somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

আমি একজন বাঙ্গালি। বাংলা আমার ভাষা, নিভৃত আবাস ও অহংকার। nn বিঃ দ্রঃ- ব্লগে ছন্দ নামে দ্বন্দ্ব নাই।

আমার পরিসংখ্যান

কবি হাফেজ আহমেদ
quote icon
অসাধারণ মানুষগুলো সাধারণ হয়, অতিসাধারণ মানুষগুলো মানুষ হ্য়, মানুষ হতে হলে সাধারণ হতে হয়। হাফেজ আহমেদ
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

কবির কবিতা

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ১১ ই সেপ্টেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:৪৯

বাতাসেও পানি আছে কেউ যে তা দেখে না
পানি যা মুছে দেয়, ঢেউ যে তা লেখে না
বাতাসের রং কভু ঘামে না
কবির কবিতা কভু থামেনা
সহজে সে লিখে যা, সহজে তা শেখে না।


সব কথা কাগজে তাঁর কথা কয় না
লিখতে কখনো তাঁর ভয় হয় না
পাগলামি করে তবু কভু কিছু লেখে
হৃদয় খুলে দিয়ে মানুষ... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৩১ বার পঠিত     like!

রাখে আল্লাহ মারে কে (প্যানগ্রাম কবিতা০৯)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ০১ লা আগস্ট, ২০২১ রাত ৮:০১

আষাঢ় ডিঙিয়েই খাঁ এনেছে ঘা
ঊর্ধ্বগামী ঝড় ও ফণা
ঐ ঋজু লঞ্চে থামে ঔদার্য ঈশ
অতঃপর হঠাৎ সংকটে ঢেউ।

শব্দার্থ

খাঁ-- মহৎ ব্যাক্তি, অভিজ্ঞত লোক। এখানে লঞ্চ /জাহাজের নাবিক-কে বুজানো হয়েছে।
ঋজু-- সরল।
ঈশ--প্রভু, ঈশ্বর।

বি: দ্র:- এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫০ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৪৩ বার পঠিত     like!

বাংলায় নতুন কিছু। প্যানগ্রাম কবিতা।

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২৯ শে জুলাই, ২০২১ রাত ১২:০১

নিঃসঙ্গতা
হাফেজ আহমেদ

ঐ ঋজু ঘাটে রাখে ঊর্ধ্ব ফি
আষাঢ়ে ঠ্যাং ক্ষয়ে মঞ্চে ভীড়
হৃৎপিণ্ড এঁকেছে নিঃসঙ্গতা
অথই ঝিলে ঢেউ ও ঔদার্য ঈশ!

শব্দার্থ

ঋজু-- সরল, অনুকূল, হিতকর।
ঈশ--প্রভু, ঈশ্বর।

বি: দ্র:- এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫১ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। (৫০+ক্ষ=৫১) বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৩৪ বার পঠিত     like!

গুজবের গুঞ্জন (বাংলায় নতুন কিছু)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২৭ শে জুলাই, ২০২১ রাত ৯:০১

উৎসবে অক্ষম ঋণখেলাপি
ঊঢ় ঈর্ষা ডিঙিয়ে
ঐশী আঁচেও ফের ঔদ্ধত্য-ই ঢং!
ছিঃ!
এ ঝড়ে যে হঠে ভিটা
থাকে গুঞ্জন ঘা।

শব্দার্থ
ঊঢ়-বাহিত, প্রবাহিত।

বি: দ্র:- এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫১ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। বাকিটুকু পড়ুন

০ টি মন্তব্য      ১৩ বার পঠিত     like!

শুভেচ্ছা (বাংলায় নতুন কিছু)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২৬ শে জুলাই, ২০২১ রাত ১১:২৯

উঃ!
রূঢ় মিঞা আজ ঔগ্র্য
অপ্রিয় ঘাড়ে ঝুঁটে ফণী বৌ!
ঐ সূর্যে ঈর্ষা ঊতি
হঠাৎ ডিঙি ও ঢং খেই
এ নৃলোকে ঋদ্ধ শুভেচ্ছা থৈ।

বি: দ্র:- এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫০ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৪৯ বার পঠিত     like!

বাংলার পতাকার জয় (বাংলা ভাষায় নতুন কিছু)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২৬ শে জুলাই, ২০২১ রাত ১২:২১

এ ফতে হঠে গূঢ় ঘা
ঔৎকট্য ঈপ্সায় ঋণ
যাও ঢঙে ঊষা অধেঃ
আঁখি ভেজে থই
ঐ মঞ্চে বাংলাদেশের ঝান্ডা উড়ছে।

শব্দার্থ:-

ফতে - জয়ে।
অধঃ - নিচে, নিম্নে, পাতালে।
গূঢ় - গুপ্ত।
ঈপ্সা - আকাঙ্ক্ষা।
ঔৎকট্য - প্রচণ্ডতা, আধিক্য।

বি: দ্র: এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫০ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৩৮ বার পঠিত     like!

ধৈর্যের অবক্ষয় (বাংলা ভাষায় নতুন কিছু)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২১ শে জুলাই, ২০২১ সকাল ৮:৩০

ওহ!
ধৈর্যের অবক্ষয়
ঐ একই পথে ঋজু ঢেউ
ঈষৎ আংটা ফেটে লঞ্চে ঊর্মি ছোঁ
নিঃসৃত ঠাণ্ডা ঔঘ শিখে দৃঢ় ঝড়-ভঙ্গি।


বি: দ্র:- এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫১ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। কবিতাটি লিখতে গেলে বাংলা ভাষার প্রতিটি বর্ণমালাকে একবার করে স্পর্শ করতে হবে।


শব্দার্থ:-

ঋজু- সোজা... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৯০ বার পঠিত     like!

শুভ ঊষা (বাংলা ভাষায় নতুন কিছু)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২০ শে জুলাই, ২০২১ ভোর ৬:৪৭

ওঃ প্রিয়তমা!
সূর্যে খই এঁটে
আজ ঐ রূঢ় অঞ্চলে কেনো ঘা?
হঠাৎ ঢঙ ডাং ঈদে ঔগ্র্য বৌ
ঋণী ফাউ ক্ষুধা ছাড়ে ঝি
শুভ ঊষা থৈ।

এ কবিতায় বাংলা ভাষায় সবগুলো বর্ণমালা একবার করে ব্যবহার করা হয়েছে। সেইসাথে রয়েছে সবগুলো চিহ্নের ব্যবহার। অর্থাৎ কবিতাটি লিখতে গেলে সম্পূর্ণ বাংলা লিপি আপনাকে একবার স্পর্শ করতে... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৬৭ বার পঠিত     like!

ঈর্ষার ঔদ (প্যানগ্রাম কবিতা) বাংলা ভাষায় নতুন কিছু।

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ১৮ ই জুলাই, ২০২১ ভোর ৬:০০

উঃ হঠাৎ টাকা!
রঙ ঢং পথে
যা ওঝা ঐ ঈর্ষা এখন ঊর্ধ্বে
গাঢ় অর্ঘ ঋণ ফোড়ায় আঁশ
ঔদ ক্ষোভ মঞ্চে সোডা-ই জল ছাতা।



বি: দ্র: এ কবিতায় বাংলা ভাষার "অ" হতে "ঁ" পর্যন্ত ৫০ টি বর্ণমালা শুধুমাত্র একবার করে ব্যবহৃত হয়েছে। কবিতাটি লিখতে হলে আপনাকে বাংলা ভাষার প্রতিটি বর্ণমালাকে একবার... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ৫৬ বার পঠিত     like!

"মাটি মা" (বাংলা সাহিত্যের ইতিহাসে এমন বই প্রথম।)

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ২২ শে মার্চ, ২০২১ সকাল ১০:৪৬




প্রকাশিত হলো বাংলা ভাষার প্রথম একক গবেষণাধর্মী বর্ণপ্যালিন্ড্রোম কাব্যগ্রন্থ "মাটি মা"। বইটিতে ৪৪ ধরণের ৫৫ টি কবিতা বাংলা ভাষায় প্যালিন্ড্রোম ভার্সনে প্রথম নিয়ে আসা হয়েছে। "মাটি মা" বইটির মূল আকর্ষণগুলোর মধ্যে রয়েছে ব্যাখ্যাসহ বাংলাদেশে বাংলায় লেখা প্রথম বর্ণপ্যালিন্ড্রোম কবিতাটি, প্যালিন্ড্রোম সনেট, এক্রোস্টিক, প্যানগ্রাম, হাইকু, তানকা, রুবাইয়াৎ, বহুবিধ... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৮৩ বার পঠিত     like!

বসন্তের আহবান

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ ভোর ৬:৫৭

কৃষ্ণচূড়ায় রঙ ধরেছে
লাল গালিচার লাল
উতালপাতাল হাল
ডালে ডালে ঝুলছে যেনো
নীল পরীদের গাল।

শিমুল পলাশ রক্তজবা
ফুটলো শত ফুল
হলুদ বটমূল
হালকা হাওয়ায় ফুল পরিদের
দুলছে কানের দুল।

শীত কমেছে গীত কমেনি
গাইছে ভ্রমর গান
হৃদয় ধরে টান
ফুলে ফুলে বসন্তের আজ
রঙিন আহবান।

গাছে গাছে গাইছে পাখি
রঙিন হলো বন... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৭৫ বার পঠিত     like!

দীন নদী [প্যালিন্ড্রোম]

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ১১ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৫৯

লেখাটি শুরু হতে শেষ এবং শেষ হতে উল্টো শুরু পর্যন্ত পড়ে আসলে একই রকম হবে।

দীন রবে রণ দিবস "দীন নদী"
রবের তরফে ফেরা ঘেমে ঘামে
থেমে থেকে বাঁশি নিলো কালা।
বেনামে থাকে ডানে সেন কোনদিকে?
যারে কল্প গঠন করতে সদা চাঁদ স্বাদ নিবে
লকার তালে জ্বলজ্বলে জ্বলে বন্ধু সিনেমা
কার তা?
সে হাসে... বাকিটুকু পড়ুন

৩ টি মন্তব্য      ৮০ বার পঠিত     like!

বাংলায় প্রথম প্যালিন্ড্রোম এক্রোস্টিক

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ১৩ ই জানুয়ারি, ২০২১ রাত ৮:৫৯



কবিতাটির প্রতিটি চরণ ডান হতে বামে এবং বাম হতে ডানে উল্টো করে পড়ে আসলে একই রকম হবে এবং উপর হতে নিচ পর্যন্ত প্রতিটি চরণের প্রথম বর্ণটি আলাদা করে একসাথে পড়লে একজন মহান ব্যাক্তির নাম খুঁজে পাবেন। এমনকি উপর হতে নিচ পর্যন্ত প্রতিটি চরণের শেষের বর্ণটি আলাদা... বাকিটুকু পড়ুন

১৪ টি মন্তব্য      ২৩০ বার পঠিত     like!

অস্তিত্ব

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ০১ লা জানুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২৯

সেদিন দিয়াশলাইয়ের কাঠিটির প্রাণ ছিলো
শরীরে ছিলো টগবগে রক্তরস
বৃক্ষের মূলে জমানো ছিলো যথেষ্ট খাবার
অক্সিজেন ও কার্বনডাইঅক্সাইডের অস্তিত্বে নিজেও বাঁচাত
বাঁচাতেন অন্যকেও
হঠাৎ তুফানের সাথে জাগে তাঁর তুমুল বন্ধুত্বের স্বাদ
বৃক্ষদ্রোহীতার অপরাধে পায় শুষ্ক কাঠির নতুন স্বীকৃতি
মাথার ইনসেনডিয়ারি বারুদ
ফের তাঁকে ঠেলে দিলো দাম্ভিকতায়
অতঃপর নিজেও জ্বলেছে
পুড়েছে অন্যকেও
উভয়ে হারিয়েছে সত্ত্বা
আজ কোথায় গাছ
কোথায় কাঠি
আর কোথায়... বাকিটুকু পড়ুন

৮ টি মন্তব্য      ৭২ বার পঠিত     like!

স্থিতি

লিখেছেন কবি হাফেজ আহমেদ, ৩১ শে ডিসেম্বর, ২০২০ সকাল ১০:১০

রক্তের তাপমাত্রা খুব বেশি?
দেখাও, এতে কোনো বিয়োগের কিছু নেই
তবে সীমাবদ্ধতা থাকা চাই
কারণ অতি গরমে বরফ গলে যায়।

আমার মতো ঠান্ডা বরফ যেদিন
গলতে গলতে আপন অস্তিত্ব হারাবে
মনে রেখো সেদিন এখানে বন্যা হবে
ডুবে যাবে শতাব্দীর সকল চিহ্ন
এমনকি এস্কিমোদের বাসস্থান। বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৮৭ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ৩০৫২৩ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ