somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

দ্বীপবালক
ভালবাসি মানুষকে

একজন অধ্যাপক, একজন নরাধম ও কিছু ফালতু প্যাঁচালী

০৪ ঠা জুন, ২০০৮ সন্ধ্যা ৭:০২
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

কিছু মানুষ আছেন যারা নিজেদের জ্ঞানী ভাবতে পসন্দ করেন। এতে কোন সমস্যা নেই। কিন্তু নিজেদের সীমিত জ্ঞানের বাইরেও যে জ্ঞান আছে সেটা না জেনে শুধোশুধি প্যাঁচাল বাধাতে এদের কোন জুড়ি নেই। আর এটা খুবই বিরক্তিকর।

ছোটবেলায় আমার এক খালাত ভাইয়ের সাথে "কেরোসিন" নিয়ে লাগে বিপত্তি। বয়সে আমার তিন বছরের বড় ভাইটি কেরোসিনকে বলেন "কেরাসিন"। আমি যতই বলি আসলে বানানটা হচ্ছে কেরোসিন উনি মানতে নারাজ। কিছু করার নেই, তাই হাল ছেড়ে দিলাম।

১৯৮৬ মেক্সিকোতে ফুটবল বিশ্বকাপের খেলা চলাকালীন সময়ে কলেজের কিছু বড় ভাই মেক্সিকো [মেক্‌সিকো] বলতে লাগলেন মেস্কিকো [মেস্‌কিকো]। তাদের যতই বলি তারা যেভাবে বলছেন সেটা ভুল তারা মানতে নারাজ। এদের কে বুঝাবে?

এখানে আসার পর একটা বাঙালী মুদির দুকানে ক'দিন কাজ করেছিলাম। সেখানে আড্ডা দিতে আসতেন এক দেশী পণ্ডিত(!) ব্যক্তি। নানা বিষয়ে তাঁর খুব জ্ঞান(!)। কথায় কথায় একদিন শুনলাম তিনি ইহুদীদের উপাসনালয়কে বলছেন "সিনাঘর"। আমি বললাম ওটা "সিনাঘর" নয়, "সিনাগগ" [Synagogue]। ভদ্রলোক মানতে নারাজ। কী আর করা!

আমাদের ব্লগের এক মহান পণ্ডিত(!) [নরাধম ওরফে হ্যারি সেলডন]সম্প্রতি অধ্যাপক এবং বাংলাদেশের রাজনীতিতে বিতর্কিত একজন সাবেক নেতার অধ্যাপনা নিয়ে মেতে উঠেছেন। তিনি একবার এ ব্লগে একবার সে ব্লগে গিয়ে সবার কাছে প্রশ্ন করে বেড়াচ্ছেন ঐ ভদ্রলোক কোথায় অধ্যাপক ছিলেন? শেষমেষ উনি বিষয়টা নিয়ে একজন ব্লগারকে উদ্দেশ্য করে আলাদা একটা পোস্টই দিয়ে দিলেন।
এতে অবশ্য আমার কিছু যায় আসেনা। কিন্তু দেখলাম উনি শিরোনামে আবার আমার নিকটাও যোগ করে দিলেন। অগত্যা আমি নীচের কথাগুলো জবাব হিসেবে দিলামঃ
"দ্বীপবালক বলেছেন: অধ্যাপনা একটা পেশা। আর সে পেশাটা হল কোন কলেজে/বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতার পেশা। কলেজে/বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতাকে বাঙ্গালায়/সংস্কৃততে অধ্যাপনা বলে। গোলাম আজম সাহেব যদি কারমাইকেল কলেজে রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগে অধ্যাপনা করে থাকেন তাহলে তাকে অধ্যাপক বললে সমস্যা কোথায়?
আমেরিকায়তো গ্রাজুয়েট টিচিং এসিস্ট্যান্টদেরকেও ছাত্ররা প্রফেসর বলে সম্বোধন করে। এই প্রফেসর বা অধ্যাপক পেশাগত পরিচিতি, একাডেমিক পদ নয়। কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা অধ্যাপনা করেন তাদের একাডেমিক পজিশন শুরূ হয় প্রভাষক থেকে, যেখানে সর্বোচ্চ পদের নাম অধ্যাপক। এই ক্ষেত্রে অধ্যাপক হল তার র‌্যাংক (rank) । কিন্তু প্রভাষক থেকে অধ্যাপক পর্যন্ত সবাই পেশাগতভাবে অধ্যাপক। এটা নিয়ে এত বাড়াবাড়ি করার কোন মানে আছে? নিছক পাগলামী না থাকলে কেউ এ বিষয়টাকে ইস্যু বানায়না।"

কিন্তু এ উত্তরটা ভদ্রলোকের এবং তাঁর সমমনাদের মনঃপুত হয়নি, কারণ তাঁর জ্ঞানের সীমার মধ্যে পড়েনি আমার উত্তর। এজন্য তারা নিজেদের মত করে এ নিয়ে বেশ ব্যঙ্গও করে গেলেন। কেউ কেউ গোলাম আজমের রংপুর কারমাইকেল কলেজে অধ্যাপনার বিষয়টিকেই অস্বীকার করে বসলেন, আবার কেউ কেউ ওটাকে খন্ডকালীন বলে হালকা করে দিতে চাইলেন।

গোলাম আজম নিয়ে আমার কোন মাথা ব্যথা নেই। কিন্তু নরাধম তার পোস্টের শিরোনামে আমার নিক যোগ করায় আমি উত্তরটা দিয়েছিলাম। প্রকৃত ব্যাপার হল কলেজে/বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকতাকে সংস্কৃত ও বাংলাসহ অন্যান্য সংস্কৃতজাত ভাষায় অধ্যাপনা বলে। আর যারা এই অধ্যাপনা করেন তাদের উপমহাদেশের লোকেরা অধ্যাপক বলেই সম্বোধন করেন। এটা শুধু আমাদের উপমহাদেশেই নয় পৃথিবীর অনেক দেশেই কলেজ/বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষকদের অধ্যাপক বলা হয়। কোন কোন দেশেতো হাইস্কুল শিক্ষকদেরও অধ্যাপক বলা হয়। নীচের ইংরেজী উদ্ধৃতিটা দেখুনঃ
"The meaning of the word professor (Latin: professor, person who professes to be an expert in some art or science, teacher of highest rank[1]) varies. In some English-speaking countries, it refers to a senior academic who holds a departmental chair, especially as head of the department, or a personal chair awarded specifically to that individual. For example, in the United Kingdom and Australia it is a legal title conferred by a university denoting the highest academic rank, whereas in the United States, Brazil, Canada, Hong Kong, individuals often use the term professor as a polite form of address for any lecturer, or researcher employed by a college or university, regardless of rank. In some countries, e.g. Austria, France, Romania, Serbia, Poland and Italy, the term is an honorific applied also to secondary level teachers". Reference: Professor in Wikipedia
কেউ উইকির এই উদ্ধৃতিটার বাংলা না বুঝলে আওয়াজ দিয়েন। বাংলা করে দেব তখন।

"যারে দেখতে নারি তার চলন বাঁকা" বলে বাংলায় একটা কথা আছে। গোলাম আজম নিয়ে অনেক সমস্যা আছে। কিন্তু তার অধ্যাপক হওয়া নিয়ে ফালতু প্যাঁচাল না পাড়লে কি ভাল হয়না?
আর অধ্যাপক সংক্রান্ত আমাদের দেশীয় সংস্কৃতিকে জানলে এধরণের পণ্ডিতি-মূর্খতায় ভূগতে হবেনা।
৬২টি মন্তব্য ৮টি উত্তর পূর্বের ৫০টি মন্তব্য দেখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

সন্তানের স্বার্থপরতার বলি বেগম জিয়া!!!!

লিখেছেন মাহফুজ, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ৩:৩০




লেখাটা কে কিভাবে নেবেন আমি জানিনা তবে আমার লেখার উদ্দেশ্য মানবিক। আমি লিখছি আমার পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে। আজ পর্যন্ত লেখালেখি করে অনেক আজেবাজে ট্যাগ পেয়েছি তবে এখন পর্যন্ত কেউ... ...বাকিটুকু পড়ুন

জীবন ও সমুদ্র ..........

লিখেছেন জুল ভার্ন, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:২৭

জীবন ও সমুদ্র ..........


‘আমি শুনেছি সেদিন তুমি
সাগরের ঢেউয়ে চেপে
নীল জল দিগন্ত ছুঁয়ে এসেছো,
আমি শুনেছি সেদিন তুমি
নোনা বালি তীর ধরে
বহুদূর বহুদূর হেঁটে এসেছো।’
মৌসুমী ভৌমিকের এ গান... ...বাকিটুকু পড়ুন

নিষিদ্ধ অপরাধ

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২৬



মিনারা বেগমের মনে সন্দেহ ঢুকছে। তার স্বামী নাকি ভাই কে হতে পারে অপরাধী। এত চোখে চোখে রেখেও কিভাবে এরকম ঘটনা ঘটে গেল সেটাই বুঝতে পারছেনা মিনারা বেগম।

রমিলা এই... ...বাকিটুকু পড়ুন

মানুষের ইতিহাস নিয়ে ভুল শিক্ষাঃ ইসলামে আদম/হাওয়া সত্য নাকি ব্লগার কালবৈশাখী'র জানা বিবর্তন?

লিখেছেন জ্যাকেল , ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:০৭

আমার গত পোস্টে কালবৈশাখী' মন্তব্য করেছেন যেইটা আবার গেছো দাদা অন্তর থেকে গ্রহণ করে রিপোস্ট করেছেন। এইদিকে আমার সময় দিতে না পারায় বড্ড দেরি হইয়া যাইতেছে। তাই আজকে ভাবলাম পুরোটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

ব্লগ লিখেছি ১৩ বছর, বিবাহ হয়েছে ১০ বছর, বাচ্চাদের বয়স ৯ এবং ৭

লিখেছেন হাসান মাহবুব, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ১০:২৪



প্রাককথন

২০০৮ সাল। বাসায় বসে আছি। ছাত্রজীবনে কিছু লিরিক, গল্প আর বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানের জন্যে নাটিকা লিখেছিলাম এই ভরসা নিয়ে অপেক্ষা করে আছি কবে হুট করে বড় লেখক হয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×