somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

সুমন জেবা
শুধু সামনে পা বাড়াও – একে একে সবই জানতে পারবে ..

মোবাইল ফোন ও বাংলাদেশের অপারেটর কোম্পানির টুকিটাকি :

১৮ ই আগস্ট, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:০৮
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


মোবাইল ফোন কি ?

মোবাইল ফোন তারবিহীন টেলিফোন বিশেষ। দুটি চলনশীল বা একটি চলনশীল ও একটি স্থির ডিভাইসের মধ্যে সেলুলার নেটওয়ার্ক প্রযুক্তি ব্যবহার করে উভয়মূখী বা দ্বি-মুখী রেডিও টেলিযোগাযোগ করার প্রযুক্তি।



মোবাইল ফোন তারবিহীন টেলিফোন বিশেষ। মোবাইল (mobile) অর্থাৎ “স্থানান্তরযোগ্য”, এই ফোন সহজে যেকোনও স্থানে বহন করা এবং ব্যবহার করা যায় বলে মোবাইল ফোন নামকরণ করা হয়েছে। এটি ষড়ভূজ আকৃতির ক্ষেত্র বা এক-একটি সেল নিয়ে কাজ করে বলে এটি “সেলফোন” (cell phone) নামেও পরিচিত।
মোবাইল ফোন টেলিযোগাযোগের ক্ষেত্রে এক নতুন যুগের সূচনা করেছে। পকেটে থাকা এই ছোট্ট যন্ত্রটি শুধু ভয়েস নয় ইন্টারনেটসহ আরও বহুমুখী সুবিধা দিচ্ছে এখন।

উদ্ভাবক :

যুক্তরাষ্ট্রের প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠান মটোরোলা কোম্পানীর সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট ডঃ মার্টিন কুপারকে মোবাইল ফোনের উদ্ভাবকের মর্যাদা দেয়া হয়ে থাকে। তিনি ১৯৭৩ সালের এপ্রিলে প্রথম সফল ভাবে এই ফোনের মাধ্যমে কল করতে সক্ষম হন।

বাংলাদেশ ও মোবাইল (mobile) অপারেটর কোম্পানি:

বর্তমানে বাংলাদেশে মোট ৬টি মোবাইল অপারেটর কোম্পানী রয়েছে। এদের মধ্যে ৫টি জি এস এম এবং একটি সি ডি এম এ প্রযুক্তির মোবাইল সেবা দিচ্ছে।

বাংলাদেশে মোবাইল অপারেটর কোম্পানীগুলো হল:

১। সিটিসেল (সিডিএমএ)
২। বাংলালিংক (সেবাওয়ার্ল্ডকে কিনে নেয়)
৩। রবি (পূর্ব নাম একটেল)
৪। গ্রামীনফোন
৫। টেলিটক
৬। এয়ারটেল (পূর্ব নাম ওয়ারিদ )

এবার আমরা জেনে নেই এ সকল মোবাইল ফোন অপারেটর কোম্পানী বিস্তারিত :-

City-cell সিটিসেল (সিডিএমএ)



সিটিসেল বাংলাদেশের প্রথম সিডিএমএ মোবাইল অপারেটর। এটি ই বাংলাদেশের একমাত্র সিডিএমএ মোবাইল অপারেটর। আগষ্ট ২০১১ এর হিসাব অনুযায়ী সিটিটেল এর গ্রাহক সংখ্যা ১.৭৭৮মিলিয়ন। সিটিসেল বর্তমানে ৪৫% সিংটেল এর মালিকানায় এবং ৫৫% মালিকানায় রয়েছে প্যাসিফিক গ্রুপ ও ফার ইস্ট টেলিকমের।

ইতিহাস
সিটিসেল ১৯৮৯ সালে বিটিআরসি থেকে লাইসেন্স পায়। তখন থেকে সিটিসেল বাংলাদেশের একমাত্র সিডিএমএ এর মোবাইল সেবা প্রধান কারী অপারেটর হিসেবে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

নাম্বারের ধরণ

সিটিসেল এর নাম্বার শুরু হয় “০১১” দিয়ে। যেমন ০১১-১২৩৪৫৬৭৮ আন্তর্জাতিক কোড সহ ডায়াল করতে হলে এভাবে ডায়াল করতে হবে- +৮৮০১১১২৩৪৫৬৭৮ যেখানে +৮৮০ হলো বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোড।

পন্য

সিটিসেল তাদের গ্রাহকদের কে দুই ধরনের সেবা দিচ্ছে।
প্রিপেইড
পোষ্ট পেইড

সিটিটেল জুম [ইন্টারনেট ভিত্তিক সেবা]
সিটিসেল জুম হলো ইন্টাররেনট ডাটা প্ল্যান, যখন কেউ ইন্টারনেট ডাটা প্লান এর গ্রাহক হয় তখন সে একটি ইন্টারনেট ডংগল পায়, যা দিয়ে সে সিটিসেল নেটওয়ার্ক এর মাধ্যমে ইন্টারনেট ব্রাউজ করতে পারে। দুটি উপায়েই (পোষ্ট পেইড বা প্রিপেইড) সিটিসেল জুম এর ডাটা প্লান গ্রাহক পেতে পারে। সাধারণ গতির চেয়ে একটু বেশী গতির ইন্টারনেট নিয়ে সিটিসেল এর নুতন ইন্টারনেট সার্ভিসের নাম হলো জুম আল্ট্রা।

এক নজরে সিটিসেল (প্যাসিফিক বাংলাদেশ টেলিকম লিমিটেড)

ধরণ : লিমিটেড
শিল্প : টেলিযোগাযোগ
প্রতিষ্ঠাকাল : ১৯৮৯
সদর দপ্তর : ৮ম তলা প্যাসিফিক সেন্টার। ১৪, মহাখালী সি/এ ঢাকা, বাংলাদেশ
অঞ্চলিক পরিসেবা: ৬১টি জেলা এবং ৪৭০টি থানা


সহযোগী প্রতিষ্ঠান :

প্যাসিফিক মটর লিমিটেড
প্যাসিফিক ট্রেড লিমিটেড
প্যাসিফিক ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড
ফার ইস্ট টেলিকম লিমিটেড
সিংটেল এশিয়া প্যাসিফিক ইনভেস্টম্যান্ট পিটিই লিমিটেড
সিংটেল কন্সালট্যান্সি পিটিই লিমিটেড
সিংগাপুর টেলিকম প্যাজিং পিটিই লিমিটেড

ওয়েবসাইট : http://www.citycell.com

Bangla Linkবাংলালিংক



বাংলালিংক, সেবা টেলিকম (প্রাইভেট) লিমিটেডের একটি ব্রান্ড। বাংলালিংক বাংলাদেশের তৃতীয় বৃহত্তম জিএসএম ভিত্তিক মোবাইল ফোন সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্টান। প্রতিষ্ঠানটি ওরাসকম টেলিকম এর মালিকানাধীন একটি কোম্পানি।

ইতিহাস

১৯৮৯ সালে সেবা টেলিকম (প্রা.) লিমিটেড ১৯৯ টি গ্রামীণ উপজেলায় টেলিফোন সেবা প্রদানের লক্ষ্যে নিবন্ধীকরন করে। পরবর্তীকালে তারা সেলুলার রেডিও-টেলিফোন সেবার মাধ্যমে তাদের কার্যক্রম বর্ধিত করে।
২০০৪ সালের জুলাই মাসে ওরাসকম টেলিকম সেবা টেলিকমের মালয়েশিয়ান অংশীদারীত্ব কিনে নেয়।
২০০৪ সালের সেপ্টেম্বর মাসে ওরাসকম টেলিকম সেবা টেলিকমের ১০০% শেয়ার কিনে নেয়। এরা ৬০ মিলিয়ন ডলার মূলধন বিনিয়োগ করে এবং টেলিফোন ব্র্যান্ডের নাম পরিবর্তন করে রাখে বাংলালিংক।

নাম্বারের ধরণ:

বাংলালিংক এর নাম্বার শুরু হয় “০১৯” দিয়ে। যেমন ০১৯-১২৩৪৫৬৭৮ আন্তর্জাতিক কোড সহ ডায়াল করতে হলে এভাবে ডায়াল করতে হবে- +৮৮০১৯১২৩৪৫৬৭৮ যেখানে +৮৮০ হলো বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোড।

পন্য

বাংলালিংক তাদের গ্রাহকদের কে দুই ধরনের সেবা দিচ্ছে।
প্রিপেইড
পোষ্ট পেইড

এক নজরে সিটিসেল সেবা টেলিকম (প্রাইভেট) লিমিটেড


ধরণ : সাবসিডিয়ারি
শিল্প : টেলিযোগাযোগ
প্রতিষ্ঠাকাল : ১৯৯৯
সদর দপ্তর : টাইগার হাউজ, বাড়ী # এসডব্লিউ(H)০৪, গুলশান অ্যাভিনিউ, গুলশান মডেল টাউন, ঢাকা, বাংলাদেশ
অঞ্চলিক পরিসেবা : ৬১ জেলা এবং ৪৪৬ থানা
পণ্য : টেলিফোন
সহযোগী প্রতিষ্ঠান :ওরাসকম টেলিকম
ওয়েবসাইট : http://www.banglalinkgsm.com

Robi রবি



রবি (পূর্ব নাম একটেল ), আজিয়াটা (বাংলাদেশ) লিমিটেড (পূর্বের টিএম ইন্টারন্যাশনাল (বিডি) লিমিটেড) একটা যৌথ উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত কোম্পানী। যার ৭০ শতাংশ টেলিকম মালয়েশিয়া এসডিএস. বিএইচডি. এবং ৩০ শতাংশ এনটিটি ডোকোমোর। রবি ব্যবহারকারী ও আয়ের দিক থেকে এটি বাংলাদেশের ৩য় বৃহত্তম মোবাইল ফোন কোম্পানী।
রবি’র রয়েছে বিশ্বের ১৭০টি দেশের ৪০০ মোবাইল ফোন অপারেটরের সাথে রোমিং ব্যবস্থা। এটি বাংলাদেশে প্রথম জিপিআরএস ব্যবস্থা চালু করে। রবি ব্যবহার করে জিএসএম ৯০০/১৮০০ মেগাহার্টজ।

ইতিহাস

রবি আনুষ্ঠানিকভাবে তাদের সেবাদান কার্যক্রম শুরু করে ১৫ই নভেম্বর ১৯৯৭ ঢাকায় এবং ২৬শে মার্চ ১৯৯৮ চট্টগ্রামে। রবি’র প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান মরহুম জহিরউদ্দিন খান, প্রাক্তন বাণিজ্য মন্ত্রী। রবি প্রতিষ্ঠিত হয়েছিল টেলিকম মালয়েশিয়া এবং এ কে খান কোম্পানীর যৌথ উদ্যোগে। ২০০৮ সালে এ কে খান কোম্পানী তাদের অংশ (৩০%) বিক্রি করে দেয় ইটিসালাট এবং এনটিটি ডোকোমো’র কাছে।

নাম্বারের ধরণ:

রবি এর নাম্বার শুরু হয় “০১৮” দিয়ে। যেমন ০১৮-১২৩৪৫৬৭৮ আন্তর্জাতিক কোড সহ ডায়াল করতে হলে এভাবে ডায়াল করতে হবে- +৮৮০১৮১২৩৪৫৬৭৮ যেখানে +৮৮০ হলো বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোড।

পন্য:
রবি তাদের গ্রাহকদের কে দুই ধরনের সেবা দিচ্ছে।
প্রিপেইড
পোষ্ট পেইড

এক নজরে রবি, আজিয়াটা (বাংলাদেশ) লিমিটেড:-

ধরণ : লিমিটেড
প্রতিষ্ঠাকাল : ১৯৯৬
সদর দপ্তর : ঢাকা, বাংলাদেশ
পণ্য : মোবাইল টেলিফোনি, জিপিআরএস, এজ, আন্তর্জাতিক রোমিং
সহযোগী প্রতিষ্ঠান : আজিয়াটা গ্রুপ (৭০%)
এনটিটি ডেকোমো (৩০%)
ওয়েবসাইট : http://www.robi.com.bd

GrameenPhone গ্রামীণফোন



গ্রামীণফোন বাংলাদেশের জিএসএম ভিত্তিক একটি মোবাইল ফোন সেবা প্রদানকারী কোম্পানি। এটি ১৯৯৭ সালের ২৬ মার্চ থেকে কার্যক্রম শুরু করে। বর্তমানে ১ কোটিরও বেশী গ্রাহক নিয়ে গ্রামীণফোন বাংলাদেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফোন সেবাদাতা কোম্পানি। গ্রামীণফোন বাংলাদেশের মোবাইল ফোন বাজারের ৫০ শতাংশেরও বেশী অংশ দখল করে আছে।

ইতিহাস

গ্রামীণফোন ১৯৯৬ সালের ২৮ নভেম্বর বাংলাদেশ ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রণালয় থেকে মোবাইল ফোন অপারেটর হিসেবে লাইসেন্স পায়। লাইসেন্স পাওয়ার পর গ্রামীণফোন ১৯৯৭ সালের ২৬ মার্চ বাংলাদেশের স্বাধীনতা দিবসে তার কার্যক্রম শুরু করে।

নাম্বারের ধরণ:

গ্রামীণফোন এর নাম্বার শুরু হয় “০১৭” দিয়ে। যেমন ০১৮-১২৩৪৫৬৭৮ আন্তর্জাতিক কোড সহ ডায়াল করতে হলে এভাবে ডায়াল করতে হবে- +৮৮০১৭১২৩৪৫৬৭৮ যেখানে +৮৮০ হলো বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক ডায়ালিং কোড।

প্রদেয় সেবাসমূহ:

গ্রামীণফোন দুই ধরনের মোবাইল সেবা দিয়ে থাকেঃ পোস্ট-পেইড সংযোগ এবং প্রি-পেইড সংযোগ।
প্রি-পেইড সংযোগের মধ্যে রয়েছেঃ-
স্মাইল (শুধুমাত্র বাংলাদেশের অভ্যন্তরে মোবাইল থেকে মোবাইল সংযোগ)
স্মাইল পিএসটিএন (আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক মোবাইল এবং পিএসটিএন সংযোগ)
ডিজ্যুস (তরুণদের জন্য বিশেষ সংযোগ)
পোস্ট-পেইড সংযোগের মধ্যে রয়েছেঃ-
এক্সপ্লোর প্যাকেজ ১ (আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক মোবাইল এবং পিএসটিএন সংযোগ)
এক্সপ্লোর প্যাকেজ ২ (আভ্যন্তরীণ ও আন্তর্জাতিক মোবাইল এবং পিএসটিএন সংযোগ)
এছাড়াও গ্রামীণফোন এসএমএস, ভয়েস এসএমএস, এসএমএস পুশ-পুল সার্ভিস, ভিএমএস, ফ্যাক্স এবং ডাটা সার্ভিস, ওয়েলকাম টিউন, রিংব্যাক টোন, মিসড কল এলার্ট প্রভৃতি সেবা প্রদান করে থাকে।
সম্প্রতি এটি তার গ্রাহকদের জন্য ইডিজিই বা এ্যাজ সেবা চালু করেছে যার ফলে বাংলাদেশের প্রত্যন্ত অঞ্চলের মানুষজনও ইন্টারনেটের পূর্ণাঙ্গ সুবিধা পাচ্ছে।

এক নজরে গ্রামীণফোন লিমিটেড:-

ধরণ : লিমিটেড
শিল্প : টেলিযোগাযোগ
প্রতিষ্ঠাকাল : ১৯৯৭
সদর দপ্তর : জিপি হাউজ, বসুন্ধরা, বারিধারা, ঢাকা-১২২৯, বাংলাদেশ
পণ্য : টেলিফোন,ইডিজিই,জিএসএম
সহযোগী প্রতিষ্ঠান: টেলিনর
ওয়েবসাইট : http://www.grameenphone.com

TeleTalk টেলিটক



টেলিটক বাংলাদেশের সরকারী-মালিকানাধীন মোবাইল ফোন কোম্পানি। এটি ২০০৫ সালে বাণিজিক বিপণন শুরু করে।

গ্রাহক নম্বর

টেলিটক গ্রাহকদেরকে নিচের নিয়মে নম্বর প্রদান করে থাকেঃ
+৮৮০ ১৫ N1 N2 N3 N4 N5 N6 N7 N8
যেখানে +৮৮০ বাংলাদেশের আন্তর্জাতিক কোড (+৮৮০)১৫ হল টেলিটকের গ্রাহকদের জন্য সরকারের নির্ধারিত কোড। ৮ ডিজিটের N1 N2 N3 N4 N5 N6 N7 N8 হল গ্রাহকের নম্বর।

AirTel এয়ারটেল (বাংলাদেশ)



এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড ভারত ভিত্তিক ভারতী গ্রুপের একটি অঙ্গপ্রতিষ্ঠান এবং বাংলাদেশের একটি জিএসএম ভিত্তিক মোবাইল টেলিকম অপারেটর। ২০০৫ সালে বাংলাদেশ সরকারের সাথে ১ বিলিয়ন ইউএস ডলার বিনিয়োগের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করার মাধ্যমে বাংলাদেশে ওয়ারিদের যাত্রা শুরু। ১০ মে, ২০০৭ সালে ৬১ টি জেলায় নেটওয়ার্ক কভারেজ প্রদানের মাধ্যমে এবং ৭০% জনসমষ্টিকে ঘিরে এর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু হয়। পরবর্তীতে ২০১০ সালের জানুয়ারিতে ৭০% শেয়ার গ্রহণ করে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড নাম ধারণ করে। একই বছরের ২০ ডিসেম্বর তা এয়ারটেল নামে সেবা প্রদান শুরু করে। বর্তমানে এয়ারটেল ৬৪টি জেলা শহরে এর নেটওয়ার্ক কভারেজ বিস্তৃত করেছে। মোট গ্রাহক সংখ্যা ২৯.৫৪ মিলিওন এবং ছয়টি মোবাইল টেলিকম অপারেটরের মধ্যে এর অবস্থান চতুর্থ।

ইতিহাস

২০০৫ সালের ডিসেম্বরে ওয়ারিদ টেলিকম ইন্টারন্যাশনাল এলএলসি ৫০ মিলিয়ন ডলার এর বিনিময়ে বিটিআরসি থেকে বাংলাদেশের ৬ষ্ঠ জিএসএম মোবাইল অপারেটর হিসাবে লাইসেন্স পায়।
পরবর্তী প্রজন্মের নেটওয়ার্ক
নেটওয়ার্ক প্রযুক্তি
এয়ারটেল বাংলাদেশ বর্তমানে GSM 900 / 1800 (2G) মাধ্যমে সেবা প্রদান করছে। ভবিষ্যতে HSDPA 900 / 2100 এবং HSDPA 850 / 1900 (3G) মাধ্যমে সেবা প্রদানের পরিকল্পনা করছে।

পন্য :

এয়ারটেল তাদের গ্রাহকদের কে দুটি পদ্ধতিতে সেবা প্রদান করছে।
প্রিপেইড
পোষ্টপেইড

গ্রাহক সেবা:

এয়ারটেল বাংলাদেশ এর অনেক গ্রাহক সেবা কেন্দ্র আছে। তা ছারাও এয়ারটেল মোবাইলের মাধ্যমে সেবা প্রদান কর থাকে। এয়ারটেল গ্রাহকগন ৭৮৬ এবং অন্যান্য অপারেটর থেকে ০১৬-৭৮৬০০৭৬৮ এ কল করে সেবা পেতে পারেন। তাছারা ১৫৮ এ কল করে গ্রাহকগন বিনা মুল্যে (আইভিআর ভিত্বিক) সেভা পেতে পরেন।

এক নজরে এয়ারটেল বাংলাদেশ লিমিটেড:-

ধরণ : লিমিটেড
শিল্প : মোবাইল টেলিফোনি
প্রতিষ্ঠাকাল : ২০০৫
সদর দপ্তর : বাড়ি ৩৪, রোড ১৯/এ, বনানী, ঢাকা ১২১৩, বাংলাদেশ
পণ্য : মোবাইল টেলিফোনি, জিপিআরএস, জিএসএম
সহযোগী প্রতিষ্ঠান : Bharti Airtel ৭০% andওয়ারিদ টেলিকম ৩০%
ওয়েবসাইট : http://www.bd.airtel.com

আজকে এই পর্যন্ত । সবাই ভালো থাকবেন ।

সংগ্রহ ও কৃতঙ্ঘতা - হেল্পলাইন বিডি,গুগল
সর্বশেষ এডিট : ১৮ ই আগস্ট, ২০১৫ সন্ধ্যা ৬:০৯
২টি মন্তব্য ২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

আমাদের শাহেদ জামাল- (চৌত্রিশ)

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ রাত ১:০১


ছবিঃ আমার তোলা।

গতকাল রাতের কথা-
সুরভি আর ফারাজা গভীর ঘুমে। রাতের শেষ সিগারেট খাওয়ার জন্য চুপি চুপি ব্যলকনিতে গিয়েছি। দিয়াশলাই খুঁজে পাচ্ছি না। খুবই রাগ লাগছে।... ...বাকিটুকু পড়ুন

প্রিয় জীবন.....

লিখেছেন জুল ভার্ন, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ভোর ৫:৫৮

প্রিয় জীবন......

জীবন তোমা‌কে কষ্ট দিতে চাইলে তু‌মিও জীবনকে দেখিয়ে দাও- তু‌মি কতটা কষ্ট সহ্য করার ক্ষমতা রাখ। তু‌মি হয়তো এখন জীবনের অনেক খারাপ একটা সময় পার করছ অথবা অনেক আনন্দের... ...বাকিটুকু পড়ুন

ভারতীয় নাগরিক সওজের অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী! ক্ষমতাশীনদের বিশেষ সম্প্রদায় তোষণের একটি উদাহরণ!

লিখেছেন দেশ প্রেমিক বাঙালী, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২৬

যিনি বাংলাদেশে অবস্থান করে ভারতীয় পাসপোর্ট ব্যবহার করবেন তিনি নিঃশ্চয় বাংলাদেশী না তিনি ভারতীয় একথা সকলেই একবাক্যে মেনে নিবেন। কিন্তু কি করে একজন ভারতীয় নাগরিক বাংলাদেশী হিসেবে বহাল তবিয়তে... ...বাকিটুকু পড়ুন

সময় নির্দেশের ক্ষেত্রে AM ও PM ব্যবহার করার রহস্য

লিখেছেন নতুন নকিব, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ দুপুর ১২:৪২

ছবি, Click This Link হতে সংগৃহীত।

সময় নির্দেশের ক্ষেত্রে AM ও PM ব্যবহার করার রহস্য

সময় নির্দেশের ক্ষেত্রে AM ও PM কেন ব্যবহার করা হয়, এর কারণটা জেনে রাখা ভালো। আমমরা অনেকেই বিষয়টি... ...বাকিটুকু পড়ুন

গাছ-গাছালি; লতা-পাতা - ০৭

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ২৭ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:৫০

প্রকৃতির প্রতি আলাদা একটা টান রয়েছে আমার। ভিন্ন সময় বিভিন্ন যায়গায় বেড়াতে গিয়ে নানান হাবিজাবি ছবি আমি তুলি। তাদের মধ্যে থেকে ৫টি গাছ-গাছালি লতা-পাতার ছবি রইলো এখানে।


পানের বরজ


অন্যান্য ও আঞ্চলিক... ...বাকিটুকু পড়ুন

×