somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

জেনের দীপ্তি

আমার পরিসংখ্যান

জেন সাধু
quote icon
মিতভাষী
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

ওইপার

লিখেছেন জেন সাধু, ১৩ ই সেপ্টেম্বর, ২০০৯ সকাল ১১:২৫

একদা এক বৌদ্ধ তরুণ গৃহে প্রত্যাবর্তনের পথে প্রশস্ত এক নদীর তীরে এসে পৌঁছাল। নিরাশাকরোজ্জ্বল মনে সম্মুখস্থিত বৃহৎ প্রতিবন্ধকতার পানে বিস্ফারিত নয়নে তাকিয়ে সে ঘণ্টাকালব্যাপী ভেবে উঠল যে, কী বিশেষ উপায়ে সে এত বড়ো বাধাটি ডিঙোবে। কিন্তু নিরুপায় সে যখন ভ্রমণেচ্ছা সাঙ্গ করবার সিদ্ধান্তে পৌঁছে গেল, তখনই নদীর ওইপারে এক মহজ্জনকে... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ২৭৫ বার পঠিত     like!

এক টুকরো সত্য

লিখেছেন জেন সাধু, ১৩ ই সেপ্টেম্বর, ২০০৯ রাত ২:২৩

একদিন মারা নামের এক দুর্বত্ত তার পরিচারকসহ গ্রামবাসীদের মধ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছিল। সে হণ্টনধ্যানরত এক লোককে দেখল, যার মুখে পানোন্মত্ত বিস্ময়, যে কিনা তক্ষুনি মাত্র সামনে মাটিতে কিছু একটা খুঁজে পেয়েছে। ‘ওটা কী?’, পরিচারক জানতে চাইলে মারা বলল, ‘এক টুকরো সত্য’।



‘কেউ একজন কোনো সত্য খুঁজে পেলে একজন দুষ্টলোক হিসেবে আপনি কি... বাকিটুকু পড়ুন

১ টি মন্তব্য      ১৯৯ বার পঠিত     like!

কিছুই নেই

লিখেছেন জেন সাধু, ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০০৯ দুপুর ১২:৪৯

ইয়ামাওকা তেসু নামের এক তরুণ জেনছাত্র এক শিক্ষক থেকে আরেক শিক্ষকের কাছে ছুটে বেড়াচ্ছিল। একদিন সে শকোকু মন্দিরে গুরু ডকুওনের নিকট হাজির হলো।



নিজের সিদ্ধির প্রমাণ দিতে সে বলল, ‘সর্বোপরি মন, বুদ্ধ ও চেতন প্রাণী বলতে কিছুই নেই। ইন্দ্রিয়গ্রাহ্য সত্যের প্রকৃতি হলো শূন্যতা। কোনো বাস্তবোপলব্ধি নেই, প্রবঞ্চনা নেই, পরমজ্ঞানী নেই, নেই... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ২৬৮ বার পঠিত     like!

প্রাণীর স্বভাব

লিখেছেন জেন সাধু, ১২ ই সেপ্টেম্বর, ২০০৯ রাত ২:৫৯

দুজন ভিক্ষু নদীতে তাদের গামলা ধৌত করার সময় একটি বিছাকে জলে ডুবে যেতে দেখলেন। একজন দ্রুত বিছাটিকে তুলে তীরে রেখে এলেন। এ কাজ করতে গিয়ে ভিক্ষু হুলের গুতাও খেলেন। ফিরে এসে তিনি গামলা ধোয়ায় মন দিলে আবারো বিছাটিকে ডুবে যেতে দেখলেন। আবারও ভিক্ষু বিছাটিকে রক্ষা করলেন এবং পুনর্বার হুলের গুতা... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৩২২ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ৩৪ : অকেজো জীবন

লিখেছেন জেন সাধু, ১৪ ই জানুয়ারি, ২০০৯ রাত ১১:২৩

এক কৃষক দিনে দিনে এমনই বুড়িয়ে যান যে মাঠের কাজে যোগ দেবার সক্ষমতা পুরোপুরিই হারিয়ে ফেলেন। তিনি তাঁর সময় কাটাতে থাকেন কেবল বারান্দায় বসে থেকে। তাঁর পুত্র মাঠে কাজ করতে করতে মাঝে মাঝে তাকিয়ে দেখে যে বুড়ো বারান্দায় বসে আছেন তো আছেনই। পুত্র নিজে নিজেই ভাবে, 'ব্যাটা একদম অকেজো অইয়া... বাকিটুকু পড়ুন

৭ টি মন্তব্য      ৩৩৩ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ৩৩ : সরাইখানা

লিখেছেন জেন সাধু, ২৫ শে অক্টোবর, ২০০৮ রাত ৮:২৭

এক প্রখ্যাত আধ্যাত্মিক সাধক একদিন রাজপ্রাসাদের সদর দরজায় এসে পৌঁছলেন। কোনো দ্বাররক্ষকই তাঁকে থামাবার চেষ্টা করল না। তিনি তাঁর ইচ্ছেমতো ভিতরে প্রবেশ করলেন এবং সোজা সিংহাসনে আসীন রাজার সামনে গিয়ে দাঁড়ালেন।



রাজা তৎক্ষণাৎ তাঁকে চিনতে পেরে বললেন, 'আপনার জন্যে আমি কী করতে পারি ?'



'আমি এই সরাইখানায় খানিক বিশ্রাম নিতে চাই', সাধক... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৩৩৯ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ৩২ : বাগানে একটি কচ্ছপ

লিখেছেন জেন সাধু, ২২ শে অক্টোবর, ২০০৮ রাত ১১:৫৮

দাইজুর মঠে এক ভিক্ষু একটি কচ্ছপ দেখতে পেয়ে দাইজুকে জিজ্ঞেস করল, 'সকল জীবই তাদের হাড় ঢেকে রাখে মাংস ও ত্বক দিয়ে। কিন্তু এই জীবটি কেন তার মাংস ও ত্বক হাড় দিয়ে ঢেকে রাখে?' দাইজু তাঁর পা থেকে একটি স্যান্ডেল খুলে নিলেন এবং কচ্ছপটিকে তা দিয়ে ঢেকে দিলেন।



বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৩৭৮ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ৩১ : ভালোবাসলে মন খুলে বাসো

লিখেছেন জেন সাধু, ১৯ শে অক্টোবর, ২০০৮ রাত ১০:৫০

বিশজন ভিক্ষু ও এশুন নাম্নী একজন সন্ন্যাসিনী কোনো এক জেনগুরুর সাথে দলীয়ভাবে ধ্যানচর্চা করত।



এশুন ছিল খুবই সুদর্শনা, যদিও তার মাথা ছিল কামানো এবং পোশাক সাদাসিধে। ভিক্ষুদের কয়েকজন গোপনে তার প্রেমে পড়ে গিয়েছিল। তাদের মধ্যে একজন তো ব্যক্তিগত সাক্ষাতের অনুরোধ জানিয়ে রীতিমতো এক প্রেমপত্রই লিখে বসে।



এশুন এ পত্রের কোনোই জবাব দেয়... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৪১২ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ৩০ : ঈশ্বরের খোঁজে

লিখেছেন জেন সাধু, ১৭ ই অক্টোবর, ২০০৮ রাত ১০:৪৩

নদীতীরে ধ্যানস্থ থাকা অবস্থায় এক নির্জনবাসী সন্ন্যাসীকে এক যুবক প্রস্তাব দেয় যে, 'আমি আপনার শিষ্য হতে চাই।' 'কী হেতু ?', সন্ন্যাসী জানতে চান। যুবক মুহূর্তখানেক ভেবে বলে, '...কারণ আমি ঈশ্বরকে খুঁজে পেতে চাই।'



সন্ন্যাসী লাফ দিয়ে উঠে যুবকটির ঘাড় ধরে এক ধাক্কায় নদীতে ফেলে দেন এবং মাথাটা পানির নিচে চুবিয়ে... বাকিটুকু পড়ুন

৯ টি মন্তব্য      ৪১৫ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৯ : অকুতোভয়

লিখেছেন জেন সাধু, ২০ শে মে, ২০০৮ রাত ১০:২৯

জাপানের সামন্ত শাসনকালে যখন গৃহযুদ্ধ (১৮৬৩-১৮৬৮) চলছিল, তখন সহসাই এক দখলদার বাহিনী এক শহরে প্রবেশ করে শহরের নিয়ন্ত্রণ করায়ত্ত করে নিল। কেবল জেনগুরুকে বাদ দিয়ে ওই শহরের একটি নির্দিষ্ট মহল্লার সব মানুষ সেনাপ্রবেশের পূর্বেই নিরাপদ স্থানে পালিয়ে গেল। বৃদ্ধ জেনগুরুর কেমন বুকের পাটা তা দেখতে জেনারেল স্বয়ং জেনমন্দিরে গিয়ে হাজির... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৪৮২ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৮ : চলতি মুহূর্ত

লিখেছেন জেন সাধু, ১০ ই মে, ২০০৮ দুপুর ১:১৬

এক জাপানি যোদ্ধা তাঁর শত্রু কর্তৃক ধৃত হয়ে জেলে নিক্ষিপ্ত হলেন। ভয়ের চোটে ওই রাতে তিনি কিছুতেই ঘুমাতে পারছিলেন না। তাঁর বারবারই মনে হচ্ছিল যে, আগামীকাল তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ ও নির্যাতন শেষে বধ করা হবে।



এসময় হঠাৎই তাঁর জেনগুরুর উপদেশ মনে পড়ে গেল। তিনি বলতেন, আগামীকালের কোনো প্রকৃত অস্তিত্ব নেই। ওটা হলো... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৪২৩ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৭ : নীরবতার আওয়াজ

লিখেছেন জেন সাধু, ০৯ ই মে, ২০০৮ দুপুর ১:২৩

চার ভিক্ষু মিলে সিদ্ধান্ত নিলেন যে তারা দুই সপ্তাহকাল কোনো কথা না বলে নীরবে ধ্যান করবেন। ধ্যানাবস্থায় প্রথমদিন রাত নামলে মিটমিট করতে করতে মোমবাতিটি নিভে গেল। প্রথম ভিক্ষু বললেন, কী মুশকিল! মোমটা তো গেল নিভে। দ্বিতীয় ভিক্ষু বললেন, আমরা কি করি নি ঠিক যে বলব না কোনো কিছু? তৃতীয় ভিক্ষু... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৩৬৩ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৬ : সবচে' গুরুত্বপূর্ণ শিক্ষা

লিখেছেন জেন সাধু, ০৫ ই মে, ২০০৮ দুপুর ১২:২৩

এক সুপরিচিত জেন সাধনগুরু একদিন জানালেন যে, তাঁর সবচে' গুরুত্বপূর্ণ পাঠ হলো 'তোমার মনটাই বুদ্ধ'। এই নিগূঢ় বাণীতে উদ্ভাসিত হয়ে এক ভিক্ষু মঠস্থল ত্যাগ করে নিজের ভেতরটা জাগিয়ে তুলতে ধ্যানেচ্ছায় বিজন উষর প্রান্তরে প্রত্যাবর্তনের সিদ্ধান্ত নিলেন। ওই মহৎ শিক্ষার সত্যতা সম্পর্কে নিশ্চিত হতে সেখানে তিনি সন্ন্যাসী হিসেবে ২০ বছর সময়... বাকিটুকু পড়ুন

৭ টি মন্তব্য      ৪১৭ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৫ : আত্মনিয়ন্ত্রণ

লিখেছেন জেন সাধু, ২৯ শে এপ্রিল, ২০০৮ সকাল ৯:১৬

একবার এক ভূমিকম্প জেনমন্দিরের গোটাটা কাঁপিয়ে দিল। এমনকি মন্দিরের কিয়দংশ ওই ভূকম্পনে ধসেও পড়ল। এতে মন্দিরে থাকা ভিক্ষুদের অনেকেই খুব আতঙ্কিত হয়ে পড়লেন। ভূকম্পন থামলে ভিক্ষুদের উদ্দেশে শিক্ষক বললেন, 'এখন তোমাদের এটা অনুসন্ধানের একটা সুযোগ এসেছে যে, একজন জেনাগ্রহী সংকট মুহূর্ত ঠিক কীরকম আচরণ করেন। তোমরা হয়ত এতক্ষণে এটাও জেনেছ... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৩৭১ বার পঠিত     like!

অনূদিত জেনগল্প ২৪ : স্বর্গোদ্যান

লিখেছেন জেন সাধু, ০৬ ই এপ্রিল, ২০০৮ দুপুর ১২:১২

মরুভূমিতে হারিয়ে যাওয়া দু'জন লোক ক্রমশ ক্ষুধা ও তৃষ্ণায় খুবই কাতর হয়ে পড়ল। শেষপর্যন্ত তারা একটি উঁচু দেয়ালের কাছে এসে পৌঁছল। শুনতে পেল, ওইপার থেকে ঝরনার কলকলানি ও পাখির কলরব ভেসে আসছে। তারা দেখল, একটি লসলসে গাছের ডাল দেয়ালের উপর দিয়ে মাথা বাড়িয়ে আছে। গাছের ফলগুলোকে মনে হলো খুবই সুস্বাদু।



একজন... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৩৭৯ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ২৫৫০৬ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ