somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

বাংলাদেশী স্যাটায়ারে ভারতে তোলপাড়, আপনি কি পাটকেল চিনেন?

০২ রা জুলাই, ২০১৫ রাত ১১:৫৩
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



প্রথম আলোর স্যাটায়ার চিত্রের রি-অ্যাকশনে গতকাল একটি ইন্ডিয়ান টিভি সাক্ষাতকারে ভারতের তৎকালীন ক্যাপ্টেন মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন ফতোয়া দিয়েছে -- বাংলাদেশকে নাকি ক্রিকেট খেলাই বন্ধ করে দেয়া দরকার , শুধু তাই নয়, ভারতীয় সরকারের (!!) উচিৎ বাংলাদেশের বিরুদ্ধে অ্যাকশনে যাওয়া!

হু দ্যা ফাক ইউ আর, ম্যাচ ফিক্সিং করে আজীবন ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়া মোহাম্মদ আজহার ?



Before india started playing, cricket was a gentleman's game.

স্বতঃসিদ্ধ এই বাক্য সদ্য জন্মজাত শিশুও বলে দিতে পারে। ক্রিকেটকে ব্যবসা চিয়ার লিডার এবং নোংরামীর স্বর্ণশিখরে তুলে ধরতে ভারতের অবদান অস্বীকার্য। ম্যাচ ফিক্সিং এর তালিকায়ও ভারত গর্বের সাথে এগিয়ে। ম্যাচ ফিক্স করে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হওয়া ক্রিকেটারদের মধ্যে রয়েছে খোদ ভারতের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আজহারউদ্দিন ,আছে অজয় জাদেজা, অজয় শর্মা, মনোজ প্রভাকর , শ্রীশান্তের মতো খেলোয়াড়রা।

যে আইপিএল নিয়ে ভারত ক্রিকেট ধ্বংসের পাঁয়তারা করছে সেই আইপিএলের সাবেক কমিশনার ললিত মোদী ঘুষ কেলেঙ্কারিতে জড়িত। সুরেশ রায়না, রবীন্দ্র জাদেজারাও ঘুষ নিয়েছে বলে তথ্য প্রমান বেরিয়ে আসচ্ছে, দিন কে দিন আরও প্রমান মিলবে।
সেই ঘুষখোর ম্যাচ ফিক্সিং এর দেশ ভারতে আজ বাংলাদেশী পত্রিকার একটি স্যাটায়ার চিত্র দেখে তেলে বেগুনে জ্বলে উঠেছে। সমগ্র ভারতের প্রধান প্রধান দৈনিক , টিভি মিডিয়া একসাথে বলছে -- ব্যাঙ্গ চিত্রে ধোনীদের মাথা ন্যাড়া করে দেয়া অপরাধ হয়েছে!
ব্যাঙ্গচিত্র বা স্যাটায়ার সারা পৃথিবীতে একটি প্রচলিত মাধ্যম। শত শত পত্রিকা ম্যাগাজিন, টিভি শো কেবল মাত্র স্যটায়ারের জন্য বিখ্যাত। খোদ ভারতে তাদের মিনিস্টারস, মুভি স্টারদের নিয়ে বাঙ্গচিত্র হয় এবং সেখানে তারাও অংশগ্রহণ করে। পিকে ছবিতে ইন্ডিয়ান ধর্মগুরুদের নিয়েও স্যাটায়ার করা হয়েছে এবং কয়েকশ কোটি বিজনেসও করেছে। আমেরিকায় ওবামা নিয়ে কতো প্রকার বিদঘুটে স্যটায়ার যে হয়েছে তা দেখলেও অবাক হতে হবে। এমনকি বাংলাদেশেও আমাদের মন্ত্রী মিনিস্টার নিয়ে স্যটায়ার করা হয়।



সেই স্যাটায়ার নিয়ে যদি ভারতীয় গণমাধ্যমে এতোটা কান্নাকাটি শুরু হয়ে যায় তবে সেটি সত্যি হাস্যকর। আর যদি সিরিয়াসলি নিতে হয় তবে ফিরে যেতে হবে পিছনে ... উত্তর জানতে চাওয়া লাগবে কিছু প্রশ্নের।

আমরা জানতে চাই - মওকা মওকা কালচার কে শুরু করেছে? সারা বিশ্বের ক্রিকেট নিয়ে তামাশা কারা টেলিভিশনের মাধ্যমে দুনিয়ার কোনায় কোনায় ছড়িয়ে দিয়েছিল? ভারত - বাংলাদেশ সিরিজ শুরুর আগে বাংলাদেশকে কারা বাচ্চা সম্বোধন করেছিল? কারা মাশরাফির নামে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে বলেছে যে সে ধোনির কাছে ব্যাট চাইতে গেছে?

মওকা মওকা ভিডিও

কেন আইসিসি সভাপতি মোস্তফা কামালকে বিশ্বকাপ ফাইনালের মঞ্চে রাখা হয়নি , কেন তাকে পুরষ্কার তুলে দিতে দেয়া হয়নি ? অথচ আইসিসির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী পুরষ্কার তুলে দেওয়ার ক্ষমতা আইসিসি সভাপতি মোস্তফা কামালের। কিন্তু সেদিন তাকে ট্রফি তুলে দেয়া দূরে থাক, পুরস্কার বিতরণী মঞ্চেই রাখা হয়নি। কেন?



ডিয়ার ইন্ডিয়া,
ময়লা নাড়াচাড়া দুর্গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে। তোমরা দিনের পর দিন ক্রিকেটবিশ্ব নিয়ে তামাশা করেছো, সমগ্র ক্রিকেটকে ব্যাঙ্গ করেছো , নিজের ইচ্ছে মতো ক্রিকেট সাজিয়েছ। অহংকারের দম্ভে তোমরা ভেবেই নিয়েছিল তোমরাই একমাত্র রাজা , তাই প্রজা ভেবে সমগ্র ক্রিকেট ন্যাশনকে এতোটা সময় ধরে অবজ্ঞা করে এসেছো ।

কেউ কখনো তোমাদের ভয়ে তোমাদের সামনে দাড়িয়ে চোখে চোখ রেখে বলতে পারেনি -- ইটটি মারলে পাটকেলটি খেতে হয়।
জি হা, বাংলাদেশ ক্রিকেট বিশ্বের প্রথম এবং একমাত্র জাতি যারা তোমাদের ইটের বিনিময়ে পাটকেল দেখিয়েছে।

আজ পাটকেল দেখে তোমাদের মাথা খারাপ হয়ে গেছে। তোমরা উদভ্রান্তের মতো আচরণ করছো। কারণ এমন অভিজ্ঞতা তোমাদের আগে কখনো হয়নি। তোমরা সারাটা জীবন বাঁশ দেখিয়েছো , কখনো দেখনি। এইবার জীবনে প্রথমবারের মতো অনুভব করতে পারলে রঙ্গ তামাশা ফিডব্যাক কেমন হতে পারে।

তোমরা শুরু করেছিলে, আমরা না হয় শেষ করতে চেষ্টা করলাম।

এইবার লাইনে এসো।

[ ফেসবুক ওয়ালেও প্রকাশিত - ফেসবুক]

সর্বশেষ এডিট : ০৩ রা জুলাই, ২০১৫ রাত ২:১৯
৩০টি মন্তব্য ২৯টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

» আলোকচিত্র » আমাদের গ্রাম (প্রকৃতি)

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২২ বিকাল ৫:২৯

০১। সবুজ ধানের গায়ে একটা লাল লেডিবাগ



©কাজী ফাতেমা ছবি
=আমাদের গ্রাম=
যখনই আমার প্রিয় গাঁয়ে পা রাখি, মিহি ঘ্রাণ নাক ছুঁয়ে যায়। অন্তরে সুখের ঢেউ। যেখানে নাড়ী গাঁড়া, যেখানে কেটেছে শৈশব কৈশোর... ...বাকিটুকু পড়ুন

শ্রীলংকা কি উগান্ডার ভবিষ্যত নাকি আয়না?

লিখেছেন কাল্পনিক_ভালোবাসা, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২২ বিকাল ৫:৪৫

শ্রীলংকা ভয়াবহ একটি আর্থিক সংকটের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। ঋণের জালে জর্জরিত হয়ে তারা প্রায় দেউলিয়া হবার পথে। এর কারন হিসাবে মনে করা হয় -অর্থনীতি পুনরুজ্জীবিত করার নামে সরকারের অতিমাত্রায় বিদেশী... ...বাকিটুকু পড়ুন

দেখে আসুন সামরিক জাদুঘর......

লিখেছেন জুল ভার্ন, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৫৯

দেখে আসুন সামরিক জাদুঘরঃ

বাংলায় জাদুঘরের ধারণা এসেছে ব্রিটিশদের মাধ্যমে। কেবল বাংলায় নয় সমগ্র উপমহাদেশে জাদুঘরের ইতিহাসের সূচনা ১৭৯৬ সালে।

জাদুঘর সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক কমিশন আইসিওএম (১৯৭৪)-এর দশম সাধারণ সভায় জাদুঘরকে সংজ্ঞায়িত... ...বাকিটুকু পড়ুন

ক্ষণিকের দেখা, মায়াময় এ ভুবনে -৯

লিখেছেন খায়রুল আহসান, ১৬ ই জানুয়ারি, ২০২২ রাত ১১:৪৯


লোকটি তার ছেলেদেরকে হাঁটতে হাঁটতে গল্প শুনিয়ে যাচ্ছে। বড় ছেলেটি তাকে নানা রকমের প্রশ্ন করছে, আর ছোটটি মাথার চুল আঁকড়ে ধরে বাবার ঘাড়ে বসে আছে। লোকটা ঘাড়ের শিশুটির ব্যালেন্স... ...বাকিটুকু পড়ুন

পৃথিবীর Blue Zones এবং নিজের কিছু ভাবনা!

লিখেছেন সাজিদ!, ১৭ ই জানুয়ারি, ২০২২ সকাল ৮:৩৮


ব্লগার জুলভার্ন সেদিন একটি পোস্ট দিয়েছিলেন, মানুষ কেন অমর হতে চায়? যত বয়স হচ্ছে এই প্রশ্নের সাপেক্ষে উত্তরটাও পরিবর্তন হচ্ছে, এবং উত্তরটা বড় হতে হতে একটা হলিস্টিক... ...বাকিটুকু পড়ুন

×