somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

অভ্র বিষয়ক টি-শার্ট ও এর বাণিজ্যিক বিপনন বিষয়ক কড়চা ব্লগারদের মন্তব্য অতীব জরুরী

১৬ ই মে, ২০১০ দুপুর ২:২৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

ইতিমধ্যে ব্লগের সবারই জেনে যাবার কথা যে, ব্যক্তিগত উদ্যোগে বেশি কিছু টি-শার্ট/ পোলো শার্ট ডিজাইন ও প্রোডাকশনের উদ্যোগ নেয়া হয়েছে...এবং এই উদ্যোগ শুধুমাত্র অভ্রে’র সমর্থনে বিনামূল্যে টি-শার্ট/ পোলো শার্ট বিতরণের ভাবনা থেকেই নেয়া হয়েছিল। ব্লগার মাহমুদ ভাই “অভ্রের পাশি আছি” শিরোনামের পোষ্টে অসীম ধৈর্য্য জড়ো করেছেন অভ্র-বিজয় বিতর্কের সমস্ত লিংক আর লেখাগুলো। সেখান থেকেই টি-শার্ট বের করার উদ্যোগ এবং একে একে অনেকে এর সাথে যুক্ত হয়েছেন ও সমর্থন যুগিয়েছেন..পরামর্শ দিয়েছেন...গ্রাফিক্স ওয়ার্ল্ড যুগিয়েছেন ডিজাইন...এবং আরো অনেকেই সক্রিয় আছেন এর সাথে (এ বিষয়য়ে বিস্তারিত মাহমুদ হোসেন’র পোষ্টে )।

“অভ্রের জন্য ফাইনাল” পোষ্ট সহ এর পূর্বের পোষ্টগুলোতে ও অনেকেই এই টি-শার্টগুলোর বিনিময়মূল্য দিতে চেয়েছেন...আবার এমন একটা ভাবনাও এসেছে যে, যদি এ থেকে সংগৃহীত অর্থ কোনভাবে অভ্র’র আইনী লড়াইয়ে সহায়ক হতে পারে...!! আমরা সিদ্ধান্ত নেই...প্রাথমিকভাবে বিনামূল্যে বিতরণের লক্ষ্য থেকে আমরা বিচ্যুত হবো না...তবে এ বিষয়ে মেহদী’র সাথে আলাপটা জরুরী।

ফেইসবুকে মেহদীর সাথে আমার আলাপ হয় এ বিষয়ে। সেখানে মেহদী প্রস্তাব করেন যে, যদি এটাকে আজিজ কিংবা কোন প্রোডাকশন হাউজ বের করতে চায় বাণিজ্যিকভাবে...সেক্ষেত্রেও তার কোন আপত্তি নেই। আর এই টি-শার্ট বিষয়ক প্রচার ক্যাম্পেইন তিনি সমর্থনও করছেন......এ বিষয়ক আলাপচারিতা. তুলে দিচ্ছি......

====================================================================


হুনার: একটা বিষয়ে আপনার জরুরী মন্তব্য/মতামত/অংশগ্রহণ/দিকনির্দেশনা চাচ্ছি। সামহোয়ার ইন...ব্লগে আমরা ক'জন অভ্র'র সমর্থনে বেশি কিছুদিন ধরেই একটা ক্যাম্পেইন করে আসছি...আমরা ক'জন বলাটা আসলে ভুল...কারণ এতে আসলে অনেকেই সক্রিয়....এমনকি আপনার অনুমতিছাড়াই মো.জ. কে দেয়া সচলায়তনে আপনার জবাবটি পোষ্ট করে দিয়েছিলাম...

যাই হোক...ভূমিকা বাদ দিয়ে সরাসরি বলি....ব্লগের একজন বেশ কিছু টি-শার্ট অভ্র'র ব্রান্ডিং'য়ে প্রকাশ করছেন...না...কোন ব্যবসায়ী উদ্দেশ্যে নয়....অভ্র'র প্রচার ও জনসচেতনতার উদ্দেশ্যে। যেকারণে এতে কোন মূল্য রাখা হচ্ছে না...তিনি কোন এক ভাবে এই বিষয়টি "ম্যানেজ" করছেন...তার সাথে ব্যক্তিগতভাবেই আমার দেখা ও কথা হয়েছে...আশা করি আপনি সেই ব্লগের লিংকটি পেয়ে গেছেন...http://www.somewhereinblog.net/blog/sreeman/29155332 ...সম্পূর্ণ স্বত:স্ফূর্ত এই কাজে কোন এক ভাবে আমিও জড়িত...

এখন বিষয় হচ্ছে এই যে, অনেকেই আর্থিক ভাবে অভ্র'কে সাহায্য করতে চাচ্ছে...মামলা এবং এই সংক্রান্ত ঝামেলার ব্যয়ভার মেটানোর জন্য। যেহেতু টি-শার্টের কোন দাম নেই...সেহেতু একটা ভাবনা এমন যে, যদি আপনাদের কেউ ..অর্থাৎ অভ্র টিমের কেউ...কিংবা স্বীকৃতিপ্রাপ্ত কেউ বা কোন এ্যাকাউন্ট এ সংক্রান্ত থাকে..তাহলে তাতে ব্লগাররা নিজেদের সাধ্যমত আর্থিক যোগান দিতে পারে...এবং তারা তা চায়ও....

ব্যক্তিগতভাবে আমি এই মতের সাথে একাত্ম..যদিও অভ্র'র কাজের জন্য এই প্রস্তাব "অপমানকর" মনে হতে পারে..কিন্তু নিজেকে যেকোন ভাবে অভ্র'র একজন ভাবতে গর্ববোধ করি...অভ্র'কে নিজের ভাবি বলেই হয়তো এমন ভাবনা....

আপনার মতামত জরুরী ভিত্তিতে জানালে আমরা...ব্লগার'রা উপকৃত হতাম....

আপনার উত্তরের অপেক্ষায়...



মেহদী হাসান খান: অজস্র ধন্যবাদ আপনার মেইলের জন্য। সত্যি কথা বলতে কি, আপনারা আছেন দেখেই সাহস করে আমরা এখনও লেগে আছি। এর আগে বহু বাংলা সফটওয়্যার এ পর্যায়ে এসে বন্ধ হয়ে গেছে দুঃখজনকভাবে। অভ্রর সৌভাগ্য, আপনার মত আরো হাজারো মানুষ তার পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন :)

টিশার্ট বাণিজ্যিকভাবেও যদি আপনি/আপনারা করেন, আমাদের বিন্দুমাত্র আপত্তি নেই। আমরা সেখানে কোন টাকা তো চাইতে যাবোই না, বরং নিজেরা কিনে এনে পড়বো এটা বলতে পারি। অবাণিজ্যিকভাবে এটা নিয়ে বেশিদূর যাওয়া সম্ভব না। আপনি আজিজ সুপার মার্কেটে কোন দোকানের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে পারেন যেনো তারা এটা বিক্রি করে এবং ছাপানোর খরচটাও দেয়। আপনি চাইলে আমিও কথা বলে দেখতে পারি। একজন নির্দিষ্ট ডিস্ট্রিবিউটর পেলে আমরা ওমিক্রনল্যাব থেকেই অফিশিয়ালি সবাইকে জানাবো এই টিশার্টের ব্যাপারে। ডিজাইনগুলো সত্যিই অসাধারণ হয়েছে!


হুনার: সত্যি কথা বলতে কি...টি শার্টগুলোর বাণিজ্যিকীকরণের কোন ইচ্ছাই আমাদের নেই...আমাদের কাছে অনেকেই দাম দিয়ে কিনতে চেয়েছে...ফলে আমাদের মনে হয়েছে এই বিনিময় মূল্য দেবার ইচ্ছাটা আসলে অভ্র'র সাথে যুক্ত থাকার কিংবা কোন একভাবে যদি সরাসরি অভ্র'র এগিয়ে যাওয়ার সাহস ও শক্তিতে নতুন মাত্রা যোগ করা যায়... সেই ইচ্ছার প্রকাশ।

যদি এটা বাণিজ্যিক ব্যবহারে নামে তবে তা অবশ্যই অভ্র'র প্রযোজনে হতে হবে। কারণ মূল উদ্যোক্তা যিনি তিনি এর বিনিময়ে কোন অর্থ নিতে অনিচ্ছুক। একমাত্র যদি অভ্র'র জন্য কোন ফাণ্ড করা যায় অথবা কোন ব্যাংক একাউন্ট থাকে যা অভ্র' টিম দ্বারা পরিচালিত হবে...সেক্ষেত্রে তিনি এটা করতে পারেন।

আজিজ মার্কেটের দোকানগুলোর সাথে ইতিমধ্যেই যোগাযোগ করা হয়েছে....বিষয়টা শুধুমাত্র ব্যবসায়িক হবার চিন্তা না থাকায় তাদেরকে "প্রোডাক্ট" হিসেবে দেয়ার চিন্তা আপাতত নেই। আপাতত এটা অভ্র'র সমর্থনে মুক্ত প্রচারের অংশ হিসেবেই বিনামূল্যে বিতরণের ভাবনাটা আছে।

অভ্র'র আইনী লড়াইয়ে সহায়তার জন্য যদি কোন ফাণ্ড তৈরী হয় সেক্ষেত্রেই এটাকে বাণিজ্যিক হিসেবে গ্রহণ করা সম্ভব। পরামর্শ চাইছি।

ধন্যবাদ।



মেহদী হাসান খান: অমিক্রনল্যাব একটি স্বেচ্ছাসেবীদের দ্বারা পরিচালিত অলাভজনক সংগঠন। আমরা আমাদের কোন প্রোডাক্ট বিক্রি করি না, করবোও না কোনদিন। টিশার্ট অবশ্য ভিন্ন ব্যাপার। মোজিলা, ক্যানোনিকাল (উবুন্টু) এরাও টিশার্ট/মগ/মাউস প্যাড ইত্যাদি ব্র্যান্ডিং করে বিক্রি করে, সেখানে ভোক্তার অধিকার ক্ষুণ্ণ হয় না। কিন্তু আপাতত আমাদের এধরণের কিছু করার পরিকল্পনা নেই, এগুলো মেইনটেইন করার জন্য আলাদাভাবে সময় দিতে হবে, আমাদের সেটা নেই। আমাদের প্রত্যেকের আয়ের আলাদা উৎস আছে, আশা করছি সেখান থেকেই সব খরচ আমরা চালিয়ে নিতে পারবো।

বাণিজ্যিকভাবে এটা ছাড়ার অনুরোধ একারণেই করেছি, যাতে টিশার্টগুলো বেশি ছড়ায়। যে মানুষ এখনও অভ্রর ক্যাম্পেইনের কথা জানেন না, বন্ধুর কাছে টিশার্টটা দেখে উনিও জানতে পারবেন। উপকৃত হবে অভ্র। আমরা সবাই একসাথে অর্থগ্রহণ না করেও প্রজেক্টটাকে এগিয়ে নিতে পারি।

কী ভাবছেন জানাবেন :)


হুনার: ধন্যবাদ। আমি ব্লগের অন্যান্যদের কাছে বিষয়টা উপস্থাপন করছি। সবার মতামত নিয়ে কাজটা করাটাই আমাদের দিক থেকেও ভালো হবে...অন্তত কেউ যেন বলতে না পারে: "অভ্র'কে নিয়ে ব্যবসা শুরু হয়ে গেছে"....আমি জানি...এটা ভাবাটা খুব একটা অস্বাভাবিক নয়...ফলে নিজেদের গায়ে কিংবা অভ্র'র গায়ে অপবাদটা যেন না আসে...তাই এই অবস্থান....আপনার যুক্তিটা আমার কাছে গ্রহণযোগ্যই মনে হয়েছে...এটা অবশ্যই করা যেতে পারে....তবে...যেখান থেকে এর উৎপত্তি...সেখানকার সমর্থনটাও জরুরী।

আরেকটা বিষয়...বর্তমানে আইনী লড়াইটা কোন পর্যায়ে আছে তা জানালে অন্যদেরকেও জানানো যেত...সবার বেশ আগ্রহ...কতদূর কি হলো...:)


ভালো থাকবেন...

==================================



এখন এই বিষয়ে ব্লগারদের মতামত ও সমন্বিত সিদ্ধান্ত আশা করছি। আমরা কি বাণিজ্যিক বিপননে যাব? না যাব না? গেলে কিভাবে যাব? তা কি উচিত হবে? আপনারদের মতামতের ভিত্তিতেই আমরা সিদ্ধান্ত নেব....

সবাইকে ধন্যবাদ। অভ্র’র জয় হবেই।
সর্বশেষ এডিট : ১৬ ই মে, ২০১০ বিকাল ৩:১৯
১৪টি মন্তব্য ১২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

রাষ্টের সন্তান বিভক্তি

লিখেছেন পথিক৬৫, ১৬ ই আগস্ট, ২০২২ বিকাল ৪:৪০

বরগুনায় পুলিশ ছাত্রলীগ পেটাল। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বললেন, "বাড়াবাড়ি হয়েছে"। ঘটনার পরের দিনই এসপি সাহেব বদলির নোটিশ পেলেন। দেশের মিডিয়া এই ঘটনাকে নিয়ে হুমরি খেয়ে পড়ল। কার পক্ষ নিবে- পুলিশ নাকি... ...বাকিটুকু পড়ুন

যাপিত জীবনঃ রেস্টুরেন্ট মার্কেটিং এবং আমার রিভিউ :D

লিখেছেন অপু তানভীর, ১৬ ই আগস্ট, ২০২২ রাত ১১:৩০

গত সপ্তাহের কথা । সিড়ি দিয়ে নিচে নামছি । দো-তলার কাছে এসেই দেখি দারোয়ান একজন যুবককে নিয়ে দাড়িয়ে আছে । দো-তলার ভাড়াটিয়ার সাথে কথা বলছে । আমাকে দেখে দারোয়ান বলল,... ...বাকিটুকু পড়ুন

"সহস্র এক আরব্য রজনী"র 'শেষ রজনী'....

লিখেছেন জুল ভার্ন, ১৭ ই আগস্ট, ২০২২ সকাল ১০:০৫

"সহস্র এক আরব্য রজনী"র 'শেষ রজনী'.... (কঠোরভাবে প্রাপ্তস্কদের জন্য)

(এবার সহস্র এক আরব্য রজনীর 'শেষ রজনী' আমার মতো করে লিখে প্রকাশ করলাম। যদি ব্লগে অপ্রাপ্তবয়স্ক কেউ থাকেন তারা এই লেখা পড়বেন... ...বাকিটুকু পড়ুন

ফিলিস্তিনের কবি মাহমুদ দারবিশ আর তার ইজরায়েলি প্রেমিকা রিটা।

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ১৭ ই আগস্ট, ২০২২ দুপুর ১২:২৫





ফিলিস্তিনের কবি মাহমুদ দারবিশ আর তার ইজরায়েলি প্রেমিকা রিটা। যার ব্যাপারে কবি লিখছিলেন—
'আমি আমার জাতির সাথে বেইমানি করে, আমার শহর এবং তার পরাধীনতার শিকলগুলির বেদনা ভুলে গিয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

কুয়াকাটায় পর্যটক হয়রানি বন্ধ হোক, ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান অব্যাহত থাকুক

লিখেছেন সৈয়দ মেহেদী হাসান, ১৭ ই আগস্ট, ২০২২ দুপুর ১২:৪৫


ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযানের প্রতিবাদে খাবার হোটেল বন্ধ করেছে কুয়াকাটার হোটেল ব্যবসায়ীরা। এটি চমৎকার একটি সুসংবাদ। আন্দোলন সংগ্রাম না করলে আসলে ব্যবসায় শঠতামির ফায়দা লোটা অসম্ভব। যেহেতু কুয়াকাটা বরিশাল বিভাগের পটুয়াখালী... ...বাকিটুকু পড়ুন

×