somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

Always somewhere miss you where I've been...SCORPIONS

০৮ ই ডিসেম্বর, ২০০৯ বিকাল ৩:০৭
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

'এটা আমাদের আইডিয়া ছিল না...ছিল রেকর্ড কোম্পানীর। তারা বলেছিল "দরকার হলে জেলে যাব কিন্তু কোন আপোষ নয়! এই এলবাম এভাবেই বাজারে আসবে!" ...

Rudolf Schenker তাঁর ইন্টারভিউতে এরকম ব্যাখ্যাই দিয়েছিলেন!
যত গন্ডগোলের মূলে ওই এলবাম কাভার। তাদের Virgin Killer এলবামে জ্যাকুলিন নামের ১০ বছর বয়সী এক বালিকার ন্যুড ছবি ছিল। আর তাতেই যত বিতর্ক।

'আপনারা এভাবে না দেখে আমাদের থিমটা বোঝার চেষ্টা করুন যেভাবে তারা (রেকর্ড কোম্পানী) বুঝেছে। আসলে সময়ই হল Virgin Killer। পুরো এলবামে আমরা তার একটা আবহ রেখেছি।আপনারা লিরিকস ফলো করেন।'


[সেই বিতর্কিত কাভার]

UK, US, Europe এ যতই বাঁধা পেয়েছে ততই জনপ্রিয়তা পেয়েছে গানগুলি। আর ব্যান্ড তো কথাই নেই।

হ্যাঁ...৬০ এর দশকের জনপ্রিয় হার্ডরক ব্যান্ড SCORPIONS এর কথা বলছি। যাদের হাত ধরে আমার 'রক' জগতে অনুপ্রবেশ।

যে সময়ের কথা



যুদ্ধ পরবর্তী জার্মানীতে আর সবার মতই আমেরিকার ইম্পোর্টেড সব জিনিসে আসক্ত হয়েছিলেন Klaus Meine আর Rudolf Schenker। ওঁদের ভাষায় "Elvis Presley, chewing gum, blue jeans আর leather jackets, but most of all rock ‘n’ roll"।

কিছু একটা করতে ইচ্ছা করছিল তাঁদের কিন্তু Beatles তখন দ্যুতি ছড়াচ্ছিল নির্মমভাবে। অবশেষে ১৯৬৫ সালে শুরু হল তাদের যাত্রা। ভাই Michael Schenker কে নিয়ে পথ চলা শুরু করলেন। এদেরকে বলা হয় Schenker/Meine songwriting duo।

১৯৭২ সালে তাঁরা তাঁদের প্রথম এলবাম Lonesome Crow বাজারে আনে। ছায়া পেয়েছিল Jimmy Hendrix, Cream আর Led Zeppelin এর অনুরূপ এক মিশেলে। অনুপম বৈশিষ্ট্য পেয়েছিল দুটো ইলেক্ট্রিক গীটার এর অসাধারন শৈলীর কারনে। এর পর পরই তাঁরা ট্যুরে বের হন Uriah Heep আর UFO এর সাথে।

১৯৭২: Michael Schenker, Joe Wyman, Lothar Heimberg, Klaus Meine, Rudolf Schenker

১৯৭৪ সালে বের হয় Fly to the Rainbow এলবামটি। সবাই নড়ে চড়ে বসল। কারন Rudolf এর ঘোষনা (declared ambition) যে সত্যি হতে চলেছে ততদিনে। তিনি বলেছিলেন..."one day the SCORPIONS will be one of the best heavy rock bands in the world!"

In Trance বের হয় ১৯৭৫ সালে। এমন একটি এলবামকে সামনে রেখে বর্তমান প্রজন্ম একই নামে একটি ব্যান্ডই বের করে ফেলে।


সংকট কাল এবং উত্তরন

Lovedrive এবং Animal Magnetism এলবামের সাফল্যের পর পর Klaus এর গলায় গুরতর সমস্যা দেখা দেয়। দুটি মেজর অপারেশন করতে হয়। এক পর্যায়ে তিনি সিদ্ধান্ত নেন ব্যান্ড ছেড়ে দেবেন। কিন্তু ললাট লিখন ছিল অন্যরকম। জনপ্রিয়তার চাপে পড়ে এবং বন্ধুত্বের খাতিরে শেষ পর্যন্ত তিনি ফিরে আসেন। এবার ফিরে এলেন তিনি অসাধারন ভোকাল রেঞ্জ নিয়ে। ক্রিটিকরা বলতে লাগলেন...'তারা Klaus কে মেটাল ভোকাল কর্ড দিয়ে ইমপ্ল্যান্ট করেছে।' এবার?

Blackout (1982) এবং Love at First Sting (1984) বের করে ফেললেন তারা। (এই দুটি এল্যবাম আমার অসম্ভব প্রিয়)। বেকুব হয়ে গেল সারা বিশ্ব। Bon Jovi, Metallica, Iron Maiden, Def Leppard একদিকে, অন্যদিকে তাঁদের বিখ্যাত 'মেলডিক রক'। এত মেলডিক হতে পারে রক গান তা scorpions এর আগে কেউই এভাবে চোখে আংগুল দিয়ে দেখাতে পারেনি।

যেভাবে SCORPIONS আমাকে পঙ্গু (প্যারালাইজড) করল

তখন খুব ছোট আমি। স্কুলে পরি আরকি! আমার বন্ধু 'উল্লাস' আমাকে শোনাল Always somewhere...। তিনরাত জেগে জেগে চুরি করে এই গান শুনলাম। এরপর শুনলাম একে একে এদের rock ballads...Still Loving You, Holiday। মুখ থুবড়ে ওদের উপরই পড়ে গেলাম। সেই যে পড়লাম, এখনও উঠতে পারিনি। (একটা গুরুতর কাজ করতাম তখন... অবসর থাকলেই কত সুন্দর করে ওদের লোগো আঁকা যায় চেষ্টা করতাম খুব। মনে পড়লেই হাসি পায়...রোমাঞ্চিতও হই)।

এরপর শুনলাম Rock You Like a Hurricane, No One Like You, Blackout, Big City Nights। আর যায় কোথায়? আটকে ফেললাম ওদেরকে।

ওদের সবচেয়ে বড় কনসার্ট হল 'Rock in Rio'। প্রায় ৩৫০০০০ এরও বেশি দর্শকরা অনবরত অভিবাদন জানিয়েছে তাঁদেরকে গর্জনের মত করে।

এরপর তো Wind of Change, Send Me an Angel, When You Came Into My Life, You and I, When the Smoke is Going Down। আর কি চাই জীবনে?

ও হ্যাঁ, একটা চাওয়ার আছে। যদি ওদের কনসার্ট দেখার সুযোগ পাই।

বার্লিন ফিলহারমোনিক অর্কেষ্ট্রার সাথে

শেষ কথা
আমার জীবনের একটা উল্রেখযোগ্য সময় কেড়ে নিয়েছে এই ব্যান্ডটি। মূলত 'রক' কি, এই জিনিস এঁদের হাত না ধরলে বুঝতে পারতাম না। সময় যতই গড়িয়েছে, প্রচুর ব্যান্ড আর তাদের গান এসেছে আর গিয়েছে...কিন্তু SCORPIONS?

ওরা শুধুই SCORPIONS, আর কিছু নয়। ওরা ওদের মতন। তুলনাও মনে হয় পাপ।
সর্বশেষ এডিট : ১১ ই জানুয়ারি, ২০১০ রাত ১২:০১
৬৮টি মন্তব্য ৪৭টি উত্তর পূর্বের ৫০টি মন্তব্য দেখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ইউরোপে ইমিগ্রেশন-বিরোধী, ডানপন্হীদের ক্ষমতায় আরোহণ

লিখেছেন সোনাগাজী, ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ দুপুর ১২:৫৩



**** মাত্র ৮টি মন্তব্য পেয়ে এই পোষ্ট আলোচনার পাতায় চলে গেছে, আমার কাছে ভালো লাগছে না। ****

আগামী মাসে ইতালীর নতুন প্রাইম মিনিষ্টার হতে যাচ্ছেন ১ জন... ...বাকিটুকু পড়ুন

ট্যাটু প্রথা এবং......

লিখেছেন জুল ভার্ন, ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৬:১৪

ট্যাটু প্রথা এবং......

যুগে যুগে, কালে কালে দুনিয়া জুড়ে রাজাদের ‘প্রয়োজন’ হত নতুন নতুন রাণির। কিন্তু এত রাজকুমারী তো আর পাওয়া সম্ভব ছিল না। তাই, সাম্রাজ্যের পথেঘাটে কোনও সুন্দরীকে পছন্দ... ...বাকিটুকু পড়ুন

সামহোয়্যার ইন ব্লগ রিভিউ সেপ্টেম্বর ২০২২। ভালোলাগার ৩০ জন ব্লগারের ৩০ পোষ্ট।

লিখেছেন ভার্চুয়াল তাসনিম, ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ সন্ধ্যা ৭:৩১

মাসের সর্বাধিক পাঠক পাওয়া ৫ পোস্টঃ
১) যাপিত জীবনঃ ব্লগিং এর সমাপ্তি। - জাদিদ।
"শালীন হাস্যরস ভালোবাসেন। পোষ্টের গভীরতা অনুভব করে উপযুক্ত মন্তব্য করার ক্ষেত্রে তাঁর জুড়ি নেই। সবার... ...বাকিটুকু পড়ুন

অন্তর্বাস এবং পাকিস্তান এয়ারলাইন্স এর ক্রু

লিখেছেন শাহ আজিজ, ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ৮:২৬

নেট


অন্তর্বাস বা ব্রা না পরার কারণে’ এয়ারলাইন্সের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হচ্ছে মন্তব্য করে এ নিয়ম চালু করেছে পিআইএ কর্তৃপক্ষ। বিমানবালা বা কেবিন ক্রুদের ‘ঠিকঠাক’... ...বাকিটুকু পড়ুন

প্রকৃতির খেয়াল - ০৬

লিখেছেন মরুভূমির জলদস্যু, ৩০ শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ রাত ১০:৫৩

১ : রংধনু রাঙ্গা মাছ


রংধনু রাঙ্গা এই মাছটির নাম Rose-Veiled Fairy Wrasse যা মালদ্বীপের সমূদ্রের ঢেউয়ের নীচের কোরাল প্রাচীর এলাকায় বসবাস করে। এটিকে জীবন্ত রংধনু বললে কোনো ভুল হবে না।... ...বাকিটুকু পড়ুন

×