somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

জানতে চাই

আমার পরিসংখ্যান

মাহবুব আলী
quote icon
মাহবুব আলী_প্রভাষক (ফ্রিল্যান্স কলামিস্ট)
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

আমরা কী ইয়াসমিন ধর্ষণ ও হত্যার কথা ভুলে গেছি?

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৪ শে আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:২৯



১৯৯৫ সালের ২৭ আগস্ট তারিখটা দেশের অধিকাংশ মানুষের স্মৃতিতে জাগরুক আছে কি না তা আমাদের জানা নেই। তবে এরপরে আরও পুলিশি চাঁদাবাজি, অত্যাচার-নির্যাতন, ডাকাত সাজিয়ে হত্যা, টিজিং-ধর্ষণ ইত্যাদি ঘটনা প্রাবল্যে আজ হয়তো সেই ঘটনা ম্লান হয়ে থাকতে পারে। এছাড়া ওই সময়ের ঘটনা প্রবাহের পরবর্তী দিনগুলোতে সুশীল সমাজ ও সাধারণ... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ১০৭ বার পঠিত     like!

পাটাশ (শেষাংশ)

লিখেছেন মাহবুব আলী, ১৫ ই আগস্ট, ২০১৯ সন্ধ্যা ৭:১৯



এই তো তিন দশক আগের কথা। ঘরের পশ্চিম দেয়াল সীমানা ঘেষে সাড়ে তিন ফুটের প্রশস্ত গলি। সে গলি উত্তর থেকে শুরু হয়ে চলে গেছে দক্ষিণে। তারপর বাঁক শেষে একেবারে পুবে। তারামনি অনেক সকালে গলিতে ঢোকে। তিন কোণায় তিন বাড়ির তিনটি সার্ভিস ল্যাট্রিন। সে-সবের কোনোটিতে জাহাজ মার্কা সরিষা তেলের লম্বা... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৭৫ বার পঠিত     like!

পাটাশ

লিখেছেন মাহবুব আলী, ১৪ ই আগস্ট, ২০১৯ বিকাল ৪:৪৫



রাত দুটোয় সুঁই খুঁজে পাওয়া বেশ মুস্কিল। খাতা সেলাই করা সুঁই। এখন আমার খাতা লাগে না। কোনোকিছু লিখি না। সুঁই দরকার অন্য কাজে। এ মুহূর্তে ভীষণ দরকার। কেননা খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে কোনোকিছু তুলে ফেলবার মতো এরচেয়ে ভালো টুলসের খবর জানা নেই। মাথায় আসছে না।
মিলা ঘুমিয়ে আছে। আমার ঘুম হয় না।... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৮৫ বার পঠিত     like!

ফেরা না ফেরা

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৯ শে জুলাই, ২০১৯ বিকাল ৪:৫৯



খুকু ফিরে আসছে। দুপুরের মধ্যেই চলে আসবে গ্রামে। নিজ গ্রাম। নিজ বাড়ির আঙিনায়। এ খবর এখন সকলের মুখে মুখে। অনেক দূর দেশ থেকে প্রত্যাবর্তন। আকলিমা কত দিন পর মেয়ের মুখ দেখতে পাবে। হতভাগি মেয়ে। কপালপোড়া। জীবনে কোনো সুখ পায়নি। দু-বেলা ভালোমতো খাবার পর্যন্ত না। একটু ভালো খেতে কত না চেষ্টা।... বাকিটুকু পড়ুন

১৪ টি মন্তব্য      ১২৬ বার পঠিত     like!

বৃত্ত-আবদ্ধ জনম

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৮ শে জুলাই, ২০১৯ সকাল ৯:২৮



তেরো মাসের শিশু; মায়মুনার মন কিছুতেই সায় দেয় না। সে তো মা। সে কি করে পারবে অমন কাজ? দুধের বাচ্চা, ওকে না দেখে মরে যাবে যে! না না কিছুতেই পারবে না।সিরাজ প্রথমে মাথায় হাত বুলোয়। মিষ্টি করে দুটো কথা বলে। তারপর খুব দ্রুত আর গভীরভাবে বউয়ের গালে চুমু খায়। তির্যক... বাকিটুকু পড়ুন

১৯ টি মন্তব্য      ১৪০ বার পঠিত     like!

কালি কালিময়

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৯ শে অক্টোবর, ২০১৮ সকাল ১১:২২

কে কারে কালি মাখায়
কালিমাখা মুখ
কালি মাখা বাপের গালে
পাইবি আরো সুখ।

বাপে ফিরব বাড়ি তোর
মায়ে কইব কেডা
একলাফে উঠান পার
পাবলিক মারব ঝ্যাটা।

কই পালাবি তখন তুই
মায়ে-বাপে থাকব না
দিন গেলে দিন আইব
কাউরে কেউ ছাড়ব না।
বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৬১ বার পঠিত     like!

কী লিখবেন কীভাবে লিখবেন

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৯ শে মার্চ, ২০১৮ দুপুর ১২:২৬

লেখালেখির জগতে যা কিছু লিখি না কেন, সেটি লেখা ও প্রকাশনা শিল্পের প্রেক্ষিত বিচারে নতুন সৃজন। কথাটি সৃজনশীলতার নিরিখে সত্য। ব্যতয়গুলোর উল্লেখ করছি না। ক্রমে সেই সৃজনগুলো লেখক ও পাঠকের কাছে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে ওঠে। একজন কবি যখন কবিতা সৃজন করে চলেন আর সৃষ্টির আনন্দ গ্রহণ করেন, পরে পাঠক সেই কবিতা... বাকিটুকু পড়ুন

৩০ টি মন্তব্য      ৫৯৯ বার পঠিত     like!

আদিরসাত্মক

লিখেছেন মাহবুব আলী, ০২ রা মার্চ, ২০১৮ বিকাল ৫:৩৮

বিয়ের মাত্র তিন সপ্তাহ হয়েছে, ঘরে নতুন বউ; এ সময়ে কেউ পালায়? কি যে ভেতরের ব্যাপার! অজয় কুমার রায় পালাল। পাড়াপড়শির সামনে যত না এক কৌতুক মেশা কৌতূহল তারচেয়ে অপমান জুগিয়ে সে ভেগেছে। তাদের মুখের দিকে তাকাতে একটু লজ্জা হয় বটে, কিন্তু অনুরাধার চোখে? হয় না। সেখানে যে মায়া আর... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৩৮২ বার পঠিত     like!

ঋণ

লিখেছেন মাহবুব আলী, ২৩ শে জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫০

সন্ধের সময় এলো সে। প্রথমে চিনতে পারলাম না। তারপর বুঝলাম। গালভর্তি দাড়ি। গায়ে চাদর জড়ানো কোনোমতো। মাথায় মাফলার।

_ কি রে মোস্তফা?
সে ঘরে আসতে চায়। দরজা আগলে দাঁড়ালাম। ওর হাতটান স্বভাব। অন্যদিকে রুনিকে অনেক কৈফিয়ত দিতে হবে।

_ বড়ভাই, আপনার কাছেই এলাম।
_ কেন?
_ মায়ের হাত-পা পড়ে গেছে। একটু...
_ আমি নিজেই... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ১৬০ বার পঠিত     like!

ভূত লেখক

লিখেছেন মাহবুব আলী, ১৮ ই জানুয়ারি, ২০১৮ দুপুর ১:৫৪

অনেকেই ‘ghost writer বা ভূত লেখক’ এর কথা শুনেছেন। কেউ কেউ দেখেও থাকবেন। যে সকল লেখক অন্যের জন্য লিখে দেন তারা সেই লেখক। এঁরা অনেক কষ্টে থাকেন। কোথাও লেখা প্রকাশ পায় না। কেউ জিজ্ঞেস করেন না। অনেক আশা-প্রত্যাশার মৃত্যু নিজের বুকে ধারন করেন। মন-সাধ-আহলাদ কফিনে বেঁধে দৃষ্টি ভেজান।

নিজের লেখা অন্যের... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৮৩ বার পঠিত     like!

অচল পয়সা ভেজাল মানুষ

লিখেছেন মাহবুব আলী, ০৮ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৪:২৭

জান মহম্মদের চোখ এড়ায়নি। মাথার উপর চকচকে সাইনবোর্ড। রয়েল বেকারি এন্ড ফুডস। নিচে তার দৃষ্টিও ঝকঝকে। মধ্যদুপুর। সবকিছু রোদের আলোয় উজ্জ্বল। তবু তারমধ্যে অন্ধকার খুঁজে পায় তার মন। উন্মন অস্থির করে সবসময়। আরও অনেককিছু দেখে যায় নিশ্চুপ। এই ফাঁকে দুচোখ চারপাশ ঘুরে আসে। বাঁ-হাত তেল কুচকুচে কালো ভুড়ি।

ছেলেটি অবশেষে সিকি... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ১৪৬ বার পঠিত     like!

ফিচার লেখার অনুসরণীয় কয়েকটি দিক

লিখেছেন মাহবুব আলী, ০৭ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:১৩

ফিচার পড়তে কে না পছন্দ করে! বিভিন্ন সংবাদপত্রে ও ম্যাগাজিনে প্রতিদিন নানা বিষয়ের উপর লিখিত ফিচার প্রকাশিত হচ্ছে। ফিচার পড়ার মধ্যে সুখপাঠ্যতা আছে। পাঠকদের মাঝে এর আকর্ষণ ও গুরুত্ব অনেক বেশি। এমন অনেক পাঠক আছেন, যারা খবর পড়ার চেয়ে ফিচার পড়তে বেশি পছন্দ করেন। তা বলে খবর আর ফিচার পরস্পরের... বাকিটুকু পড়ুন

১৬ টি মন্তব্য      ২৬৬ বার পঠিত     like!

বদমাশ

লিখেছেন মাহবুব আলী, ০৬ ই জানুয়ারি, ২০১৮ সকাল ১১:৪৩


জানালা খোলা হয় না। ওপাশে দেয়াল। শালতি ইটের গাঁথুনি। প্লাস্টারবিহীন। কোথাও কোথাও নোনা ধরেছে। সবুজ-ধূসর শ্যাওলা। স্যাঁতসেতে। অদ্ভুত ভেজা ভেজা গন্ধ। দেয়ালের পেছনে গাছ। ছোট। বুকল ফুল। বরষার আগে আগে ফুল ফোটে। মাদক সৌরভ। নিচে ছড়িয়ে থাকে তারার মতো ফুল। জানালার কার্নিশে। চৌকাঠে। জানালা খুলে রাখলে সেই ফুল বিছানায়... বাকিটুকু পড়ুন

৫ টি মন্তব্য      ১৭৪ বার পঠিত     like!

রসিকতা

লিখেছেন মাহবুব আলী, ০৫ ই জানুয়ারি, ২০১৮ বিকাল ৪:১৪



দীর্ঘক্ষণ প্রতীক্ষার পর যে কথাটি শুনতে পেল সে, হাত পা ঠাণ্ডা হয়ে গেছে। মঈন মুখ ঘুরিয়ে ফ্যানের দিকে তাকায়। আজ সকাল দশ এগারো হতে না হতেই খুব গরম লাগতে শুরু করেছে। এপ্রিলের পঁচিশ তারিখ। কয়েকদিন ধরে টানা গুমট গরম। মাথার উপর গনগনে সূর্য। নির্মেঘ আকাশ। কোথাও কোনো পাখি নেই।... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ১৪৮ বার পঠিত     like!

নীলছবি ২

লিখেছেন মাহবুব আলী, ১৯ শে নভেম্বর, ২০১৭ রাত ৯:০২


নূর মহম্মদ চৌরঙ্গি বাজারের মসজিদ লাগোয়া রেস্তোরাঁয় বসেছিল। সেই পরিচিত নাইট-গ্রিন চাদর গায়ে জড়ানো। সুড়ুৎ সুড়ুৎ শব্দ তুলে চায়ে চুমুক দেয়। শাফায়েতকে দেখে জোরে ডেকে ওঠে, -

‘আ লো...আয় আয়। এ্যয়ঠে বস। কইরে পিচ্চি, এ্যয়ঠে পরাটা আর ডিম ভেজে দে। বড় ডিম দিবা বুজিছো। তারপর? রাতে তো ঘুমাসনি মনে হয়চে।’
‘আ... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৩০৫ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ৮৪৬৬ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ