somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আপনি শুরু করুন অন্যরাও শুরু করবে!

০৭ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

আপনি শুরু করুন অন্যরাও শুরু করবে!

মশার কামড় খেয়ে হাসপাতালে মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়া মানুষেরাই, তাদের আত্মীয়-স্বজন, বন্ধুবান্ধব, পাড়া-প্রতিবেশীসহ একদিন মশা নিধনে দলগত অভিযানে নামবে। আমার দৃঢ় বিশ্বাস, রাষ্ট্র, সিটি কর্পোরেশান, পৌরসভা, ইউনিয়ন কাউন্সিল থেকে মশা মারার অপেক্ষায় না থেকে এই জনগণই নিজেরা বাঁচার জন্য মশা নিধনে একদিন সক্রিয় হবে। কারণ মানুষের শক্তি মশার চেয়ে কয়েক হাজার গুণ বেশি।

মানুষ নিজের শক্তি ব্যবহার না করে যখন রাষ্ট্রের মত একটা অন্ধ পাওয়ার হাউজের উপর খুব বেশি নির্ভরশীল হয়ে যায়, তখন মানুষের জীবনে নানারকম উৎপাত শুরু হয়। আমরা নিজেরা পরিবেশের যত্ন না করে রাষ্ট্রের উপর দায়িত্ব চাপিয়ে দিতে অভ্যস্থ। রাষ্ট্র সেই যত্ন করতে গিয়ে কিছু চুরিচামারি করবে নাকি আসল কাজটা করবে? ফলে পরিবেশের পরিচ্ছন্নতা রাষ্ট্রের চেয়ে ব্যক্তি মানুষের দায়িত্বের মধ্যে পড়ে।

তবে পাবলিক প্লেসের পরিচ্ছন্নতা রাষ্ট্রের দায়িত্বের মধ্যে যেমন পড়ে, তেমনি পাবলিক প্লেস নোংরা না করাটাও ব্যক্তির উপর গড়ায়। পৃথিবীর সবচেয়ে নোংরা শহরের উপর যদি ''ধিক্কার পুরস্কার'' দেওয়া হয়, আমি নিশ্চিত সেই পুরস্কার পাবে ঢাকা শহর! ঢাকা শহর নোংরা করে কে? পাবলিক। পাবলিকের আচরণে যদি এই পরিচ্ছন্নতার ব্যাপারটি কাজ করে, তখন আর শহর নোংরা হবার ভয় নাই।

ঢাকা শহরে পাবলিক টয়লেট বলতে গেলে নাই। রাষ্ট্র এটা জেনেও না জানার ভান করে। পুরুষ লোকজন রাস্তার পাশেই মেরে দেয়। কিন্তু মেয়েদের যে কত দুর্যোগ পোহাতে হয়, এটা রাষ্ট্র তা জেনেও কোনো উদ্যোগ নেয় না। এখানেই রাষ্ট্র ব্যর্থ। এখানেই আমাদের নীতি নির্ধারকগণ সবকিছু জেনেশুনেও বসে বসে আঙুল চোষেন! এই হালার পুতগো রাস্তায় হিসি পায় না! তাই না?

রাষ্ট্র যেমন পরিবেশ তৈরি করবে, সেই রাষ্ট্রের জনগণ সেই পরিবেশ রক্ষা করতে ধীরে ধীরে অভ্যস্থ হয়ে উঠবে। এটাই আসল কথা। শিল্পকলা একাডেমি'র মত রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠানে, যেখানে আর্ট-কালচার মারানো লোকজন রাষ্ট্রীয় অনুষ্ঠানে যাতায়াত করেন, সেখানে অনুষ্ঠান শেষে খাবারের প‌্যাকেট খেয়ে যে যার মত ফেলে রেখে চলে যায়। কোনো শৃঙ্খলা নাই। এই শৃঙ্খলার কাজটিতে রাষ্ট্রের ভূমিকা পালন জরুরি।

যে পাবলিক রাস্তায় হাগে-মোতে, সেই পাবলিক ঠিকঠাক লড়ানি খেলে কিন্তু লাইনে আসতে বাধ্য। আগে বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠন মানুষকে এসব নিয়ম কানুন শেখাতো। বিশেষ করে পরিবেশের যত্ন বিষয়ে সচেতনতা করানো, আপনার পরিবেশ কীভাবে সুন্দর রাখবেন, এসব। এখন এসব সংগঠনের নেতারা রাষ্ট্রীয় চুরিচামারিতে ভাগ বসাতে এতই ব্যস্ত যে, বছরে তাদের এ ধরনের একটাও কর্মসূচি চোখে পড়ে না।

আপনার বাসার ভেতরে খুব সুন্দর পরিবেশ, কিন্তু আপনি বাসার জমানো ময়লা জানালা দিয়ে বাইরে ছুড়ে মারেন। তাহলে আপনার এই বাহাদুরির কোনোই মূল্য নাই। আপনি আসলে একটা নষ্টমাল। পরিবেশ বিষয়ে আপনার কোনোই আগ্রহ নাই। টাকার গরমে আপনি এরকম আস্ফালন করছেন।

যে রাষ্ট্র সুন্দরবন ধ্বংস করে উন্নয়নের জোয়ার দেখাতে চায়, সেই জাতির পরিবেশ বিষয়ে জ্ঞানের পরিধি তো সবাই বুঝতে পারে। সুতরাং এই রাষ্ট্রের শাসকদের তোয়াক্কা না করে আসুন নিজেরা বাঁচার জন্য নিজেদের পরিবেশ নিজেরা পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখি। অন্তত মশার কামড়ে বীরের মত যাতে কারো মরতে না হয়, তা নিশ্চিত করি।

সবাই কথা বলুন। আপনার সামনে কেউ ময়লা ফেললে তাকে ভালো কথায় বুঝিয়ে নির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা ফেলানোর দায়িত্ব আপনিও পালন করুন। দেখবেন মানুষ একসময় নির্দিষ্ট জায়গায় ময়লা ব্যবহার করায় অভ্যস্থ হয়ে যাবে। রাষ্ট্র যেটা পারে না, সেটা জনগণই পারে। আমাদের অভ্যাস ঠিক করলেই ৮০ শতাংশ কাজ এমনিতেই ঠিক হয়ে যাবে। বাকি ২০ শতাংশ কাজ রাষ্ট্রকে আমরা করাতে বাধ্য করব।

আমাদের গণমাধ্যমকে এবিষয়ে আরো এগিয়ে আসতে হবে। মানুষকে সচেতন করার কাজটি সবাই মিলে করতে হবে। তাহলে দেখবেন মানুষের কাছে মশা কোনো পাত্তাই পাবে না।
সর্বশেষ এডিট : ০৭ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৬:২০
৯টি মন্তব্য ০টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

জীবন রহস্যময় !

লিখেছেন মাধুকরী মৃণ্ময়, ২১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:০৪



মনে করেন আপনি জন্ম নেন নাই। যেহেতু নিজের জন্মের উপর আপনার কোন হাত নাই । সেহেতু সে ক্রেডিট আপনি নিতে পারেন না। তো জন্ম না নিলে কি হতো ,... ...বাকিটুকু পড়ুন

» মানুষ, ভুত পেত্নি জীন সাপ দেখতে হলে ঢুকে পড়ুন নির্দ্বিধায়..(ফান পোষ্ট)

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ২১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:১৪

১। দাদী বুড়ি :D



©কাজী ফাতেমা ছবি
=ফ্রেমবন্দির গল্প=
নেই কাজ তো খই ভাজ্, যদিও আমার ক্ষেত্রে কথাটা সত্য না। কাজে কামে ব্যস্ততাতেই বেশী থাকতে হয়। কিন্তু বুড়া বেডি আমি মন যেনো... ...বাকিটুকু পড়ুন

অদূরদর্শিতা, অবিশ্বাস এবং দুর্ভাগ্য - ২য় পর্ব

লিখেছেন মাহের ইসলাম, ২১ শে আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৫:২৯



প্রথম পর্বের লিংক অদূরদর্শিতা , সন্দেহ এবং দুর্ভাগ্য

দুই
পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধিকার আদায়ের আন্দোলনে উপজাতি সম্প্রদায়কে জাতীয় রাজনৈতিক দলগুলো সম্পৃক্ত করেনি বলে অভিযোগের সুর শোনা যায়। এমনকি যে... ...বাকিটুকু পড়ুন

নবীজি - হুমায়ুন আহমেদ

লিখেছেন ঠাকুরমাহমুদ, ২১ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১১



‘আরব পেনিনসুয়েলা। বিশাল মরুভূমি। যেন আফ্রিকার সাহারা। পশ্চিমে লোহিত সাগর, দক্ষিণে ভারত মহাসাগর, পূর্বে পার্শিয়ান গালফ। উত্তরে প্যালেস্টাইন এবং সিরিয়ার নগ্ন পর্বতমালা। সমস্ত পৃথিবী থেকে বিচ্ছিন্ন একটি অঞ্চল। এখানে শীত-গ্রীষ্ম-বর্ষা... ...বাকিটুকু পড়ুন

যারা জাতীয় সঙ্গীত পরিবর্তনের কথা বলে এদের পাত্তা দিবেন না।

লিখেছেন নূর আলম হিরণ, ২১ শে আগস্ট, ২০১৯ রাত ১০:০১


আমাদের জাতীয় সংগীত পরিবর্তনের কথা এবার নতুন করে উঠছে না। তবে হ্যাঁ, এবারের মত প্রচার হয়তো আগে হয়নি। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকে হত্যা করার পর খন্দকার মোশতাক ২৫শে আগস্ট অর্থাৎ দশ... ...বাকিটুকু পড়ুন

×