somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

বার্লিন দেয়াল, ইস্ট সাইড গ্যালারি ও ঐক্যের আকাঙ্ক্ষা...

৩০ শে নভেম্বর, ২০০৮ বিকাল ৪:২৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

বার্লিন দেয়াল সমন্ধে মনে হয় আর কিছুই বলার নাই। স্করপিয়নের সেই বিখ্যাত গান ‘উইন্ড অফ চেঞ্জ’ সবারই শোনা আছে, যেটা ১৯৮৯ সালে স্করপিয়নের মস্কো সফরের সময় লেখা, বার্লিন দেয়াল ভাঙার গান হিসাবেই সমাধিক পরিচিত।

২৮ বছর ১ দিন এই দেয়ালটি পূর্ব জার্মানী (ডেমোক্রেটিক জার্মানী, সেভিয়েত প্রভাবিত)আর পশ্চিম জার্মানী (ফেডারেল জার্মানী, মিত্রশক্তি- আমেরিকান-ব্রিটিশ-ফ্রেঞ্চ প্রভাবিত) আলাদা করে রেখেছিলো জনগনের আবেগকে পায়ে দলে। স্নায়ুযুদ্ধের উপজাত এই দেয়াল টিকে ছিলো ১৯৮৯ পর্যন্ত, যা শুধু বার্লিন বা জার্মানী নয় , পুরো ইউরোপকেই পূর্ব আর পশ্চিম – এই ভাগে বিভক্ত করে রেখেছিলো ।


এই দেয়ালের সবচাইতে বিখ্যাত অংশ হচ্ছে ‘ইস্ট সাইড গ্যালারি’, এটা অস্টব্যানহফ সাব এর কাছে। দেড় কিলোমিটার দেয়ালে প্রায় ১০৬ টার মত ছবি/ গ্রাফিতি আছে। ইস্ট সাইড গ্যালারির চিত্রকরদের মাঝে পৃথিবীর অনেক দেশের লোক আছে ; আছে বার্লিনের সাধারণ লোকজন।
এই লেখাটি লেখার সময়ই একটা অফিসিয়াল সাইট পেলাম এই ওপেন গ্যালারিরঃ
http://www.eastsidegallery.com






Dancing To Freedom
No More Wars, No More Walls, A United World.

এই ছবিটাই আমার সবচাইতে প্রিয়। আমার এখনকার প্রোফাইল ছবি ও এটাই।




মুক্তি!




বাঁধ ভাঙার আওয়াজ।




ঐক্য।




গ্রাফিতিটা ভালো করে খেয়াল করেন। দুইজন হাত মেলাতে চায়, হিংস্র বিভাজনকারীরা হায়েনার হাসি দিয়ে চায় আলাদা করতে... সাধারণ মানুষের ঐক্যের আকাঙ্খা এভাবেই শাসক-শোষকদের হায়েনার হাসিতে বিলীন...



সেভ প্যালেস্টাইন, কেউ একজন তার আকুতি লিখে গেছে। কিন্তু কে করবে? কীভাবে?



QUISE QUI !
মানে কি?




বিভাজন। পুরোপরি বুঝা যায় না ছবিটা , কিছুটা ...।






মুক্তির আকাঙ্খা , ছুঁয়েছে শান্তিকে...




বুটের তলায় চাওয়াগুলো...




TEARS…






Save Our Planet.

এই দেয়ালের (শেষ ছবিটার, যেটা চেকপয়েন্ট চার্লির কাছে) পিছনেই ছিলো কুখ্যাত এসএস আর গেস্টাপো হেডকোয়ার্টার, এখন ধধংসস্তুপ। ‘টপোগ্রাফি অভ টেরর নামে’ প্রদর্শনী চলে সেই ধধংসস্তুপের উপর। এর খুব কাছেই হিটলারের বাঙ্কার, যেখানে হিটলার আত্মহত্যা করেন। দেয়ালের এই অংশের দৈর্ঘ্য ২০০ মিটারের কাছাকাছি।

মনে হয় এর পরের মোড়েই (ফ্রেডারিকস্ট্রাসের কাছে) কিছুদিন আগে বিমা ভাইয়ের উদ্যোগে ‘আন্তর্জাতিক বাংলা ব্লগার সম্মেলন’ অনুষ্ঠিত হয়, রাশুদা এবং বিমা ভাইয়ের ‘জোরালো’ উপস্থিতিতে। :) ;)
ঐ মোড়েই আছে ‘চেকপয়েন্ট চার্লি’;


আমরা চার সহকর্মী গিয়েছিলাম সেপ্টেম্বর এর পঁচিশ তারিখ এর দিকে, বোকার মত সন্ধ্যার আগে আগে যাওয়ায় ইস্ট সাইড গ্যালারির পুরো দেয়ালটা দেখা হয়নি, রাতে দেখে মজা নাই। তবে দুদিন পর ফ্রেডারিকস্ট্রাসে আর পোস্টড্যামার প্লাটজ এর মাঝের ছোট অংশটা বেশ সময় নিয়ে দেখেছিলাম।



*সবগুলো ছবির কোয়ালিটি ৮০% কমিয়ে , রিসাইজ করে আপলোড করেছি, যাতে সবার দেখতে সুবিধা হয়।


বাকী অংশ আর দেখা হয়নি । যতটুকু হলো, তাইই শেয়ার করলাম।
আমাদের বিজয়ের মাসে অশউইৎস (নাজী কনসেনস্ট্রেশান চেম্বার, গ্যাস চেম্বার নামে পরিচিত, যেখানে ১৫ লক্ষ মানবসন্তানকে হত্যা করা হয়েছিলো ) ভ্রমণ নিয়ে একটা পোস্ট দেবার জন্য প্রস্তুত করছি।


সর্বশেষ এডিট : ৩০ শে নভেম্বর, ২০০৮ বিকাল ৪:৩৩
৩২টি মন্তব্য ৩১টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

মুসলিম এলাকাগুলোতে ধর্মীয় গুজব কেন বেশী?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ২৮ শে মে, ২০২০ সকাল ১০:৩৯



মুল কারণ, অশিক্ষা ও নীচুমানের শিক্ষা, মিথ্যা বলার প্রবনতা, এনালাইটিক ক্ষমতার অভাব, ধর্মপ্রচারকদের অতি উৎসাহ, লজিক্যাল ভাবনার অভাব। মুসলমানেরা একটা বিষয়ে খুবই দুর্বল, অন্য কোন ধর্মাবলম্বীর ইসলাম গ্রহন... ...বাকিটুকু পড়ুন

হাদিসের অসাধারণ একটি শিক্ষা

লিখেছেন মোহাম্মদ সাজ্জাদ হোসেন, ২৮ শে মে, ২০২০ দুপুর ১২:১৪

এক মহিলা সাহাবি রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লামের নিকট এসে বলল, আমি জিনা (ব্যভিচার) করেছি। জিনার কারণে গর্ভবর্তী হয়েছি।

রাসুল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম তাকে বললেন, তুমি চলে... ...বাকিটুকু পড়ুন

ব্রাত্য রাইসুঃ এই সময়ের সেরা চিন্তাবিদের একজন

লিখেছেন সাহাদাত উদরাজী, ২৮ শে মে, ২০২০ দুপুর ১২:৪১

ব্রাত্য রাইসুকে আমি কখনো সরাসরি দেখি নাই বা কোন মাধ্যমে কথাও হয় নাই কিন্তু দীর্ঘদিন অনলাইনে থাকার কারনে কোন বা কোনভাবে তার লেখা বা চিন্তা গুলো আমার কাছে আসে এবং... ...বাকিটুকু পড়ুন

দেশের সাধারন মানুষ লকডাউন খুলে দেওয়া নিয়ে যা ভাবছেন

লিখেছেন রাজীব নুর, ২৮ শে মে, ২০২০ দুপুর ২:৫৫



১। সবই যখন খুলে দিচ্ছেন তো সীমিত আকারে বেড়ানোর জায়গাগুলোও খুলে দেন। মরতেই যখন হবেই, ঘরে দম আটকে মরি কেন? টাকাপয়সা এখনো যা আছে তা খরচ করেই মরি। কবরে... ...বাকিটুকু পড়ুন

হুমায়ূন ফরীদি স্মরণে জন্মদিনের একদিন আগে !!!!

লিখেছেন সেলিম আনোয়ার, ২৮ শে মে, ২০২০ রাত ১০:০১

ঘটনাটি এমন। প্রয়াত চলচ্চিত্র পরিচালক শহীদুল ইসলাম খোকন বসে আছেন। পাশের চেয়ারটি ফাঁকা। ফাঁকা চেয়ার পেয়ে আমি যখন বসতে গেলাম। পরিচালক খোকন ঘাবড়ে যাওয়া চেহারা নিয়ে বললেন ওটা ফরীদি ভাইয়ের... ...বাকিটুকু পড়ুন

×