somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯, বাংলাদেশ ভাবনা পর্ব-২ (ঈদ মোবারক)

০৮ ই জুন, ২০১৯ রাত ১১:০৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



বিশ্বকাপ ক্রিকেট ২০১৯, বাংলাদেশ ভাবনা পর্ব-১
ঈদ মোবারক :) ২০১৯ পবিত্র ঈদ-উল ফিতর। সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা। লেখাটা কয়েকদিন ধরে সম্পাদন করে চলেছি। অসুস্থ ছিলাম, শরীর কিছুটা ভাল হচ্ছে। এখন আবার চাকুরীতে ফেরত আসলাম। তাই বলে তো রচনাটা ঝুলিয়ে রাখা যায় না।
গত পর্ব বলেছিলাম ক্রিকেট বোলিং বিভাগ ও বাংলাদেশের বোলারদেরকে নিয়ে। আজকের আলোচিত বিষয় হবে অলরাউন্ডার, যারা শুধুই বোলার বা ব্যাটসম্যান কিংবা উইকেট কিপার নয়।
অলরাউন্ডার:
সাইফুদ্দিনকে নিয়ে আমার অনেক আশা। মনে মনে জিম্বাবুয়ের হিথ স্ট্রিকের মত কাউকে আমি খুজছিলাম অনেক দিন ধরে। Right-arm medium-fast বোলিং নিয়ে Left-hand ব্যাটিংও করে। সে আমাদের সহকারী পেস বোলার হিসেবে দলকে সহযোগীতা যেমন করতে পারবে তেমনি ব্যাটিং বিভাগকেও। সে একজন অলরাউন্ডার। তার সুইং, কাটার, ইয়র্কার সব হয়। তবে গতি কম, আশা করি কিছুটা হলেও আগাবে। good line lenght সর্বদা থাকলে বোলার মাশরাফিকে প্রতিস্থাপন করতে পারবেই সাথে ব্যাটসম্যানের চাহিদা পূরণ করবে। সে যেদিন খেলবে বাংলাদেশের tailend-রা কিছুটা স্বস্তিতে থাকবে।

সাকিব আল হাসানকে নিয়ে কিছু বলা যাবে না, তা কিন্তু নয়। সাকিব বর্তমান সময়ের শীর্ষ ১০ এর সর্বোচ্চ অবস্থানের অলরাউন্ডার(১)। এই জায়গাতে প্রায়ই বাকি দেশের খেলোয়াড়েরা হানা দিচ্ছে। যেমন আফগানিস্তান এর রশিদ,নবী। তার বলে স্পিন এর ঘূর্ণি এতটা হয় না। কিন্তু বল ঠিক জায়গাতে পরে। যাকে আমরা "good length ball" বলে থাকি। তারপরেও আক্রমণাত্নক খেললে যে কোন ভাল বলকেই ছক্কা বানানো সম্ভব। আর যদি ব্যাটে বলে সময়গত সংষ্পর্শের ভুল করে তাহলে ক্যাচ, বোল্ড, স্ট্যাম্পিং,কট বিহাইন্ড অনেক কিছুই হতে পারে। যদিও সে arm ball করে কিন্তু good line lenght তার ভরসা। আরও অন্য বৈচিত্র ব্যবহার করলে ভাল হত। ব্যাটিংও ভাল। তবে সে মারকুটে ব্যাটসম্যান নয়। সে খেলাকে টেনে নিয়ে যেতে পারবে। top order(১-৩) যদিও সে নামে না। তার অব্স্থান Upper Middle(৪-৬)-এ। https://sportzwiki.com/cricket/shakib-al-hasan-reveals-the-batting-position-where-he-wants-to-bat-in-odi-cricket , এখানে পড়লাম সাকিবর ইচ্ছা নিয়ে। মাঝে মাঝে সে ৩ নম্বর এ নামলেও সে দাবী করেছে তার সুযোগ কম হয় নামার। হয়ত এক সময় দ্রুত উইকেটের পতন হত, সে আগে নামতে পারত। ১-২-৩ নম্বর নামলেই যে শুধু টেনে নিয়ে যেতে হবে না, স্ট্রাইক করে যেতে হবে। ৩ নম্বর অবস্থানটা খারাপ নয় আবার সে নামলে আহামরি হবে সেটাও নয়। সেও অনেক উইকেট বিলিয়ে দিয়ে এসেছে। তবে তার উপর ভরসা করা যাবে। তার অভিজ্ঞতা অনেক। সে ভাল খেললে অখুশি হবার প্রশ্নই আসবে না তবে খারাপ খেললে অবশ্যই হব। কাপ্তান হবার যোগ্যতা নিয়ে একটু প্রশ্ন থেকে যায়, তাকে সহকারী কাপ্তান নিয়োগ করাই ভাল হবে। প্রশ্নটা হয় তার ব্যক্তি আচরণ নিয়ে, কিভাবে খেলে সেটা নিয়ে নয়।

মাশরাফিকে কিভাবে বাদ দেই। তাকে তকমা দিয়েছে প্রাণ ভোমড়া হিসেবে। তার বোলিং গতি, তার তরুণ সময়ের মত নয়। কিন্তু good line lenght থাকে। মাঝে মাঝে কাটার করে। সুইং, ইর্য়কার, বাউন্সারও চেষ্টা করে থাকে। গতি না থাকলে বোলিং লিজেন্ড হওয়া যায় না। এখনকার টি২০ যুগে সাধারণ মানের বোলিং আসলেই সাধারণ মানের মনে হয়, যদি না ব্যাটসম্যান ভুল করে উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসে। এ জন্য good line lenght জরুরী। যারা সে চেষ্টা করে। তার মনোবল খুব শক্ত। দেখলে বুঝা যায়। প্রথম দিকে তার ব্যাটিংশৈলীতে আশার প্রদীপ জ্বালানোর পরেও বর্তমানে খামখেয়ালীতে ভরা। তবে মাঠে নামলে অন্তত একটা ছক্কা দেখার জন্য মুখিয়ে থাকি। Right Handed Bat + Bowling Style Right-arm fast-medium. যদিও তাকে fast-medium তকমা দেওয়া যায় না। কারণ এটা একসময় সে ছিল। এখন সে সাইফুদ্দিন এর মত medium-fast বোলিং গতির খেলোয়াড়। কিন্তু আন্তর্জাতিক পরিচয়ে তার পুরনো তকমা গণনা করা হয়েছে। কালে ভদ্রে তার গতি ১৩০কি.মি. এর উপরে উঠে যেমন সাইফুদ্দিনেরও উঠে। অনেকে আবার তাকে ইতিহাসের বিখ্যাত বিভিন্ন ফাস্ট মিডিয়াম বা মিডিয়াম ফাস্ট বোলার এর সাথে তুলনা করে কিন্তু তা করা উচিত নয়। তাদের ধারাবাহিকতা ছিল গতিও ছিল ১৩০কি.মি. এর উপর সর্বদা। ৮০ দশকের বা পরবর্তী ধারাবাহিক গতির সাথে বর্তমানের পাথর্ক্য অনেক।

মাহমুদুল্লাহ যাকে ''the silent killer!'' নামে বলা হয়। এবার তার ব্যাপরে বলছি, যখন সে প্রথম খেলা শুরু করে তাকে একদমই ভাল লাগত না। অনেকটা ধীর গতির টেস্ট খেলোয়াড় মনে হত। তবে সে ধরে খেলতে পারত। তবুও তার প্রতি বিরক্ত চরমে উঠতে থাকে। বিশ্বকাপে তার পরিবর্তন ভাল লেগেছে। যুগের সাথে খেলার পরিবর্তন হচ্ছে্। ধরে খেলার মানে একসময়ের উইকেট না বিলিয়ে নয় বরং সাথে ধীরে ধীরে রানের গতি বৃদ্ধি করতে হয়। আশা করি আরও পরিবর্তন হবে। Batting style Right-hand bat + Bowling style Right-arm offbreak. তার বোলিং ভালই, খারাপ নয়। খন্ডকালীন বোলার হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। সাকিব, মেহেদেী, মাহমুদুল্লাহ, মোসাদ্দেক সবাই মোটামোটি একই ধাচেঁর বোলার। তাই প্রয়োজনবোধে তাকে ব্যবহার করে উইকেট নেওয়া যেতে পারে। ধাচঁ একই হলেও প্রত্যেকের বোলিং ভিন্ন রকম। তাকে ধান্ঠা মাথার খেলোয়াড় মনে হয়। তাকে মাশরাফির যোগ্য উত্তরসূরী(দলপতি) মনে হয়।

সৌম্যকে নিয়ে স্বপ্ন দেখার চেষ্টায় আছি। শুরুতে তার ব্যাটিং তান্ডবে তাকে আরেক তামিম নয় বরং ২য় প্রজন্মের তামিম মনে হচ্ছিল। তার ব্যাটিং সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন নাই। খারাপ খেললে কি করা। তবে বাংলাদশের উচিত ঘুরিয়ে ফিরিয়ে তাদের খেলানো। সে খারাপ খেললে আরেকজনকে সুযোগ দেওয়া। কিন্তু অতিরিক্ত পরীক্ষা নীরিক্ষা ভাল কিছু বয়ে আনবে না। Batting style Left-hand bat+Bowling style Right-arm medium-fast+Height 5 ft 10 in. তার উচ্চতার সাথে অমিল হয়ে বোলিং গতি আরও কম। কিন্তু সেটা একটা বড় সুবিধা যে খন্ডকালীন বোলার হিসেবে বাংলাদেশের বোলিং বিভাগকে সমৃদ্ধ করবে। তবে তার আক্রমণাত্নক ব্যাটিং আমাকে টানে। এখনকার যুগে এটাই উপযোগী। তার ফিল্ডিং ভাল লাগে।

সাব্বিরকেও আমি সৌম্যের পর্যায়ে ধরব। তার আগমণ আশারা বার্তা নিয়ে এসেছিল। কিন্তু সে ধরে রাখতে পারে নাই ব্যাটিং জগতে। কেন পারে নাই, এর উত্তর আমার জানা নাই। মনস্তাত্বিক হলেও হতে পারে কিন্তু সঠিকভাবে বলা যাচ্ছে না। তার আক্রমণাত্নক ব্যাটিং ভাল হয়, যদি সে করতে পারে। বাংলাদেশে hard hitter এর খুব অভাব। কিন্তু সে অভাব পূরণ করেও করতে পারছে না। বিশেষ করে শেষের দিকের ব্যাটিং-এ। তার কিন্তু আরেকটা পরিচয় আছে যা আমরা ভুলে যাই, সেটা হল বোলার চরিত্র। Batting style Right-hand bat + Bowling style Legbreak. তার এই চরিত্রকে ফুটাতে ব্যর্থ হয়েছি। কারণ আন্তর্জাতিক মহলে তাকে খুব কম ব্যবহার করা হয়। সম্ভবত ঘরোয়াতেও বোলিং করা কমিয়ে দিয়েছে। ঘরোয়াতে ১-৩ নম্বর অবস্থানে ব্যাটিং করলেও বাংলাদেশের ব্যাটিং অবস্থানে মধ্যভাগে বা শেষে ব্যবহার করা হয়। তার কারণ সম্ভবত রানের চাকার গতিকে বৃদ্ধি করা এবং বাকিদের ভাল ব্যাটিং এর কারণে সুযোগ না পাওয়া। ইদানিং নিজেও সে ভাল করছে না। ব্যক্তি হিসেবে কি রকম আলোচনা করছি না, শুধু খেলোয়াড় হিসেবেই তাকে বিবেচনা করলাম।

মেহেদী হাসান মিরাজ একজন উদিয়মান খেলোয়াড় তাকে আগামীর সাকিব মনে হয়। তাকে অনেকটা সাকিব-সাকিবই মনে হয়। এটা একেক জনের ব্যক্তিগত দৃষ্টিকোন। সে যুব দলের সাবেক অধিনায়ক। সে অনেক কিছু শিখছে, আশা করি একদিন তার পরিপূর্ণতা আসবে। Batting style Right-hand bat+Bowling style Right-arm offbreak. বোলিং বিভাগেও সাকিবের স্থলাভিষিক্ত হবে একদিন আশা করি। সেও একজন খন্ডকালীন বোলার হিসেবে দলকে সহযোগীতা করতে পারে। তবে ব্যাটিং বিভাগে আরও ভাল করতে হবে। টেস্ট খেলার মত ১দিনের খেলা খেললে হবে না।

মোসাদ্দেককেও আগামীর অলরাউন্ডার মনে হয়। তার একটা গনমাধ্যমে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছিল সে নাকি সীমানা পার করতে পারে না, কারণ গেইল এর মত শরীর নয়। হয়ত ইউটিউবে সাক্ষাৎকার পাওয়া যাবে। এই ধরনের মনোভাব ভুল। শচীনের শরীর কোন অতি মানবের নয়। দক্ষ হলে বাজে, ভাল কিংবা যে কোন বলে রান বাহির করা যায়। তাই তার মনোভাব নিয়ে চিন্তিত। তার খেলার ধরন ধীর গতির। কালে ভদ্রে সে আক্রমণাত্নক হয়, যেমন শেষ বাংলাদেশ ও.ইন্ডিজ এর সাথে করেছিল। Batting style Right-hand bat+Bowling style Right-arm offbreak. বোলিং ভয়ংকার না হলেও মাহমুদুল্লাহ, সাকিব, মেহেদীকে সঙ্গী করে খন্ডকালীন বোলিং করে দলকে সহযোগীতা করতে পারবে। আমি আগেই বলেছি, দলে এখনও কোন সত্যিকারের ঘূর্ণি বোলার আসে নাই। ধীর গতির ব্যাটসম্যান। আমি আশা করি আমার ধারণাকে মিথ্যা প্রমাণিত করবে একদিন।

মুশফিক যাকে আমার ভাল লাগে। তাকে তরুণ আশরাফুল, ভারতের ধোনির মত মনে হয়। Batting style Right-hand bat+Fielding position Wicketkeeper. ধরে খেলতে পারে, আক্রমণাত্নকও হতে পারে। তার শারীরিক উচ্চতা ভাল থাকলে হয়ত আরও ভাল ব্যাটসম্যান হতে পারে। কোমড় উচ্চতার বল খেলতে একটু কষ্ট হয় তার। কিপিং নিয়ে সন্তুষ্ট কিন্তু আরও ভাল করতে হবে। মাঝে মাঝে ভুল করে। ভুল ভ্রান্তি নিয়েই মানুষ।

লিটন দাসকে উইকেটের পিছনে খুব কম দেখা যায়। মাঝে মাঝে আক্রমণাত্নক খেলে। উদীয়মান খেলোয়াড় ১-৩ ব্যাটিং অবস্থান তার। উইকেটের পিছনে তেমন একটা দেখা হয় না। মাঝে-মাঝে পরিবর্তন করে খেললে মুশফিকের উপর চাপ কমবে। Batting style Right-hand bat+Fielding position Wicketkeeper. সে পর্যবেক্ষণে আছে। দেখা যাক সামনে কি করে।

মোহাম্মদ মিঠুন সাহেব তো সবার আগে পর্যবেক্ষণে রয়েছে। Playing role Top-order batsman+Batting style Right-hand bat+Fielding position Wicketkeeper. সে হয়তো ভঙ্গুর ঘরোয়া লীগে উপরের ১-৩ এ খেলার যোগ্যতা রাখে। কিন্তু আন্তর্জাতিকে ঠিক কোন অবস্থায় আছে বোঝা দায়। টেস্ট খেলায় রেখে দেওয়া যেতে পারে। ১দিনের খেলায় কেমন যেন সে। আশা করি একদিন উঠে আসবে সামনে। ঘরোয়া লীগকে আধুনিকায়ন করা হচ্ছে না। আম্পায়ারদের সিদ্ধান্ত নিম্ন মানের, মাঠেরও একই দশা। মাঝে মাঝে শুনি, পাতানো খেলার কথা। অবস্থা ভাল নয়। ভাল খেলোয়ার বের হচ্ছে না, যা আসছে তাও আন্তর্জাতিক খেলায় প্রতিষ্ঠিত হতে পারছে না।


যে কোন ভুল তথ্য পরিবর্তন করা হবে। ইংল্যান্ডের সাথে খেলা মনে হয় শেষ, ফলাফল দেখি নাই। হয়ত জিতবে না।

আগামীতে শুধুমাত্র ব্যাটসম্যানেদের নিয়ে আলোচনা করব। হারলেও জিতলেও, ওই বাংলাদেশই:)
সর্বশেষ এডিট : ০৮ ই জুন, ২০১৯ রাত ১১:০৯
১১টি মন্তব্য ৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

বইমেলার কবিতার বই: পাঁচ বছরে বাজারে এসেছে প্রায় ছয় হাজার, মান নিয়ে বিতর্ক

লিখেছেন এম ডি মুসা, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ সকাল ১১:৫২

তবে কবিতার মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গবেষণারাও। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক বায়তুল্লাহ কাদেরী বলেন,হ্যাঁ, কবিতার মান ঠিক নেই। কিন্তু এখন মান দেখার তো লোক নেই। যার যেমন... ...বাকিটুকু পড়ুন

কোরআনের যে দ্বন্দ্বগুলোর সমাধান নেই।

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ দুপুর ১২:০১

এসবের উত্তরে গোজামিল দিয়েছেন খোদ খলিফা আলী নিজে।


কোরআনের সূরা আল-নিসার ১১-১২ নাম্বার আয়াত অনুসারে কেনো সম্পত্তির সুষ্ঠু বন্টন করা সম্ভব হয় না? [যখন একজন ব্যাক্তি শুধুমাত্র ৩ বা ততোধিক কন্যা... ...বাকিটুকু পড়ুন

পবিত্র মাহে রমজানের প্রস্তুতি -ঈষৎ সংশোধিত পুনঃপোস্ট

লিখেছেন নতুন নকিব, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ দুপুর ১২:৫৩

পবিত্র মাহে রমজানের প্রস্তুতি

ছবিঃ অন্তর্জাল হতে সংগৃহিত।

প্রাককথনঃ

দেখতে দেখতে পবিত্র মাহে রমজান-২০২৪ আমাদের দোড়গোড়ায় এসে উপস্থিত। রমজান, মুমিনের জীবনের শ্রেষ্ঠতম আনন্দের ক্ষণ, অফুরন্ত প্রাপ্তির মাস, অকল্পনীয় রহমতলাভের নৈস্বর্গিক মুহূর্তরাজি। রমজান... ...বাকিটুকু পড়ুন

বাপ-মেয়ের দ্বৈরথ

লিখেছেন রূপক বিধৌত সাধু, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:৫৩


আমার দাদির ঝগড়াঝাঁটির স্বভাব কিংবদন্তিতুল্য ছিল। মা-চাচীদের কাছ থেকে শোনা কষ্ট করে রান্নাবান্না করলেও তারা নাকি নিজে থেকে কখনও মাছ-মাংস পাতে তুলে খেতে পারতেন না। দাদি বেছে বেছে দিতেন... ...বাকিটুকু পড়ুন

বৃষ্টি খাতুনই অভিশ্রুতি, এনআইডিতে নাম সংশোধনের আবেদন করেছিল। ধর্মান্তরিত হওয়ার পিছনে দায়ী কে?

লিখেছেন এম ডি মুসা, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ রাত ৮:৩৩





বেইলি রোডের সেইদিনের অগ্নিকাণ্ডে নিহত অভিশ্রুতি শাস্ত্রীর প্রকৃত নাম বৃষ্টি খাতুন। অভিশ্রুতি ও বৃষ্টি খাতুন নামে দুইজন একই ব্যক্তি বলে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ সূত্রে নিশ্চিত... ...বাকিটুকু পড়ুন

×