somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

অনন্তকালের ব্লগ

২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:১৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :



কতোকাল ! কতোকাল ধরে আছি এখানে ! এই ব্লগে !
এমন ভাবনা থেকেই অনেকেই দিন-বছরের হিসেব মিলিয়ে ব্লগের কাল গুনে গুনে পোস্ট লেখেন - অমুক বছর পূর্তি.........। আমরা তাতে অভিনন্দনের কথা জানাই, শুভেচ্ছায় ভরে দেই , আরো দীর্ঘকাল তার ব্লগ জীবনের কামনা করি ।
কেউ কেউ রাগ করে চলে যাবার আবার কেউ কেউ ফিরে আসার কথাও বলেন।
আমার কিন্তু এমন সব দিনক্ষনের হিসেবটা নেই । হিসেবটাও করিনে । করা হয়ে ওঠেওনা । মনে হয় অনন্তকাল ধরে আছি আমি এই ব্লগে ।
কবে কখন এখানে এসেছিলুম তার দিনক্ষন আমার মনে নেই । খুঁজলে সেদিনটি হয়তো ধরা দেবে সহজেই কিন্তু সে গরজও আমার নেই খুব একটা । শুধু ভালো করে মনে আছে কেন এসেছিলুম এখানে । কি করেই বা এর দেখা পেয়েছিলুম ।
অন্তর্জালে তখন আমি সবেমাত্র হাটতে শুরু করেছি । স্কুল জীবনের শেষের দিক থেকে পরবর্তীকালেও কিছু কিছু লেখার অভ্যেস ছিলো। তেমন অভ্যেসের কারনেই একটি গল্প বা উপন্যাস লেখার উপাদান খোঁজার তাগিদে অন্তর্জালে বাংলা উচ্চারণ সহ কিছু "শের" খুঁজছিলুম।
"বাংলা উচ্চারণ সহ ওমর খৈয়ামের শায়রী" লিখে সার্চ দিতেই প্রথমেই উঠে এলো যে লিংকটি তা হলো এই - " বাংলাভাষার সর্ববৃহৎ ব্লগ" তার পরেই "সামহোয়ারইনব্লগ" এর উল্লেখ । সেখানে "বাঁধ ভাঙার আওয়াজ" শব্দ কয়টি দেখেই কৌতুহল হলো । ক্লিক করলুম । সম্ভবত তখন তখনই সামুর প্রথম পাতাটি আমার চোখের সামনে উঠে এলো । আর সেখানে শুরুতেই "কোরান কি অলৌকিক গ্রন্থ?" এমন শিরোনামের একটি লেখায় চোখ আটকে গেলো । আশ্চর্য্য হলুম, কি লেখা হয়েছে এখানে, ভেবে ! ভেতরে ঢুকলুম । "সৈকত চৌধুরী" নামের কেউ একজন লেখাটি দিয়েছেন । লেখা পড়তে পড়তে মনে হলো, আমিও কিছু লিখি তার লেখার বিষয়ের উপরে ।
কিন্তু কি করে এখানে লিখবো ? কোথায় লিখবো ? খুঁজে পেতে একদম নীচের দিকে দেখলুম, একটা বক্স আছে, লেখা -" আপনার মন্তব্য লিখুন" । সেখানে লিখতে গিয়েই বাঁধা । আমাকে নাকি আগে এখানে নিবন্ধিত হতে হবে । মহা বিপদ । কি করে নিবন্ধিত হবো ? এইসব ব্যাপারে আমার এখন যে "ক" আর "খ" জ্ঞান তার চে' জ্ঞান তখন আরো কম ছিলো । " রিম সাবরিনা"র "পর্তূগালের অলিগলি"র মতো ব্লগ ঘুরে শেষমেশ গুঁতিয়ে গুঁতিয়ে কয়েকবার চেষ্টার পরে নিবন্ধিত হতে পারলুম । আমার তখন কৌতুহল উদ্রেককারী "সৈকত চৌধুরী"কে কিছু লেখার জন্যে হাত নিশপিস করছে । কিন্তু অল্প কথায় তো তা বলা যাবেনা ।
" আপনার মন্তব্য লিখুন" ঘরখানা যে এত্তোটুকুন ছোট ! সেখানে বড় কিছু লেখা যাবে কি ! সংশয় নিয়ে কিছুটা লিখে ট্রাই করলুম , দেখি যায় কিনা ।
"মন্তব্য প্রকাশ করুন" এ চাপ দিতেই ..... ওমমা.......!
"আপনাকে আগে লগইন হতে হবে" লেখাটি ভেসে উঠলো । মর ....জ্বালা....!
এটা জানা ছিলোনা যে, এখানে কিছু লিখতে গেলে লগইন করতে হয়। ভেবেছিলুম নিবন্ধন যখোন হয়েই গেছে তখন আমার সবকিছু জায়েজ । এতো ফ্যাকড়া , জানা ছিলোনা । কোশেশ করে লগইন হয়ে সেখানে কিছু মন্তব্য করেছিলুম কিনা এবং তার লেখার বিষয়ে আমার বক্তব্য বোঝাতে সেটুকু যথেষ্ট ছিলো কিনা আজ আর তা স্পষ্ট মনে নেই। সম্ভবত করেছিলুম এবং নিজের কাছেই তা যথেষ্ট মনে হয়নি । নিজের বক্তব্য বোঝাতে এবার আর রিস্ক নিলুম না । ওয়ার্ড ফাইলে পুরোটা লিখে ফেললুম । এত্তো লেখা, এ তো মন্তব্যের বদলে নিজেই আস্ত একখানা লেখা হয়ে গেছে । কি করি ! আমি নিজেই এটা ব্লগে আলাদা করে দিয়ে দেবো, যেমন এখানে অনেকের লেখা দেখছি ? কিন্তু কিভাবে দেবো ? জায়গা কই ? ব্লগের এখানে ওখানে ঘাঁটলুম । ঘাঁটতে গিয়ে নিজের ঘরের একদিকে দেখি লেখা " নতুন ব্লগ লিখুন" । বাহ.... বাঁচলুম ।
এভাবেই মন্তব্যের বদলে আমার প্রথম ব্লগ পোস্টটির জন্ম-
সৈকত চৌধুরীকে যিনি প্রশ্ন তুলেছেন - কোরান কি অলৌকিক গ্রন্থ?

দীর্ঘ সময় ধরে সে লেখাটি কোন রকম মন্তব্য বিহীন অবস্থাতেই পড়ে ছিলো। পড়ে থাকার কারনও বোধগম্য । আমি একদম নতুন এখানে । কেউ নতুনদের লেখা যে পড়েন না, বা পড়লেও মন্তব্য করেন না, সে ধারনা তখন ছিলোনা আমার । তাই মনের কোনে কোথাও হতাশা একটু ছিলোই ! তিন মাস পরে সে হতাশা কেটেছে, নাঈফা চৌধুরী (অনামিকা) নামের এক সহৃদয় ব্লগার প্রথম মন্তব্যটি করে ফেলেছেন বলে । আমার প্রথম পোস্টে তিনিই প্রথম মন্তব্যকারী ।
প্রথম পোস্টটি দেয়ার পরে উড়তে থাকলুম । বাহ..... নিজের কথা কতো সহজেই শত শত পাঠকের কাছে পৌঁছে দেয়া যাচ্ছে দেখে , তা যতোই মন্তব্যবিহীন পড়ে থাকুক না কেন । এ যেন বাচ্চা ছেলের হাতে রংপেন্সিল দেয়ার মতো অবস্থা হয়েছে আমার । রংপেন্সিল হাতে পেলে বাচ্চারা কারো প্রসংশার ধার না ধেরে যেমন ঘরবাড়ীর দেয়াল, মেঝে, দরজা, জানালায় আঁকিবুকি করে আমিও পরবর্তী কয়েকটি মাস ধরে তেমন আঁকাবাঁকা লেখার ঘোরে মত্ত ছিলুম । মাসে ২৪/২৫টি লেখাও পোস্ট করেছি এমনও গেছে ।
তাই আমার মনে হচ্ছে, আমি যেন অনন্তকাল ধরেই আছি এই ব্লগে।

শেষের কথা -
মনে হয়, নিত্য উধাও কালের যাত্রার যাদুতে ব্লগখানা যেন আমাকে জড়িয়ে রেখেছে আষ্টেপৃষ্ঠে । অজস্র লেখার অলিগলি বেয়ে বেয়ে মনে হয়, উঠে যাচ্ছি আমি ভালোলাগার শেখর চূড়ায় । দুর হতে চেয়ে চেয়ে দেখি - এ থেকে ফেরার পথ আর নেই ! অতীতের ধূসর রাত্রির তমশা ছিঁড়ে এ যেন এক নবযাত্রা - অনন্তকালের পথে.................
সর্বশেষ এডিট : ২২ শে ফেব্রুয়ারি, ২০২১ সকাল ১০:২০
৩৯টি মন্তব্য ৩৮টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ধর্মই দেশটারে খাইলো

লিখেছেন রাজীব নুর, ৩১ শে জুলাই, ২০২১ বিকাল ৪:৩৫


ছবিঃ আমার তোলা।

আমি সাধারণ ধর্ম নিয়ে লিখতে চাই না।
ভদ্রভাবে বলতে গেলে সামুতে আমার ধর্ম নিয়ে লেখা নিষেধ। কঠোর ভাবে নিষেধ। সেই নিষেধ আমিও উপেক্ষা... ...বাকিটুকু পড়ুন

হে আল্লাহ তোমার কাছে কল্যান ও নিরাপত্তা চাই

লিখেছেন নূর মোহাম্মদ নূরু, ৩১ শে জুলাই, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:০০


করোনা মহামারী থেকে মুক্তি, কষ্ট থেকে পরিত্রাণ, দুঃখের অবসান এবং যাবতীয় প্রয়োজন পূরণের জন্য আমরা কী করতে পারি, তার চমৎকার সমাধান দিচ্ছে মহাগ্রন্থ আল কোরআন। মহান আল্লাহপাক বলেন,... ...বাকিটুকু পড়ুন

করোনা চলতে থাকলে, কে কে বেঁচে থাকবেন বলা কঠিন!

লিখেছেন চাঁদগাজী, ৩১ শে জুলাই, ২০২১ সন্ধ্যা ৬:২১



করোনায় বাংলাদেশের কিছু খুবই প্রতিষ্ঠিত, পরিচিত, ক্ষমতাশীল মানুষের মৃত্যু হয়েছে; আমার মনে হয়, এঁরা নিজেদের ক্ষমতাকে করোনা থামানোর কাজে ব্যবহার করেননি, করোনার বিপক্ষে সরব হননি, সরকার ও... ...বাকিটুকু পড়ুন

প্রচলিত কিছু বাংলা শব্দের পেছনের গল্প

লিখেছেন দিমিত্রি, ৩১ শে জুলাই, ২০২১ সন্ধ্যা ৭:২০

বাংলা ভাষার বাগধারা, প্রবাদ-প্রবচন এর অনেক শব্দই আমরা সবসময় ব্যবহার করি, কিন্তু সেটার উৎপত্তির ইতিহাস জানি না। আমি এই লেখায় চেষ্টা করেছি এই বাংলা শব্দ, প্রবাদ-প্রবচন ও বাগধারার পেছনের গল্প... ...বাকিটুকু পড়ুন

পিপিলিকার পাঁ ছিড়ে দিলে পিপিলিকা কানে শুনতে পায় না!

লিখেছেন ঋণাত্মক শূণ্য, ০১ লা আগস্ট, ২০২১ রাত ২:২৯

এটা একটা গল্পঃ এক ভদ্রলোকের প্রচুর টাকা। টাকার 'ঠ্যালায়, খুশিতে, ভাল্লাগে' দেখে মানুষ তারে খালি এওয়ার্ড দেয়, পদক দেয় এমনকি কেউ কেউ সম্মানজনক সার্টিফিকেটও দেয়।



এত কিছুর প্রেশার পড়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×