somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

আমার পরিচয়

শূন্যতা আর এক শালিকের গল্প!

আমার পরিসংখ্যান

কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি
quote icon
হাজার মেঘলা দিনেও কোনদিন একফোঁটা, এক কণা বৃষ্টি ছোঁয়না যাদের-আমি তাদের দলে

তবুও, কেউ দেয় না মুঠোর ভিতর রোদের রুমাল।
আমার সকল পোস্ট (ক্রমানুসারে)

কোন এক ভোরে তোমাকে চাই...

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ২১ শে মে, ২০১২ রাত ১০:৪৮

আমি জেনে গিয়েছিলাম, তার বুকের জমিনে জোছনার চাদর বিছানো ছিলো আমার পায়ের ছাঁপ পড়বে বলে। অন্দর মহলে শোভা পেতো শত সহস্র সোনালু আলোর জোনাক।

পথবিভ্রম মেঘবতী কন্যা ভুল পথে পা বাড়ায়! বহুকাল সেই চোখের কোটরে একটা শালিকের ছায়া পড়ে। খুব গভীর করে না চাইলে, সে ছায়ার আঁধার টের পাওয়া যায়না।... বাকিটুকু পড়ুন

৮৩ টি মন্তব্য      ১৪১৩ বার পঠিত     ২৭ like!

আমি যদি ডুইবা মরি, কলঙ্ক রবে জলে!

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১০ ই এপ্রিল, ২০১২ সকাল ৮:৩৪

বৃষ্টিবিলাস!!



একদিন বৃষ্টিতে বিকেলে, হঠাৎ করেই আমাকে অবাক করে দিয়ে আমার রাখাল আমার জন্যে মুঠো ভরে বৃষ্টির নির্যাস নিয়ে আসবে। আমি মুগ্ধতা নিয়ে তার চোখের গভীরে চোখ রাখার সাথে সাথেই গভীরে হারিয়ে যাবো। সে আমাকে আমার ধূসর জগৎ থেকে বের করে আনবে। আমি তার হাত ধরে ঘরের বাহিরে আসবো। সে পরম... বাকিটুকু পড়ুন

১১৪ টি মন্তব্য      ১২২৫ বার পঠিত     ৩০ like!

মেঘলা মেয়ের বিষন্ন বিকেল আর চন্দ্রবালকের রূপালী রাত

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ২২ শে আগস্ট, ২০১১ রাত ১২:২৫

চন্দ্রাহত

০.

আমি ভেবেছিলাম তার জন্য আমি মরে যেতে পারবো। খামখেয়ালীভাবে ভাবতে ইচ্ছে করছিলো-তাকে ছাড়া আসলেই বাঁচবো না। অথচ সেই তাকেই আমি প্রতিনিয়ত খুন করছি। তারপর, তবুও, তার কঙ্কালসার দেহ আমাকে আষ্টেপিষ্টে আকঁড়ে ধরে ফেলে।

বাতাস, তোকে বলি, আমারতো তখন দম বন্ধ লাগে না!

বাতাস আমার কানে কানে বললো: তুই যাচ্ছেতাই রকমের... বাকিটুকু পড়ুন

২৯ টি মন্তব্য      ৭৯৫ বার পঠিত     ১১ like!

প্রতিটি মানুষই তার চোখের গভীরে শ্রাবন ধরে রাখে।

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ২৮ শে সেপ্টেম্বর, ২০১০ রাত ১২:৪২

**

আমি এই রাস্তা দিয়ে সর্বমোট পায়চারী দিয়েছি চৌত্রিশ বার। এখান থেকে বের হওয়ার পথ আমি চৌত্রিশ বার হাঁটার পরও পাইনি। আমার পথবিভ্রম হলো কিংবা গোলকধাঁধাঁ আমাকে আটকে ফেললো। আমি মুক্ত ছিলাম অথচ ছিলাম বন্দী। সর্বশেষে আমি ক্লান্ত হলাম এবং পথ চলার সেখানেই ইতি টেনে বসে পড়লাম। তখন আমি বন্দী ছিলাম... বাকিটুকু পড়ুন

১৪২ টি মন্তব্য      ১৬১৯ বার পঠিত     ৪৪ like!

ক্ষয়ে যাওয়া আকাশের ক্রন্দন

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ০৪ ঠা জুলাই, ২০১০ রাত ১০:২৭

বিষাদ কিংবা মেঘমালা

১.

আমাকে এক হাজার একদিন ঘরে বন্দী করে রাখা হয়েছিল। এক

মাঘী-পূর্নিমার রাতে আমি ঘরছাড়া হলাম। আমার সারা অঙ্গে তখন অস্থিরতা। ঘর ছেড়ে বেরিয়ে আমি ছুটতে লাগলাম। ছুটতে ছুটতে আমার পায়ের আঙ্গুল ঘষে পড়ল তবুও আমার পথ চলা থামে না। ছুটতে ছুটতে সকাল হল.....এক সময় মায়া দীঘির পাড়ে এসে... বাকিটুকু পড়ুন

৮১ টি মন্তব্য      ৭০৬ বার পঠিত     ২৮ like!

শূন্য (এলোমেলো মেঘমালা)

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ২১ শে জুন, ২০১০ রাত ১১:৪৯







*

দিনটা শেষ হয়ে গেলো আসলে!

দিনগুলো এইভাবেই শেষ হয়ে যায় আসলে।

আমি বসে থাকি কিছু মুহুর্তকে শাড়ির আঁচলে বেঁধে রাখার জন্য। নাহ! সম্ভব হয়না। ঠিক ঠিক রাত গড়ায়। আমি যতই চাই রাতের আলোময় জোনাকীগুলোকে একটা কাচের বয়ামে ভরে রাখবো তারা ততই মুখ ফিরিয়ে তারাদের দেশে চলে যায়। ... বাকিটুকু পড়ুন

৪৫ টি মন্তব্য      ৪৫৭ বার পঠিত     ১৪ like!

আমি নেই আর আছি'র মাঝে মহাকাল ধরে দাঁড়িয়ে থাকা এক অশ্বথ বৃক্ষ!

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১১ ই জুন, ২০১০ রাত ২:০৫

আমার মুঠো ভর্তি ছিলো শুভ্র বকুল ফুল। আর আমার ছায়া মুঠোয় ভরে আগলে রাখলো সাগর পাড়ের বালি। আমি তাকে কথা দিয়েছিলাম বকুল ফুল যেদিন ঝরে মাটিতে লুটাবে আমি সেদিন তাকে একটা নিঝুম সাগর উপহার দিবো।

স্নিগ্ধ সকাল ফুরালো...

খাঁখাঁ দুপুর গড়ালো...

বিকেল গোধুলি ছুঁই ছুঁই করলো...

আর আমি বহুদিন ধরে খুঁজে পাওয়া সম্পদের... বাকিটুকু পড়ুন

৪৮ টি মন্তব্য      ১৩১৯ বার পঠিত     ১৬ like!

শূন্যতা আর এক শালিকের গল্প

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ২৭ শে মে, ২০১০ রাত ১০:২৭





১.

নীলবাবু ছিলেন আমাদের ইসকুলের বাংলা টিচার। ক্লাসের বাইরের সময়ও উনার বুক পকেটে একটা ফাউন্টেন কলম থাকত।

স্যার বলতেন: "গঠন-গাঠনে আর লম্বায় সব মানুষই বড় হয়। শুধু মাত্র মনুষত্যে সবাই বড় হয় না।"

বুক পকেটে একটা ফাউন্টেন পেন নিয়ে আমি স্যারের মত হতে চাইতাম। আমি আকাশ ছোঁয়ার মত বড় হয়েছিলাম। শুধু আমার... বাকিটুকু পড়ুন

১১২ টি মন্তব্য      ১৩৯০ বার পঠিত     ৩৫ like!

আমি আর বৃষ্টির প্রতীক্ষা করি না!

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১৫ ই মে, ২০১০ রাত ১১:৩৬

১.

হ্যাঁ ঠিক এই জায়গাটাতেই নদীটা ছিলো। অনেক অনেক বছর আগের কথা। টলমল ঝলমল পানিতে বৃষ্টির ফোঁটা নৃত্য করতো। আজ নদী নেই, শুধু আকাশের ছায়া ওখানে আজো পরে।

আমি আকাশ ছুঁয়ে দিতে পারি আমার ইচ্ছেমতন। কে বলে ইচ্ছেগুলো ধরা ছুঁয়ার বাইরে থাকে!! আমি ঠিক ঠিক আকাশটার নিচে গাঢ় সবুজ এক মুঠো... বাকিটুকু পড়ুন

৭১ টি মন্তব্য      ৮৯২ বার পঠিত     ২৮ like!

চন্দ্রনাথ আমার বন্ধু ছিলো

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১৩ ই মে, ২০১০ রাত ১:০৪

১.

চন্দ্রনাথ ছিলো আমার খুব কাছের বন্ধু। ছোটবেলায় আমাদের সারাটা দুপুর প্রজাপতির পিছু ছুটে কাটত। চন্দ্রনাথের ঝাকড়া চুল বেয়ে গোধুলী নামত। রাতের বেলায় দূরে কোথাও শিয়াল ডাকলে ভয়ে কুকড়ে যেত সে। চন্দ্রনাথ ছিল আমার বন্ধু; যে কিনা বৃষ্টি শেষে হেসে উঠা রংধনু দেখতে চেয়েছিল। মেঘে মেঘে যে কত বেলা গড়াল! শুধু... বাকিটুকু পড়ুন

৬০ টি মন্তব্য      ৪৭১ বার পঠিত     ২৪ like!

ছাইরা দে মা, কাইন্দা বাঁচি (একটা ফান/সিরিয়াস টাইপ পোষ্ট)

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ০৬ ই মে, ২০১০ রাত ৯:১৬



সব মানুষের জীবনেই এমন কিছু ঘটনা ঘটে কিংবা মানুষ ছোট খাটো এমন কিছু করে থাকে যেটা পরবর্তী সময়ে সেটা মনে পড়লে মানুষ লজ্জা পায়, আর সেটা নিয়ে অনেক অনেক দিন পরও হাসাহাসি চলতে থাকে।

আজ তাহলে এই রকম পুরনো কিছু গল্পই না হয় বলি।

১.

সবেমাত্র টুয়েলভ গ্রেডে উঠেছি তখন। ক্লাসের... বাকিটুকু পড়ুন

৬৩ টি মন্তব্য      ৮৫৪ বার পঠিত     ২৮ like!

আজ এই আকাশ (গান)

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ০৫ ই মে, ২০১০ রাত ৯:২৫

আজ এই আকাশ

কালো হয়ে

বৃষ্টি ঝরে

তোকেই ধরে

ছন্দছাড়া হয়ে আমি

খুঁজি তোরে আপনমনে। ... বাকিটুকু পড়ুন

১৮ টি মন্তব্য      ৭৮৭ বার পঠিত     like!

মেঘে ঢাকা তারা (আমার মা)

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ০৩ রা মে, ২০১০ রাত ১১:২০

"I always needed time on my own

I never thought I'd need you there when I cried

and the days feel like years when I'm alone
"

Vicky: Hey girl! Tomorrow is Saturday; hang out with me. Your mom is not here, so let’s have a party, let’s get drunk. ... বাকিটুকু পড়ুন

১৬ টি মন্তব্য      ৩০৩ বার পঠিত     like!

হিমুর বুক পকেটে এক অন্ধ শাদা বক

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১১ ই মার্চ, ২০১০ রাত ১২:২৬

১.

হিমু আর কাকের মধ্যে অদ্ভুত একটা মিল আছে, ওরা দুজনই ভীষন একা। আর নীল জোছনায় ওদের দুজনের মধ্যেই অদ্ভুত একটা অস্থিরতা কাজ করে।

হিমুর হলুদ পান্জাবীতে একটা পকেট থাকলে আমি হিমুকে বলতাম আমার জন্য পকেট ভর্তি নীল জোছনা নিয়ে আসতে।

আমি জোছনার আলোবিহীন এক অন্ধ দাঁড়কাক যার দুচোখে বাস করে... বাকিটুকু পড়ুন

৮৮ টি মন্তব্য      ৭৫২ বার পঠিত     ২৯ like!

তুলো তুলো মেঘের আকাশ খাবো(এলেবেলে)

লিখেছেন কখনো মেঘ, কখনো বৃষ্টি, ১৬ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১০ রাত ৩:০৫

কার ছবি নেই, কেউ কি ছিলো!

বেলা গড়ালে মাথার উপর যখন সূর্যটা চলে আসতো, আমাদের বাড়ির উঠোন জুড়ে এক কৃষ্ণচূড়া গাছ তার মায়া মায়া ছায়া ছড়িয়ে রাখতো। লোকে বলে, কৃষ্ণচূড়া গাছ বাড়ির উঠোনে লাগাতে নেই। আর আমি ছিলাম প্রচন্ড জেদী আর আদুরে তাই কৃষ্ণচূড়া গাছ আমার ঘরের জানালা বেয়ে বেয়ে রক্তরাঙা... বাকিটুকু পড়ুন

৪৫ টি মন্তব্য      ৫৭০ বার পঠিত     ১৭ like!
আরো পোস্ট লোড করুন
ব্লগটি ৭১১৪০ বার দেখা হয়েছে

আমার পোস্টে সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার করা সাম্প্রতিক মন্তব্য

আমার প্রিয় পোস্ট

আমার পোস্ট আর্কাইভ