somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

কয়েক টুকরো বাংলাদেশ (ছবি ব্লগ প্রতিযোগিতা ২০২১)

১৭ ই জুন, ২০২১ বিকাল ৪:৩২
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
০১।



=হারিয়ে যায় সব আবেগ অতীতে=
মনের সিকেয় তুলে রেখেছি মেয়েবেলার সেই সব স্মৃতি
সেইসব স্মৃতি, যেগুলো হারিয়ে যায় ক্রমে কালের অতলে,
পাটের সিকে, তালপাতার পাখা,
পাটায় বাটা মশলার সাথে স্বাদের প্রীতি,
সেইসব স্মৃতিবেলা-রোদ্দুর দুপুরে স্বচ্ছ জলের পুকুরে
সুখ কুঁড়ানো ডুব সাঁতার খেলাচ্ছলে।

(ছবি তোলার স্থানঃ সোনারগাঁও, নারায়নগঞ্জ)
-------------------------------
বিভিন্ন সময়ে ক্যানন ক্যামেরায় তোলা আজকের ছবিগুলো। আশাকরি ভালো লাগবে আপনাদের । অগ্রিম জাজাকাল্লাহ/জাজাকিল্লাহ খাইরান। ভালো ও সুস্থ থাকুন ফি আমানিল্লাহ।

০২। একদিন পাহাড় ছুঁতে গিয়েছিলাম, স্বচ্ছ পাথর জলে পা ডুবিয়ে দাঁড়িয়েছিলাম পাহাড় ঘেঁষে, বন্ধ চোখে টেনে নিয়েছিলাম পাহাড় সুখ আর মুগ্ধতা। প্রকৃতির কোলে দাঁড়িয়ে কিছু ছন্দ তুলে রেখেছিলাম সুখের, মন কবিতার খাতায়। সেই সুখ ছন্দ আজও স্মৃতি হয়ে চোখের নদীতে ভাসে ডুবে, ডুবে ভাসে।



(ছবি তোলার স্থানঃ জাফলং)

০৩। =গাঁয়ের মাটিতে পা রাখলেই সুখ সুখ মনে=
পূর্বাশার আলো জেগে উঠলেই গাঁয়ের লোকেরা জেগে উঠে,
গরম চায়ে ঠোঁট রেখে ঘুমের আলসেমী কাটিয়ে ওরা ছুটে যায় মাঠে,
কর্মজীবি মানুষ, জীবনের তাগিদে ক্লান্তির পথে রোজ ছুটে
তবুও ওদের ঠোঁটে সুখের হাসি, কাজ শেষে সব ক্লান্তি ধুয়ে আসে পুকুর ঘাটে।



ছবি তোলার স্থানঃ ময়মনসিংহের ঢাকুয়া গ্রাম)

০৪। =বন্ধু যদি থাকো পাশে তুমি=
দুপুর রোদ্দুর, শুকনো পাতার পাহাড়-মর্মর সুর তুলে খুব হাঁটতে ইচ্ছে
যদি থাকো পাশে, খাঁখা বেলা হয়ে উঠে নরম পেঁজাতুলো মেঘ যেমন
সারি সারি বৃক্ষ, তরুলতার ফাঁক ফোঁকরে দুপুর রোদ্দুর ঝরে অঝোরে
ঠিক তখনো বিতৃষ্ণারা এসে ছুঁতে পারে না অল্প, যদি থাকো পাশে।

হোক না সে পথ দূর বহুদূর,
বন্ধুত্বের বন্ধনে আবদ্ধ মন ছুটে যায় সুর তোলে হাঁটি হাঁটি পা পা করে
অনুভূতিগুলো বুকের বামে সুখ গুঞ্জন তুলে, ধূলো উড়া পথ হয়ে উঠে
মুগ্ধতার রঙে মাখানো, মৃদু হাওয়ার হিল্লোলে আমি হয়ে উঠি
কল্লোলিনী, তুমি তুমি থাকো পাশে।



(ছবি তোলার স্থানঃ বোটানিক্যাল গার্ডেন)

০৫। =হাতীর পিঠে হলো সওয়ার রূপকথার রাজকুমার=
কোন বা দেশের রাজার কুমার, কোন বা দেশে থাকো?
কার স্বপ্ন'তে বিভোর, কাকে-মন ইশারায় ডাকো?
হাতীর পিঠে চড়ে ঘুরো, বনারণ্যে নিত্য,
তোমায় ঘিরে থাকে কুমার, দাসী বাদী ভৃত্য!



(ছবি তোলার স্থানঃ সোনারগাঁও, নারায়নগঞ্জ)

০৬। কতবার করে অনুনয় করি তোমায়, আমি চাই না নীল বিরহ
নীল বিষণ্ণ রঙ, চাই না নীল অপরাজিতা, নীল ডালিয়া
নীল গোলাপ অথবা নীল নিষাদ সুর, চাই না নীল চন্দ্রমল্লিকা
চাই না মন বাগানে উড়ুক নীল প্রজাপতি প্রেম;
তুমি আমার মনের শহর সাজিয়ে দাও
রক্ত জবা অথবা ঝুমকো জবা রঙে, কিংবা কৃষ্ণচুড়া রঙে,
দিতে পারতে শিমুল অশোক বা জারবেরা অথবা মনিকুন্তলা
ফুলে সাজিয়ে আমার মনঘর,
নিমেষেই রঙিন করে দিতে পারতে ভালোবেসে
কিছু রঙিন ফুল উপহার দিয়ে-কই তাতো করলে না
কেবল নীল বিষণ্ণতায় পুড়িয়ে মারো হরদম।



(ছবি তোলার স্থানঃ ময়মনসিংহের ঢাকুয়া গ্রাম)

০৭। =সেই দিনের স্মৃতিগুলো ভেসে আসে বর্ষার জলে=
অতীতের এক কোণে এমন এক প্রহর ছিলো, যেখানে কাদাজলে মাখামাখি সময়,
পুকুরের জলে অথবা ডোবায় ডুব সাঁতার বেলা কিংবা
জলের নিচ থেকে তুলে আনা রূপালী নুপুর, আহা টেংরা পুটির নাচন
দলবেঁধে ঘোলা জলে হাঁটু ডুবিয়ে কাটিয়ে দেয়া প্রহরগুলো আজও যেনো কাছে ডাকে।



(ছবি তোলার স্থানঃ ময়মনসিংহের ঢাকুয়া গ্রাম, ধলাই নদী)

০৮। =কৃষকের হাসি বড্ড ভালোবাসি=
কপালের ঘাম টুপটাপ করে জলে পড়ে যাদের
তাদেরও ঠোঁটে দেখি তৃপ্তির হাসি,
কাদাজলে পা ডুবিয়ে সন্ধ্যা অবধি যারা বুনে যায় ফসল,
তাদেরও মনে সুখ রাশি রাশি,
তাদের সেই সুখ হাসি বড্ড ভালোবাসি।



((ছবি তোলার স্থানঃ ময়মনসিংহের ঢাকুয়া গ্রাম)

০৯। =সুখের স্মৃতি রাখবো তুলে সিঁকেয় করে হাঁড়িতে=
মন হাঁড়িতে সুখ রেখেছি, একটু নেবে তুমি?
করবে উর্বর প্রেমে আমার, তোমার বুকের ভূমি?
মন রেখেছি সিঁকেয় তুলে, নামিয়ে কী আনবে?
ভালোবেসে একটু আমায়, কাছে কী আজ টানবে?



((ছবি তোলার স্থানঃ বৃক্ষমেলা, আগাওগাও)

১০। এসো সারি সারি বৃক্ষ ছুঁয়ে হাঁটি অনন্ত পথ,
শক্ত করে ধরো হাত, ছাড়বে না আমায় করো শপথ,
এখানে মন রাখলেই তুমি মুগ্ধতায় হবে আচ্ছন্ন,
চোখে পুরে নাও সবুজ অরণ্য।
নিবিড় ছায়ার পথ ধরে চলো আমার সঙ্গে,
যদি কখনো ক্লান্তি ধরে ফেলে, চা খাবো দুজন বসে টঙে।



((ছবি তোলার স্থানঃ চুনারুঘাট চা বাগান)

১১। =চলো প্রকৃতির কাছে যাই=
পাদুকা খুলে ফেলো এবেলা, নেবে ধূলো মাটির স্পর্শ?
শহরের ক্লান্তি উড়িয়ে দাও, নি:শ্বাস টানো জোরে,
প্রকৃতির বুকে পা রেখে হয়ো না উদাস, মুখ রেখো না বিমর্ষ,
থেকো না আর এখানে বিষাদের ঘোরে!



(ছবি তোলার স্থানঃ ময়মনসিংহের ঢাকুয়া গ্রাম)

১২। =পুরোনো সভ্যত্যার পথে হাঁটলেই=
পুরোনো সভ্যতার পথে হেঁটে গেলেই কেমন যেনো রাজা রাণী ঘ্রাণ পাই;
আনমনা আমি, কল্পনার রাজ্যে হারাই;
পুরোনো সভ্যতার পথে গেলেই আমি দেখতে পাই রক্তের দাগ;
আনমনা আমি, ভাবি অথচ এখানেই ছিলো রাজা রানীর ভালোবাসা রাগ অনুরাগ।



(ছবি তোলার স্থানঃ পানাম সিটি, নারায়নগঞ্জ)

সর্বশেষ এডিট : ১৭ ই জুন, ২০২১ বিকাল ৪:৩২
৩৬টি মন্তব্য ৩৬টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

অর্কিড ফুলের ছবি

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ২৫ শে মে, ২০২২ বিকাল ৪:৫৫



অর্কিড (Orchid) একটি সপুষ্পক উদ্ভিদ।
অর্কিড ফুলের আকার, রং আর ধরণের শেষ নাই। এদের ফুল রঙিন আর সুগন্ধি হয়। আবার কিছু কিছু বর্ন ও গন্ধহীনও হতে পারে।

বেশীর ভাগ অর্কিডই পরাশ্রয়ী।... ...বাকিটুকু পড়ুন

এত বড় কবি কেন দারিদ্রতা থেকে মুক্তি পেলেন না?

লিখেছেন সোনাগাজী, ২৫ শে মে, ২০২২ রাত ১০:৪০



বাংগালীরা পড়তে ও লিখতে জানতেন না, যারা সামান্য লেখাপড়া জানতেন, তাঁদের বড় অংশ ছিলেন দরিদ্র, যাদের সামর্থ ছিলো, তারা বই কিনতো না; এই কারণে, কবির তেমন আয় ছিলো না। তখনকার... ...বাকিটুকু পড়ুন

অন্যের শরীরের আকৃতি নিয়ে আঘাত করে পোস্ট দেয়া একজন লেখকের উচিৎ না

লিখেছেন মোহাম্মদ গোফরান, ২৬ শে মে, ২০২২ রাত ১২:৩৮


ফেসবুক স্ক্রল করসিলাম। হঠাট আন্দন্দ বাজার পত্রিকার একটি নিউজে থমকে গেলাম।নিউজটির শিরোনাম ব্লগে শেয়ার করার মতো না মনে হলো। নিউজ লিংক যুক্ত করে দেয়া হয়েছে। তাই এখানে কপি পেস্টের... ...বাকিটুকু পড়ুন

গ্রামের সুন্দর মুহুর্তগুলো।

লিখেছেন সৈয়দ মশিউর রহমান, ২৬ শে মে, ২০২২ সকাল ১০:১০

গ্রাম্য শিশু বালিকা বেশে।


শিশুটির বয়স খুবই কম। কিন্তু সে মোবাইল চালনায় বিশেষ পারদর্শী। সাজুগুজুর কথা বললে তো কথায় নেই; প্রথম কাজ হলো ঠোঁটে লিপিস্টিক দেওয়া এবং বিশেষ ভঙ্গিমায়... ...বাকিটুকু পড়ুন

আহা!! ই-পাসপোর্ট !!

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ২৬ শে মে, ২০২২ সকাল ১০:৫২



আমার সর্বশেষ এমআরপি পাসপোর্টটি মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়েছে ১৬ই ডিসেম্বর ২০১৭ইং তারিখে।
তারপরে নানার কারণে (মূলত আলসেমী ও প্রয়োজন না থাকা এবং শেষে করনার উসিলায়) আর পাসপোর্ট তৈরি করা হয়নি।... ...বাকিটুকু পড়ুন

×