somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

ধূসর ত্রেয়া...

আমার পরিসংখ্যান

ত্রেয়া
quote icon
ভেতরে আমার
বাশীঁটা বাজেনা আর
ওড়ে না পাখির
আঁকা বাঁকা রঙিন আঁচড়
ভেতরে আমার
ভেঙ্গে পড়ে শুধু পাড়
আর নদির জলে
ঢেউগুলি নির্বাক.........। ।

আমি ত্রেয়া।
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

ছেঁড়া পাতায়...

লিখেছেন ত্রেয়া, ২৫ শে মার্চ, ২০১০ সকাল ৭:২৩

কদিন ধরে মনটা কেমন যেন ভীষণ এলোমেলো হয়ে আছে.... এলোমেলো হয়ে আছি আমি! মনে হচ্ছে এই আমি থেকেও নেই কোথাও! নিজেকে কেমন যেন ছায়া মানুষ ছায়া মানুষ মনে হচ্ছে আমার... মনে হচ্ছে আমি আছি ঠিকই কিন্তু আমার কোনো অস্তিত্ব নেই,, কিন্তু সেটাও যে কি করে সম্ভব কে জানে!

নিজেকে একদম নিস্তরঙ্গ... বাকিটুকু পড়ুন

৪৫ টি মন্তব্য      ৫৩০ বার পঠিত     ২৬ like!

সময়গুলো সব এমনি করেই কোথায় যেন চলে যায়!!

লিখেছেন ত্রেয়া, ০৮ ই জানুয়ারি, ২০১০ সকাল ৮:৫০

অনেক্ষণ ধরে বসে আছি চুপচাপ। একটা সময় বিরক্ত হয়ে ল্যাপটপ টা বিছানা থেকে আমার কোলের ওপর উঠিয়ে নিলাম। আর সাথে সাথেই ল্যাপটপ স্ক্রিনের ডানদিকের নিচটায় যেখানে এতক্ষণ চার্জিংয়ের সাইন দেখাচ্ছিল সেটা চলে গেল। কিছুদিন ধরেই এই ব্যাপারটা দেখছি। যতক্ষণ বিছানায় বা টেবিলে বা যে কোন যায়গায় এই ল্যাপটপ রাখা থাকে... বাকিটুকু পড়ুন

৭১ টি মন্তব্য      ৮৩০ বার পঠিত     ৩০ like!

তবু যেতে দিতে হয়......।।

লিখেছেন ত্রেয়া, ২৫ শে নভেম্বর, ২০০৯ সকাল ১০:১২

দৃশ্য এক:

চোখের কোল দিয়ে টপটপ করে জল গড়াচ্ছে মেয়েটার। জানালার কার্নিশে ভর দিয়ে গালে হাত দিয়ে বসা মেয়েটা বাইরের নিকেশ কালো অন্ধকারে ঠিক কি দেখছে যদিও সেটা ঠিক বোঝা যাচ্ছে না তবু সে যে বাসের ভেতরকার কোলাহল থেকে বহু,,, বহু দূরে এটা অনুধাবন করা যাচ্ছে সহজেই। চুলগুলো ওর চুড়ো খোপা... বাকিটুকু পড়ুন

১০৪ টি মন্তব্য      ৭৪৫ বার পঠিত     ২৯ like!

'ছেলেটি হাটছিলো ধীরে'

লিখেছেন ত্রেয়া, ১৩ ই নভেম্বর, ২০০৯ সন্ধ্যা ৬:৫২

ওরা সবাই কথা বলছে। রঙছুট,, কঙ্কাবতী,, দৈত্য,, ত্রেয়া। ওহ না না ভুল বললাম ত্রেয়া ঠিক কথা তো বলছে না। ও শুধু শুনছে। এই শুনাটাও কিন্তু এক রকম বেশ মজার কান্ড বটে... কালো কালো মুক্তোর দানার লেখাগুলো থেকেই কথাগুলো আসতে থাকে অবিরাম তবে আজকাল আর অক্ষরগুলো শুধুই কালোই হয়না যদিও...... সে... বাকিটুকু পড়ুন

৭৬ টি মন্তব্য      ৬১৯ বার পঠিত     ১৮ like!

'ছুটির নিমন্ত্রণে আতসী'

লিখেছেন ত্রেয়া, ২৮ শে অক্টোবর, ২০০৯ সকাল ১০:৪৩

এত শূণ্যতা চারিদিকে। এত!! এত বেশি শূণ্যতা চারিদিকে যে কেমন যেন দম বন্ধ হয়ে আসছে।

ঘরের সবগুলো জানালা খুলে দিলাম। প্যাডেস্টাল ফ্যানটা দিয়ে দিলাম ফুল স্পিডে। বিছানার চাদর পাল্টে একরঙা সাদা দিলাম। বাতি নিভিয়ে জ্বালালাম একটা ল্যম্পশেড। শুধু যদি একটু কমে দম বন্ধ ভাবটা!!

ঘর ভরে গেল কনকনে ঠান্ডা হাওয়ায়। অন্ধকারের আবছায়া... বাকিটুকু পড়ুন

৮০ টি মন্তব্য      ৭১৮ বার পঠিত     ২৬ like!

"নিঃসঙ্গতার একশ বছর" কিংবা অর্থহীন আজকের দিনটি

লিখেছেন ত্রেয়া, ২৬ শে অক্টোবর, ২০০৯ ভোর ৬:১১

নিঃসঙ্গতার একশ বছর....

নামটা ধার করা। আসলে ঘুম থেকে উঠে এই বইটা নিয়েই সারাদিন গেল কিনা তাই নামটা যেন মস্তিষ্কে প্রিয় কোন ডাকের মতই একটু পর পর টোকা দিয়ে যাচ্ছে। কালো মলাটের একটা বই। ভেতরটা যেন আরও কালো। নাহ্‌ এটা বলা ঠিক হলো না... এখন পর্যন্ত পড়েছি মোটে সাড়ে সাত পাতা।... বাকিটুকু পড়ুন

৫১ টি মন্তব্য      ৭০২ বার পঠিত     ২১ like!

প্রস্থান,, আলো-ছায়া অন্ধকারে......

লিখেছেন ত্রেয়া, ১১ ই অক্টোবর, ২০০৯ রাত ১১:৪১

চোখের কোল দিয়ে গড়িয়ে পরছে স্বচ্ছ রংহীন অণুগুলো। তবুও আমি ভাবছি বোধহীন আমার অনুভূতি। আমি শুয়ে আছি। আধো অন্ধকার চারপাশ। এমন নয় যে আমি বুঝতে পারছি না আমার চারপাশের শব্দগুলো সবই অপার্থীব। কিংবা আমার এখনকার অবস্থায় আমার অসেপাশের কোনকিছুই আমার জানতে পারাটা ঠিক স্বাভাবিক না। তবুও কিভাবে যেন আমি ঠিক... বাকিটুকু পড়ুন

৪৯ টি মন্তব্য      ৬১৭ বার পঠিত     ১৬ like!

দ্বিচারিণী একজন......[শেষ পর্ব]

লিখেছেন ত্রেয়া, ১১ ই সেপ্টেম্বর, ২০০৯ রাত ২:৫৭

কিন্তু আমি কি আসলেই বেঁচে যেতে পেরেছিলাম??





বাঁচতে পারা শব্দটা মনে হতেই আমার ঠোটে এক চিলতে কষ্টের হাসি ছলকে উঠল। কাছটা একটু যেন শক্তও হয়ে গেলো।

আমি কাত করে শাওয়ারের নিচে ঘাড় পেতে দিলাম। নেমে আসা গরম পানির ধারায় এবার আর খুব একটা কাজ হলো না। হিমশীতল স্মৃতির পুরনো অনুভবে আমার পুরো... বাকিটুকু পড়ুন

৬৯ টি মন্তব্য      ৯৫৬ বার পঠিত     ২৩ like!

দ্বিচারিণী একজন......[চতুর্থ]

লিখেছেন ত্রেয়া, ০২ রা সেপ্টেম্বর, ২০০৯ সকাল ৮:২৬

আমার পাশের একটা লম্বা সোফায় বসা দুটো ছেলেমেয়ে। ছেলেটা মেয়েটার জামার সামনের বোতামগুলো নিয়ে খেলছে। জামার বোতামগুলো ফিতে দিয়ে জড়ানো ভারি কারুকাজ করা। ছেলেটা দুষ্টুমি করে বোতামগুলো যেন খোলার চেষ্টা করছে। যেই পারছে না অমনি মেয়েটা খিলখিল করে হেসে গিয়ে ভেঙ্গে পরছে ছেলেটার গায়ের উপর।



ছবিটা দেখতে দেখতেই চোখে আমার... বাকিটুকু পড়ুন

১১৪ টি মন্তব্য      ১২১৮ বার পঠিত     ৩৭ like!

দ্বিচারিণী একজন....... [তৃতীয়]

লিখেছেন ত্রেয়া, ২১ শে আগস্ট, ২০০৯ সকাল ৮:৪০

ক্যান আই সি ইওর ওয়েস্টার কার্ড প্লিজ?

বাসের টিকেট চেকার।

আমি চমকে উঠলাম। চোখ খুলে অবাক চোখে তাকালাম লোকটার দিকে..........



এই দেশে সবসময়ই যে বাসে টিকেট চেক করে তা কিন্তু না। হটাৎ হঠাৎই এদের আবির্ভাব হয়। তখন টিকেট দেখাতে না পারলে এরা বেশ বড় অংকের... বাকিটুকু পড়ুন

৬৬ টি মন্তব্য      ৮১২ বার পঠিত     ২০ like!

দ্বিচারিণী একজন....... [দ্বিতীয়]

লিখেছেন ত্রেয়া, ১৫ ই আগস্ট, ২০০৯ সকাল ১০:৩২

ঘুম ভেঙে চোখ খুলেই দেখলাম বিছানার সাথের জানালাটার পাশে রাখা ছবির স্ট্যান্ডটায় পর্দার ফাঁক দিয়ে সকালের নরম আলো এসে পড়ছে। বেশ কদিন পর সূর্যের দেখা মিলল আজ। দেখেই মনটা ভালো হয়ে গেলো। বেড সাইড টেবিলের ড্রয়ার থেকে বালা দুটো আর বিয়ের আংটি টা বের করে পরলাম, মন ভালো একটা অনুভূতি... বাকিটুকু পড়ুন

৬০ টি মন্তব্য      ৯৬৩ বার পঠিত     ২২ like!

দ্বিচারিণী একজন.......

লিখেছেন ত্রেয়া, ০৫ ই আগস্ট, ২০০৯ সকাল ৯:৫৮

রাতগুলো ভোর হয় নিশ্চল আমার সাথে।

আমাকে আমি যেন ঠিক চিনতে পারিনা কখনো কখনো। আমিটা যেন

আমার সাথে নেই আর। এই আমি যেন শুধুই ছায়া,,তাইতো আজ আর কোন আঘাতেরই প্রতিফলন নেই। মাঝে মাঝে শুধু পুরনো কিছু আনন্দ এসে একটু হয়তো নাড়া দিয়ে যায়। আমি নিজের মনেই হেসে উঠি কখনো হঠাৎ।... বাকিটুকু পড়ুন

৮১ টি মন্তব্য      ৯১৮ বার পঠিত     ১৯ like!

বিবর্ণ রংধনু আর আমি............

লিখেছেন ত্রেয়া, ২৮ শে জুলাই, ২০০৯ বিকাল ৪:৫২

দোতলায় উঠেই বুঝতে পাড়লাম, ক্লাস হচ্ছে না আজ। প্রথমেই মনে পড়লো ঠিক দুটোয় রুহানের চায়ের দোকানটার সামনে দাড়িয়ে থাকার কথা, আর এখন বাজে বারোটা। এই দুটো ঘণ্টা আমি কোথায় বসে থাকি? ভাবতে ভাবতেই মনে হল বসে না থেকে আমি তো রুহানের কোচিং এও চলে যেতে পারি। যদিও এর আগে যাওয়া... বাকিটুকু পড়ুন

২৯ টি মন্তব্য      ৬২৫ বার পঠিত     ১২ like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ৩৬৪৮৩ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ