somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

" মধুর বচন " - ১ - আহা কি চমতকার :( দেখা গেল !!!!!!!!!!!!!!!

১৩ ই অক্টোবর, ২০২২ বিকাল ৫:৪৪
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


ছবি - bangladesh-pratidin

বাংলাদেশের সংসদের ডেপুটি স্পিকার ফজলে রাব্বী মিয়া গত ২৩ জুলাই যুক্তরাষ্ট্রে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেলে গাইবান্ধা - ৫ সংসদীয় আসনটি শূন্য হয়। যার কারনে উক্ত সংসদীয় আসনে ১২/১০/২০২২ উপনির্বাচনের আয়োজন করে নির্বাচন কমিশন। দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম রাজনৈতিক দল বিএনপির কোন প্রার্থী ছিলনা এই উপনির্বাচনে (তাদের মতে তারা বর্তমান সরকারের অধীনে আর কোন নির্বাচনে অংশ নিবেনা কারন সরকারের অধীনে নির্বাচন নিরপেক্ষ হয়না )। তারপরও মোট ৫ জন প্রার্থী এই উপনির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে। তারা হলেন -

১। মাহমুদ হাসান রিপন - আওয়ামী লীগ প্রার্থী (নৌকা)।
২। এ এইচ এম গোলাম শহীদ রঞ্জু - জাতীয় পার্টি (লাঙল)।
৩। জাহাঙ্গীর আলম - বিকল্পধারা (কুলা)।
৪। নাহিদুজ্জামান নিশাদ - স্বতন্ত্র প্রার্থী (আপেল) ।
৫। সৈয়দ মাহবুবুর রহমান - স্বতন্ত্র প্রার্থী (ট্রাক) ।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগ প্রার্থী ছাড়া অন্যরা নানা অনিয়মের অভিযোগ করেছেন। এজেন্ট বের করে দেওয়া, কর্মী-সমর্থকদের কেন্দ্রে আসতে বাধা দেওয়াসহ নানা অনিয়মের অভিযোগে ভোট গ্রহণ শুরুর সাড়ে তিন ঘণ্টা পর সকাল সাড়ে ১১টার দিকে একযোগে চার প্রার্থী নির্বাচন বর্জনের ঘোষণাও দেন। এ ঠিক যেন ২৮ বছর আগের মাগুড়ার উপনির্বাচনী ঘটনা ফিরে এলো গাইবান্ধায়। ১৯৯৪ সালের মাগুরার উপনির্বাচনের দৃশ্যই যেন দেখা গেল ২০২২ সালে গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে। ২৮ বছর আগে নির্বাচনটি হয়েছিল বিএনপি’র ক্ষমতায় থাকার সময়ে। সে নির্বাচনে ব্যাপক অনিয়মের অভিযোগ উঠেছিল যার জের ধরে শুরু হয়েছিল আওয়ামী লীগের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিতে আন্দোলন। ওই আন্দোলনের সূত্র ধরেই তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা সংবিধানে ফিরিয়ে এনেছিল বিএনপি সরকার। বিএনপি’র ক্ষমতায় থাকা অবস্থায় ওই নির্বাচনটি দলের জন্য খুব একটা গুরুত্বপূর্ণ ছিল না। তারপরও ঐ নির্বাচনের সময় ক্ষমতাসীন বিএনপির করা নানা অনিয়ম প্রশ্নের মুখে ফেলে দিয়েছিল ক্ষমতাসীন বিএনপি সরকার সহ পুরো নির্বাচনী ব্যবস্থাকে।

এক নজরে গাইবান্ধা-৫ উপনির্বাচন -

* ইসির নিয়ন্ত্রণ নেই, ভোট স্থগিত (১২/১০/২০২২) - Click This Link
** ভোটার উপস্থিতি কম, বুথে অনুপ্রবেশ
*** সিসিটিভির সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে কেন্দ্র দখল
**** চার প্রার্থীর ভোট বর্জন
***** অনিয়ম তদন্ত করবে ইসি
****** পুরো আসনের ভোটগ্রহণ বন্ধ করার নজির নেই

নানা অভিযোগ-অনুযোগের পরই নির্বাচন কমিশন পুরো আসনে ভোট বন্ধ করার সিদ্ধান্ত নেন গাইবান্ধায় । নির্বাচন কমিশন কর্তৃক গাইবান্ধায় নির্বাচন বন্ধ/বাতিল করার পর এর পক্ষে-বিপক্ষে নানা জনে নানা মত প্রকাশ করছে। আর এ ক্ষেত্রে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতাদের সাথে সাথে সমাজের অনেকেই নানা মত প্রকাশ করে মধুর :( মধুর সব বচন (মত) দিচছেন। আসুন দেখি সেই সব মধুর বচন -

গাইবান্ধায় ভোট কারচুপি স্বচক্ষে দেখেছি - সিইসি

ভোট বন্ধের কারন সম্পর্কে বাংলাদেশের প্রধান নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল বলেছেন, গাইবান্ধায়-৫ আসনের উপ-নির্বাচনে ভোটকক্ষে অবৈধ অনুপ্রবেশকারীদের ভোট কারচুপি স্বচক্ষে দেখেছি। তাই পুরো ভোটগ্রহণ বন্ধ করা হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুরের পর রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন কমিশন কার্যালয়ে থেকে এ ঘোষণা দেন তিনি। লিংক - Click This Link


ছবি - নয়া দিগন্ত

গাইবান্ধায় নির্বাচন বন্ধে কোনো হঠকারী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি - সিইসি

গাইবান্ধায় নির্বাচন বন্ধে কোনো হঠকারী সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। এটি সিইসির একক কোনো সিদ্ধান্ত নয় বলে জানিয়েছেন প্রধান নির্বাচন কমিশনার কাজী হাবিবুল আওয়াল। বৃহস্পতিবার গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন স্থগিতের বিষয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। হাবিবুল আওয়াল বলেন, পরিস্থিতি গভীর ও সুক্ষ্মভাবে পর্যবেক্ষণ করেছে নির্বাচন কমিশন। এরপর সতর্ক করা হলেও প্রিজাইডিং অফিসার ব্যবস্থা নেয়নি, তাই বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছি। লিংক - https://mybangla24.com/newspapers/naya-diganta


ছবি - bangladesh-pratidin

ঢাকায় বসে ফুটেজ দেখে ভোট স্থগিতের সিদ্ধান্ত ইসি কীভাবে নিল, প্রশ্ন হানিফের

ভোটকেন্দ্রে নানা অনিয়মের অভিযোগ তুলে গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন বন্ধ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। আর ইসির এমন সিদ্ধান্ত নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ।

বুধবার বিকালে রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সাংবাদিকদের হানিফ বলেন, "গাইবান্ধা-৫ আসনের নির্বাচনে কোনো কেন্দ্রেই নৈরাজ্য হয়নি। ঢাকায় কমিশন ভবনে বসে সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে এতগুলো কেন্দ্রে ভোটগ্রহণ স্থগিতের সিদ্ধান্ত ইসি কীভাবে নিল- তা বোধগম্য নয়"। লিংক - Click This Link


ছবি - bangladesh-pratidin

গাইবান্ধায় ভোট স্থগিত হওয়ায় জনগণ হতবাক হয়েছে - তথ্যমন্ত্রী

গাইবান্ধা-৫ আসনের ভোট স্থগিত হওয়ায় জনগণ হতবাক হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ। আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন। অবশ্য এই মন্তব্য মন্ত্রী বা আওয়ামী লীগ নেতা হিসেবে নয়, একজন সাধারণ মানুষ হিসেবে করেছেন বলে জানান তিনি।লিংক - Click This Link



ছবি - নয়া দিগন্ত

ফেরেশতাকে ইসির দায়িত্ব দিলেও নির্বাচন সুষ্ঠু হবে না - আলাল

বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব অ্যাডভোকেট সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বলেন, সীমাহীন অনিয়মের কারণে গাইবান্ধা ৫ আসনের উপনির্বাচন বন্ধ করতে বাধ্য হয়েছে। রিটার্নিং অফিসার নির্বাচন বন্ধ করার কথা বলেন। কিন্তু প্রধান নির্বাচন কমিশনার নির্বাচন বন্ধ করেছেন। তাদের কথা ডিসি এসপিরা মানে না। যত ভালো মানুষ হোক না কেন আওয়ামী লীগের অধীনে কেউ ভালোভাবে কাজ করতে পারবে না। নির্বাচন কমিশনের উচিত আদালতে গিয়ে নির্দেশনা চাওয়া বা পদত্যাগ করা। এছাড়া কোনো পথ নেই। লিংক - https://mybangla24.com/newspapers/naya-diganta



ছবি -যুগান্তর

ইসিকে একহাত নিয়ে পরে ধন্যবাদ সৈয়দ ইবরাহিমের

ভোটকেন্দ্রে নানা অনিয়ম ও জালিয়াতির অভিযোগে গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন বন্ধ করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। এ বিষয়ে বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিম (বীরপ্রতীক) বলেছেন, গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন প্রমাণ করে ক্ষমতাসীনদের দৌরাত্ম্য নিয়ন্ত্রণ করা নির্বাচন কমিশনের (ইসি) দ্বারা অসম্ভব। বুধবার এক প্রতিক্রিয়ায় তিনি একথা বলেন। লিংক - Click This Link


ছবি - যুগান্তর

ভোট বন্ধের ঘটনায় যা বলল গণতন্ত্র মঞ্চ

"বর্তমান সরকারের অধীনে সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়- তা গাইবান্ধার নির্বাচনে আবারো প্রমাণিত হলো"- বলে মন্তব্য করেছেন সাতদলীয় জোট গণতন্ত্র মঞ্চের নেতারা। একইসঙ্গে অবিলম্বে গাইবান্ধায় ‘ভোট ডাকাতি’ ও ‘জালিয়াতের’ সঙ্গে জড়িতদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার আহ্বান জানিয়েছেন তারা। বুধবার বিকালে গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষে গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়কারী জোনায়েদ সাকি স্বাক্ষরিত এক যৌথ বিবৃতিতে নেতারা এসব কথা বলেন।


ছবি - যুগান্তর

গাইবান্ধা-৫ আসনে পুনরায় তফসিল ঘোষণার দাবি জিএম কাদেরের

গাইবান্ধা-৫ আসনে পুনরায় নির্বাচনের তফসিল ঘোষণার দাবি জানিয়েছেন জাতীয় পার্টি চেয়ারম্যান ও বিরোধীদলীয় উপনেতা জিএম কাদের। বুধবার এক বিবৃতিতে তিনি বলেছেন, গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচনে আজ সকাল থেকেই প্রায় শতভাগ কেন্দ্রে জাতীয় পার্টির লাঙ্গল প্রতীকের প্রার্থীর এজেন্টদের জোর করে কেন্দ্র থেকে বের করে দেয় ক্ষমতাসীন দলের সন্ত্রাসীরা। তারা ভোটারদের ভোট কেন্দ্রে যেতে বাঁধা দিয়েছে, আবার ভোট কেন্দ্রের গোপন কক্ষে সন্ত্রাসীরা অবস্থান করে ভোটারের ইচ্ছের বিপক্ষে ভোট দিয়েছে। এ সব কারণে, ইতোমধ্যে নির্বাচন কমিশন গাাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন বন্ধ ঘোষণা করেছে। এজন্য আমরা জাতীয় পার্টির পক্ষ থেকে নির্বাচন কমিশনকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। লিংক - Click This Link
একই সঙ্গে আমরা গাইবান্ধা- ৫ আসনে তফসিল ঘোষণার মাধ্যমে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানাচ্ছি।

গাইবান্ধা- ৫ আসনে ভোট বাতিলের প্রতিবাদে বিক্ষোভ আওয়ামী লীগের

গাইবান্ধা-৫ আসনের উপনির্বাচন বন্ধ ঘোষণার প্রতিবাদে দুই উপজেলায় বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছেন আ.লীগের নেতা-কর্মীরা। নির্বাচন কমিশনার (সিইসি) কাজী হাবিবুল আউয়াল গতকাল দুপুরে উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ বন্ধের ঘোষণা দেন। ভোট বন্ধের ঘোষণার পর বেলা তিনটার দিকে ফুলছড়ি উপজেলা পরিষদ চত্বরে বিক্ষোভ মিছিল করেন। উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান জি এম সেলিম পারভেজের নেতৃত্বে মিছিলটি বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। এ সময় উপজেলা পরিষদ কার্যালয়ের সামনের সড়ক অবরোধ করে রাখেন। আওয়ামী লীগের প্রার্থী মাহমুদ হাসানের কর্মী-সমর্থকেরা পরিষদের সামনে অবস্থান নেন। পরে উপজেলা পরিষদ চত্বরে এক সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। একই সময় সাঘাটা উপজেলা পরিষদ চত্বরে খণ্ড খণ্ড মিছিল করেন আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, সকাল থেকে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ হয়েছে। কোথাও কোনো ধরনের অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি। দিনের বেশির ভাগ সময়ই শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ করা হয়। নির্বাচন বন্ধ ঘোষণার কোনো কারণ নেই। লিংক - https://m.dailyinqilab.com/article/525572/

সারাংশ বা মূল বিষয়

গাইবান্ধায় নির্বাচন পরিস্থিতি নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণের বাইরে চলে যাওয়ায় নির্বাচন স্থগিত করা হয়েছে বলেই মনে করা হচছে। কুমিল্লা সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বর্তমান নির্বাচন কমিশনের ইমেজের যে ক্ষতি হয়েছিল তার পুনরুদ্ধার , নির্বাচন কমিশনের ওপর গনমানুষ ও সুধীজনের অনাস্থার কারনে পুরো আসনে নির্বাচন স্থগিতের মত কঠিন সিদ্ধান্ত নিয়ে ইসি মানুষের নিকট হয়ত এই বার্তাই দিতে চেয়েছে," নির্বাচন নিয়ে তারা তাদের সাংবিধানিক ও নৈতিক অবস্থান ধরে রাখতে চায়" ।

মানুষ আশরাফুল মাখলুকাত বা সৃষ্টিকর্তা বা স্রষ্টার সেরা সৃষ্টি। আর তাই মানুষ জন্মের পর থেকেই শুরু করে শিখা এবং তা চলতে থাকে মৃত্যুর আগ পর্যন্ত । আর এই শিখার প্রচেষ্টা কিংবা জানার আগ্রহ একেক একেক জনের ক্ষেত্রে একেক রকম হয় এবং সবাই যার যার স্বার্থ বা আগ্রহের বিষয়েই জানতে-শিখতে চায়। আবার ন্যায়-অন্যায় বোধও মানুষে-মানুষে এবং স্বার্থ অনুসারে ভিন্ন ভিন্ন হয়।আর তাইতো দেখা যাচছে একই বিষয় নিয়ে এক জনের দৃষ্টিভংগী (মত)'র সাথে অন্যজনের দৃষ্টিভংগী(মত)'র যোজন যোজন প্রার্থক্য। এসব সমাজের জ্ঞানী-গুনী ও রথি-মহারথিদের ভাবনা । একই বিষয়ে আমার মত আমজনতার ভাবনা কি ? তা জানার জন্যই এ লেখা -

এখানে আমার যা ভাবনা -

১। প্রশাসনিক দায়িত্বে বা সাংবিধানিক পদে থেকে (সিইসি কিংবা অন্য কেহ) চাইলেই অনেক কিছুই করা যায় (যার জন্য প্রয়োজন হয় শুধু ইচছা শক্তি)।
২। প্রয়োজনে ও স্বার্থে সত্যকে মিথ্যা বা মিথ্যাকে সত্য বলা যায় এবং তা মনে হয় দোষেরও নয় (চাচা আপনা প্রাণ বাঁচা, :(( স্বার্থ হাসিলে'র জন্য )।
======================================================
তথ্যসূত্র -

১। বাংলাদেশ প্রতিদিন - ১২ ও ১৩ ই অক্টোবর
২। ডয়চে ভেলে - ১২ই অক্টোবর - হ্যালো সিইসি, গাইবান্ধা থেকে আমরা কী শিখলাম? - https://www.dw.com/bn/
৩। যুগান্তর প্রতিবেদন -১২ই অক্টোবর।
৪। কালেরকণ্ঠ - ১২ই অক্টোবর।
৫। মানব জমিন - ১৩ অক্টোবর। - গাইবান্ধার নির্বাচন, নানা প্রশ্ন - Click This Link
৬। The Daily newnation - ১৩ অক্টোবর - Gaibandha by-polls cancelled - https://thedailynewnation.com/news/336587/ -
৭। নয়া দিগন্ত - ১৩ অক্টোবর।
৮। দৈনিক ইনকিলাব - ১৩ অক্টোবর।
সর্বশেষ এডিট : ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০২২ বিকাল ৫:৫৩
৩টি মন্তব্য ৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

স্কুলের বাচ্চাদের ভয় দেখানো উচিত হয় নাই

লিখেছেন সাড়ে চুয়াত্তর, ২২ শে মে, ২০২৪ সকাল ৮:৪৫

ফরিদপুরে একটা গার্লস স্কুলের ১৫ থেকে ২০ জন মেয়েকে দিনে দুপুরে এক বা একাধিক ভুত এসে ভয় দেখিয়ে গেছে। আমার মতে ভুতেরা এই কাজটা ঠিক করে নাই। ক্লাস সিক্স থেকে... ...বাকিটুকু পড়ুন

লাডাইটসঃ প্রযুক্তি যাদের চাকরি কেড়ে নিয়েছিল

লিখেছেন অপু তানভীর, ২২ শে মে, ২০২৪ সকাল ১১:০২



কর্মক্ষেত্রে আধুনিক যন্ত্রপাতি আর প্রযুক্তির ব্যবহারের একটা অর্থ হচ্ছে কিভাবে আরো কম লোকবল ব্যবহার করে আরো বেশি পরিমান কাজ করানো যায় ! আর এআই এর বেলাতে এই লোকবলের সংখ্যা... ...বাকিটুকু পড়ুন

মাত্র ৯৭ রানের জন্য প্রথম টি-টুয়েন্টি সেঞ্চুরি মিস করলো শান্ত!!!

লিখেছেন ভুয়া মফিজ, ২২ শে মে, ২০২৪ দুপুর ১২:০২



বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের ক্যাপ্টেন লর্ড শান্ত'র ব্যাডলাকের ভাগ্য খারাপ। চমৎকার খেলছিল। ১১ বলে ৩ রান করার পর হঠাৎই ছন্দ পতন। এতো কাছে গিয়েও সেঞ্চুরি মিস। কি আর করা.........আসলে শান্তর... ...বাকিটুকু পড়ুন

স্বর্গের নন্দনকাননের শ্বেতশুভ্র ফুল কুর্চি

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ২২ শে মে, ২০২৪ বিকাল ৫:১৭


কুর্চি
অন্যান্য ও আঞ্চলিক নাম : কুরচি, কুড়চী, কূটজ, কোটী, ইন্দ্রযব, ইন্দ্রজৌ, বৎসক, বৃক্ষক, কলিঙ্গ, প্রাবৃষ্য, শক্রিভুরুহ, শত্রুপাদপ, সংগ্রাহী, পান্ডুরদ্রুম, মহাগন্ধ, মল্লিকাপুষ্প, গিরিমল্লিকা।
Common Name : Bitter Oleander, Easter Tree, Connessi Bark,... ...বাকিটুকু পড়ুন

হরিপ্রভা তাকেদা! প্রায় ভুলে যাওয়া এক অভিযাত্রীর নাম।

লিখেছেন মনিরা সুলতানা, ২২ শে মে, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:৩৩


১৯৪৩ সাল, চলছে মানব সভ্যতার ইতিহাসের ভয়াবহ দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধ। টোকিও শহর নিস্তব্ধ। যে কোন সময়ে বিমান আক্রমনের সাইরেন, বোমা হামলা। তার মাঝে মাথায় হেলমেট সহ এক বাঙালী... ...বাকিটুকু পড়ুন

×