somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

জাদিদ
তুমি আমার রাতবন্দিনী। ধূসর স্বপ্নের অমসৃণ সুউচ্চ দেয়াল তুলে তোমাকে আমি বন্দী করেছি আমার প্রিয় কালোর রাজত্বে। ঘুটঘুটে কালোর এই রাজত্বে কোন আলো নেই। তোমার চোখ থেকে বের হওয়া তীব্র আলো, আমার হৃদয়ে প্রতিফলিত হয়ে সৃষ্টি করে এক অপার্থিব জ্যোৎস্না।

কমিউনিটি ব্লগে লেখার যোগ্যতা কি?

০৯ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৩৫
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

পৃথিবীতে অনেক ধরনের ব্লগ আছে তার মধ্যে কমিউনিটি ব্লগের ব্যাপ্তি বিশাল বড়। কমিউনিটি ব্লগ অনেকটা আমাদের প্রচলিত সমাজের মত। এখানে জ্ঞানী, বিজ্ঞানী, দার্শনিক, গল্পকার, কবি থেকে শুরু করে আম জনতা সবাই থাকবে। এমন কি যিনি এক লাইন লিখতেও সমর্থ নন, শুধু প্রশ্ন করার, উপলব্ধি করার এবং জানার ইচ্ছে আছে তিনিও একজন সম্মানিত ও গুরুত্বপূর্ণ ব্লগার হতে পারেন। কমিউনিটি ব্লগে প্রচলিত চিন্তাধারার বাইরের ব্যক্তিও স্থান পায়। কারণ সত্য মিথ্যার লড়াইয়ে তিনি হয়ত নিজেকে সংশোধন করবেন, নতুন করে নিজেকে জানবেন অথবা ঘাড় ধাক্কা খেয়ে বিদায় হবেন।

তাই কমিউনিটি ব্লগিং এতটা বৈচিত্র্যময় এবং এখানে ব্লগিং আনন্দজনক। যারা নির্দিষ্ট খোলস বা নির্দিষ্ট চিন্তার বাইরে গিয়ে কোন কিছু করতে পছন্দ করেন না তাদের জন্য কমিউনিটি ব্লগে দীর্ঘদিন সারভাইব করা বেশ কঠিন ব্যাপার। তারা অল্পতেই হতাশ হয়ে পড়েন, শুরু হয় ব্যক্তিত্বের সংঘাত, সম্মান অসম্মান এর দ্বন্দ্ব এবং ব্যক্তিজীবনের সাথে ব্লগ জীবনের অপ্রাসঙ্গিক তুলনা।

অনেকেই মনে করেন, ব্লগে লিখতে হলে বুঝি ভালো লেখক হতে হয়। কিছু নির্দিষ্ট বিষয় ভিত্তিক ব্লগ বা লেখক ফোরামের ক্ষেত্রে এই ধরনের ধারনা প্রযোজ্য হলেও কমিউনিটি ব্লগের ক্ষেত্রে তা একেবারেই অমূলক বা প্রযোজ্য নয়। কমিউনিটি ব্লগের একজন সদস্যের প্রয়োজনীয় গুন হচ্ছে পাঠক সত্তা, যৌক্তিক প্রশ্ন ও মতামত প্রদান করে আলোচনায় অংশগ্রহণ করা। কমিউনিটি ব্লগে বঙ্কিম চন্দ্র যেমন লিখতে পারেন তেমনি পাড়ার অখ্যাত হরিদাস পালও লিখতে পারেন। একজন পাঠক যে কোন লেখাকে মূল্যায়ন করার ক্ষমতা রাখেন। একজন পাঠক সাধারণত তাঁর নিজস্ব প্রজ্ঞা, দর্শন এবং সর্বোপরি লেখাটির অন্তর্নিহিত বক্তব্যের উপর ভিত্তি করে যে কোন লেখার মূল্যায়ন করেন। ফলে এতে পাঠকের চরিত্রও লেখকের কাছে পরিষ্কার হয়। যা সামগ্রিক আলোচনার জন্য খুবই গুরত্বপূর্ন।

কমিউনিটি ব্লগে সমালোচনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ এবং জনপ্রিয় একটি ব্যাপার। সমালোচনার কৌশল ও ব্যাপ্তিও বেশ বিশাল এবং ক্ষেত্র বিশেষে তা কিছুটা স্পর্শকাতরও বটে। সমালোচনার অনেক ধরন আছে। যৌক্তিক যে কোন সমালোচনা গ্রহণযোগ্য। অনেক সময় কমিউনিটি ব্লগে এমন কিছু পোস্ট আসে পাঠকরা অনেক সময় স্বাভাবিক নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে কঠোর ভাষায় ক্ষেত্র বিশেষে ব্যক্তি আক্রমণ করে তার সমালোচনা করেন। তত্বীয়ভাবে বা নীতিগতভাবে এটা সমর্থনযোগ্য না হলেও কমিউনিটি ব্লগে এটার সুপ্ত চর্চা এবং আংশিক অনুমোদন অব্যাহত আছে। যেমন ধরুন - স্বাধীনতা বিরোধী বা মূর্খ ধর্মান্ধরা সাধারণ লজিক বা ভদ্রস্থ সমালোচনার ইতিবাচকতা গ্রহণ করতে অধিকাংশ সময় ব্যর্থ হয়। ফলে প্রায়ই তারা অকথ্য সমালোচনার মুখোমুখি হন। অবশ্য সেগুলোকে সমালোচনার চাইতে এক ধরনের ব্যক্তি আক্রমণই বলা শ্রেয়। বৃহত্তর স্বার্থে এই ধরনের আক্রমণকে সবাই ইতিবাচকভাবেই দেখে।

আবার যারা গল্প কবিতা লিখেন তারা যদি বিভিন্ন ধরনের পাঠকের পাঠ প্রতিক্রিয়া না পান তাহলে তারা ভালো লেখক হতে পারবেন না। অনেকেই শুধু ভালো মন্তব্য পেতে চায়, নিজের লেখার সমালোচনাকে গুরুত্ব দেন না। ফলে সামগ্রিক আচরণগত প্রভাব এবং জ্ঞান অর্জন বা মিথস্ক্রিয়ার অভাবে ব্লগে নুনের অভাব পরিলক্ষিত হয়।

কিন্তু সমাজে যেমন একজন প্রশাসক থাকে, তেমনি কমিউনিটি ব্লগেও একজন প্রশাসক থাকে। যিনি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা এবং প্রতিটি লেখার নিরপেক্ষ বিচার বিশ্লেষণ করে সামগ্রিক সমালোচনা এবং আলোচনায় জায়গাটি নিয়ন্ত্রণ করেন। একজন প্রশাসক যেমন সবাইকে সন্তুষ্ট করতে পারে না, তেমনি কমিউনিটি ব্লগের নিয়ন্ত্রকরাও সবাইকে খুশি করতে পারে না। কমিউনিটি ব্লগের নিয়ন্ত্রকদের কাজ সকলের মত প্রকাশের জায়গাটিকে নিশ্চিত করা এবং সেই মত প্রকাশকে কেন্দ্র করে যে সকল ঘটনা ঘটতে পারে তার ফলাফল আগে থেকে নিরূপণ করে সেই ব্যাপারে কৌশলী সিদ্ধান্ত নেয়া।

কমিউনিটি ব্লগের সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য বিষয় হচ্ছে বিষয় এবং ব্যক্তি মানসিকতার বৈচিত্র্যময়টা। এখানে কেউ ঈশ্বরকে বিজ্ঞান দিয়ে প্রমান করতে চেষ্টা করেন, কেউ বিজ্ঞান দিয়ে ঈশ্বরকে উড়িয়ে দেন। কেউ ইতিহাসের নির্মোহ সত্য তুলে ধরে প্রচলিত ইতিহাসকে হুমকির মুখে ফেলে দেন, কেউ বা প্রচলিত ধারার বাইরে গিয়ে মত প্রকাশ করে অনেককে বিব্রত করেন। কমিউনিটি ব্লগের সবচেয়ে আকর্ষণীয় অংশ হচ্ছে মন্তব্য। একটা কয়েক লাইনের পোস্টে কয়েকশ কমেন্ট পড়তে পারে, দুর্দান্ত আলোচনা হতে পারে। মন্তব্য, প্রতি মন্তব্যে হতে পারে বুদ্ধিদীপ্ত আলোচনা।

সর্বোপরি কমিউনিটি ব্লগ একটি চলমান বাসের মত, এটা পাঁচ তারকা হোটেলের কোন সেমিনার রুম নয় যেখানে সবাই সেজেগুজে বাবু হয়ে বিভিন্ন বিষয়ে সুশীলতা এবং আতলামী করবে। আঁতেল বলতে এখানে ইন্টেলেকচুয়ালিটিকে বুঝানো হয়েছে। একটি চলমান বাসে বিভিন্ন পেশার, বিভিন্ন লেভেলের শিক্ষিত, বিভিন্ন দর্শন বা ধর্মের মানুষ থাকতে পারে, এখানে ক্যানভাসারও আছে, হেল্পারও আছে। এখানে পুরানো ঢাকার মানুষও যেমন থাকবে তেমনি কুষ্টিয়ার মিষ্টির ভাষার লোকও থাকবে। সবাই নিজস্ব পদ্ধতিতে, নিজস্ব কমিউনিকেশন লেভেল অনুসারে সবাই কথা বলবে, যোগাযোগ করবে। সেটাই স্বাভাবিক। এই বৈচিত্রতা নষ্ট হলেই তা অস্বাভাবিক হবে। অন্যের ভুল ধরার চাইতে নিজেকে নির্ভুল রাখাই সবচেয়ে ভালো প্রচেষ্টা।

তবে কমিউনিটি ব্লগে কিছু মানুষ থেকে সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। বিশেষ করে যারা নিজেদের বিতর্কিত আদর্শ অন্যদের মধ্যে সুকৌশলে ঢুকানোর জন্য চেষ্টা করে। এদের প্রচলিত নাম ছুপা। এরা নানা বর্ণে আপনার মাঝে উপস্থিত হতে পারে, কেউ গল্প লেখক হিসাবে, কেউ কবি হিসাবে, কেউ রম্যকার হিসাবে কেউ বা অন্য যে কোন নতুন পরিচয়ে। এদের ফাঁদে পড়ে নিজেদের আদর্শ ভুলে গেলেই আপনি গেছেন। এরা এক ধরনের অজ্ঞান পার্টি। বাস চলবে কিন্তু শেষ স্টেশনে এসে আপনার আর কিছুই থাকবে না।

কমিউনিটি ব্লগ হিসাবে সামহোয়্যারইন ব্লগ আমার খুবই প্রিয় জায়গা। জীবনের একটা দীর্ঘ সময় এখানে কাটিয়েছি। এখানে দায়িত্ব পালন করতে গিয়ে, ব্লগারদের রক্ষা করতে গিয়ে অনেকবার বিপদের সম্মুখীন হয়েছি, নিজের ব্যক্তিজীবন, মানসিক বিপর্যয়ের শিকার হয়েছি। কিন্তু তা স্বত্তেও আমি ব্লগের সাথে আছি। জানা আপা আমার চেয়েও বেশি ত্যাগ স্বীকার করেছেন। এটা আমার ভালোবাসার জায়গা। আমি আমার প্রিয় জায়গাটিকে কখনই ধর্মের মত সোশ্যাল সেন্সিটিভ ইস্যু নিয়ে ব্যবসা করতে দিবো না। তাই এখানে যে কোন শ্রেনীর ধর্ম ব্যবসায়ীদের স্থান নেই। আমাকে কে পছন্দ করবে না করবে - আমার কোন মাথা ব্যাথা নেই। তেমনি স্বাধীনতা বিরোধীদের বা চিহ্নিত দেশ বিরোধী আদর্শের কোন স্থানও এই ব্লগে হবে না। চিহ্নিত হওয়া মাত্রই বিদায় হবে, তা যত বড় ব্লগারই হোক না কেন। যত বিপদই আসুক আমরা সরকার, রাষ্ট্র পরিচালকদের যৌক্তিক সমালোচনা করব, সমালোচনা করব মানুষের ভোটের অধিকারের ব্যাপারে, দূর্নীতির বিরুদ্ধে।

নানাবিধ কারণে আমাদের প্রিয় সামু হয়ত কিছুটা জর্জরিত। কিন্তু এটা সাময়িক। আমরা খুব একটা আবার মাথা তুলে দাঁড়াবো। নতুন প্রজন্মের প্রতি আমাদের কিছু দায়বদ্ধতা আছে, যে প্রজন্মকে প্যারাডক্সিক্যাল সাজিদ দ্বারা ধ্বংস করার পায়তারা করা হচ্ছে তাদের জন্য সামহোয়্যারইন ব্লগ হবে একটি আলোকবর্তিকা। সংখ্যায় যত কম হই না কেন, এই কাজ আমরা চালিয়ে যাবোই।

শুরুতে বলেছিলাম, কমিউনিটি ব্লগিং করার যোগ্যতা কি?
কমিউনিটি ব্লগিং করার যোগ্যতা হচ্ছে - মানবিক হওয়া, যৌক্তিক হওয়া, প্রশ্ন করতে জানা এবং জানতে হবে কিভাবে আনন্দ করতে হবে। দ্যাটস ইট! এই যোগ্যতা নিজের জীবনের জন্যও প্রয়োজন!

সর্বশেষ এডিট : ০৯ ই এপ্রিল, ২০২২ রাত ১২:৫০
৩৪টি মন্তব্য ২৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

স্বর্গ থেকে বলছি...

লিখেছেন শেরজা তপন, ১৪ ই আগস্ট, ২০২২ সকাল ১১:৩৬


ভাষান্তরঃ স্বর্গত শেরজা তপন
মুলঃ স্বর্গবাসী নাম না জানা কিছু সোভিয়েত ‘বোকা ও দুষ্টু’ নাগরিক!
উৎপত্তিস্থলঃ চিরতরে স্বর্গে নির্বাসিত সমাজতান্ত্রিক ‘সোভিয়েত ইউনিয়ন’।
~ অনুবাদের ত্রুটির জন্য অনুবাদক দায়ী থাকিবেন কিন্তু বর্তমান সময়ের... ...বাকিটুকু পড়ুন

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড।

লিখেছেন সৈয়দ মশিউর রহমান, ১৪ ই আগস্ট, ২০২২ বিকাল ৩:২৬


বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের হত্যাকাণ্ড ছিল বাংলাদেশের সাবেক রাষ্ট্রপতি শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার ঘটনা। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট ভোরে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর একদল সদস্য সামরিক অভ্যুত্থান সংঘটিত করে এবং... ...বাকিটুকু পড়ুন

রম্য: তবে কেমন হতো তুমি বলতো?

লিখেছেন জটিল ভাই, ১৪ ই আগস্ট, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:৫১

♦أَعُوْذُ بِاللهِ مِنَ الشِّيْطَانِ الرَّجِيْمِ
♦بِسْمِ ٱللَّٰهِ ٱلرَّحْمَٰنِ ٱلرَّحِيمِ
♦ٱلسَّلَامُ عَلَيْكُمْ


(ছবি নেট হতে)

সুপ্রিয় ব্লগারস্,
কেমন আছেন সবাই? আশা করি আলহাম্দুলিল্লাহ্ ভাল আছেন। তা আমার আগের পোস্টে আপনাদের ব্যাপক সাড়া পেয়ে এই... ...বাকিটুকু পড়ুন

২১ আমার অহংকার

লিখেছেন মোঃআব্দুল গফুর প্রামানিক, ১৪ ই আগস্ট, ২০২২ রাত ৯:২৬

২১ আমার অহংকার
২১ আমার প্রান
২১ আমার রক্তে রাঙ্গা
ভাষা শহীদের গান ।
২১ আমার বিশের বাঁশী
বাজায় বিষাদ বীন
স্মরণ করে দেয় যে আমায়
সেই না দুঃখের দিন।
মরার আগে মরল... ...বাকিটুকু পড়ুন

খোলা চিঠি দিলাম তোমার কাছে ...... ৩

লিখেছেন কঙ্কাবতী রাজকন্যা, ১৪ ই আগস্ট, ২০২২ রাত ৯:৫৭



অপুভাইয়া,
তোমার সাথে আমার প্রথম পরিচয়টাই ছিলো একটা বিয়ের দাওয়াত নিয়ে। মানে তুমি তোমার বিয়ের দাওয়াৎ দিয়েছিলে আমাদেরকে। মনে আছে? হা হা মনে না থেকে যায়ই না। আমরা সবাই মনে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×