somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ঝটিকা সফরে রাজশাহীতে একদিন।

২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৩৩
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


খেজুর গাছের গায়ে কমলা রং এর অর্কিড দেখে ছবি তোলার লোভ সামলাতে পারলাম না।


ঢাকা থেকে যমুনা নদীর ওপারে পদ্মানদী বিধৌত বিভাগীয় শহর রাজশাহী । শাহ্ মখদুমের পরশখ্যাত পূন্য ভূমিও রাজশাহী। পাকিস্তান আমলে পূর্ব পাকিস্তানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পর দ্বিতীয় বিশ্ববিদ্যালয় রাজশাহী। এখানে মেডিকেল কলেজ, রাজশাহী কলেজ, ইন্জিনিয়ারিং কলেজ, ক্যাডেট কলেজ ইত্যাদি স্বনাম ধন্য শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। রাজশাহী সিল্কের জন্যও বিখ্যাত।
রাজশাহীর প্রাচীন নাম রামপুর বোয়ালিয়া। তবে রাজশাহীকে পুন্ড্র নগরীও বলা হত। এখানকার অধিবাসীরা পুন্ডা প্রজাতির আখ চাষ করতেন এছাড়াও এই এলাকার মানুষেরা পান্ডু (জন্ডিস) রোগে ভুগতেন বলেও ঐ নামকরন করা হয় বলে কথিত আছে।
শাহ্ মখদুম তার বড় ভাই সৈয়দ আহমেদ (মিরন শাহ্) সহ বাগদাদ থেকে বরেন্দ্রভূমি রাজশাহী আসেন ইসলাম ধর্ম প্রচার করার জন্য আনুমানিক হিজরী ১৬৮৭ সনে। সুফি শাহ্ মখদুমের এপিগ্রাফিক থেকে জানা যায় রাজশাহী নগরের পত্তন হয় ১৬৩৪ সালে। বাংলাদেশের একমাত্র বরেন্দ্র যাদুঘরটি রাজশাহীতে অবস্থিত। রাজশাহী বিমানবন্দরটি সূফী শাহ্ মখদুমের নামে নামকরন করা হয়েছে।
মোগল সাম্রাজ্যের শাসনকালে সম্রাট আকবর রাজশাহীর শাসনভার পুটিয়ার রাজপরিবারের হাতে ন্যস্ত করেন।
রাজশাহীকে আমের দেশ ও বলা হয়। রাজশাহীর পুরো জোনেই প্রচুর আমবাগান রয়েছে যা ভারতের সীমানা পর্যন্ত বিস্তৃত। রাজশাহীর উত্তরে ভারতের মালদহ জেলা অবস্থিত।
রাজশাহীতে একটি শিশুপার্ক এবং সফুরা সিল্ক পল্লী রয়েছে।
রাজশাহীর অধিবাসী এবং ভ্রমন পিপাসুরা প্রাকৃতিক নৈস্বর্গিক দৃশ্য উপভোগ করতে এবং মুক্ত হাওয়ায় বিচরনের জন্য পদ্মা নদীর তীরকেই বেছে নেন। পদ্মার টি বাধ বা গ্রোয়েনে ভ্রমন কালে স্মৃতি এখানে শেয়ার করলাম যারা দেখেন নি তাদের জন্য।
কিছু তথ্য গুগল থেকে নেওয়া এবং ৩টি ছবিও গুগল থেকে নেওয়া।

১। রাজশাহীতে একটি আম চত্তর আছে যারা কখনো আম দেখেন নি আমার মত তারা আম কেমন দেখে নিন। :D



২। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক ভবন। গুগল।



৩। রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের বধ্যভূমি। ১৯৭১ সালে পাকিস্তানী সৈন্যরা শহীদ ডঃ শামসুজ্জোহা হলে ক্যাম্প করে এবং শতশত বাঙ্গালীকে ধরে এনে মেরে ফেলে যাদের মধ্যে রাজশাহী ক্যাডেট কলেজের প্রফেসর এবি সিদ্দিকীও ছিলেন।



৪। এপিটাফ।



৫। রাজশাহী কলেজের প্রশাসনিক ভবন। গুগল



৬। রাজশাহী শিশুপার্ক গুগল।



৭। খেজুর গাছে বেগুনী এবং হালকা বেগুনী রং এর চমৎকার অর্কিড।



৮। পদ্মার পারে।



৯। গোধূলী লগ্নে মেঘের আলোয় আলোকিত পদ্মা মাঝে নিঃসঙ্গ নৌকা চলছে বৈঠার টানে।



১০। কোথা থেকে আসা কোথায় হারিয়ে যাওয়া।



১১। সারাদিনের কাজের পর ঘাটে ফিরে আসা নৌকা।



১২। সারা দিনের কর্ম ব্যস্ততার শেষে একটু শান্তির আকাংখা।



১৩। ভাঙ্গন রোধের প্রস্তুতিতে স্তুপ করে রাখা বস্তা।



১৪। নদীর পারে এক টুকরো কাশ বন।



১৫। নৌবিহারের আয়োজন। কোলাহল পিছে ফেলে নিজেদের মধ্যে মগ্ন হওয়ার জন্য একটু সময়ের খোঁজে।



১৬। আমাদের জন্য বাহারী বিলাসবহুল ইয়ট অপেক্ষা করছে :D
এখানে একটা ব্যাপার ঠিক হিসাবে মিলছেনা। গ্রোয়েন তৈরী করা হয় নদীর স্রোতকে ধীর গতি করে দেওয়া এবং চর পড়ে তীর তৈরী হওয়ার জন্য। সেক্ষেত্রে এখানে ভাঙ্গার কথা নয় অথচ ভাঙ্গছে।



১৭। নদীর একেবারে পাড় ঘেষে চেয়ার বসানো চটপটি ব্যবসায়ীদের কাজ নদীর দৃশ্য উপভোগ একই সাথে পেটেরও সেবা। এই ছবির বিশেষত্ব হলো আকাশে মনে হচ্ছে কেউ বসে মুখ থেকে ধুয়া বের করছে অথবা কোন মল্ল যোদ্ধা মুগুর হাতে দাড়িয়ে আছে। ;)



১৮। বাঁধানো পাড় আরাম করে বসে সময় ক্ষেপনের জন্য চমৎকার আয়োজন।



১৯। ভ্রমনকারীদের নৌবিহারের সুখ বিলাবার অপেক্ষায়।



২০ ।



২১। ভাঙ্গন রোধের জন্য স্তূপ করে রাখা বস্তার উপর বসেই সুখ এবং শান্তি খুঁজে ফেরা।



২২।



২৩। বাঁধের উপর ইটের গাথুনি এগুলো আবার তারের নেট দিয়ে সুরক্ষিত করা তবে রক্ষনাবেক্ষনের কথা মনেহয় কর্তৃপক্ষ ভুলে গেছেন। আমাদের দেশে যেখানেই ঘুরতে যাই সরকারী ব্যবস্থাপনার অধীন যত স্থাপনা আছে সেগুলোর ভীষন করুন অবস্থা। প্রাইভেট গুলি ঠিক আছে। মানুষ টিকিট কেটে সেগুলো উপভোগ করছে। এখানে মানুষের ট্যাক্সের টাকা ব্যায় করার কথা। একটা হাচ্ছি (মানে হলো চালডাল তেলনুন মায় জীবনধারনের জন্য খাবার পানিতেও ধনী গরীব সবাই সমান ভ্যাট দিচ্ছে। ) দিলেও যেখানে ভ্যাট কাটা হয় সেখানে টাকা নাই বলা যাবে কি ?



সর্বশেষ এডিট : ২৫ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৮ দুপুর ১:৩৪
৩৬টি মন্তব্য ৩৬টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

রাস্তায় পাওয়া ডায়েরী থেকে-১১১

লিখেছেন রাজীব নুর, ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ সকাল ১০:২২



দুটি হাঁসের পিছনে একটি হাঁস, দুটি হাঁসের সামনে একটি হাঁস, এবং দুটি হাঁসের মাঝখানে একটি হাঁস। মোট ক’টি হাঁস রয়েছে?

১। লোকে যে কেন বসন্তের গুনগান করে বুঝতে... ...বাকিটুকু পড়ুন

মোয়াবিয়া ছিল সত্যদ্রোহী, হাদিস শরীফ দ্বারা প্রমাণীত

লিখেছেন রাসেল সরকার, ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ দুপুর ১:৩৩




عن أَبِي سَعِيدٍ الخدري ، قَالَ: " كُنَّا نَحْمِلُ لَبِنَةً لَبِنَةً وَعَمَّارٌ لَبِنَتَيْنِ لَبِنَتَيْنِ ، فَرَآهُ النَّبِيُّ صَلَّى اللهُ عَلَيْهِ وَسَلَّمَ فَيَنْفُضُ التُّرَابَ عَنْهُ ، وَيَقُولُ: وَيْحَ... ...বাকিটুকু পড়ুন

গাড়ীর সবকিছু এক নম্বর শুধু ব্রেকটা একটু নড়বড়ে!

লিখেছেন শাহিন-৯৯, ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:০২




দলের ভিতর শেখ হাসিনার চলমান শুদ্ধি অভিযান দেখে উপরের শিরোনামটি মনে পড়ল, ভাল কিছু করতে হলে আগে নৈতিক স্বচ্ছতা থাকতে হয় তাহলে মানুষ মন থেকে নিবে।
ছাত্রলীগের... ...বাকিটুকু পড়ুন

একটি রক্তাক্ত লাল পদ্ম

লিখেছেন ইসিয়াক, ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৪


সেল ফোনটা বেজেই চলেছে ।বিরক্ত হয়ে ফোনটা তুললাম। রাগে গা জ্বলে যাচ্ছে বলে নাম্বারটা না দেখেই চেঁচিয়ে বললাম ।
-এই কে ?
- আমি ।
মিষ্টি একটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

সবাই যদি দেশকে ভালোবাসে, এত ভালোবাসা যায় কোথায়?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ২০ শে সেপ্টেম্বর, ২০১৯ রাত ৮:১৮



সবাই ভালোবাসা চায়, সবাই ভালোবাসতে চায়, নারীরা হয়তো একটু বেশী চান, এটাই প্রকৃতির নিয়ম! কোন দেশ তার নাগরিকের কাছে কোনদিন ভালোবাসা চাইতে আমি শুনিনি; বিশেষ... ...বাকিটুকু পড়ুন

×