somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

ফিরে দেখা - ২৫ মে

২৫ শে মে, ২০২৪ দুপুর ১:৪১
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
২৫ মে, ২০০৭


নতুন দল গঠন প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্ত
নতুন রাজনৈতিক দল গঠনের প্রক্রিয়া প্রায় চূড়ান্তের পথে। নাম চূড়ান্ত না হলে সম্ভাব্য এই নতুন দলের গঠনতন্ত্র ও ঘোষণাপত্রের খসড়াও ইতোমধ্যে চুড়ান্ত হয়েছে। ঘরোয়া রাজনীতি চালু হলেই আত্মপ্রকাশ ঘটবে এই নতুন দলের। দেশের তিন শ' আসনকে টার্গেট করে বিভিন্ন দল ও পেশাজীবী-ব্যবসায়ীদের মধ্য থেকে বাছাই করা নেতাদের নিয়ে নির্বাচনী আসনভিত্তিক কমিটি গঠনের উদ্যোগ-তৎপরতা চলছে। নোবেল বিজয়ী ড. মুহাম্মদ ইউনূস ও সংবিধানপ্রণেতা ড. কামাল হোসেন দৃশ্যপটে নেই। তাঁরা সরে যাওয়ার পর নতুন দলের কে হাল ধরছেন। চমক সৃষ্টি করার মতো এমন একজন গ্রহণযোগ্য নেতাকে এখনও খুঁজে পাননি নেপথ্যের উদ্যোক্তারা। তবে উদ্যোক্তা সূত্রগুলো বলছে, প্রাথমিকভাবে বিএনপির সাবেক নেতা ও সাংবাদিক ফেরদৌস আহমেদ কোরেশীকে প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক করেই এই নতুন দল আত্মপ্রকাশের সম্ভাবনা রয়েছে। সম্ভাব্য নতুন দলের আরেক অন্যতম উদ্যোক্তা কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের একাংশের নেতা ফজলুর রহমানও থাকছেন গুরুত্বপূর্ণ পদে। ঘরোয়া রাজনীতি শুরু হলেই এই নতুন দল আত্মপ্রকাশ করবে।

সময়ের সঙ্গে মিল রেখে বিএনপিতে সংস্কার হবে
জরুরি অবস্থা জারির প্রায় তিন মাস পর সরাসরি কথা বললেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। তিনি সাংবাদিকদের বললেন ঘরোয়া রাজনীতি শুরু হলে দলের ভেতরে সংস্কার করা হবে। সময়ের সঙ্গে সমন্বয় ঘটিয়ে আমরা দলে সংস্কার করতে চাই। গতকাল মার্কিন রাষ্ট্রদূত প্যাট্রিসিয়া এ বিউটেনিসের সঙ্গে স্থানীয় এক হোটেলে সাক্ষাতের পর খালেদা জিয়া সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন। তিনি দল, সংস্কার ও পরিবারতন্ত্রের বিষয়ে খোলামেলা উত্তর দেন।
বিএনপি চেয়ারপার্সন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া দ্রুত নির্বাচনের দাবি জানিয়ে বলেছেন, আমরা নতুন ভোটার তালিকা চাই। তবে ভোটার তালিকা তৈরিতে ১৮ মাসের মত দীর্ঘ সময় লাগার কথা নয়। ঘরোয়া রাজনীতির ওপর থেকে নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার হওয়ার পর দলের ভেতর প্রয়োজনীয় সংস্কার করা হবে। বেগম জিয়া পরিবারতন্ত্র নিয়ে চলমান বিতর্ক প্রসঙ্গে বলেন, পরিবারতন্ত্র কোন ব্যাপার নয়। যোগ্যতা ও জনসমর্থন থাকলে যে কেউ রাজনীতিতে আসতে পারেন। এ বিষয়ে তিনি নিজের দৃষ্টান্ত তুলে ধরে বলেন, আপনারা জানেন, আমি পরিবারের সদস্য হিসেবে রাজনীতিতে আসিনি। রাজপথে ছিলাম। রাজপথে আন্দোলন-লড়াই করে জনসমর্থন নিয়েই আমি এ পর্যায়ে এসেছি।

বিএনপির জয়নাল ফারুক গ্রেফতার সন্ত্রাস চাঁদাবাজিসহ বহু অভিযোগ
নোয়াখালী-১ আসনের বিএনপির সাবেক এমপি জয়নাল আবেদীন ফারুককে গতকাল দুপুরে যৌথ বাহিনীর সদস্যরা ঢাকার খিলক্ষেত থানার নিকুঞ্জ এলাকার বাসা থেকে গ্রেফতার করেছে। পরে তাকে ক্যান্টনমেন্ট থানায় সোপর্দ করা হয়। তার বিরুদ্ধে ২টি মামলায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। সেনবাগে জয়নাল আবেদীন ফারুকের বিরুদ্ধে সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড, চাঁদাবাজি, রাহাজানিসহ বিভিন্ন ধরনের অভিযোগ রয়েছে। শুক্রবার রাতেই তার নোয়াখালীর সেনবাগে যাওয়ার কথা ছিল বলে পারিবারিক সূত্র জানায়। সেনবাগ (নোয়াখালী) থেকে সংবাদদাতা জানান, জয়নাল আবেদীন ফারুকের বিরুদ্ধে সরকারী ত্রাণের ঢেউটিন আত্মসাৎ ও সড়ক ব্যারিকেডের মামলায় সেনবাগ থানায় গ্রেফতারি পরোয়ানা রয়েছে। তাছাড়া বীজবাগ এলাকার ফারুক চৌধুরীর চাঁদাবাজির মামলার প্রধান আসামি জয়নাল আবেদীন ফারুক।
এক নজরে ফারুকঃ ১৯৯১ সাল হতে ২০০১ সাল পর্যন্ত নোয়াখালী-১ আসনে ধানের শীষ প্রতীক নিয়ে এমপি নির্বাচিত হন জয়নাল আবেদীন ফারুক। জাগদল থেকে বিএনপিতে যোগ দিয়ে ফারুক ’৯১ সালে এমপি হন। বিএনপি রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থাকাকালে তিনি এলাকায় নিজস্ব বাহিনী গড়ে তোলেন। তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজি, সন্ত্রাসসহ নানা অভিযোগ রয়েছে। বিগত সরকারের সময় বিরোধী দলের বার বার অভিযোগ ছিল, জয়নালের বাহিনীর অত্যাচারে এলাকাবাসী অতিষ্ঠ। সে সময় সংঘর্ষ, হামলা-পাল্টা হামলার বহু ঘটনা ঘটেছে।

২৫ মে ২০০২
নাসিমের গাড়ী বহরে হামলায় ১ জন নিহত, আহত ১০
সিরাজগঞ্জের বেলকুচি উপজেলার দৌলতপুর কলেজ মাঠে আওয়ামী আয়োজিত জনসভা শেষে ফেরার পথে মাড়ি বাজারে মোহাম্মদ নাসিমের গাড়ী বহরে হামলায় ১ জন নিহত ও ১০ জন নেতা-কর্মী আহত হয়েছেন। আহতদের মধ্যে জেলা যুবলীগ নেতা আনোয়ার হোসেন (৪৮) ও আসাদুজ্জামানের (৩৫) অবস্থা আশংকাজনক। তাদের বেলকুচি স্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভর্তি করা হয়েছে। ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে তাদের আওয়ামী লীগ নেতা আবদুল কুদ্দুসকে (৪৫) ক্ষতবিক্ষত করা হয়।

জরুরী ভিত্তিতে ভারতে গ্যাস রপ্তানির সুপারিশ করেছে ব্যবহার কমিটি
জরুরী ভিত্তিতে ভারতে পাইপ লাইনের মাধ্যমে বাস রফতানীর সুপারিশ করছে সরকার গঠিত গ্যাসের সর্বোচ্চ অর্থনৈতিক ব্যবহার সংক্রান্ত কমিটি। কমিটি মনে করছে, বিদেশী কোম্পানীগুলোর কাছ থেকে কেনা গ্যাসের মূল্য পরিশোধ করেই গ্যাস রফতানী করা উচিত। গ্যাসের উত্তোলনযোগ্য মজুদের শতকরা ২৫ ভাগের বেশি পরিমাণ গ্যাস রফতানি করা ঠিক হবে না। কমিটি আগামী মাসের প্রথম সপ্তাহে তাদের রিপোর্ট প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার কাছে জমা দেবেন। উল্লেখ্য, দেশে প্রচলিত জ্বালানি নীতিমালা এবং পিএসসিতে পাইপ লাইনে গ্যাস রফতানীর কোন বিধান নেই।

২৫ মে ২০০০



২৫ মে ১৯৮২
চতুর্থ মামলায় জামালউদ্দিনের ৯ বৎসর সশ্রম কারাদণ্ড
১নং বিশেষ সামরিক আইন টাইবুনাল সাবেক উপ-প্রধানমন্ত্রী জনাব জামালউদ্দিন আহমদের বিরুদ্ধে আনীত ৪র্থ মামলার রায় প্রদান করেন। টাইব্যুনাল ১৯৮২ সালের ১নং সামরিক আইন বিধির ১১নং ধারাবলে দুর্নীতি ও ক্ষমতার অপব্যবহারের অভিযোগে জনাব জামালউদ্দিনকে দোষী সাব্যস্ত করিয়া ৯ বৎসরের সম্ভ্রম কারাদন্ড প্রদান করেন।

২৫ মে ১৯৭২
মজুতদারী,কালোবাজারী ও ত্রাণসামগ্রী আত্মসাৎকারীদের বিচারের ব্যবস্থা
প্রেসিডেন্ট বাংলাদেশ নির্ধারিত অপরাধ (বিশেষ ট্রাইব্যুনাল) আদেশ, ১৯৭২ জারি করেন। ইহাতে "গুরুতর কয়েকটি অপরাধের বিচারের জন্য বিশেষ ট্রাইব্যুনালের বিধান দেওয়া হইয়াছে। খাদ্যশস্য ও খাদ্যসামগ্রী, ভোজাতৈল, শিশুখাদ্য, কেরোসিন, প্রাণরক্ষাকারী ঔষুধ কিংবা প্রচলিত আইন মোতাবেক নিত্যব্যবহার্য পণারূপে ঘোষিতব্য অপর যে কোন পণ্য মজুদ করার অপরাধ উলিখিত গুরুতর অপরাধ
বলিয়া পরিগণিত হইবে ।

২৫ মে ১৯৭১
বাঙলাদেশ সমর্থন চায়, মধ্যস্থতা চায় না
পশ্চিম পাকিস্তানের নেতাদের মধ্যে মধ্যস্থতার প্রস্তাব সম্পর্কে মন্তব্য করতে গিয়ে একজন শীর্ষস্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতা যুগান্তরের প্রতিনিধিকে বলেন, পাকিস্তানী সামরিক হতার বিরুদ্ধে যুদ্ধে বাঙলাদেশ সমর্থন চার, মধ্যস্থতা চায় না। এখানে উল্লেখ্য, বাংলাদেশ পশ্চিম পাকিস্তানের মধ্যে যুদ্ধের একটা শান্তিপূর্ণ মীমাংসার জন্য পাখতুন নেতা মধ্যস্থতা করতে চেয়েছিলেন। অবশ্য পাকিস্তান এ ব্যাপারে কোনো সাড়া দেয়নি।

উদ্ধৃতি:

"এদেশ আমরা স্বাধীন করেছি যুদ্ধ করে।"
-জামায়াতে ইসলামীর আমীর মতিউর রহমান নিজামী : ২৫ মে ২০০৭

"রাজপথ থেকে এসেছি, পরিবারের পরিচয়ে নয়, দলে পরিবারতন্ত্র নেই।"
-বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া : ২৫ মে ২০০৭

‘বাংলাদেশের রাজনীতিতে বিএনপি দুষ্টগ্রহ। দেশের মাটি থেকে তাদের বিতারিত করতে হবে।’
– খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম : ২৫ মে, ২০১৮


সূত্র:
১। উইকিপিডিয়া
২। বিবিসি
৩। দৈনিক ইত্তেফাক
৪। দৈনিক প্রথম আলো
৫। দৈনিক সমকাল
৮। https://songramernotebook.com/
সর্বশেষ এডিট : ২৫ শে মে, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:২২
২টি মন্তব্য ১টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

হ, আপনি জিতছেন, আপনারাই জিতছেন। :#(

লিখেছেন বোকা মানুষ বলতে চায়, ২৪ শে জুলাই, ২০২৪ বিকাল ৫:৩৯



হ, আপনি জিতছেন, আপনারাই জিতছেন। সারাবিশ্ব থেকে ০৬ দিন সংযোগ বিচ্ছিন রেখে আপনারাই জিতছেন। অপরদিকে আলুপোড়া খেতে আসা বিরোধী রাজনৈতিক শক্তি (নাকি অপশক্তি) আপনারাও জিতছেন। দেশের কোটি কোটি টাকার সম্পদ... ...বাকিটুকু পড়ুন

কেমন ছিলাম আমরা?

লিখেছেন শেরজা তপন, ২৪ শে জুলাই, ২০২৪ সন্ধ্যা ৭:৫৫


কি দুঃসহ কয়েকটা দিন কাটালাম আমরা- কয়দিন কাটালাম মাঝেমধ্যে তালগোল পাকিয়ে যাচ্ছে! অনলাইন দুনিয়া থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে যেন আশির দশকে ফিরে গিয়েছিলাম আমরা। পার্থক্য; বিটিভির পরিবর্তে অনেকগুলো নতুন রঙ্গিন... ...বাকিটুকু পড়ুন

আন্দোলনের মুখে এই সরকারের পতন না হোক।

লিখেছেন নূর আলম হিরণ, ২৪ শে জুলাই, ২০২৪ রাত ৮:২৯


গত ১৫ বছর এই সরকার যেভাবে দেশ চালিয়েছে, বিরোধীদেরকে যেভাবে কন্ট্রোলে রেখেছে এবার সেভাবে পারেনি। শেখ হাসিনার বিভিন্ন বক্তব্যে দেখা গিয়েছে উনি খুবই চিন্তিত ছিল এই আন্দোলন নিয়ে। একটি সাদামাটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

দেশের এত বড় বড় দায়িত্ব নিয়ে ছেলেখেলা আর কতদিন?

লিখেছেন মঞ্জুর চৌধুরী, ২৪ শে জুলাই, ২০২৪ রাত ১০:৫১

আচ্ছা, ডাটা সেন্টারে আগুন লাগলে সমস্ত দেশের ইন্টারনেট বন্ধ হয়ে যায়? কোন মদনা এই কথা বিশ্বাস করতে বলে? পলক ভাইজান? তা ভাইজানের শিক্ষাগত যোগ্যতা কি? পলিটিক্যাল সায়েন্স। আর? এলএলবি। উনি... ...বাকিটুকু পড়ুন

আর ক'টা দিন সবুর কর রসুন বুনেছি: বাংলাদেশ কখনও এই নির্মমতা ভুলে যাবে না!

লিখেছেন মিথমেকার, ২৫ শে জুলাই, ২০২৪ দুপুর ১:৪৮


ইতিহাসে "৭১" এর পর এত স্বল্প সময়ে এত প্রাণহানি হয়নি। সম্ভবত আধুনিক বিশ্ব এত প্রাণহানি, এত বর্বরতা, স্বজাতির মধ্যে এর আগে দেখেনি। সমগ্র বিশ্বে বর্বরতার দৃষ্টান্ত হলো বাংলাদেশ!
... ...বাকিটুকু পড়ুন

×