somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

সামুর বুকে ফিরে আসা কিছু ব্লগারের লিস্ট এবং ফিরতে চাওয়া/ফিরে আসা ব্লগারদের ৩ টি সমস্যার সমাধান!

০৫ ই আগস্ট, ২০২০ রাত ৮:৩২
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



সামুতে কিছু পুরোন ব্লগারেরা ফেরা শুরু করেছেন। এটা সামুর জন্যে অবশ্যই ভালো একটি সাইন। সামু যেসব কারণে অনেক গুণী ব্লগার হারিয়েছিল, সেসব সমস্যা আজ আর নেই বললেই চলে।
আজকাল সামুতে মাল্টিনিকের ক্যাচাল তেমন একটা দেখা যায়না। পোস্ট চুরি হবার চ্যান্স নেই যেহেতু কপিপেস্ট ফিচার বন্ধ। মাঝখানে সামুর ওপরে একটা বড় ঝড় এসেছিল যেকারণে সামুতে ঢোকাই যাচ্ছিলনা। কর্তৃপক্ষের অসীম ধৈর্য্য, পরিশ্রম ও সাহসিকতায় সেই সমস্যাও সমাধান হয়েছে। আরেকটি পয়েন্ট হচ্ছে ফেসবুক সহ অন্য যেসব প্লাটফর্মের কারণে কিছু কিছু ব্লগারেরা ব্লগ ছেড়েছিলেন, সেসবে সৃষ্টিশীলতার চেয়ে বেশি শো অফ কালচারের অনুশীলন হয়। এতে করে মেন্টাল হেলথ সাফারড হয় যা নানা গবেষনায় প্রমাণিত। সেজন্যেও অনেক ফেসবুক লেখক ব্লগের দিকে ঝুঁকতে পারেন। সবমিলে হারিয়ে যাওয়া ব্লগারদের জন্যে একটি পারফেক্ট সময় পুনরায় সামুতে ফেরার।

নিচের লিংকগুলো ফিরে আসা ব্লগারদের আগমনী বার্তা। আশা করি, সামনে আরো অনেক প্রিয় ব্লগার ফিরে আসবেন।

হেনরি রাইডার হেগার্ড

এস এম আহমেদ মনি

আলীনুর

িবপুল কুমার িবশ্বাস

ত্যাজ্যব্লগার হব কিনা

এবারে এমন কিছু সমস্যা এবং সমাধান নিয়ে লিখব যেটা ফিরে আসা ব্লগারেরা ফেস করবেন বা করতে পারেন।


অনিচ্ছা!অস্বস্তি!
এমন অনেক পুরোন ব্লগারই রয়েছেন যারা সামুতে ফিরতে চান। কিন্তু অন্য নানা রাইটিং প্রজেক্টস এ নিজেকে এতটা ব্যস্ত করে ফেলেছেন যে ইচ্ছা থাকলেও উপায় করতে পারছেন না।
সমাধান!
তাদেরকে বলব, একটা লেখা যে একই প্ল্যাটফর্মেই দিতে হবে এমনতো কোন কথা নেই। যে লেখা ফেসবুকে শেয়ার করছেন, সেটাই নাহয় সামুতে দিন। এতে করে আপনার যেমন সামুর সাথে রিকানেকশন হবে, তেমনিই সামুও পাবে উন্নত অনেক লেখা।
মনে রাখবেন, এই সামুই একদিন আপনাকে লেখক বানিয়েছিল। যে আপনি একটি লাইনও লিখতে পারতেন না, "সেফ কবে হব?" পোস্টেও একশটা বানান ভুল হতো, সেই আপনিই আজ ঝরঝরে গল্প/উপন্যাস/সিরিজ লেখেন। তাই আপনারো সামুর প্রতি কিছু দায়িত্ব আছে।
আরেকটি দল আছে, যারা সামু ছেড়ে লেখালেখিই ছেড়ে দিয়েছেন। তাদের অস্বস্তি হতে পারে পুনরায় লেখালেখি শুরু করতে। তাদেরকে বলব আস্তে আস্তে হাতটাকে খুলুন। প্রথম পোস্টে কি কি কারণে ব্লগ ছেড়েছিলেন সেটা লিখুন। এরপরে নিজের ড্রাফট দেখুন, সেখানে হয়ত কিছু পুরোন অপূর্ণ লেখা পড়ে রয়েছে। সেগুলোকে পূর্ণতা দিন। ওপরআলার নাম নিয়ে শুরু করেই দিন না, দেখবেন মনে একটা অন্যরকম শান্তি পাবেন। সৃষ্টিশীল মনের সৃষ্টিতেই যত আনন্দ এবং আলস্যে রাজ্যের অশান্তি।

অপরিচিত সামু!
ব্লগে ফেরার সবচেয়ে কষ্টদায়ক ব্যাপার এটাই। ফিরে এসে তেমন কোন পরিচিত ব্লগারকে পাবেন না। যাদের সাথে একসময়ে হাসিঠাট্টা, ঝগড়া, ক্যাচালে মেতে ছিলেন, তাদের জায়গায় আজ নতুন মুখ। সামুরও কিছু টেকনিক্যাল ফিচারস এর পরিবর্তন এসেছে। সবমিলে সামুতে ঢুকেই ছোটখাট ধাক্কা খেতে পারেন। মনে হতে পারে, সময়ের সাথে সাথে আপনার জীবনে/ব্যক্তিত্বে যেমন পরিবর্তন এসেছে, সামুও পাল্টে গিয়েছে। আগের সামু আর নেই, এই সামুতে বেশিক্ষন থাকতে মনও চাইবেনা।

সমাধান!
এই সমস্যার সমাধান আপনি ছোটকালেও হয়ত করেছিলেন অজান্তে। স্কুল যখন পরিবর্তন হতো, প্রথম প্রথম বন্ধু না থাকার কারণে একদমই ভালো লাগত না। কিন্তু মায়ের ভয়ে স্কুল কামাই না করে বারবার যেতে যেতে একসময়ে নতুন বন্ধু জুটে যেত এবং আপনি পুরোন স্কুলটির কথা ভুলেই যেতেন। সেই একই কাজ সামুর ক্ষেত্রেও করতে হবে।
অর্থাৎ, সামুতে মন পুনরায় ফেরাতে হলে প্রচুর সময় দিতে হবে। একটা কথা মনে রাখবেন, ব্লগারদের নাম পরিবর্তন হলেও অনেককিছুই এখনো আগের মতোই আছে। এখনো সামুতে নানা রকম লেখা আসে - কবিতা, গল্প, ধর্ম, রাজনীতি, খেলা, রম্য, সমসাময়িক বিষয়ে মতের আদান প্রদান সবই চলে আগের মতোই। অপরিচিত এই সামু ব্লগারদের ব্যাচটির সাথে মিশে যেতে হলে খোলা মনে সবার লেখা পড়ুন। এতে করে আপনি সবার ধরণ বুঝে যাবেন - কে ভাবুক, কে কাব্যিক, কে ক্যাচালিস্ট ;) ইত্যাদি বুঝে ফেলতে পারবেন। আস্তে আস্তে আপনার মনে সবার জন্যে একটা জায়গা তৈরি হবে এবং এই অপরিচিত মানুষেরাই পরিচিত হয়ে উঠবে। তখন দেখবেন, আগের মতোই একটু পরে পরে সামু পেজ ওপেন করে কে কি লেখা পোস্ট করল, কে কি মন্তব্য করল দেখার জন্যে মনটা আনচান করবে। :)

হারানো বন্ধু/পাঠক!
অনেকের ক্ষেত্রে পোস্ট রেসপন্স পরিবর্তিত হতে পারে। একসময়ে হয়ত সামুতে পোস্ট দেওয়া মাত্র আপনার পরিচিত বন্ধু, এবং গুণমুগ্ধ পাঠকেরা হামলে পড়তেন। কিন্তু এই নতুন ব্যাচটাকে আপনি যেমন চেনেন না, তারাও আপনাকে চেনেন না। সামুতে কখনো কখনো ভালো পোস্টও পাঠক প্রিয়তা পায়না এবং মোটামুটি পোস্টও "ব্লগার নেম" এর কারণে হিট হয়। এটা স্বাভাবিক, যেসব ব্লগারেরা কষ্ট করে রেগুলার থেকে নিজের নাম বানিয়েছেন সামুতে, স্বাভাবিকভাবেই তাদের লেখা আসা মাত্র সবাই ক্লিক করবে। কিন্তু অপরিচিত ব্লগারদের লেখা অতটা সহজে রেকগনিশন পাবেনা। নিজের ফাঁকা ব্লগবাড়িটা দেখলে একটা দীর্ঘনি:শ্বাস বেড়িয়ে আসতেই পারে।

সমাধান!
এত কথার শেষ মানে হচ্ছে, আপনাকে শুরু থেকে শুরু করতে হবে। একদমই নতুন, ফ্রেশ ব্লগারের মন নিয়ে ব্লগিং করুন যে একটি দুটি লাইক পেলেও খুশি হয়ে যায়। অথবা লাইক/কমেন্টের চিন্তাই করেনা, শুধু মনের খুশিতে লিখে যায়।
সামুতে পুনরায় নিজের জায়গা বানাতে হলে, নতুন অডিয়েন্সটাকে বুঝতে হবে। ৮-১০ বছর আগের অডিয়েন্সের সামুই ছিল একমাত্র ভরসা যেহেতু এত হাজার হাজার ব্লগ/ফেসবুক পেজেস ছিলনা। আর এখন একেক টাইপের লেখার জন্যে বিশেষ বিশেষ প্ল্যাটফর্ম আছে! পুরোন পাঠকেরা লম্বা লম্বা লেখা পড়তে ভালোবাসতেন। এখন একটু বড় পোস্ট হলেই মন্তব্য আসে, "পোস্ট অনেক বড়, পরে পড়ব", কিন্তু নানা ব্যস্ততায় সেই পড়েটা আর আসেনা। এখনকার অডিয়েন্স সরল এবং কুইক কিন্তু অর্থপূর্ণ লেখা চায়। সে অনুযায়ী আপনাকে সাজাতে হবে পোস্টগুলো। নিজের জনরা মানে গল্প/কবিতা/সমসাময়িক যা লিখতেন তাতে স্টিক করতেই পারেন, কিন্তু ফরম্যাটিং/সাইজ ইত্যাদিতে নজর দিতে হবে। সহজে পয়েন্ট আকারে ফলো করা যায় এমন করে লিখতে হবে এবং সাইজ অবশ্যই এত বেশি হবে না যাতে পাঠক বোরড হন।
এসব করার পড়েও কিছু সময় পাঠক না পেতে পারেন। কনসিসট্যান্সি ইজ দ্যা কি টু সাকসেস। লিখতে থাকুন, আপনার পরিচিতি তৈরি হবে এবং আগের মতোই আপনার ব্লগবাড়িটা জাঁকজমকপূর্ণ হবে - বন্ধু পাঠকে ভরপুর!

শেষ কথা: আমি আশা করি এই পোস্টটি আমাদের প্রিয় ও পুরোন ব্লগারদেরকে ফিরিয়ে আনবে এবং যারা ফিরছেন তাদেরকে টিকে থাকতে এবং আগের মতোই ব্লগ মাতাতে সাহায্য করবে। প্লিজ কাম ব্যাক পিপল, উই ডিপলি ফিল ইওর এবসেন্স......
সর্বশেষ এডিট : ২৬ শে আগস্ট, ২০২০ রাত ৯:৫১
৩৭টি মন্তব্য ৩৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

হাটহাজারী আপডেট

লিখেছেন হাসান কালবৈশাখী, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৫৪

হাটহাজারী মাদরাসায় সাত হাজারের বেশি শিক্ষার্থী রয়েছেন। কওমি ধারায় এটি বাংলাদেশের সবচেয়ে প্রভাবশালী মাদরাসা।
হেফাজতে ইসলামের আমীর শাহ আহমদ শফী হাটহাজারী মাদ্রাসায় ৩৬ বছর একক কর্তৃত্ব ছিল।
এই তিনযুগ ধরে তার... ...বাকিটুকু পড়ুন

টুকরো টুকরো সাদা মিথ্যা- ১৮৫

লিখেছেন রাজীব নুর, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সকাল ১১:৫৭



১। বাড়ির বউদের মধ্যে যদি হিংসা কিংবা ঈর্ষা ভাব থাকে, তাহলে ভাইয়ে-ভাইয়ে সম্পর্কও নষ্ট হয়ে যায়।

২। একটি রুমে ১২ জন মানুষ আছে। এদের মধ্যে কিছু সৎ এবং কিছু অসৎ।... ...বাকিটুকু পড়ুন

অম্লতিক্ত অপ্রিয় সত্যাবলি

লিখেছেন সোনাবীজ; অথবা ধুলোবালিছাই, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৪:৫৭

আপনি বই পড়ছেন, পাশের লোক নিজের বই
রেখে বার বার আপনার বইয়ে চোখ রাখছেন;
তিনি ভাবছেন আপনি রসে টইটুম্বুর ‘রসময়গুপ্ত’
পড়ছেন।
নিজের অপরূপা সুন্দরী বউ নিয়ে পার্কে ঘুরছেন।
শত শত পুরুষের... ...বাকিটুকু পড়ুন

মানুষ, সমাজ এবং ধর্ম

লিখেছেন রাজীব নুর, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ বিকাল ৫:৩১



প্রতিটি ধর্মের জন্ম হয়েছে ভয়ের মাধ্যমে।
আমার চিন্তা করার জন্য একটা মস্তিষ্ক রয়েছে আর ভালোমন্দ বিচার করার মত সামান্য হলেও বোধবুদ্ধি আর শিক্ষা রয়েছে, যদিও সেটা যথেষ্ট না।... ...বাকিটুকু পড়ুন

নেকড়ে,কুকুর আর বেড়াল-(একটি ইউক্রাইনান মজার রূপকথা)

লিখেছেন শেরজা তপন, ২১ শে সেপ্টেম্বর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৫


স্তেপে বিষন্ন মনে ঘুরে বেড়াচ্ছিল এক ক্ষুধার্ত কুকুর। বুড়ো হয়ে গেছে সে ,আগের মত দৌড় ঝাপ করতে পারেনা , চোখেও ভাল দেখেনা। ক’দিন আগে মালিক তাকে তাড়িয়ে দিয়েছে। সেই থেকে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×