somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ভালোবাসার জৈবিক বিজ্ঞানঃ ঘ্রাণ (SCENT WITH LOVE)

১২ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১৪ বিকাল ৪:০০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

বিসমিল্লাহির রাহমানের রাহিম

ভালোবাসার জৈবিক বিজ্ঞানঃ ঘ্রাণ (SCENT WITH LOVE)
Love in air: best way to sniff out your perfect partner



যদি বলি আপনার মস্তিষ্ক খুব অলস আর অমনোযোগী এর কর্ম দক্ষতা শরীরের অন্য অঙ্গ গুলোর তুলনায় নিম্ন মানের। বিশ্বাস করবেন কি ? জানি করবেন না। না করেন, আমার কি !!? তবে আমি অবশ্যই এতে খুশি যে আমার মস্তিষ্ক অমনোযোগী। যাইহোক আসল কথায় আসি। আমার এক সময় এক girl friend ছিল, সে আমার after shave এর প্রেমে পড়েছিল, কিশোর কালের কথা, সম্পর্কটা টিকে নাই, না বরং বলা উচিৎ ভাগ্যিস সম্পর্কটা টিকে নাই!!

আমার ঘ্রাণ শক্তি প্রবল আমার ধারনা কুকুরের এদিক সেদিক হবে আরকি। অস্ট্রেলিয়ান এ্যবরোজিনিরা যারা মাটি শুঁকে শুঁকে পানি খোঁজ করতেন, তারা আমার খুব কাছের জেনেটিক আত্মিয়-স্বজন হবেন হয়ত!! মেয়েটা ভালোই সুন্দরী ছিল কিন্তু গায়ের গন্ধ আমার জন্য pleasant ছিলনা। আমি ভাবতাম bad hygiene কিনা?? কিন্তু জায়গা মত জিজ্ঞাসতো আর করা যায় না!! নির্লজ্জের মত বন্ধুদের বলেছি কিন্তু ঐ ব্যাটারা আমার সাথে একমত না। কিন্তু মজার ব্যাপার হল আমি খেয়াল করছিলাম মাঝে মাঝে উনি আমার সাথে একটু বেশীই ঘেষা ঘেষি করে ফেলেন, মনে হোত it’s so unusual for her!! আর আমি বরাবরই ছিলাম লাজুক প্রকৃতির, মানে সব মিলিয়ে আমার মাথার মধ্যে জগাখিচুরি অবস্থা!!

দিন গুলো চলে যাচ্ছিল। ঘেষা-ঘেষি কার না ভালো লাগে!! কিন্তু ব্যাপার হল মাঝে মাঝে এত বাড়ে কেন?? আবিষ্কার করলাম, all credit goes to আমার বড় খালাতো বোনের কিনে দেয়া after shave এর কাছে। আমি ভাবতাম নাজানি কোন পৌরুষে আমি তাকে আকৃষ্ট করতাম, কিন্তু কাহিনি তা না, আমি সেভ করি আর না করি, ঐ after shave লাগালেই উনার আর control থাকত না!!! কিন্তু কেন জানি i never get used to her গায়ের গন্ধো (ঘ্রাণ!!)। anyway বেশীদিন pain নিতে হয় নাই আমাকে। তা আবার আরেক ছোট গল্প।



আমাদের ভালবাসা তৈরির সাথে আমাদের সকল ইন্দ্রিয় কাজ করে, i mean every single one । শ্রবন, দর্শন, ঘ্রান, স্বাধ, স্পর্শ কোনটাই বাদ যায় না। দর্শনের ব্যাপারে অনেকেই অনেক কিছু বুঝে গেছেন হয়ত, কেউ হয়ত স্পর্শ নিয়ে নানা রকম জল্পনা কল্পনা করছেন, কিন্তু বিশ্বাস করেন গুরুত্তের দিক দিয়ে এরা কেউ কারোর চেয়ে কম জান না। এদের প্রতিটারই কাজ হল আমাদের জন্য এমন একজন সাথী ঠিক করা, যার সাথে আমাদের জিনের মিলনে যে বাচ্চা-কাচ্চারা তৈরি হবে তাদের থাকবে highest survival possibility ব্যাস that’s it . আপনি বিশ্বাস করুন আর নাই করুন। সাহিত্যিকরা আপনারা ভালোবাসাকে eternal, forever ব্লা ব্লা ব্লা ভাবতে পারেন কিন্তু ভালোবাসা শুধুই physical, practical & it’s all about survival of human race.

আজকে ঘ্রাণ নিয়ে কিছু বলি।


ব্রাউনিয়ান মুভমেন্টের কথা অনেকেই জানেন, ব্রাউনিয়ান মুভমেন্টের মাধ্যমে বাতাসে ভেসে যখন রাস্তার পাশে পড়ে থাকে হাগুর ক্ষুদ্রাতি-ক্ষুদ্র কনা আমাদের নাকের olfactory receptor গুলোতে এসে লাগে তখনই আমাদের olfactory নার্ভ stimulated হয় limbic system এ যায় শেখান থেকে আরো process হবার পর আমরা ঐ হাগুটার গন্ধ পাই। একি ম্যাকানিজম আমাদের সকল ধরনের গন্ধ বা ঘ্রাণ পাওয়ার সাথে জড়িত। তা ফুলের গন্ধই হোক বা বৃষ্টির!!

এই limbic system টাই অনেক ঝামেলার কেন্দ্র বিন্দু। এটা আমাদের memory, emotion, sexual arousal, pleasure, behavior , hormonal system এমন কি জীবনের একটা পর্যায় sexual development এবং psychosexual development এর কাজ পর্যন্ত করে। খেয়াল করলে দেখবেন যে অনেক সময় বিশেষ কোন ঘ্রাণ আপনার ভালোলাগায়, খারাপ লাগায়, কোন বিশেষ কোন স্মৃতি মনে করিয়েদেয়, কি দেয় না?? যদি না দেয় আপনি এখনও বেশী বড় হন নি !!!



ভয়ানক ব্যাপার হচ্ছে ব্রাউনিয়ান মুভমেন্টে ভেসে আসা ক্ষুদ্রাতি-ক্ষুদ্র আরো অনেক কিছুই আমাদের olfactory receptor গুলো process করে যাদের কোন গন্ধ বা ঘ্রাণ কিছুই নাই কিন্তু তারা আমাদের মন-মস্তিষ্ক কাপিয়ে দিতে সক্ষম। এই রকমই এক ধরনের কনা হচ্ছে pheromone যাদের কৃত কর্মের কথা বিস্তারিত অন্য আরেক দিন বলব। আজকের বিষয় শুধুই প্রেমিক বা প্রেমিকার যে ঘ্রাণ আমরা পাই বা আদৌ যদি পাই তা কি করে আমাদের সাহায্য করে তা।

Immune system হচ্ছে আমাদের শরীরের প্রতিরক্ষা ব্যাবস্থা। এই immune system যদি আপনার সন্তানের বেশি ভালো হয়, আপনার সন্তানের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা অনেক বেশি ভালো হবে। যে কোন infection ব্যাটিরিয়া, ভাইরাস এমনকি ফাঙ্গাস যা দিয়েই হোক না কেন আপনার সন্তান তাদের বিরুদ্ধে ভালো লড়তে পারবে। এমন কি আপনার সন্তানের শরিরে তৈরি হওয়া নানা রকম ক্যানসার সেল বা অযোচিত কোন পদার্থের বিরুদ্ধেও আপনার সন্তান হবে প্রবল ক্ষমতাশীল।

এখন আপনার সন্তানের শরীরের immune system কতটা ক্ষমতাশালী তা নির্ভর করে তার MHC (major histocompitibiliy complex) অনু গুলো কতটা divers তার উপর। আর তার MHC অনু গুলো তখনই divers হবে যখন আপনার ও আপনার সন্তানের মায়ের MHC অনু গুলোর যত অমিল থাকবে। অর্থাৎ আপনার MHC অনু আর আপনার স্ত্রীর MHC অনুর যত বেশি পার্থক্য থাকবে আপনার সন্তানের immune system ততটাই উন্নত মানের হবে।

কিয়ের মধ্যে কি প্রেম ভালবাসার মধ্যে MHC অনু আর immune system কৈ থেকা আইলো?

দেখাগেছে নারী পুরুষের MHC অনুর পার্থক্য যত বিস্তর হয় তারা একে অপরের ঘ্রাণ ততই বেশি পছন্দ করেন। আর MHC অনু যত বেশি similar হয় তারা একে অপরের ঘ্রাণ তত বেশি অপছন্দ করেন। এবং এই গন্ধা গন্ধির ব্যাপারে মেয়েরা বেশী sensitive হয়ে থাকেন, আর পুরুষরা কম। অর্থৎ মেয়েরা এই ব্যাপার গুলো বেশি বুঝেন। আমার কেইস different !!!!



সাবধান বাণীঃ

১) বোনদের পছন্দ করা পার্ফিউম সাবধানে ব্যাবহার করবেন!! :P:P

২) হাগু থেকে মনে পড়ল অজু আর গোসলে নাকে পানি দিয়ে ভুলবেন না যেন!! আর গোসলেতো এটা ফরয। ;);)

৩) যদিও বিয়ের আগে প্রেম না করাই ভালো, তার পরও যদি কেউ করেই ফেলেন তাহলে চেষ্টা করবেন, কোন রকম পারফিউম ছাড়া প্রেম করার। কারন বিয়ের পরেতো আর ৫-১০ মিনিট বা ১ঘন্টার জন্য দেখা হবে না!!!:|:|

৪) দূর্গন্ধ যুক্ত কোন স্থানে কাউকে প্রোপোজ করবেন না।X(X(

৫) সুগন্ধ যুক্ত স্থানে আপনার যুগলকে complement দিবেন।:D:D

৬) জীবন সঙ্গি বা সঙ্গিনী যদি বলেন যে “you smell good” তাহলে নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করুন , কিন্তু ভাব মারবার দরকার নাই, সোজা কথা don’t give her a bad memory with a good smell. ;);)

৭) আর এই পোষ্টটাকে ফালতু মনে করলেও এই পোষ্টের বিজ্ঞানকে ফালতু মনে করা হবে এক চরম ভুল। :)

ভাগ্য ভালো এখন মনে হয় এ জন্য যে, যদি সে কোন প্রসাধনী ব্যাবহার করত আর ultimately যদি আমাদের বিয়ে হোত, তাহলে নিশ্চিত ভাবেই ব্যাপারটা মোটেই আমার বা আমাদের সন্তানদের জন্য ভালো হোত না। তবে আশা করি তার গায়ের গন্ধ(ঘ্রানো) কোন পুরুষের কাছে ইয়ার্ডলি পাউডারের চেয়ে সুমধুর লাগুক।

উৎসর্গ ঃ সদ্য প্রয়াত (সৌভাগ্যবান) ব্লগার এক(দুই)জন আরমান। আর সকল বিবাহিত নারীদের যারা loves there husband’s smell.



সবাইকে পহেলা ফালগুনের শুভেচ্ছা।


সূরা আল আ’রাফ আয়াত ১৮৯-১৯০ঃ

তিনিই সে সত্তা যিনি তোমাদিগকে সৃষ্টি করেছেন একটি মাত্র সত্তা থেকে; আর তার থেকেই তৈরী করেছেন তার জোড়া, যাতে তার কাছে স্বস্তি পেতে পারে। অতঃপর পুরুষ যখন নারীকে আবৃত করল, তখন, সে গর্ভবতী হল। অতি হালকা গর্ভ। সে তাই নিয়ে চলাফেরা করতে থাকল। তারপর যখন বোঝা হয়ে গেল, তখন উভয়েই আল্লাহকে ডাকল যিনি তাদের পালনকর্তা যে, তুমি যদি আমাদিগকে সুস্থ ও ভাল দান কর তবে আমরা তোমার শুকরিয়া আদায় করব।
অতঃপর তাদেরকে যখন সুস্থ ও ভাল দান করা হল, তখন দানকৃত বিষয়ে তার অংশীদার তৈরী করতে লাগল। বস্তুতঃ আল্লাহ তাদের শরীক সাব্যস্ত করা থেকে বহু উর্ধে।”


চিন্তাকরতে থাকুন।



আসসালামুয়ালাইকুম। ভালোবাসার জৈবিক বিজ্ঞানঃ BROKEN HEART
৪৮টি মন্তব্য ৪৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

কার্ড

লিখেছেন হাসান মাহবুব, ২৬ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ৯:১৫


তার সাথে আমার যখন দেখা হয়েছিল, তখনও এই শহরে মেট্রোরেল আসে নি। লোকাল বাসে করে যাতায়াত করি মিরপুর-মতিঝিল-মিরপুর। ক্লান্তিকর। সেদিন অনেকক্ষণ দাঁড়িয়ে থেকেও সরাসরি মতিঝিলের বাস পাই নি ।... ...বাকিটুকু পড়ুন

ইসলাম কখনোই ধন-সম্পদের লোভ দেখিয়ে যুদ্ধের কথা বলে না

লিখেছেন সত্যপথিক শাইয়্যান, ২৬ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:০৪



আমি পুরো কুরআন পড়েছি, এবং এখন পর্যন্ত যত দূর প্রিয় নবীজীর পথ শিখেছি, তা থেকে জানি যে, ইসলাম কখনোই আক্রমণ করার কথা বলে না। ইসলামের শেষ নবী (সাঁ)-এঁর... ...বাকিটুকু পড়ুন

সহজ ভাষায় লিখলে হয় সস্তা-দরের লেখক!

লিখেছেন শেরজা তপন, ২৬ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১১:২৭


ওপার বাংলার কথাশিল্পী সমরেশ মজুমজারের সাথে হুমায়ূন আহমেদের বেশ খাতির ছিল।তিনি ব্যক্তিগতভাবে মনে করেন, রবীন্দ্রনাথ ও শরতচন্দ্রের পরে বাংলা ভাষার সবচেয়ে জনপ্রিয় লেখক ‘হুমায়ূন আহমেদ’।
তবে আমার মত ভিন্ন; আমি মনে... ...বাকিটুকু পড়ুন

জনতার উচিৎ মেয়েটির কাছে ক্ষমা চাওয়া

লিখেছেন জ্যাক স্মিথ, ২৭ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ রাত ১২:৪৭



কিছু হলেই অনুভূতিতে আঘাত, পান থেকে চুন খসলেই ধর্ম গেলো গেলো; মেরে ফেলো, কেটে ফেলো, পুতে ফেলো এসবই হচ্ছে ধর্মান্ধ জনগোষ্ঠীর মনোভাব। সময় এসেছে এসব সেন্টিমেন্টাল জনগোষ্ঠীর অনুভূতি... ...বাকিটুকু পড়ুন

ধর্ম শেখানোর সুযোগ পেলে কি শিখাবেন?

লিখেছেন শূন্য সারমর্ম, ২৭ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২৪ সকাল ৯:৪০








কিছুদিন আগে নানু মারা যাওয়ায় জানাযারর সময় নিয়ে সমস্যা হলো,তা ছিলো ঐ দিনই বাড়ির খুব পরিচিত মুখও ক্যান্সারে অনেক মাস যুদ্ধ করে মারা যায়।মাঠ যেহেতু একটাই,পরে ঠিক হলো সকাল ১১... ...বাকিটুকু পড়ুন

×