somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ভবিষ্যতের পথে

২১ শে নভেম্বর, ২০০৯ বিকাল ৩:১১
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

কি সুন্দর আমাদের এই পৃথিবী । আহা, এই পৃথিবী সব সময় এই রকম থাকবে না, পরিবেশ ধ্বংস নিয়ে যতই আমরা আন্দোলন করি না কেন । আমাদের সূর্য, যা আমাদের আলো আর শক্তি দেয় সে কি এই রকম থাকবে সব সময়, সূর্য মামার বয়স যখন ৫.৬ বিলিয়ন বছর হবে , মানে আজ থেকে মাত্র ১.১ বছর পর, তিনি তার তীব্র ক্ষোভ থেকে ১০% বেশী উজ্জ্বলতা প্রকাশ করবেন । আর তাতেই আমাদের এই সুন্দর পৃথিবীর বারোটা বেজে যাবে । অধিক থেকে অধিক উত্তপ্ত হবে আর পানি বাষ্পে পরিণত হতে থাকবে দ্রুত গতিতে , ভূমির বেশীর ভাগ প্রাণী মারা যাবে , সাথে আমরাও । তবে ঐ সময় আমাদের জন্য মায়া কান্না করার কেউ থাকবে না মনে হয় । কিছু অনুজীব চরমজীবি প্রাণী আর মহাসাগরের স্বল্প কিছু জীব থাকবে হয়ত । তাহলে আমাদের কাহিনী ওইখানে শেষ । কিন্তু আমরা ভাগিনারা না থাকলে কি হবে, সূর্য মামা ঠিক ই থাকবেন । উনার বয়স যখন ৯ বিলিয়ন বছর হবে , মানে আজ থেকে ৪.৫ মিলিয়ন বছর পর ভাগিনা হারানোর দুঃখে বর্তমানের চেয়ে ৪০% বেশী উজ্জ্বলতা প্রকাশ করবেন । আর তাতেই পৃথিবীর বাকি প্রানী গুলিও খতম হয়ে যাবে । আর তাতে সূর্যমামা আরো ক্ষেপে যাবেন আর তাই এতদিনের কষ্টের জমানো হিলিয়াম ব্যবহার করা শুরু করবেন । তখন সূর্য মামার বয়স হবে ১০.৯ বিলিয়ন বছর । বয়স বাড়ার সাথে সাথে উনার সাইজ ও বড় হয়ে যাবে, তিনি বর্তমানের চেয়ে ১.৫ গুন বড় হয়ে যাবেন ।
পরবর্তিতে ৭০০ মিলিয়ন বছর পর্যন্ত উনার তাপমাত্রা একই থাকবে , কিন্তু উনার বড় হয়ে উঠা থামবে না । যতক্ষণ পর্যন্ত উনার সারফেইস কিছুটা ঠাণ্ডা হওয়া শুরু না হয় । কিন্তু ততক্ষণে তিনি ২.৫ গুন বড় হয়ে যাবেন ।

কিছুকাল পর, উনার বয়স যখন ১১.৬ হলে তিনি প্রায় ছোট-খাট দানব নক্ষত্রে পরিণত হবেন । দানব হয়ে ওঠার পর উনার আর ছোট থাকতে মন চাইবে না, তাই তিনি দ্রুতগতিতে বড় হতে থাকবেন । তাতে কিছুটা বাধ সাধবে ঝড় । ১২.১ বিলিয়ন বছর বয়সে ঐ ঝড় গুলি উনার ৩০% ভর সোলার সিস্টেমে ছড়িয়ে দেবে । তবুও সূর্য মামার বড় হওয়া থেমে থাকবে না । উনি দ্রুত লাল দানব নক্ষত্রের সর্ব্বোচ্চ সাইজ অর্জন করবেন । তখন উনার বয়স হবে প্রায় ১২.২ বিলিয়ন বছর । তিনি এই সময় কিছুটা রেস্ট নিবেন , তখন উনার উজ্জ্বলতা বর্তমানের চেয়ে প্রায় ২৩০০ গুন বেশী হবে । তিনি প্রায় ১১০ মিলিয়ন বছর এই অবস্থায় থাকবেন । তারপর উনার হিলিয়ামের অবস্থা টাইট হয়ে যাওয়ায় , অক্সিজেন আর কার্বন ব্যবহার করা শুরু করবেন , আর তাই আবারো দ্রুত বড় হতে থাকবেন । মাত্র ২০ মিলিয়ন বছরে লাল দানবের ২য় পর্যায়ে চলে যাবেন । তখন তিনি প্রায় ৮০ গুন বড় হবেন , ৩০০০ গুন উজ্জ্বল হবেন । আস্তে আস্তে পেলেন্টারি নেবুলাতে পরবেন বা হবেন । তারপর বিভিন্ন প্রক্রিয়া পার হয়ে ঠাণ্ডা আর কালো হয়ে শেষ হবেন । এর ভিতর মামার আরো কাহিনী আছে , কিন্তু এত কিছু তো বলা সম্ভব না । যাইহোক, এর ভিতরে আমাদের বেচে থাকার কিছু সুযোগ সৃষ্টি হতে পারে । মঙ্গল গ্রহের তাপমাত্রা একটা সময় পৃথিবীর তাপমাত্রার কাছাকাছি হবে । তখন যদি আমরা সেখানে পালিয়ে যাই, তাহলে কিছু কাল সেখানে থাকতে পারবো । কিন্তু মঙ্গল ও আমাদের মামার কবলে পরবে, তখন হয়তো সোরজগতের বাহিরে কোন গ্রহ অথবা চাদে থাকতে পারি । কিন্তু শেষ মেষ আমাদের বেচে থাকা হবে না , অপেন ইউনিভার্স আর ক্লোজ অথবা ফ্লেট ইউনিভার্স যাইহোক ।


রব্রট ফ্লোরস্ট বলেছেন , “Some say the wrold will end in fire, some say in ice” . ক্লোজ ইউনিভার্স হলে তা আগুনে গিয়ে শেষ হবে, অপেন বা ফ্লেট হলে আইসে গিয়ে শেষ হবে । এটা কে বলা হয় বিগ চিল ।

এই বিশাল বিশ্ব এ সময় বলে আসলে কিছু নেই , সময় হইতেছে জগতের গতি । এই মহাবিশ্ব এ কেন বুদ্ধি (মানুষ) সৃষ্টি হবে এই স্বল্প সময়ের জন্য , কেন আদিল ভাই কিংবা ফুয়াদ হবে । তাই আমি মনে করি এখানে আল্লাহ সুবাহানাতালার হাত আছে । সবাইকে ধন্যবাদ । আমার লেখায় ভুল কিংবা বানান ভুল থাকতে পারে । এ জন্য দুঃখিত ।

Reference : 1 Astronomy By Cynthia Phillips Ph.D, and Shana Priwer
2 Encyclopedia of astronomy Edited by Paul Murdin & Margaret Penston
সর্বশেষ এডিট : ২৭ শে নভেম্বর, ২০০৯ রাত ৯:৪৬
৩টি মন্তব্য ৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ভারতীয় সিরিয়াল যেন শয়তানের ভাগাড়

লিখেছেন মোঃ গালিব মেহেদী খাঁন, ০১ লা ডিসেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:১১



একটা মানুষ কি পরিমাণ শয়তানী বুদ্ধি রাখতে পারে। অথবা মানুষ কিভাবে নিরন্তর অন্যের ক্ষতি সাধন করতে পারে সেটা যদি শিখতে চান তাহলে আপনাকে কালা যাদু, টোটকা ইত্যাদি শিখতে কামরুক... ...বাকিটুকু পড়ুন

বিষয় হুমায়ুন আহমেদ !

লিখেছেন স্প্যানকড, ০১ লা ডিসেম্বর, ২০২১ দুপুর ২:০২

ছবি নেট ।

"জিয়াউর রহমানের পাঁচ বছরের শাসনে প্রতি মাঘের শেষে বর্ষন হয়েছিল কিনা তা কেউ হিসাব রাখেনি, তবে এই পাঁচ বছরে কোনো প্রাকৃতিক দুর্যোগ হয়নি । অতি বর্ষনের... ...বাকিটুকু পড়ুন

" দোয়া " কি এবং কেন ? কাদের জন্য দোয়া শুধু ধোঁয়া বা কাদের দোয়া কবুল হয়না ? (ঈমান ও আমল - ১২ )।

লিখেছেন মোহামমদ কামরুজজামান, ০১ লা ডিসেম্বর, ২০২১ বিকাল ৫:৫৪

উৎসর্গ এবং যে পোস্টের সূত্র ধরে এই লেখা - ব্লগার রাজীব নুর ভাইকে এবং তার লেখা " ধোঁয়া ও দোয়া " পোস্ট - লিংক Click This Link

... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমি চাইলাম কি, তুমি দিলা কি?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ০১ লা ডিসেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২৯



গত মাসের মাঝামাঝি ১গ্রুপের সাথে ফুটবল খেলার সুযোগ ছিল; প্রেকটিস করার দরকার; কিন্তু স্কুলের ২টি মেয়ে আমার প্রেকটিসের মাঠ দখল করে রাখে প্রতিদিন সকালে, তারা সেখানে টেনিস... ...বাকিটুকু পড়ুন

একটা হার্ট এ্যাটাক, অধ্যাপক সেলিম রহমান আর এর পেছনের জন্তুদের কথা

লিখেছেন হাসান মাহবুব, ০১ লা ডিসেম্বর, ২০২১ রাত ৯:৪৪




বুয়েটে আবরার ফাহাদের মৃত্যুতে পুরো বাংলাদেশ নড়ে চড়ে উঠেছিলো। সিসিটিভি ফুটেজে মৃত আবরারকে বহন করে নিয়ে আসার দৃশ্য দেখে সবাই শিউরে উঠেছিলো।
ঠিক একইরকম একটা ঘটেছে ঢাকা থেকে ৩৩৫... ...বাকিটুকু পড়ুন

×