somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

গনতান্ত্রিক সংঘ

২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০২১ ভোর ৪:৪৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

বর্তমান পৃথিবীতে যতটুকু শান্তি বিদ্যমান , তার প্রায় পুরোটাই গনতান্ত্রিক চর্চার জন্য ( ইনশাআল্লাহ ) ।
গনতন্ত্র একটি পবিত্র জিনিস । ইউরোপ আমেরিকার অধিকাংশ গনতন্ত্রই পৃথিবীর ভারসাম্য বজায় রাখছে। আর অন্যান্য যেসব দেশে নামে গনতন্ত্র আছে , কিন্তু কাজে স্বৈরাচার , সেসব দেশে যদি ইউরোপ আমেরিকার মানের গনতন্ত্র চর্চা হয় , তবে পৃথিবী সত্যিই অনেকটা শান্তির গ্রহে রুপান্তরিত হবে ইনশাআল্লাহ । পৃথিবীর সর্ববৃহৎ গনতন্ত্রের দেশ ভারত । তারপরও ভারত বর্তমানে অনেকটা স্বৈরাচার, কারণ হিসেবে একটা উদাহরণই যথেষ্ট হবে যে , আর তা হলো কৃষক আন্দোলন । বর্তমান সরকার এই কৃষক আন্দোলনকে যেভাবে দমিয়ে দিলো তা অবশ্যই স্বৈরাচার সরকারের কাজ ।



আমার নিজ দেশ বাংলাদেশেও সামান্যতম গনতন্ত্র নেই , যা একটু দেখা যায় , তা বিদেশীদের সাহায্য সহযোগিতা পাবার জন্য । বর্তমানে বিএনপি গনতন্ত্র আদায়ের জন্য আন্দোলনের পরিকল্পনা করছে । কিন্তু বিএনপির শক্তিশালী রাজনৈতিক ফিলোসোফি না থাকার কারণে , আমি মনে করি বিএনপি তেমন কোনো সফলতা অর্জন করতে পারবে না । ইসলামি দলগুলো ছাড়া অন্যান্য ডান বাম দলেরও তেমন কোনো শক্তিশালী ফিলোসোফি নেই , তাই তারাও ভালো করতে পারবে না । আর ইসলামি দলগুলো কর্মী সমর্থকদের জোর করে এনে আন্দোলন করবে , কারণ তাদেরও শক্তিশালী কোনো ফিলোসোফি নেই । বর্তমান সরকার যদি প্রশাসনকে শক্ত হাতে কন্ট্রোল করতে পারে , তাহলে বিএনপির এ আন্দোলন বিএনপির জন্য আত্মহত্যার সামিল হবে । অন্যদিকে ভারত সরকার এবং ভারতীয় বুদ্ধিজীবিরা আওয়ামিলীগকে নিরলস এবং অকুণ্ঠ সমর্থন দিয়ে যাবে এবং বিভিন্নভাবে সাহায্য করে যাবে ।



তবে চীন এবং আমেরিকার কথামতো ভারত যদি বাংলাদেশে সঠিক নির্বাচনে চাপ প্রয়োগ করে , তাহলে বর্তমান বাংলাদেশের রাজনীতি বিএনপির অনুকূলে চলে আসবে , তখন বিএনপির আন্দোলন সফলতার মুখ দেখবে ইনশাআল্লাহ ।



কয়দিন পূর্বে জাতিসংঘ বাংলাদেশকে বলেছে যে , যদি বাংলাদেশ চায় তাহলে জাতিসংঘ বাংলাদেশের জাতীয় নির্বাচনে সহযোগিতা করতে প্রস্তুত । আমার ক্ষোভটা এখানেই । আমার মতে বিশ্বের যেখানেই গনতন্ত্র দুর্বল , সেখানে জাতিসংঘের শান্তিরক্ষীর মাধ্যমে প্রত্যেক জাতীয় নির্বাচন নিজ উদ্যোগে করে দেওয়া জাতিসংঘের অবশ্য কর্তব্য কাজ । বর্তমান বাংলাদেশে কয়েক লক্ষ সেনা পুলিশের সমাবেশ ঘটিয়ে জাতিসংঘের নির্বাচন করে দেওয়া কর্তব্য । তবে চীন ও রাশিয়া একাজে জাতিসংঘকে সম্পৃক্ত হতে নিরুৎসাহিত করবে । তাই আমি মনে করি রাশিয়া বাদে সকল গনতান্ত্রিক দেশ মিলে একটি "গনতান্ত্রিক সংঘ" তৈরি করুক । তাদের প্রধান কাজ হবে সকল দেশের নির্বাচন সুন্দরভাবে এবং অংশগ্রহণমূলকভাবে করে দেওয়া , আর একাজে বিদেশি সেনা পুলিশের বৃহৎভাবে কাজে লাগানো অবশ্য কর্তব্য । যেমন - ভারতের জাতীয় নির্বাচনে দশ - বিশ লাখ বিদেশি সেনা পুলিশের সমাবেশ ঘটিয়ে নির্বাচন করে দিতে হবে । তাছাড়া যদি স্থানীয় সরকার নির্বাচনও প্রশ্নবিদ্ধ হয় , তাহলে সেখানেও গনতান্ত্রিক সংঘ সমানভাবে কাজ করে যাবে । তাই আমি গনতান্ত্রিক দেশসমূহকে আমন্ত্রণ জানাবো - আপনারা গনতান্ত্রিক সংঘ তৈরি করুন এবং বিশ্বকে অধিক নিরাপদ করুন ।



যদি গনতান্ত্রিক সংঘ তৈরি হয় , তাহলে গনতান্ত্রিক দেশে স্বৈরাচার শব্দটি যাদুঘরে স্থান নিবে। উদাহরণ হিসেবে বলা যায় - বর্তমান আওয়ামিলীগ সরকার ভয় পায় যে , তারা যদি ক্ষমতায় আসতে না পারে , তাহলে রাস্তা ঘাটে বিএনপি জামাতের হাতে তাদের মরতে হবে অথবা জেলে গিয়ে পঁচে মরতে হবে । কিন্তু যদি শতভাগ বিশুদ্ধ এবং অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন হয় , তাহলে বিএনপি জামাত কখনোই এমন ভুল কাজ করবে না। কারণ মানুষ শান্তি চায় এবং শান্তিপূর্ণ ভোট দেখতে চায় । অপরদিকে বিএনপিও আন্দোলনের সহযোগী হিসেবে মৌলবাদী উগ্রবাদী এবং জঙ্গিবাদীদের সাথে সম্পর্ক গড়বে না ।



অতএব , জাতিসংঘই করুক আর গনতান্ত্রিক সংঘই করুক , বিশ্বে শান্তি চাইলে গনতন্ত্রের প্রসার লাভ আবশ্যক । তাছাড়া গনতন্ত্রের একটিমাত্র মৌলিক ভিত্তি প্রতিষ্ঠিত থাকতে হবে , আর সেটি হলো ধর্মনিরপেক্ষতা । রাষ্ট্রীয়ভাবে ভারতকেও যেমন ধর্মনিরপেক্ষ হতে হবে, তেমনি বাংলাদেশকেও ধর্মনিরপেক্ষ রাষ্ট্র হতে হবে । তবে দলীয়ভাবে নিজ ধর্মচর্চার অধিকার দিতে হবে , কারণ এটা না থাকলে পৃথিবী চরমভাবে বিশৃঙ্খল হয়ে পড়বে ।



( ডাঃ আকন্দ ) ।
৩টি মন্তব্য ০টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ভালোবাসা ও নৌকা

লিখেছেন সাব্বির আহমেদ সাকিল, ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০২১ বিকাল ৪:৩৯

ভালোবাসা হলো একটা ডিঙি নৌকার মতো । যেখানে নৌকাকে ব্যালেন্স করবার জন্য দু’জন মানুষ থাকে । দু’জন মানুষের কাছে থাকে একটা বৈঠা । একজন বৈঠা বাইতে বাইতে ক্লান্ত হয়ে গেলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

এটা ধর্মীয় পোষ্ট নহে

লিখেছেন রাজীব নুর, ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:১০

ছবিঃ আমার তোলা।

আল্লাহ আমার উপর সহায় আছেন।
অথচ আমি নামাজ পড়ি না। রোজা রাখি না। এক কথায় বলা যেতে পারে- ধর্ম পালন করি না। তবু আল্লাহ আমাকে বাঁচিয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

আওয়ামী লীগের আমলে ২২ জন ছাত্রলীগারের ফাঁসী?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ০৮ ই ডিসেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২৫




** এই রায় সঠিক নয়, ইহা আজকের জন্য মুলা; হাইকোর্টে গেলে ২/৩ জনের ফাঁসীর রায় টিকে থাকবে, বাকীরা জেল টেল পাবে। ****

১ম বিষয়: আওয়ামী লীগের শাসনামলে,... ...বাকিটুকু পড়ুন

পথের প্রেম

লিখেছেন মৌরি হক দোলা, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:৫১



সেদিন তোমার কাছে প্রতিশ্রুতি চেয়েছিলাম,
ভয়ে বিবর্ণতা জাপটে ধরেছিল তোমায়।‌
সেদিন তোমার ভীতসন্ত্রস্ত মন,
আমাদের মাঝে নিয়ে এলো
পাহাড়সম দূরত্ব।

বিচ্ছিন্ন দুই প্রান্তরে হারিয়ে গেলাম
তুমি আর আমি।
অদেখা - অস্পর্শে
বয়ে গেল বহুদিন...

আজ আর কোনো... ...বাকিটুকু পড়ুন

নগ্নতা : (ফর অ্যাডাল্টস ওনলি)

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ০৯ ই ডিসেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:৪৪

শচীন ভৌমিকের লেখা ফর এডাল্টস ওনলি থেকে কিছু কিছু অংশ যা পড়ে বেশ তৃপ্তি (!!) পেয়েছি। যারা বইটি পড়েননি তাঁরা পড়ে দেখতে পারেন।----



ষাটের দশকে আমেরিকায় Mooning বলে একটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

×