somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

২য় বিশ্বযুদ্ধে ট্যাংক

১৪ ই ফেব্রুয়ারি, ২০১১ রাত ১১:৪৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

২য় বিশ্বযুদ্ধে ট্যাংক অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। এ সময় ট্যাংকের প্রভূত উন্নতি সাধিত হয়। যুদ্ধে অংশগ্রহনকারী দেশগুলো এ সময় তাদের ট্যাংকের উন্নতিতে অখন্ড মনোযোগ দেয়।
পর্যায়ক্রমে ২য় বিশ্বযুদ্ধে অংশগ্রহনকারী দেশগুলো ও তাদের ট্যাংকঃ
পোল্যান্ডঃ
জার্মান বাহিনীর Blitzkrieg (lightning warfare) অর্থাৎ বজ্র যুদ্ধের প্রথম শিকার ছিলো পোল্যান্ড। তাদের সেনাবাহিনীতে বেশ কিছু ভালো মানের ট্যাংক ছিলো। যেমন-7TP (Siedmiotonowy Polski - 7-Ton Polish)। এটি একটি হাল্কা ট্যাংক এবং এর অন্যতম প্রতিদ্বন্দী জার্মান Panzer I এবং Panzer II ট্যাংকের প্রায় সমকক্ষ ছিলো। পোলিশরা ব্রিটেন এর কাছ থেকে ৫০ ইউনিট Vickers 6-ton (Mk.E) ট্যাংক ক্রয় করে এবং নিজেদের দেশে এর উৎপাদনের লাইসেন্স নেয়। দেশে উৎপাদিত নতুন ট্যাংকের নাম দেয় 7TP যার মানে হলো 7-Ton, Polish যদিও এর প্রকৃ্ত অজন ছিলো 9 ton।
পোল্যান্ড উৎপাদিত 7TP ট্যাংকের ইন্জিন ছিলো ডিজেল চালিত। যা 7TP ট্যাংককে বিশ্বের প্রথম ডিজেল চালিত ট্যাংকের খেতাব এনে দেয়। এতে ছিলো 37 mm Anti-Tank Gun এবং আরও পুরু আর্মার (সামনে 17 mm যেখানে আগে ছিলো 13 mm)। এছাড়া এতে ছিলো Gundlach Tank Periscope, উন্নত Air Conditioning System এবং একটি রেডিও। ১৯৩৫ থেকে যুদ্ধ শুরু হওয়ার আগ পর্যন্ত মাত্র ১৩২ ইউনিট এই ট্যাংক উৎপাদন করা হয়। প্রাথমিকভাবে এর ২টি Variant ছিলো-Twin Turret Version সাথে ছিলো ২টি Ckm Wz.30 Machine Guns এবং single turret version এতে ছিলো 37 mm Bofors Wz. 37 Gun। টেস্টিং এর পরে কম Firepower এর কারনে Twin Turret Version সার্ভিসে আর আনা হয়নি।
এছাড়া পোল্যান্ড সেনাবাহিনীতে আরও ছিলো TK (also known as the TK-3) Tankette যা যুদ্ধে তেমন Highlight হয়নি।

7TP-Single Turret Version

7TP-Twin Turret Version

Gundlach Tank Periscope

ফ্রান্সঃ
ফ্রান্সের ট্যাংক বহর ছিলো সেই আমলের সবচেয়ে বড় ট্যাংক বহর। তাদের বহরে ছিলো Char-B1 Heavy Tank. এর Main Armament ছিলো 75mm Gun. পরে একটি 47mm Gun এর Turret-এ যোগ করা হয়। সবচেয়ে বড় ট্যাংক বহর থাকা সত্ত্বেও তারা জার্মানীর কাছে মার খেয়ে যায়। কারন জার্মানীর প্রতিটি ট্যাংকে রেডিও যোগাযোগ সিস্টেম ছিল যার মাধ্যমে তারা সব ট্যাংকের মধ্যে সমন্বয় সাধন করে ভয়াবহ আগ্রাসী আক্রমন চালায়। যদিও Char-B1 ট্যাংক জার্মান Panzer III এবং Panzer IV ট্যাংকের প্রায় সমকক্ষ ছিল। একবার একটি Char-B1 ট্যাংক একাই ১৩টি জার্মান ট্যাংক ধ্বংস করে। জার্মান ট্যাংকের গোলা ১৪০বার একে আঘাত করা সত্ত্বেও এর কোন ক্ষতি করতে পারেনি। গোলাগুলি এর বর্মে আঘাত করে বাউন্স করে সরে যায়।


Char-B1 Heavy Tank

জার্মানিঃ
২য় বিশ্বযুদ্ধ আরম্ভ হয় জার্মানীর পোল্যান্ড আক্রমনের মধ্য দিয়ে। এরপর তারা ফ্রান্সের দিকে হাত বাড়ায়। পোল্যান্ড এবং ফ্রান্সের আক্রমনে প্রধানত Panzer I এবং Panzer II Light Tanks ব্যবহার হয়। যুদ্ধ দীর্ঘায়িত হওয়ার সাথে সাথে জার্মান সেনাবাহিনী Heavy Tank তৈরীতে মনোযোগ দেয়। এভাবে জার্মান সার্ভিসে আসে Panzer III ট্যাংক। প্রাথমিক ডিজাইন স্টেজে এতে 50 mm (2 Inch) Cannon থাকার কথা থাকলেও জার্মান ইনফেন্ট্রিতে 37 mm (1.46 Inch) Pak 36 থাকায় তারা এই ট্যাংকেও একই আর্মামেন্ট ব্যবহার করে। যদিও Turret Ring আকারে বড় রাখা হয় যাতে ভবিষ্যতে 50 mm (2 Inch) Cannon লাগানো যায়। এইভাবে জার্মান আর্মিতে Panzer III তার আসন পাকাপোক্ত করে। এরপর সার্ভিসে আসে Panzer IV. গড়ে প্রতি মাসে ১৯৪১ সালে ৩৯ ইউনিট, ১৯৪২ সালে ৮৩ ইউনিট, ১৯৪৩ সালে ২৫২ ইউনিট এবং ১৯৪৪ সালে ৩০০ ইউনিট প্রস্তুত করা হয়।
সোভিয়েত ইউনিয়নে Operation Barbarossa এর সময় আবিস্কার হয় যে, সোভিয়েত T-34 ট্যাংক নাজিদের Panzer III এবং IV এর তুলনায় অধিক কার্যকরী। এর sloped armour এবং 76.2 mm gun একে অপ্রতিরোধ্য করে তোলে। এমতাবস্থায় Panzer III-এ high-velocity 50 mm gun এবং Panzer IV-এ high velocity 75 mm gun যোগ করা হয়। একই সাথে জার্মানরা আরও ভারী ট্যাংক তৈরীতে মনোযোগ দেয় এবং সার্ভিসে আনে Panzer V Panther যা জার্মানীর নতুন MBT (Main Battle Tank) হিসাবে পরিচিতি পায়। এতে ছিলো Better Frontal Armor, Better Gun Penetration এবং এই ট্যাংক আগের ট্যাংকগুলোর তুলনায় আরও দ্রুতগতির ছিল। অচিরেই Panther এক ভয়ংকর মারনাস্ত্র হিসাবে নিজেকে প্রমান করে।
কিন্তু এরপরে জার্মানরা আরও ভারী ট্যাংক তৈরী করে। এর প্রথমটি ছিল Tiger I । যা সার্ভিসে আসার সাথে সাথে Firepower And Armor এর দিক থেকে অন্য সব ট্যাংককে ছাড়িয়ে যায়। হিটলারের নির্দেশে আরও ভারী ট্যাংক Tiger II তৈরী করা হয় যা Tiger I-কে যুদ্ধের শেষ দিকে Replace করে। এর Powerful Gun এবংখুব ভারী Armor একে অচিরেই যুদ্ধক্ষেত্রে Supirior করে তোলে। কিন্তু Underpowered Engine এবং Enormous Fuel Consumption গতিশীল যুদ্ধে এর ব্যবহার সীমিত করে তুলে।
যুদ্ধ শেষ হওয়ার কিছু আগে জার্মানরা আরও বেশী ভারী ট্যাংক তৈরী করতে চেয়েছিলো। এর ধারাবাহিকতায় তারা Panzer VIII Maus তৈরী করে। যদিও মাত্র ২ ইউনিট প্রোটোটাইপ তৈরী করার পর তা ক্ষান্ত হয়।


Panzer I Light Tank

Panzer II Light Tank

Panzer III

Panzer IV

Panzer V Panther

Tiger I

Tiger II

Panzer VIII Maus

সোভিয়েত T-34

ট্যাংক সম্পর্কিত পূর্বের পোস্ট:
১. ট্যাংকের জন্মকথা
২. পৃথিবীর সবচেয়ে শক্তিশালী তিনটি দেশের সবচেয়ে শক্তিশালী তিনটি মেইন ব্যাটল ট্যাংক






সর্বশেষ এডিট : ০৪ ঠা মার্চ, ২০১১ দুপুর ২:৪৫
৪টি মন্তব্য ৩টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

কক্সবাজার ভ্রমণ ২০২০ : যাত্রা শুরু

লিখেছেন পগলা জগাই, ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১২:৫১




দীর্ঘ্য ৬ বছর পরে পরিবার নিয়ে বেরাতে যাওয়ার সুযোগ হলো আবার। এর মধ্যে ওদের নিয়ে বেরাতে গেলেও তা ছিলো ডে ট্রিপ, যেখানেই গেছি রাতের মধ্যে বাড়িতে ফিরতেই হয়েছে। স্ত্রী-কন্যকে নিয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

নারী পাচার

লিখেছেন রাজীব নুর, ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ দুপুর ১:৫৯



এশিয়ার এক নম্বর নারী ও শিশু পাচার রুট বাংলাদেশ।
প্রতিদিন দেশ থেকে প্রচুর নারী ও শিশু বাংলাদেশ-ভারত সীমান্ত দিয়ে অথবা বিমান যোগে পাচার হয়ে যাচ্ছে। পাচারকৃত নারী ও... ...বাকিটুকু পড়ুন

চিলেকোঠার প্রেম- ১২

লিখেছেন কবিতা পড়ার প্রহর, ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ বিকাল ৪:২৩

প্রায় দেড় বছর! না না এক ফাল্গুন থেকে আরেক ফাল্গুন পেরিয়ে চৈত্রের শেষ। নাহ ঠিক দেড় বছর না, এক বছরের একটু বেশি সময় পর পা দিলাম আমার চিরচেনা... ...বাকিটুকু পড়ুন

মানুষের প্রতি দয়ামায়া না থাকলে দেশে কি কি ঘটতে পারে?

লিখেছেন চাঁদগাজী, ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:১০



ভারত খাদ্য রপ্তানী করে, বাংলাদেশের মতো ভারতে সকাল-বিকেল খাদ্যদ্রব্যের দাম বাড়ে না, আয়ের তুলনায় খাবারের দাম কম; খাবারে কেমিক্যাল, ফরমালিন মিশায় না; অনেক বছর এত বেশী খাদ্য উৎপাদন... ...বাকিটুকু পড়ুন

হিরু আলুমের সিনেমা বাহিরে চলিচ্ছে , ভিতরে খালি ক্যারে

লিখেছেন শাহ আজিজ, ১৯ শে অক্টোবর, ২০২০ সন্ধ্যা ৭:৩৮


প্রাডো গাড়ি নিয়ে ঘুরছেন হিরো আলম। ছুটছেন এক প্রেক্ষাগৃহ থেকে আরেক প্রেক্ষাগৃহে। তাঁকে ঘিরে প্রেক্ষাগৃহের বাইরে আবার উৎসুক জনতার ভিড় লক্ষ করা গেলেও প্রেক্ষাগৃহের ভেতরে আসন ফাঁকা। নেই... ...বাকিটুকু পড়ুন

×