somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

যে কারণে বিএনপি'র উচিৎ আওয়ামীলীগকে ধন্যবাদ জানানো

০৭ ই জানুয়ারি, ২০২৪ ভোর ৫:০৪
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



সারা বছর বিএনপি সভা, সমাবেশে হুমকি ধামকি দিয়ে আসছে যে কেন মূল্যে এই সরকারকে টেনে হিছড়ে ক্ষমতা থেকে নামানো হবে, সরকার ফেলে দেওয়া হবে। যে কেন মূল্যে তারা নির্বাচন ঠেকিয়ে দিবে প্রয়োজন হলে তারা পুরো দেশ অচল করে দিবে, কিন্তু কোন মতেই তারা এই সরকারকে আর ক্ষমতায় থাকতে দিবে না.. না.. না.. (খালি কলস বাজে বেশি ) তারই ধারাবাহিকতায় গত দুই মাস ধরে বিএনপি ক্রমাগত হরতাল, অবরোধ কর্মসূচি দিয়ে আসছে কিন্তু হাসির কথা হচ্ছে তাদের কর্মসূচি জনগণ একদমই মানছে না (যদিও তারা দাবী করে তাদের বিশাল জনসমর্থন রয়েছে ) কিন্তু তবুও তারা নির্জলের মত নিজেদের অস্তিত্বের জানান দিতে একের পর এক হরতাল, অবরোধ কর্মসূচি দিয়ে আসছে। উল্লেখ্য যে- হরতাল, অবরোধ কর্মসূচিতে বাংলাদেশে সাধারণত জ্বালাও, পোড়াও, ভাংচুরের রাজনৈতিক সংস্কৃতি চালু রয়েছে।

লক্ষণীয় বিষয় হচ্ছে- গত দুই মাস ধরে দেশের যে কোন প্রান্তে যেখানেই বাস, ট্রেন পোড়ানো হচ্ছে, রাস্তা কেটে রাখা হচ্ছে, রেল লাইন উপ্রে ফেলা হচ্ছে তার সব দোষ বিএনপি'র লোকজন আওয়ামীলীগের ঘারেই চাপিয়ে দিচ্ছে। তাদের ভাষ্যমতে আওয়ামীলীগ যানবাহন পুড়াচ্ছে মূলত বিএনপি'কে সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করতে, আর এই কাজ যে সরকার দলের লোকজনই করছে করছে তা পাঁচ বছরের একজন বাচ্চাও নাকি বুঝতে পারছে। B:-)



এখন কথা হচ্ছে- হরতাল, অবরোধের কর্মসূচি দিচ্ছে বিএনপি, নির্বাচন প্রতিহত করার হুমকি দিচ্ছে বিএনপি, পুরো-দেশ অচল করে দেয়ার ঘোষণা দিচ্ছে বিএনপি কিন্তু তারা এসব কর্মসূচী ঘোষণা করে ঘরে জায়নামাজে বসে বসে তসবিহ পাঠ করছেন আর এদিকে আওয়ামীলীগ বিএনপির এই কর্মসূচিকে সফল করতে গাড়ি পুড়িয়ে, ভাংচুর করে, ট্রেন লাইন উপ্রে ফেলে, আতংক সৃষ্টি করার মাধ্যমে পুরো দেশ অচল করে দেয়ার চেষ্টা করছে। বিষয়টা হচ্ছে এমন- হরতাল, অবরোধের কর্মসূচি দিচ্ছে বিএনপি কিন্তু তাদের হয়ে রাজপথের বাকি সব কাজ করে দিচ্ছে আওয়ামীলীগ, এজন্য আওয়ামীলীগকে তারা ধন্যবাদ দিতেই পারে। তা না হলে বিএনপি নামক একটি দল যে এই দেশে ছিল তা দেশের মানুষ ভুলেই যতো। সুতরাং বিএনপির কাজ আওয়ামীলীগ ফ্রী ফ্রী করে দেয়ার জন্য তাদের উচিৎ আওয়ামীলীগকে আনুষ্ঠানিক ভাবে ধন্যবাদ জানানো।

অপর দিকে- এসব সন্ত্রাসী কার্যক্রম যে আওয়ামীলীগই করছে তা পাঁচ বছরের একজন বাচ্চা তথা দেশের সব মানুষই নাকি বুঝতে পারছে, আর তারা এটা করছে মূলত বিএনপিকে সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করতে, যদি তাই হয় তাহলে মিলিয়ন ডলারের প্রশ্ন হচ্ছে- দেশের সব মানুষই যদি বুঝতে পারে এসব ন্যক্কারজনক কাজ আওয়ামীলীগের দ্বারাই ঘটানো হচ্ছে, তাহলে তো আওয়ামীলীগই জনগণের কাছে সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত হওয়ার কথা, বিএনপি হয় কি করে? বিষয়টা কি সরকার দলের লোকজন বুঝতে পারছে না? নাকি আওয়ামীলীগ নিজেই নিজেদের পায়ে কুড়াল মারছে? নিজের পায়ে কুড়াল মেরে কি লাভ? বিএনপি সরকারকে কি এমন চাপে রেখেছে যে সরকারের মানুষ পুড়িয়ে, হত্যাযজ্ঞ চালিয়ে বিএনপির উপর দোষ চাপিয়ে ফায়দা লুটতে হবে?

বিষয়টা হচ্ছে এমন- আমি একটি সন্ত্রাসী কার্যক্রম করলাম যা দেশের সব মানুষই বুঝতে পারলো বিষয়টা আমিই করেছি, কিন্তু তাহলে দেশের জনগণ আমার অপকর্মের দোষ আপনার ঘারে চাপাবে কেন? জনগণ তো তো বুঝতেই পারছে কাজটা জ্যাক স্মিথ করেছে সুতরাং জ্যাক স্মিথ'ই সন্ত্রাসী বেলা স্মিথ নয়। রাজনীতিতে উদোর পিণ্ডি বুধোর ঘারে চাপানো হয় না আমি তা বলছি না, আমি শুধু গত দুই মাসের এই ঘটনাগুলি বুঝার চেষ্টা করছি কেউ যদি বিষয়টা আমাকে একটু বুঝিয়ে বলতেন? :-B

আওয়ামীলীগ কি এতটাই বোকা যে নিজেই নিজেদের সন্ত্রাসী দল হিসেবে চিহ্নিত করবে? যেখানে বিএনপি হচ্ছে অত্যন্ত মানবিক এবং উচ্চ পর্যায়ের আন্তর্জাতিক মানের রাজনৈতিক একটা দল, এরা কখনোই কোন সন্ত্রাসী কার্যক্রম করতে পারে না বা কোন দিন করেও নি। বিএনপি কখনোই জ্বালাও পোড়াও এর রাজনীতি করেনি এবং ভবিষ্যতেও করবে না। এমন মাসুম ফেরেশতার মত একটি দল কোন গাড়িতে কখনো আগুন দিতে পারেই না, যেখানেই গাড়িতে আগুন লাগবে তার সব দোষ আওয়ামীলীগের। ছাপোষা বিএনপির কাজ হচ্ছে- হরতাল, অবরোধ কর্মসূচি দিয়ে ঘরে জায়নামাজে বসে.. 'কাল সরকারের পতন হবে' 'কাল সরকারের পতন হবে' বলে জিকির করা। =p~

-আসলে আল্লাহপাক কাউকে চিরকাল ক্ষমতায় রাখেন না তার উৎকৃষ্ট উদাহরণ হচ্ছে বিএনপি। ;)



আগামী মাসেই সরকারের পতন হবে, একদিন না একদিন সরকারের পতন হবেই কিন্তু কিভাবে হবে তার সঠিক কোন গেম প্ল্যান নেই, বিম্পির রাজনীতির মূল শক্তিই হচ্ছে এসব আজব,গুজব আর বোকা মানুষের সস্তা সেন্টিমেন্ট। একদিন না একদিন সরকারের পতন হবেই ঠিক একই যুক্তিতে একদিন না একদিন পৃথিবী ধ্বংস হবেই, সূর্যও একদিন না একদিন নিভে যাবেই.. তো এসব সস্তা সেন্টিমেন্টের উপর নির্ভর করে কি তারা সরকার পতন ঘটাতে চায়? সে যুগ কি এখনো আছে?

আওয়ামীলীগের বিরুদ্ধে বিস্তর অভিযোগ, অনেক অনেক সমালোচনা যার সবই আমি জানি, কিন্তু আমি মনে করি না যে সারাদিন সরকারে দুর্নীতি, অপকর্মের গান গেয়ে গেয়ে সরকার পতন ঘটানো সম্ভব। বড় জোড় সাময়িক সময়ের জন্য মানুষকে বিনুদুন দেয়া যেতে পারে, হ্যাঁ বিনুদুন মানুষ এসব বিনোদন হিসেবেই দেখে। পেয়াজের দাম আবার ২০০ টাকা হয়ে গেলে, মরিচের দাম ১ হাজার টাকা হলে মানুষ এসব নিয়ে হাসি তামাশা করবে, ট্রল করবে মজা করবে, খুব কম মানুষই আছে এসবের দাম বেড়ে যাওয়ার কারণে কষ্ট পাবে কারণ বাংলাদেশর মানুষ এখন আগের চেয়ে অনেক বেশি অর্থ উপর্জন করে আর পেয়াজ, মরিচ খেয়ে মানুষ কখনো জীবন ধারণ করে না তাই এসবের দাম বাড়লে মানুষে উপর এতটা ইমপ্যাক্ট পরে না শুধু চায়ের দোকানে, সোশ্যাল নেটওয়ার্কে এসব নিয়ে হাসি তামাশা হয়, ট্রল হয় এই যা এগুলাকে কেউই সিরিয়াসলি নেয় না। তাছাড়া একমাত্র আমি ছাড়া বাংলাদেশের প্রায় সব মানুষই মোটামুটি সচ্ছল কাজেই এসব পেয়াজ, মরিচের দামকে ইস্যু করে বিম্পি-জামাত সরকার পতন ঘটিয়ে ফেলবে এসব ভাবনা অবান্তর।

একটা দেশের সরকার যতই শক্তিশালী হউক সঠিক পরিকল্পনার মাধ্যমে তার পতন ঘটানো সম্ভব। যথাসম্ভব কম রক্তপাতে এটা দেশের সরকারের পতন ঘটাতে কি কি বাস্তব সম্মত পদক্ষেপ নেয়া যেতে পারে তার বেশকিছু কার্যকারী পদ্ধতি আমার কাছে রয়েছে উক্ত পদ্ধতি অবলম্বন করে আফ্রিকার দুটি, মধ্যপ্রাচ্যের একটি, এশিয়ার একটি এবং দক্ষিণ আমেরিকার দুটি মোট ৬ টি রাষ্ট্রের মধ্যে ৪ টি রাষ্ট্রেই সফল ভাবে সরকার পরিবর্তন ঘটানো সম্ভব হয়েছে B-) , বাকি দুটি রাষ্ট্রে এখনো নিবির ভাবে কাজ চলছে সম্পূর্ণ রেজাল্ট পেতে আমাদের হয়তবা আরও বছর দুয়েক অপেক্ষা করতে হবে। সঙ্গত কারণেই দেশগুলোর নাম উল্লেখ করা যাচ্ছে না। আমার উক্ত পদ্ধতিটি আমি হয়তো এখনই বিএনপি'কে দিবো না যতক্ষণ পর্যন্ত না তারা আজব, গুজব, অন্ধত্বতা এবং মানুষের সস্তা সেন্টিমেন্ট নির্ভর রাজনীতি থেকে বেরিয়ে আসে। বিএনপি যদি নিজেদের রিফর্ম করতে পারে তাহলে হয়তো বিষয়টা ভেবে দেখা যেতে পারে, কোন রাজনৈতিক দলকে রিফর্ম করা আমার কম্ম নহে, আমার কাজ হচ্ছে তাদের ক্ষমতার মসনদ পর্যন্ত পৌছিয়ে দেয়া এবং পরবর্তী দুই বছর পর্যন্ত সাপোর্ট দেয়া, পরবর্তীতে যদি তারা তাদের ক্ষমতা ধরে না রাখতে পারে এটা তাদের ব্যর্থতা।
............L O L......... ........... হে হে... কি আচানক ঘটনা। উপরের প্যারার পুরোটাই ছিল ফান হা হা.. ইহা সত্য নহে। আসলে আপনাদের ফ্রীতে একটু বিনুদুন দেয়ার চেষ্টা করলাম। :-P

এবার লাইনে আসি- আমি আওয়ামীলীগ'কে ফেরেশতার দল হিসেবে দাবী করছি না, বরং আমি স্বীকার করছি আওয়ামীলীগ আজরাইলের দল, ঠিকাচে? এখন এই আজরাইলকে সরিয়ে কিভাবে নিজেই আজরাইল হবেন... সরি, কিভাবে ক্ষমতায় আসবেন তার একটি দিক নির্দেশনা চাই বিএনপি পন্থিদের কাছ থেকে। নাকি ওই আম্রিকার উপ্রে তাকায়া আছেন? আম্রিকা সেংশন দিবে তারপর আমরা নাচতে নাচতে ক্ষমতায় আসবো সেই আশায় বসে আছেন? যদি তাই ভাবেন তাহলে বলবো সে তো এক মরীচিকা!! ;)

শেষের কথা হচ্ছে- রিজার্ভ শূন্য হয়ে যাবে, দেশ শ্রীলংকার মতো হয়ে যাবে, চাউলের কেজি ৫০০ টাকা হবে, গার্মেন্টস সব বন্ধ হয়ে যাবে, মানুষ সব না খেয়ে মারা পারবে, দেশ ইন্ডিয়া দখল করবে, বাংলাদেশ ধ্বংস হয়ে যাবে এসব আজব, গুজব, সেন্টিমেন্ট ছড়িয়ে কখনো ক্ষমতায় আসতে পারবেন না তা কি গত ১০ বছরেও বুঝেন নি? দয়া করে এবার নতুন কিছু বলেন? বিলিভ মি, বিম্পি হচ্ছে একটা গুজবের ফ্যাক্ট্রী। X((

নোট: বিএনপি নিজেদের যত ভালো দল হিসেবেই দাবী করুক না কেন, তারা যতদিন এসব গুজব, সেন্টিমেন্ট ভিত্তিক রাজনীতি বন্ধ না করবে ততদিন আমি বিএনপির হয়ে কাজ করবো না।

ধন্যবাদ সবাইকে।

পোস্ট'টা ঠিক যুতমতো হলো না, তবে যা লিখেছি মুটামুটি বুঝা গেলেই চলবে, বুঝতে না পারলে প্রশ্ন করার অপশন তো খোলাই থাকলো।

বানান ভুলের জন্য ক্ষমা পার্থী।
সর্বশেষ এডিট : ০৭ ই জানুয়ারি, ২০২৪ ভোর ৫:০৭
২৩টি মন্তব্য ২৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

আবারও রাফসান দা ছোট ভাই প্রসঙ্গ।

লিখেছেন মঞ্জুর চৌধুরী, ১৮ ই মে, ২০২৪ ভোর ৬:২৬

আবারও রাফসান দা ছোট ভাই প্রসঙ্গ।
প্রথমত বলে দেই, না আমি তার ভক্ত, না ফলোয়ার, না মুরিদ, না হেটার। দেশি ফুড রিভিউয়ারদের ঘোড়ার আন্ডা রিভিউ দেখতে ভাল লাগেনা। তারপরে যখন... ...বাকিটুকু পড়ুন

মসজিদ না কী মার্কেট!

লিখেছেন সায়েমুজজ্জামান, ১৮ ই মে, ২০২৪ সকাল ১০:৩৯

চলুন প্রথমেই মেশকাত শরীফের একটা হাদীস শুনি৷

আবু উমামাহ্ (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, ইহুদীদের একজন বুদ্ধিজীবী রাসুল দ. -কে জিজ্ঞেস করলেন, কোন জায়গা সবচেয়ে উত্তম? রাসুল দ. নীরব রইলেন। বললেন,... ...বাকিটুকু পড়ুন

আকুতি

লিখেছেন অধীতি, ১৮ ই মে, ২০২৪ বিকাল ৪:৩০

দেবোলীনা!
হাত রাখো হাতে।
আঙ্গুলে আঙ্গুল ছুঁয়ে বিষাদ নেমে আসুক।
ঝড়াপাতার গন্ধে বসন্ত পাখি ডেকে উঠুক।
বিকেলের কমলা রঙের রোদ তুলে নাও আঁচল জুড়ে।
সন্ধেবেলা শুকতারার সাথে কথা বলো,
অকৃত্রিম আলোয় মেশাও দেহ,
উষ্ণতা ছড়াও কোমল শরীরে,
বহুদিন... ...বাকিটুকু পড়ুন

ক- এর নুডুলস

লিখেছেন করুণাধারা, ১৮ ই মে, ২০২৪ রাত ৮:৫২



অনেকেই জানেন, তবু ক এর গল্পটা দিয়ে শুরু করলাম, কারণ আমার আজকের পোস্ট পুরোটাই ক বিষয়ক।


একজন পরীক্ষক এসএসসি পরীক্ষার অংক খাতা দেখতে গিয়ে একটা মোটাসোটা খাতা পেলেন । খুলে দেখলেন,... ...বাকিটুকু পড়ুন

স্প্রিং মোল্লার কোরআন পাঠ : সূরা নং - ২ : আল-বাকারা : আয়াত নং - ১

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ১৮ ই মে, ২০২৪ রাত ১০:১৬

বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম
আল্লাহর নামের সাথে যিনি একমাত্র দাতা একমাত্র দয়ালু

২-১ : আলিফ-লাম-মীম


আল-বাকারা (গাভী) সূরাটি কোরআনের দ্বিতীয় এবং বৃহত্তম সূরা। সূরাটি শুরু হয়েছে আলিফ, লাম, মীম হরফ তিনটি দিয়ে।
... ...বাকিটুকু পড়ুন

×