somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

একজন নিভৃতচারী, ঘুরে বেড়াই পথে-প্রান্তরে।।

আমার পরিসংখ্যান

জমীরউদ্দীন মোল্লা
quote icon
ওরে ও তরুণ ঈশান! বাজা তোর প্রলয়-বিষাণ! ধ্বংস-নিশান উঠুক প্রাচী-র প্রাচীর ভেদি’॥
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

বুমেরাং।। শেষ পর্ব

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০৭ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৫



সেদিনের মত আজকে ও রমিজ মিয়া কোথাও যেন যাওয়ার উদ্দেশ্যে বের হইছে। পুলিশ দেখে তার মুখে যেন মেঘ নামলো। তারপরও সালাম দিয়ে,”স্যার কেমন আছেন?”
জমীরউদ্দীন হেঁসে উত্তর দেয়,”ভাল। তা এই সকাল সকাল কই যাচ্ছো রমিজ মিয়া?”
সদরে যামু স্যার। গ্রামে চাষবাস কইরা পোষায় না।“
“তা তুমি সদরে গেলে, তোমার বাপরে কে... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৫৭ বার পঠিত     like!

বুমেরাং।। পর্ব-৪

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০৬ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:৫২


জমীরউদ্দীন বলল,”দুঃখে নারে রমিজ মিয়া। অপমানের বদলা নিতে এই বিপদ নিজের কাধে নিতে পার।“ আচ্ছা যাই হোক খুন তুমি করছো কি কর নাই সেটা দুই একদিনের মধ্যেই বের কইরা ফেলমু। তার আগে তোমার বাড়িটা একটু সার্চ করা লাগবো।“

রমিজ মিয়া কিছু বলার আগেই চারজন কনস্টেবল বাড়ির মাটি খুড়ে শুধু... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৭১ বার পঠিত     like!

বুমেরাং।। পর্ব-৩

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০৫ ই ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:১৯


দারোগা সাহেব বলে উঠলো,”বাহ! ভিক্টিম অন্তত আমাদের জন্য একটা সুত্র রেখে গেসে।“

স্যার আরও একটা গুরুত্বপূর্ণ ইনফরমেশনও পাওয়া গেসে। ভিক্টিমের ভাশুরের সাথে জমীরউদ্দীনের কথাপোকথনের সবকিছু শুনে দারোগা সাহেব বললেন,”এটা একটা ভাল মোটিভ হতে পারে। দুনিয়া তে এরকম হাজারো কেস আছে যে, অপমানের প্রতিশোধ নিতে খুন করেছে।“

দারোগা বলল,”বাহ! মোল্লা সাহেব।... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৮০ বার পঠিত     like!

বগালেইক টু কেওক্রাডং ভায়া ঋজুক ঝর্না।। (ছবি ব্লগ)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০৪ ঠা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:০৩

দূর থেকে আমার ক্যামেরায়, কেওক্রাডংয়ের চূড়া।

কেওক্রাডং আর বগালেইক দেখার সাধ অনেকদিনের, অবশেষে গত সেপ্টেম্বরে সেই সাধ পূরণ হয়েছে। পুরো ট্যুরেই ট্রাই করেছিলাম বান্দরবনের বুনো সৌন্দর্য ক্যামেরায় ধরে রাখতে। কিন্তু বান্দরবনের সৌন্দর্য কোনভাবেই কিছুতে আটকে রাখা সম্ভব না। সেই ছবি গুলো নিয়েই আজকের ছবি ব্লগ।

রুমা বাজার। বগালেইক বা... বাকিটুকু পড়ুন

১৪ টি মন্তব্য      ১০৯ বার পঠিত     like!

বুমেরাং।। পর্ব-২

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০৩ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:২২


লাশ নিয়ে বড়ইডাঙ্গায় ঢুকতেই, যেন পুরো গ্রাম হুমড়ি খেয়ে পরল। ভিক্টিমের আত্মীয় স্বজনের আহাজারি দেখে, জমীরউদ্দীন ভাবল আজকে কারো জবানবন্দী নেয়া সম্ভব না। আজকে থাক। থানায় গিয়ে স্যারের সাথে পরামর্শ করে দুই একদিন পরে আসা যাবে।

ফেরার পথে গ্রামের মেম্বারের সাথে দেখা। ইনি ই সেই লোক যেঁ, গতকাল থানায় ফোন... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৭৬ বার পঠিত     like!

বুমেরাং।। পর্ব-১

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ০২ রা ডিসেম্বর, ২০১৮ রাত ৮:৪২


হাঁসির কলজে ঠাণ্ডা করা আর্তনাদে, বড়ইডাঙ্গা গ্রামের শান্ত সকাল ভেঙ্গে খান খান হয়ে গেল।
পাশের বাড়ির লেকু আর লেকুর বউ সকাল সকাল এমন চিৎকারের হেতু জানতে, দৌড়ে হাঁসিদের বাড়িতে এসে যা দেখলো! তাতে তাঁদেরও মূর্ছা যাওয়ার যোগার। হাঁসির মা বিছানায় রক্তের সাগরের মধ্যে ডূবে আছে। মাথাটা ধর থেকে আলাদা। আর... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৭৯ বার পঠিত     like!

পাহাড়ে রহস্য। (শেষ পর্ব)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৬ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:২২


গাছের সাথে হেলান দিয়ে ভাবতে লাগলাম কেমনে কি হল। অনিক আর শোভন একসাথে দৌড়াচ্ছিলো। শোভন এর দৌড়াতে কিছুটা সমস্যা হচ্ছিলো। অনিক শোভন এর হাত কাধে নিয়ে দৌড়াচ্ছিলো। জঙ্গল ঘন হওয়ায় কে যে কোনদিকে দৌর দিলাম টেরই পাই নি। আর পেছনের লোকটাও হাতে পিস্তল নিয়ে খুব দ্রুত আসছিল আমাদের দিকে। ওইটা... বাকিটুকু পড়ুন

২০ টি মন্তব্য      ১০২ বার পঠিত     like!

পাহাড়ে রহস্য। (চতুর্থ পর্ব)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৫ ই নভেম্বর, ২০১৮ বিকাল ৫:২৮


মিনিট দশেক হাটার পর মনে হল একটা ট্রেইল পেলাম। এখানকার লতা গুল্ম গুলো কেমন যেন একটু নুয়ে আছে। আমি অনিক আর শোভন কে বললাম,” দেখত দোস্ত মনে হয় না এখান দিয়ে মাঝে মধ্যে মানুষ যাওয়া আসা করে।
“ অনিক বলে উঠল মানুষ কেন, কোন বন্য প্রাণী ও তো যাওয়া আসা... বাকিটুকু পড়ুন

৬ টি মন্তব্য      ৬৭ বার পঠিত     like!

রাসেল হেল্পার।।

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৪ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৭:৩৫

ছবি ইন্টারনেট থেকে নেওয়া।

রাসেল ঘরে ঢুকে বাতিটা কোনরকম জ্বালিয়ে, বিছানায় টানটান হয়ে শূয়ে পড়লো। বিছানা আর কি? জোড়াতালি দেওয়া একটা কাঠের চকি। সারাদিন অমানুষিক খাটুনির পর যখন শরীর আর চলে না, তখন রাসেলের কাছে এই চকি ই সবচেয়ে দামি বিছানা। এখন সময়, সন্ধ্যা সাতটা। আজ বেশ আগেই চলে এসেছে... বাকিটুকু পড়ুন

৪ টি মন্তব্য      ৮৬ বার পঠিত     like!

পাহাড়ে রহস্য। (তৃতীয় পর্ব)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৪ ই নভেম্বর, ২০১৮ সন্ধ্যা ৬:৫০


শীতের সকাল বেশ ঠান্ডা পরেছে। এতো সকালে রিকশা নেই তাছাড়া হেটে গেলে শরীর ও গরম হবে ভেবে, হাটা শুরু করলাম। দশ মিনিট হেটেই বাস স্ট্যান্ড এ আসতে দেখি একটা অটো রিকশা।
অনিক,”এই মামা যাবেন?’
“উনি উত্তরে, কই যাবেন?”
"চন্দ্রনাথের মন্দির যাবো।"
"উঠেন মামা। তিন জন মানুষ যা ভারা আছে তার থেকে ১০... বাকিটুকু পড়ুন

১৪ টি মন্তব্য      ১০২ বার পঠিত     like!

পাহাড়ে রহস্য। (দ্বিতীয় পর্ব)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৩ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১১:৪১

বৃহস্পতিবার ১৫.১২.১৬

দেখতে দেখতে বৃহস্পতিবার এসে পড়ল। গত এই কইদিন তো হুলস্থুল কান্ড, আমরা কি কি করবো, কি কি নিব, ব্যাগ গুছানো এসব নিয়ে। যাই হোক আমাদের বাস মহাখালি থেকে সকাল ১০ টায় ছাড়বে। তাই আম্মুরে রাতে বলে রাখছি যাতে ৭ টায় ডাক দিয়ে দেয়, তাহলে ৮ টার মধ্যে বের... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ৯৯ বার পঠিত     like!

মুক্তিযোদ্ধা কোটা ও তৃতীয় শ্রেণীর নাগরিক।

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৩ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ৯:৩৪
২ টি মন্তব্য      ৬২ বার পঠিত     like!

নিরাপদ হবার উল্লাসে।

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৩ ই নভেম্বর, ২০১৮ সকাল ৯:৩৩

কাল রাতে মেইল চেক করতে গিয়ে দেখি সামু থেকে মেইল দিসে। মেইলের সারমর্ম হচ্ছে, আমি একজন নিরাপদ ব্লগার এবং এখন থেকে আমার লেখা সরাসরি প্রথম পাতায় প্রকাশিত হবে।
এটা দেখার পর প্রথমেই, আমার নজরুলের 'আজ সৃষ্টি-সুখের উল্লাসে' কবিতা মনে পরলো।

তখন আমি কবিতাটা একটু মডীফাই করে গুনগুন করছিলাম,

আজ নিরাপদ হবার উল্লাসে
মোর মুখ... বাকিটুকু পড়ুন

৭ টি মন্তব্য      ৩৯ বার পঠিত     like!

পাহাড়ে রহস্য। (প্রথম পর্ব)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১৩ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১:১৮



শুক্রবার ০৯.১২.১৬

মাত্রই নাস্তা শেষ করে পিসি তে বসে ফেইসবুকের ওয়াল দেখছি। বেশির ভাগ ফ্রেন্ডদেরই সেমিস্টার ফাইনাল শেষ। সবাই দেখছি ঘুরতে গিয়ে চেক ইন দিচ্ছে। ফ্রেন্ডদের ট্যুরের এসব পিকচার দেখে নিজের মন টা বলে উঠছে জমীরউদ্দীন তুই ও ঘুরতে যা। এসব ভাবতে ভাবতেই মাথায় ট্যুর এ যাওয়ার ভুত চাপল। ট্যুর... বাকিটুকু পড়ুন

১০ টি মন্তব্য      ১১০ বার পঠিত     like!

বগালেইকে ভ্যাম্পায়ার। (শেষ পার্ট)

লিখেছেন জমীরউদ্দীন মোল্লা, ১১ ই নভেম্বর, ২০১৮ রাত ১০:০০


এখানকার কটেজগুলো সব ই কাঠের তৈরি, দোতালা টাইপ। নিচের অংশে খাবার প্লেইস আর কটেজ মালিকের বাসা। উপরের অংশে ট্যুরিস্টদের জন্য রুম। কিছু কিছু কটেজর মালিক আবার লাগোয়া একটা ঘর তুলে নেয়, থাকার জন্য। সেক্ষেত্রে নিচে থাকে ডাইনিং আর ট্যুরিস্টদের জন্য একটা রুম। আর টয়লেট গুলো থাকে কটেজ থেকে একটু... বাকিটুকু পড়ুন

২ টি মন্তব্য      ২৯ বার পঠিত     like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ১৫০৫ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ