somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

চাকমা জাতির আদি ইতিহাস: চম্পক নগরী কোথায় ছিল?

২৮ শে অক্টোবর, ২০০৮ সকাল ৯:১২
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



এই যে মাটিকে দেখছেন, মাটির কোলে শিশুটিকে দেখছেন। আজ আমরা এদের অতীত ইতিহাসের দিকে একবার ফিরে তাকাব। শুনব বিজয় গিরি নামে চম্পানগরীর এক রাজপুত্রর কথা, শুনব তারই উপকথা ...এই শিশুটি বড় হয়ে যে উপকথাটি শুনবে ...

যিশু খ্রিস্টর জন্মের ৬ শ বছর আগে প্রাচীন ভারতে ষোলটি জনপদ গড়ে উঠেছিল। এদের বলা হত ষোড়শ মহাজনপদ। ষোড়শ মহাজনপদের মধ্যে সবচে উন্নত রাজ্য ছিল মগধ।
তো মগধের অবস্থান কোথায় ছিল?
মগধের অবস্থান ছিল বর্তমান বিহারে।
মগধের প্রথম রাজধানী ছিল রাজগৃহ। পরে রাজধানী সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল গঙ্গা নদীর পাড়ে -পাটলিপুত্র। (লক্ষ্য করুন, পাটালিপুত্র নয়।)
সর্ব প্রথম মগধ শাসন করেছিল হর্যঙ্ক বংশের রাজারা। এই হর্যঙ্ক বংশের একজন শ্রেষ্ট নৃপতি ছিলেন সম্রাট বিম্বিসার।
জীবনানন্দের “বনলতা সেন” কবিতার সেই চরণটি মনে পড়ে কি?
বিম্বিসার-অশোকের ধূসর জগতে ...
হ্যাঁ। সেই বিম্বিসার। ইনি ছিলেন বুদ্ধের সমসাময়িক।সম্রাট বিম্বিসার বুদ্ধকে অত্যন্ত সমীহ করতেন। নিয়মিত ধ্যান করতেন, দান করতেন। রাজগৃহে তখন দার্শনিকদের নগর হয়ে ওঠেছিল। অনেকটা প্রাচীন গ্রিসের পেরিক্লিসের সময়কার এথেন্স নগরীর মতন। বিম্বিসার দার্শনিকদের পৃষ্ঠপোষকতা করতেন।
কাজেই বিম্বিসারকে প্রাচীন ভারতের পেরিক্লিস বলাই যায়।
যা হোক। ষোড়শ মহাজনপদের একটি ছিল অঙ্গ রাজ্য। রাজ্যটি ছিল মগধের পুবে। চম্পা নামে একটি নদী ছিল মগধ আর অঙ্গরাজ্যের মাঝখানে। অঙ্গরাজ্যের রাজধানী ছিল চম্পানগরী।
বিম্বিসার অঙ্গরাজ্যের চম্পানগরী আক্রমন করেছিলেন।
আমরা চাকমাদের আদি ইতিহাস আলোচনা করছি।
এবার দেখা যাক ইন্টারনেট বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া চাকমাদের আদি ইতিহাস নিয়ে কি লিখেছে।
Ethnically, the Chakmas are Tibeto-Burman, and are thus closely related to tribes in the in the foothills of Himalayas. Their ancestors came from the Magadha Kingdom (now Bihar, India) to settle in Arakan and most of them later moved to Bangladesh known as Cox's Bazar, Korpos Mohol and Tega-Toyong-Borgang area of present Mizoram.

...Their ancestors came from the Magadha Kingdom (now Bihar, India) to settle in Arakan ...
কাজেই আরও খোঁজখবর করতে ইচ্ছে হয়।
আতিকুর রহমান রচিত গবেষণা কর্ম: পার্বত্য চট্টগ্রাম বইতে আরও কিছু তথ্য পেলাম। সব মিলিয়ে চাকমা জাতির আদি ইতিহাসের একখানি ছবি যেন তৈরি হল।
যা ওই ছবিটির মায়ের কোলে শিশুটির জন্য রেখে গেলাম।
চাকমারা চম্পক নামে এক নগরীর কথা বলে। সুখস্বপ্ন দিয়ে ঘেরা ছিল সেই নগরী। চাকমা জাতির নিজস্ব নগর। চাকমারা ওখানেই ফিরতে চায়। কেননা, একদা ওখানেই উত্থান হয়েছিল ওদের।
তো কোথায় ছিল সেই স্বপ্নের চম্পক নগরী?
চাকমা উপকথা মতে, এককালে চম্পক নামে চাকমাদের এক নগর ছিল। সেই নগরের যুবরাজের নাম ছিল বিজয় গিরি। তার সেনাপতির নাম রাধামোহন। তার পর বিজয় গিরি ২৬ হাজার সৈন্য নিয়ে অভিযানে বেরুলেন। নদীপথে।
কত দিন যে কাটল।
কত কত জনপদ যে জয় করলেন বিজয় গিরি।
একটি চাকমা গানে সে কথা রয়েছে-

তরকারী রেঁধে ভাত খেলে,
সমুদ্র সাগর লাগ পেলে।
সঙ্গে নিয়ে সৈন্যগণ,
রোয়ং কূলে পৌঁছে গেল রাধামোহন।

বিজয় গিরির অভিযাত্রা ছিল পুবমুখো। অর্থাৎ, প্রাচীন বঙ্গের দিকে।
কেননা, যাত্রাপথে পড়ল মেঘনা দয্যা (মেঘনা দরিয়া?), চাটিগাঙ (চট্টগ্রাম) ...
তো, বিজয় গিরির সসৈন্য যাত্রা অব্যাহত রইল।
চাকমা উপকথামতে বিজয় গিরির অভিযানের সময় কাল ছিল ১২ বছর।
তারপর নাকি সেনাপতি রাধামোহন চম্পক নগরে ফিরে গিয়েছিলেন।
পরে বিজয়গিরি শুনলেন যে তার ভাই চম্পক নগরের রাজা হয়েছে। বিজয় গিরি সংঘর্ষ এড়াতে চম্পক নগরের আর না ফিরে পুবের অরণ্যের দিকে যেতে থাকলেন।
কোথায়? পার্বত্য চট্টগ্রাম? আরাকানে? তিনি তো মেঘনা দয্যা পার হয়েছেন; চাটিগাঙও পেরিয়ে গেছেন। তা হলে আরাকানই হবে। আতিকুর রহমানের গবেষণা ও ইউইকি তাই বলে।
তবে মনে হয় না সে জীবন নিরুদ্রপ ছিল। আরাকান ছিল মগদের রাজ্য। প্রাচীন কাল থেকে আরাকানীরা মগ নামে পরিচিত। তারা হয়তো নতুন হলুদাভ মঙ্গোলয়েড টিবিটো-বারমান ভাষী অভিবাসীদের তাদের অঞ্চলে গ্রহন করতে অনিচ্ছুক ছিল। তা ছাড়া ছিল বাঘের উৎপাত। গহীন অরণ্য। বাঘ তো থাকবেই।
একটি চাকমা গানে সে দুরাবস্থার কথাও আছে।

ঘরত গেলে মগে পায়
ঝারত গেলে বাঘে খায়,
মগে ন পেলে বাঘে পায়
বাঘে ন পেলে মগে পায়।

যা হোক। তখন বলছিলাম যে, বিম্বিসার অঙ্গরাজ্যের চম্পানগরী আক্রমন করেছিলেন। ইন্টারনেট বিশ্বকোষ উইকিপিডিয়া চাকমাদের আদি ইতিহাস নিয়ে কি লিখেছে সে কথা আরেকবার মনে করি: ...Their ancestors came from the Magadha Kingdom (now Bihar, India) to settle in Arakanতা হলে কি বলা যায় বিজয় গিরি ছিলেন অঙ্গ রাজ্যের চম্পা নগরীর রাজপুত্র?
সম্রাট বিম্বিসার তাঁকে যে কোনও কারণে হত্যা না করে নির্বাসিত করেছিলেন।সম্রাট বিম্বিসার ইনি ছিলেন বুদ্ধের সমসাময়িক।সম্রাট বিম্বিসার বুদ্ধকে অত্যন্ত সমীহ করতেন। নিয়মিত ধ্যান করতেন, দান করতেন। সম্রাট বিম্বিসার মনে হয় অহেতুক হত্যা পছন্দ করতেন না।
কিন্তু, বিজয় গিরির কি হল?
সেসব কথাই তো এতক্ষণ বললাম।
সসৈন্য পূর্বমুখী অগ্রসর হয়ে মগরাজ্য আরাকান অবধি এসেছিলেন বিজয়গিরি। সেখানেই কি কোনও নগর গড়ে তুলেছিলেন?
যা আজও আবিস্কার হয়নি?
চাকমারা চম্পক নামে এক নগরীর কথা বলে। সুখস্বপ্ন দিয়ে ঘেরা সেই নগরী। চাকমা জাতির নিজস্ব নগর। চাকমারা ওখানেই ফিরতে চায়। কেননা ওখানেই উত্থান হয়েছিল ওদের।
রাজপুত্র বিজয় গিরির সময়ে আরাকানের গহীন অরণ্যে গড়ে ওঠা নগরীই কি চম্পক নগরী?
নাকি বিম্বিসার যে অঙ্গরাজ্যের চম্পানগরী আক্রমন করেছিলেন সেটি?
আমি বলছি না যে চাকমামানসে যে চম্পক নগরী রয়ে গেছে সেটিই অঙ্গরাজ্যের চম্পানগরী।
না, এমন আমি বলছি না।
কেননা, ইতিহাস ভীষন ধূসর।
ইতিহাস অনেক অনেক দিন আগে দেখা একটি স্বপ্নের মতন।
তারপরও একটা ছবি আঁকলাম; ... ছবির শিশুটির জন্য একটা ইঙ্গিত রেখে গেলাম।
এই তো অনেক।

তথ্যসূত্র:

১) আতিকুর রহমান রচিত গবেষণা কর্ম: পার্বত্য চট্টগ্রাম।
২) সুনীল চট্টোপাধ্যায়। প্রাচীন ভারতের ইতিহাস। (প্রথম খন্ড)
৩)উইকিপিডিয়া।
সর্বশেষ এডিট : ২৬ শে সেপ্টেম্বর, ২০০৯ সকাল ১০:৫৯
১১টি মন্তব্য ৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

রঙ বদলের খেলা

লিখেছেন ইসিয়াক, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ৯:৪৮


কাশ ফুটেছে নরম রোদের আলোয়।
ঘাসের উপর ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র শিশিরকণা।

ঝরা শিউলির অবাক চাহনি,
মিষ্টি রোদে প্রজাপতির মেলা।

মেঘের ওপারে নীলের অসীম দেয়াল।
তার ওপারে কে জানে কে থাকে?

কি... ...বাকিটুকু পড়ুন

শ্রদ্ধেয় ব্লগার সাজি’পুর স্বামী শ্রদ্ধেয় মিঠু মোহাম্মদ আর নেই

লিখেছেন বিদ্রোহী ভৃগু, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২০ সকাল ১০:৩৮

সকালে ফেসবুক খুলতেই মনটা খারাপ হয়ে গেল।
ব্লগার জুলভার্ন ভাইয়ের পেইজে মৃত্যু সংবাদটি দেখে -

একটি শোক সংবাদ!
সামহোয়্যারইন ব্লগে সুপরিচিত কানাডা প্রবাসী ব্লগার, আমাদের দীর্ঘ দিনের সহযোগী বিশিষ্ট কবি সুলতানা শিরিন সাজিi... ...বাকিটুকু পড়ুন

এখন আমি কি করব!

লিখেছেন মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৩:১৯

মাত্র অল্প কিছুদিন হল আমি ফরাসি ভাষা শিক্ষা শুরু করেছিলাম।



এখন আমি ফরাসি ভাষা অল্প অল্প বুঝতে পারি। হয়তো আগামী দিনগুলিতে আরেকটু বেশি বুঝতে পারব।

ফ্রান্স একটি সুন্দর দেশ।... ...বাকিটুকু পড়ুন

=স্মৃতিগুলো ফিরে আসে বারবার=

লিখেছেন কাজী ফাতেমা ছবি, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:০৮



©কাজী ফাতেমা ছবি
=স্মৃতিগুলো ফিরে আসে বারবার=

উঠোনের কোণেই ছিল গন্ধরাজের গাছ আর তার পাশে রঙ্গন
তার আশেপাশে কত রকম জবা, ঝুমকো, গোলাপী আর লাল জবা,
আর এক টুকরা আলো এসে পড়তো প্রতিদিন চোখের... ...বাকিটুকু পড়ুন

পাহারা

লিখেছেন মা.হাসান, ২৫ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৩




আমাবস্যা না । চাঁদ তারা সবই হয়তো আকাশে আছে। কিন্তু বিকেল থেকেই আকাশ ঘোর অন্ধকার। কাজেই রাত মাত্র নটার মতো হলেও নিকষ অন্ধকারে চারিদিক ডুবে আছে।

গায়ের... ...বাকিটুকু পড়ুন

×