somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

শ্রাবণ আহমেদ
আমি মোঃ রাব্বি হোসেন। "শ্রাবণ আহমেদ" এটা আমার ছদ্মনাম। লেখালেখিতে নিজের এই ছদ্মনামটা দিতেই স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। পাবনা জেলার সদর উপজেলায় আমার জন্ম। বর্তমানে ঢাকা থাকি। মূলত সুন্দর কিছু মূহূর্ত আপনাদের উপহার দিতেই আমার এ ক্ষুদ্র প্রয়াস।

ভালোবাসা দিবস

০৭ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:৩৪
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

ভালোবাসা দিবস
লেখক: Srabon Ahmed (অদৃশ্য ছায়া)
.
টং দোকানে বসে চা খাচ্ছে হিমেল, সৌরভ আর হাসান। অন্তরঙ্গ বন্ধুত্বের সম্পর্ক তাদের তিনজনের।
সৌরভ দোকানদার মামাকে তিনটা সিগারেট দিতে বলে হাসান আর হিমেলের উদ্দেশ্যে বলে, আগামীকাল তোদের প্ল্যান কী?
প্রত্যুত্তরে হাসান কিছু বলে না। অপরদিকে হিমেল বলে, কাল সারাদিন ঘুমাবো।

- এই নাও বাবা সিগারেট।
দোকানদার মামা সিগারেট এগিয়ে দিলেন তাদের দিকে। সৌরভ সিগারেটে টান দিতে দিতে বলে, আমি আগামীকাল আমার গার্লফ্রেন্ডের সাথে থাকবো। চাইলে তোরাও আসতে পারিস।
সৌরভের কথা শুনে হিমেল বলে,
- এবারও একট জুটিয়ে ফেলেছিস?
- আরে বেটা এসব জোগাড় করা আমার কাছে কি অসম্ভব কিছু?
- তা না, তবে প্রতিবার কিভাবে জোগাড় করিস?
- সে বিষয়ে তোদের ভাবতে হবে না। বল গতবারের মতো এবারও যাবি নাকি!

হিমেল আর হাসান দু'জনে কিছুক্ষণ চোখাচোখি করে বলে, হ্যাঁ যাওয়া যায়। ফুর্তি করলে মন মেজাজ দু'টোই ভালো থাকে। কিন্তু.....
- কিন্তু কী? (সৌরভ)
- গার্লফ্রেন্ড তোর। আর আমরা সবাই মিলে ভাগ করে নিলে তোর সমস্যা হবে না তো? (হিমেল)
- আরে ধুর, এ তো কেবলই টাইম পাস আর মজা। ওর সাথে আমার রিলেশনের আজকের দিনটাই শেষ দিন। প্রতিবারই তো তোরা যাস। এবারও যাবি।
- হ্যাঁ, তা ঠিক। তা মেয়েটা দেখতে কেমন?
- তোদের মাথা ঘুরিয়ে যাবে দেখলে।
- বলিস কি? তবে তো এই মেয়েকে পেতেই হবে।
- কালকে কল করলে চলে আসিস।
- ওকে দোস্ত।
.
হিমেল আর হাসান বাড়ি চলে যায়। সৌরভ বসেই থাকে টং দোকানে। সন্ধ্যা হলে সেও বাড়ির দিকে রওনা দেয়।

রাতে হিমেল নিজের রুমে বসে ল্যাপটপে ফেসবুকিং করছে। মাস খানেক ধরে সে একটা মেয়েকে পটানোর চেষ্টা করছে। কিন্তু মেয়েটা কিছুতেই পটছে না। মেয়েটাকে অনলাইনে দেখে সে ইনবক্স করে।

- হাই অধরা কেমন আছো?
- এই তো ভালো, তুমি কেমন আছো?
- তুমি ছাড়া কেমন থাকি সেটা তো তুমি জানো। তা আগামী দিনের প্ল্যান কী তোমার?
- বয়ফ্রেন্ডের সাথে ঘুরবো ফিরবো।
- তোমার বয়ফ্রেন্ড আছে?
- হ্যাঁ, কেন?
- না, এমনিই।
- হু।

হিমেল ফেসবুক থেকে বের হয়ে আসে। মুহূর্তেই তার উচ্ছ্বাসিত মনটা খারাপ হয়ে যায়। কিছুদিন আগেও মেসেন্জারে কথা বলার সময় মেয়েটি বলেছিলো, তার কোনো বয়ফ্রেন্ড নেই।
কিন্তু আজ? আজ মেয়েটে বলছে, আগামীকাল সে তার বয়ফ্রেন্ডের সাথে ঘুরতে বের হবে।

- ভাইয়া আসবো? (হঠাৎই তার বোন তার রুমে নক করে)
- আয়।
- ভাইয়া দেখতো এই শাড়িটা কেমন?
হিমেল এক ঝলক শাড়িটার দিকে তাকিয়ে মোবাইলটা হাতে নিয়ে বলে, অনেক সুন্দর।
- কালকে পড়বো শাড়িটা, কেমন মানাবে বলতো!
- একদম কাউয়ার মতো লাগবে। যা এখান থেকে।
তার বোন চলে যায় রুম থেকে।
.
পরদিন অর্থ্যাৎ ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে সৌরভ কল দেয় হিমেল আর হাসানকে। সে বলে, দোস্ত ঘণ্টা খানেকের মধ্যে চলে আয় আমাদের বাসার পাশের আমবাগানটার কাছে।

হিমেল যাওয়ার জন্য তৈরি হয়ে থাকে। নীল পাঞ্জাবি, পায়জামা, জুতা সবকিছু পড়ে। তবুও কী যেন নেই, বলে মনে হয় তার। ঠিক তখনই তার বোন তার রুমে প্রবেশ করে বলে...
- কী? ঘড়ি খুঁজছিস?
- হ্যাঁ, কিন্তু....
- কিন্তু আমি জানলাম কী করে তাই না?
- হ্যাঁ।
- এই যে তোর ঘড়ি আমার কাছে।
- দে, ঘড়িটা দে।
- দিতে পারি, তার আগে বল আমাকে কেমন দেখাচ্ছে?
- একদম পেত্নীর মতো।
- হুহ, তাহলে আর ঘড়িটা পেলি না।
- না না, তোকে একদম পরীর বাচ্চার মতো লাগছে।
- না হয়নি, ভালো করে দেখে বল। মন থেকে বল।
হিমেল তার নিজের শরীরে সেন্ট মারতে মারতে বলে, হ্যাঁ অনেক সুন্দর লাগছে তোকে।
হিমেলকে ঘড়িটা দিয়ে তার বোন রুম থেকে প্রস্থান করে।
.
এদিকে সৌরভ কয়েকবার ফোন দিয়েছে হিমেলকে। হিমেল বলেছে, দোস্ত আরেকটু অপেক্ষা কর, চলে আসছি আমি।
বিকেল চারটার দিকে হিমেল আমবাগানে পৌঁছে যায়। গিয়ে দেখে সৌরভ আর হাসান তার অপেক্ষাতেই দাঁড়িয়ে আছে। তাকে আসতে দেখেই তারা বলে উঠে, দোস্ত মজা হবে আজ।
- মেয়েটি এসেছে? (হিমেল)
- হ্যাঁ, ও রুমের মধ্যে আছে।
- চল তাহলে।
- হুম চল।

রুমের সামনে গিয়ে হিমেল সৌরভকে বলে, দোস্ত তুই আগে ভেতরে গিয়ে মেয়েটাকে রেডি করে রাখ। তারপর আমরা ঢুকছি।
সৌরভ ভেতরে ঢুকে যায়। হিমেল আর হাসান বাইরে দাঁড়িয়ে থাকে। কিছু সময় পর সৌরভ হিমেলের ফোনে ফোন করে বলে, আয় ভেতরে আয় তোরা।

হিমেল আর হাসান দরজা খুলে ভেতরে ঢোকে। রুমটা অন্ধকার। মৃদু মৃদু আলো জ্বলছে রুমে। মৃদু আলোতে হিমেল দেখতে পায়, একটা অর্ধ নগ্ন মেয়ে খাটের সমীপে দাঁড়িয়ে কাউকে জড়িয়ে ধরে আছে।
পাশে থেকে হাসান সৌরভের উদ্দেশ্যে বলে ওঠে, দোস্ত রুম তো অন্ধকার। লাইটটা জ্বালিয়ে দে।

সৌরভ লাইটটা জ্বালিয়ে দেয়। লাইটের আলোয় অর্ধ নগ্ন মেয়েটার দিকে চোখ পড়তেই হিমেল চমকে ওঠে।
এসব কী দেখছে সে! মেয়েটা যে তার বোন। পাশে তাকিয়ে দেখে ফ্লোরে তার বোনের সেই শাড়িটা পরে আছে।
.
রিপোস্ট
সর্বশেষ এডিট : ০৭ ই ফেব্রুয়ারি, ২০২০ রাত ১০:৩৪
২টি মন্তব্য ২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

সাইয়েমা হাসানের ‘ফ্রেন্ডলি ফায়ার’

লিখেছেন নান্দনিক নন্দিনী, ৩০ শে মার্চ, ২০২০ রাত ৮:২৯



এদেশের সাধারণ মানুষের স্বাস্থ্যব্যবস্থা নিরাপদ রাখতে সরকার সরকারি-বেসরকারি অফিসগুলোতে দশদিনের সাধারণ ছুটি ঘোষণা করেছেন। যেহেতু কোভিড-১৯ বা করোনা ভাইরাস জনিত রোগ তাই দশদিনের সাধারণ ছুটির মূল উদ্দেশ্য জনসাধারণ ঘরে... ...বাকিটুকু পড়ুন

বিশ্বের রাজধানি এখন করোনার রাজধানি।( আমেরিকা আক্রান্তের সংখ্যায় সবাইকে ছাড়িয়ে প্রথম অবস্থানে চলে এসেছে)

লিখেছেন রাফা, ৩০ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১০:৪৫



যে শহর ২৪ ঘন্টা যন্ত্রের মত সচল থাকে।করোনায় থমকে গেছে সে শহরের গতিময়তা।নিস্তব্দ হয়ে গেছে পুরো শহরটি।সর্ব বিষয়ে প্রায় প্রথম অবস্থানে থেকেও হিমশিম খাচ্ছে সাস্থ্য... ...বাকিটুকু পড়ুন

কারো লেখায় মন্তব্যে করার নৈতিক মানদন্ড। একটু কষ্ট হলেও লেখাটি পড়ুন।

লিখেছেন সৈয়দ এমদাদ মাহমুদ, ৩০ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:০২

সম্মানিত ব্লগারদের দৃষ্টি আকর্শন করে বলছি ব্লগারদের লেখা পড়ে মন্তব্য করবেন শিষ্টাচারের সঙ্গে। মন্তব্য যেন কখনো অন্যকে হেয় প্রতিপন্ন করার জন্য না হয়। মন্তব্য হবে সংশোধনের লক্ষ্যে। কারো কোন... ...বাকিটুকু পড়ুন

করোনাময় পৃথিবিতে কেমন আছেন সবাই?

লিখেছেন রাফা, ৩০ শে মার্চ, ২০২০ রাত ১১:২৪



পোষ্ট লিখলাম একটা ক্ষুদ্র কিন্তু প্রথম পাতায় এলোনা ।সেটা জানতে এটা পরিক্ষামূলক পোষ্ট।সব সেটাপ'তো ঠিকই আছে তাহলে সমস্যা কোথায় ? আমি কি সামুতে নিষিদ্ধ নাকি?

ধন্যবাদ। ...বাকিটুকু পড়ুন

পোষ্ট কম লিখবো, ভয়ের কোন কারণ নাই

লিখেছেন চাঁদগাজী, ৩১ শে মার্চ, ২০২০ সকাল ৮:০১



আপনারা জানেন, নিউইয়র্কের খবর ভালো নয়; এই শহরে প্রায় ৫ লাখ বাংগালী বাস করেন; আমিও এখানে আটকা পড়ে গেছি; এই সময়ে আমার দেশে থাকার কথা... ...বাকিটুকু পড়ুন

×