেউ কেউ ইতিহাস-ভিত্তিক উপন্যাসও বলে থাকেন।আমার মতে বইটাকে এডভেঞ্চার হিসাবেই বেশি মানায়।উপন্যাসটির মূল কাহিনী এক ইংরেজ তরুণের উত্তম পুরুষ বর্ণনায় বর্ণিত।কিভাবে সে প্রতিশোধের লক্ষ্যে ঘর থেকে বেরিয়ে পড়ে,কিভাবে ভাগ্য তাকে একজন গুরু জুটিয়ে দেয়,আবার ভাগ্যই তাকে নিয়ে আসে জংলীদের মধ্যে,সেখানে সে প্রত্যক্ষ করে স্প্যানিয়ার্ডদের প্রথম আমেরিকা অভিযান।আমি বইটির সেবা থেকে প্রকাশিত বাংলা অনুবাদটি পড়েছি।সুতরাং, আমার রিভিউ মূলত বইটির অনূদিত সংস্করণেরই হবে।

সেবা থেকে প্রকাশিত অনুবাদটি করেছেন কাজী আনোয়ার হোসেন। সেবা থেকে অনুদিত... ...বাকিটুকু পড়ুন

বন্ধুরে! তোদের সাথেই আড়ি আমার ভারি

লিখেছেন লাইলী আরজুমান খানম লায়লা, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ বিকাল ৩:৪৮


সকাল দুপুর বিকেল ভরে
কথা কাজে সত্যি করে
পাশে ছিলি আপন করে
ওলো সখি, ওলো সখা
থাকবি কি তুই জীবন ভরে !!

প্রাণের মাঝে ব্যাথা হলে
টেরটা তুই-ই পেলি হঠাৎ
আপন মনে বলে ফেলিস
দুঃখ সুখের এটাই তফাৎ !!

টাকা যদি নাইবা থাকে
ছোট্ট একটু হাসি দিয়ে
ইশারা দিস হাত উঠিয়ে
শান্ত করিস বিলটা দিয়ে!

ঝগড়া-ঝাটি হলে পরে
ঘুম আসে না চোখের পাতায়
ঘুরে ফিরে আসিস কাছে
ঝগড়া থামাস মিলের খাতায় !

বিপদ আপদ এলে পরে
পাখি হয়ে ছুটে আসিস
চোখের পানি মুছিয়ে দিয়ে
বাধন হয়ে পাশে থাকিস !

আমার মনে ঘা-টি দিয়ে
কেন পালালি দেশ বিদেশে
আয় না আবার প্রাণের মাঝে
সকাল দুপুর বিকাল সাঝে !!!!

২ আগস্ট,২০১৫ ...বাকিটুকু পড়ুন

এ ট্রিবিউট টু মাই ‘ফ্রেন্ড’--- বন্ধু দিবসে ‘বন্ধুত্বের’ অমূল্য সম্পর্কটি নিয়ে আমার অন্যতম পছন্দের দুইটি সিনেমা

লিখেছেন রিকি, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ দুপুর ১:৩৬



“There are some people in life that make you laugh a little louder, smile a little bigger, and live just a little bit better.”

বন্ধু... মানব সম্পর্কের এক অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অংশ। এই বন্ধু অনেক রূপে আসে, অনেক ধরণে আসে... কেউ সুসময়ের মাছি হয়, কেউ দুঃসময়ের ভেলা, আবার কেউ সবসময়ের সঙ্গী। এই সম্পর্ক একটা আলাদা সম্পর্ক নয় বরং সব সম্পর্কের মিলিত রূপ--- বাবার মত শাসন, মায়ের মত যত্নশীল, ভাইয়ের মত দায়বদ্ধতা, বোনের মত খুনসুটির সম্পর্ক, প্রেমিক প্রেমিকার মত পাগলাটে আত্মিক সম্পর্ক কোনটা নাই এতে...... A versatile relation. বন্ধু নিয়ে সিনেমা কোনটা কোনটা আছে বলতে বললে অনেকে উল্লেখ করবে...My Best Friend’s Wedding,... ...বাকিটুকু পড়ুন

সু-পালিশ করতে করতে দেখতে থাকি কন্যার ছোট জুতা বড় হয়ে যায় দিনেদিন

লিখেছেন  কৌশিক, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ সকাল ১১:০২

সকাল বেলা মেয়ের সু পালিস করা আমার অন্যতম একটা প্রিয় কাজ। পালিশ করার আগে ছোট্ট দুটি কালো জুতো দেখে আমি বুঝতে পারি মেয়েটা আগের দিন স্কুলে কতটুকু খেলেছে। স্কুল গ্রাউন্ডের কোন অংশে গিয়েছে - কোন রাইডে চড়েছে, ইত্যাদি। জুতায় লেগে থাকা ময়লা অথবা কাদার পরিমাণ বলে দেয় তার স্কুল টাইম কতটুকু আনন্দে কেটেছে।

জুতা হাতে নিয়ে একটা তোয়ালা দিয়ে প্রথমে পরিস্কার করি। তারপরে টিউব-কালি দিয়ে জুতাটার চারপাশে সময় নিয়ে বেশ যত্ন করে কালি লাগাতে থাকি। শক্ত কালি লাগিয়ে ব্রাশ করার চেয়ে টিউব দিয়ে কালি লাগানো অনেক সহজ, ব্রাশ করতে হয় না। কিন্তু আমি ব্রাশিং-এও পটু ছিলাম। এখন কালো পলিশড সু পরি... ...বাকিটুকু পড়ুন

আদমের মানিঅর্ডার !!! মূল গল্প: টি. সি. জাপ। অনুবাদ: রেজা ঘটক

লিখেছেন রেজা ঘটক, ০২ রা আগস্ট, ২০১৫ ভোর ৫:৩৯

১. আদমের চিঠি
একদিন এক ডাকপিয়ন আমার বাড়িতে আসলো। বলল, আদমের নামে একটা চিঠি আছে। আমাকে জিজ্ঞেস করল, মিন্টা গ্রামের আদম কে? জবাবে বললাম, আমিই আদম। আমাকে কে চিঠি দেবে? ডাকপিয়ন বলল, সৌল। সৌল তোমার কে? বললাম, আমার ছেলে। ওহ, তাহলে এই নাও সৌলের চিঠি। বলে ডাকপিয়ন চলে গেল।
চিঠি হাতে আদম চিৎকার করে উঠল। মার্থা... মার্থা...এদিকে আসো। এই দেখ, আমাদের সৌল চিঠি লিখেছে।
মার্থা হুড়মুড় করে দৌঁড়ে স্বামী আদমের কাছে আসলো। চিঠির কথা শুনে খুব খুশি হল। আবার অজানা আতংকে মার্থার অন্তরাত্মা কেঁপে উঠল। সৌলের চিঠি! তাহলে সৌল বেঁচে আছে? আমাদের সৌল? ভালো আছে ও?
আদম বা মার্থা কেউ পড়তে পারে... ...বাকিটুকু পড়ুন