somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

খোঁজযন্ত্রের নাই কাজ হিজিবিজি - কি তাতে স্পেশাল-অস্পেশাল

২৬ শে মার্চ, ২০১৩ দুপুর ২:২০
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


গৌরচন্দ্রিকা
বলা হয় কোন এক গণিতবিদের নাতি তার নানাকে আটকাতে জিজ্ঞেস করেছিল যে দুনিয়ার সবচেয়ে বড় সংখ্যা কি। নানা ফাঁদে আটকে গিয়ে ১ এর ডান পাশে ১০০ বসানো একটা বিশাল সংখ্যা বলেছিল। যার নাম দিয়েছিল গুগল googol । নানার এই সংখ্যাটা বাস্তবিকই অত্যাধিক বড়। দুই উদ্ভাবক ল্যারি আর সের্গেই বড় আকারের সার্চ ইঞ্জিন বানানোর প্রত্যয়ে শেষমেস গুগল নামটাই পছন্দ করলেন । googol উচ্চারণ ঠিক রেখে তারা বানান বদলে দিলেন। জন্ম হলো নতুন প্রজন্ম - google এর।

হ্যালো সার্চ ইঞ্জিন
জন্ম তো হলো, যত দিন যাচ্ছে ইন্টারনেট সমুদ্রও থেকে মহাসাগর হয়ে যাচ্ছে। সার্চ ইঞ্জিন মানে অনুসন্ধানের দৈত্য। হতে হবে সহজ কাজ করবে দ্রুত। দেখতে দেখতে বড় বড় সার্চ ইঞ্জিন ডাইনোসরের মত মরে গেল। আলতাভিস্তা ছিল, ছিল এক্সাইট, গোটু। আজকে ইয়াহুও, বিঙও গুগলের সাথে পাল্লা দিতে হাঁপায় । গুগল খুব সাদাসিদে ডিজাইনের পেজ নিয়েই সাম্রাজ্যের অধিপতি হয়ে আছে। সত্যি বলতে কি, সরল জিনিস মানুষের বেশিদিন পছন্দ থাকে। গুগলের ডিজাইনে লম্বা একটা আদেশ বাক্স। ওখানে কিছু লিখে এন্টার দিলেই ব্যাস। আর তার উপরে গুগল কোম্পানীর লগো বসানো।

প্রথম ডুডল
ডুডল কি? অনলাইনে অনুবাদ করুন, বলবে - সময় অপচয়! ডিকশনারী খুলুন - বলবে নাই কাজ তো কাকের ঠাং বকের ঠ্যাং আঁক। ২০০০ তে বাস্তিল দিবস। ল্যারী আর সের্গেই তাদের ওয়েব মাস্টার ড্যানিস হোয়াঙ কে এই উপলক্ষে লগোটা একটু চেঞ্জ করতে বললেন। লগোতে গুগল থাকবে কিন্তু একটু চেংবেং মানুষ দিতে হবে বৈচিত্রে্যর জন্য। বিষয়টা সবাই খুব দারুণ ভাবে নিলো। এর নাম ডুডলই পাকা হলো। এর পর হলিডে তে, ক্রিসমানে নতুন ডুডল দিয়ে যাচ্ছে। আজকে পর্যন্ত প্রায় ১৫০০ ডুডল এসেছে নানান সময়ে।


ডুডল উৎসব বা ইভেন্টে গুগলের কমন বিষয়


ডুডলে আমাদের কি হয়?
ডুডল কোন পয়সা দিতে পারে না। কিন্তু ডুডলের বিষয়বস্তু ছড়িয়ে পড়ে সারা বিশ্বে। ভাবা যায় আমাদের স্বাধীনতা দিবসের কথাটি যদি সত্তুর কোটি মানুষ না চাইলেও দেখতো। কত লোক আগ্রহী হতো আমাদের জানতে! সর্বাধিক জনপ্রিয় পত্রিকায় সামান্য জায়গার জন্য পেতে যেমন মানুষে তীব্র আশা থাকে, তেমনি গুগলে ডুডল হবার স্বপ্ন অনেক কমিউনিটি দেখে। কত লোক ডুডল দেখে ২০১০ এ এর সংখ্যা ছিল দৈনিক ৬২ কোটি লোক। আজকে নিশ্চয় আরো অনেক বেশি। এত বড় ভিজিটর সংখ্যা পৃথিবীর কোন সাইটের কপালে নেই।


গুগলের গেল দেশে দেশে, নিজের ভাষায়
গুগল শুরু করেছিল ইংরেজিতে। এর পর CCTLD র জনপ্রিয়তা বাড়লো। CCTLD হলো দেশের জন্য আলাদা ডোমেইন। আমাদের .bd. এটার সব ডোমেইনের অধিকার আমাদের। গুগল এখন গ্লোবাল বা বৈশিক সার্চ ইঞ্জিনের সার্ভিস তো দিচ্ছেই পাশাপাশি ১১৫ টি দেশে নিজের নিজের মত করে ইন্টারফেস দিচ্ছে। যেমন ভারতের লোক হিন্দি দেখছে, গুজরাটি দেখছে। বাংলাদেশেও এখন ইংরেজি ও বাংলা দুটো ভাষাতেই গুগল সার্চ করা যাচ্ছে।

অবহেলিত বাংলা এবং নিজস্ব উদ্যোগে বাংলা গুগল
গুগল বা বড় আমেরিকান কোম্পানীগুলো জানে ্মাাদের দেশ বড় বাজার না। তাই আসে দেরী করে। আসতে হয় তাই। অনেকেরই মনে নেই না যে আমেরিকার গুগলের বাংলা সার্ভিস দেবার আগে বাংলাদেশে তরুণদের একটি দল নিজেরাই ছোট পরিসরে বাংলাভাষায় গুগল নির্মান করে ডিজাইন ও সার্ভিস দেয়া শুরু করে। [ সূত্র/ইত্তেফাক/http://www.maruf42.com//archive/ittefaq/banglagoogle.pdf]
এটি ২০০৪ সালে মিডিয়াতে আসে। তখন google.com.bd ডোমেইন কিনে সেখানে এই বাংলাগুগল সেট করা হয়।

২০০৪ এ বাংলা ইউনিকোড এর ব্যবহার শুরু হয় নি। গুগলেরও বাংলাদেশ নিয়ে আগ্রহ ছিল না। বাংলা টাইপ করার জন্য সব কম্পিউটারে বাংলা কি বোর্ড না থাকায় জাভাস্ক্রীপ্ট দিয়ে বিজয় কিবোর্ড বানানো হয়। ফন্টও তখন সব কম্পিউটারে ছিল না। কিবোর্ডের ডিজাইন নিয়ে বিতর্ক ছিল। তবুও মনে আছে বাংলা গুগল সার্ভিস দেয়া শুরু করে। বিডিকম নামে প্রতিষ্ঠান তার সার্ভারে এটি হোস্ট করে। ফন্টের ঝামেলার জন্য ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার ব্যবহার করতে হতো। ফায়ারফক্স হলে অংকুর এর মুক্তি ফন্ট ডাউনলোড করতে হতো দেখতে। তারা যে কাজটি করেছিল পিএইচপি কার্ল নামে একটা সফটওয়্যার দিয়ে গুগলের সামনের ছবিটা অনুবাদ করে দিতো। আর লগোর অংশটা বিডিকমের সার্ভারে ছিল। তাদের বানানো বাংলাগুগল এ বাংলাতে "গুগল" লেখা থাকতো যেটি Wayback সিস্টেমে রাখা নেই।
Click This Link
প্রথম বাংলা ডুডল?
বাংলা গুগলে ভিজিটররা ফেস্টিভাল লগো পাঠালে সেখান থেকে উৎসবগুলোতে দেখানো হতো। বলাবাহুল্য সে সময় সার্ভিস ছিল অত্যাধিক স্লো, শুধু সখের জন্য বাংলায় যেতো।
২৬ শে মার্চ ২০০৫ এ নিজেদের বানানো ডুডল দেয়া হয়েছিল য়তদূর মনে আছে এবং এটা ডিজাইন করেছিল অষ্টেলিয়াপ্রবাসী ইশতিয়াক নামের একজন। দুর্ভাগ্য এর কোন স্ক্রিনশট নেই। ২৮ শে অক্টোবর, ২০০৫ এ গুগল ডোমেইনটি নিজেদের করে নেয়। অনেক চেষ্টা করেও সেই ডুডলটি আমি যোগাড় করতে পারি নি। আজকে গুগল যে চমকপ্রদ ডুডল টি দিয়েছে google.com.bd র জন্য সেটা সেই হিসেবে এই ডোমেইনে দ্বিতীয় ডুডল! । যাই হোক.. প্রথম দ্বিতীয় বিতর্কে নাই বা গেলাম।

শুধুই লোকাল ডুডল
একটি ডুডল পাওয়া মানে কয়েকশ কোটি লোকের নজরে সেই দেশের সম্মান পাওয়া। কিন্তু দুর্ভাগ্য গুগল নিজেও বোঝে যে সব দেশই চায় এটা। অনেক কমিউনিটি তাদের কাছে এটা চায়।
এই ডুডলের দায়িত্ব, ভিড় , বিড়ম্বনা এড়াতে গুগল লোকাল গুগলকে তাদের লোকাল কমিউনিটির দায়িত্ব দিয়ে গেছে। সেজন্য সিঙ্গাপুরের সমস্ত উৎসব পালনের ডুডল য .sg , ভারতের সব উৎসবের জন্য .in অথবা ইংলা্যান্ডের জন্য .uk domain এ দায়িত্ব দেয়। এটা বেশ হতাশারই কারণ এতে ইংল্যান্ডের কোন ক্রিকেটজয়ের ডুডল ইংল্যান্ডের বাইরে কেউ জানবে না। এতে আমাদের দেশের এই স্বাধীনতার আনন্দ দেশের বাইরে কেউ জানবে না।

স্থানীয় পর্যায়ে গুগলের ডুডলে কি লাভ
না, এটায় তেমন লাভ নেই। এটা একপ্রকার সম্মানিত করা। আজকে আমাদের স্বাধীনতা দিবসের ডুডলের মত ২০১০ থেকে প্রতিবছর ভারতের স্বাধীনতা দিবসের ডুডল দেয়া হয়। আর ২০১১ থেকে পাকিস্তানের চানতারা ডুডল স্বাধীনতা দিবস গুগল দিয়ে আসছে।




পাকি ডুডল:
Click This Link
Click This Link
ভারতীয় ডুডল:
Click This Link
Click This Link
Click This Link

এবার কার স্বাধীনতা দিবসের যে ডুডল নিয়ে সবাই উচ্ছ্বসিত সেটা বরং দেরীতেই এসেছে।

গুগলের কাছে ডুডল চাওয়া কি উচিত?
স্থানীয় .bd জন্য ডুডল হয়তো এমনিতেই তারা দেবে। গ্লোবাল পর্যায়ে পাবো কি পাবো না এটা ২০১২ ডুডলগুলো দেখলে বুঝতে পারি -
৫১ টি লগো দেয়া হয়েছিল বৈশ্বিক ভাবে
-ছুটির দিন(ক্রিসমাস ইত্যাদি) :
-ঘটনার বহু বছর পূর্তি :
-ব্যক্তির জন্মদিন: ২৪
-ইভেন্ট: ১৮
-বিদেশী স্বাধীনতা/বিজয়:

আমরা দেখতে পাই গুগল সে বছর বিদেশী কোন দেশ কে তাদের মত দিবসের ডুডল দেয় নি। আমি মনে করি স্বাধীনতা বিজয় দিবস এসব নিয়ে গুগলকে বলে লাভ নেই, বলা মানে সময়ের অপচয়।

হ্যা, তবুও আমরা বলবো
আমরা গ্লোবাল ডুডল চাইতে পারি। বিশ্ব মাতৃভাষা দিবসটি কোন দেশের না। আমরা গুগলের কাছে জিনিসটি যথাযথ ভাবে উপস্থাপনা করলে এর সম্ভাবনা খুব বেশি।



----------------------------------------------------------------
রাখার আগে ৬০০ ডুডল জোড়া দিয়ে আঁকা ডুডল দেখাই Click This Link


Click This Link
গুগলকে বলতে পারি, স্থানীয় ডুডুল উপহারে কি হবে?
ছবি: http://oi45.tinypic.com/jfb1nk.jpg

------------------------------------------------------------------

অন্যদের পোস্টের লিংক
টানিম-গুগোল ডুডল নিয়া হালকা ভ্রান্ত ধারনা। আমরাও খুশী হয়ে গেলাম। আপডেট সহ

প্রাসঙ্গিক লিংক থাকলে কমেণ্টে রেখে যাবেন। এড করে নেবো।

সর্বশেষ এডিট : ২৬ শে মার্চ, ২০১৩ রাত ৮:৫৮
৫টি মন্তব্য ৪টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

টিকা না দেয়ার ফলাফল, COVID-19 এর নতুন ভার্সন B.1.1.529

লিখেছেন চাঁদগাজী, ২৬ শে নভেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২৯



দ: আফ্রিকা ও আফ্রিকা মহাদেশের দক্ষিণ এলাকার দেশগুলোতে COVID-19'এর নতুন একটি ভার্সন, B.1.1.529 ধরা পড়েছে; বৃটেন ও ইসরায়েল দ: আফ্রিকার সাথে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করে দিয়েছে, বিশ্বব্যাপী... ...বাকিটুকু পড়ুন

প্রভু ! বারবার নষ্ট হয়ে যাই !

লিখেছেন স্প্যানকড, ২৬ শে নভেম্বর, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:৫৪

ছবি নেট । চিত্র শিল্পী ক্যাথরিন লা রোজ।

জুম্মার দিনে কত জনে পাঞ্জাবি আতর সুবাস লাগাইয়া মসজিদে যায়। আমি জিন্স আর গোল গলার গেঞ্জি। একবার চোখে সুরমা দিছিলাম। দেখি নানু... ...বাকিটুকু পড়ুন

ছাত্র আন্দোলন ও এর যৌক্তিকতা

লিখেছেন প্রকৌশলী মোঃ সাদ্দাম হোসেন, ২৬ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ৮:১৫

৷৷

সংবিধানের অনুচ্ছেদ ১৫ এর (ক) অনুযায়ী নাগরিকের শিক্ষার ব্যবস্থা করার দায়িত্ব রাষ্ট্রের। সংবিধানের উপরোক্ত অনুচ্ছেদের আলোকে ছাত্ররা খুবই যৌক্তিক ভাবে শিক্ষা ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণ ফ্রি করার জোর দাবি জানাতে পারে। কিন্তু... ...বাকিটুকু পড়ুন

বরিশাইল্যা হুজুর আর বিহারী নাপিতের কথোপকথন, এবং জীবনের আয়রনি

লিখেছেন হাসান মাহবুব, ২৬ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ৯:৫১


সেলুনে গিয়েছিলাম ছেলেকে নিয়ে। উদ্দেশ্য, তার চুল কাটানো এবং আমার শেভ করা। যদিও দুজনের চুলই যথেষ্ট বড় হয়েছিলো, কিন্তু চুল বিষয়ে বাপ-ব্যাটার দর্শন আলাদা। রুহিন চুল একটু বড় হলেই... ...বাকিটুকু পড়ুন

সুন্নত

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৭ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ১:৫৫


ছবিঃ গুগল।

আমার এক বন্ধু কথায় কথায়-
আলহামদুলিল্লাহ্‌, মাশাল্লাহ বলে। এবং সুন্নত, ফরয পালন করে। যেমন আমার বন্ধু দাঁড়িয়ে পানি খায় না। বসে পানি খাওয়া সুন্নত। নবিজির সুন্নত।... ...বাকিটুকু পড়ুন

×