somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

নর্থসাউথে রেডিসনের Recyclable বিরিয়াণী এবং পরথম আলুর আধুনিক বাংলাকরণ /:)

০৩ রা নভেম্বর, ২০০৯ বিকাল ৪:২৫
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

শিরোনাম: হয়ে গেল আইসিপিসির ঢাকা পর্ব

বাংলাদেশের সাংবাদিকদের টেকী বিষয়ক রিপোর্টগুলো খুব আগ্রহ নিয়া পড়ি। যেমন, বিশ্বের সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিক পরথম আলুর শুক্কুরবারের টেক ফিচারপাতা ভুলজন্ম ডট কম। সেখানে একদিন দেখি ফেচবুক নিয়া বিশাল প্রতিবেদন। ফেচবুক দিয়া কি কি করা যায়, কিভাবে একাউন্ট খুলতে হয়, কিভাবে ফটুক আপলোডাইতে হয় তা নিয়া পুরা পাতা জুইড়া ফিচার। এটা হল আমাগো সর্বাধিক প্রচারিত দৈনিকের টেক ফিচারপাতা! বেশ কয়েকদিন ধরে তারা আবার নয়া সিস্টেম চালু করছে, লোকজন সমস্যা নিয়া লেখলে সেটার 'সমাধান' দেওয়া। সব সমস্যার সমাধানই অবশ্য তাহাদের কাছে আছে, সমাধানের শেষে: 'ভালো কোন বিশেষজ্ঞ বা সার্ভিস সেন্টারের সাথে যোগাযোগ করুন'

শুধু তাই না, আমাদের টেকি সাংবাদিকদের বিরল আবিষ্কারগুলার দিকে একটু চোখ বুলায়ে গেলে আরো অনেক যুগান্তরকারী আবিষ্কারের দেখা পেয়ে যাবেন, যেমন কিলোবাইট আর কিলোবিট নামক বস্তুদুইটার পারস্পরিক সুষম উপস্থাপন। এরপর মেটা সার্চইঞ্ঝিনের কাছে গুগলের অসহায় আত্বসমর্পন - এইরকম আরো অনেক খবর দেখেই আপনি হয়তো ভাবতে পারেন টেখনোলঝির জোয়াড়ে দেশ ভাইসা গিয়া আতলান্তিকে পড়লো বইলা। :| সবশেষে তথ্যপ্রযুক্তিতে তাহাদের যে নতুন প্রতিভার সন্ধান পাইলাম, তার কাছে সবই ফেইল। দিনবদলের জোয়ারে ভাসিয়া হিতাহিত জ্ঞানশূন্য হইয়া উহারা এখন নামবদলের দায়িত্ব নিয়াছেন।

কম্পিউটার প্রোগ্রামারদের জন্য পৃথিবীর সবচেয়ে বড় ও মর্যাদাপূর্ণ প্রতিযোগিতা এসিএম আন্তর্জাতিক কলেজিয়েট প্রোগ্রামিং প্রোতিযোগিতার (আইসিপিসি) ৩৪তম আসর বসবে আগামী বছরের ১ থেকে ৬ ফেব্রুয়ারি চীনের হারবিন প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ে। এই চূড়ান্ত আসরে অংশগ্রহণের জন্য নানা দেশে আঞ্চলিক প্রতিযোগিতাগুলো হচ্ছে এখন। ২৪ অক্টোবর হয়ে গেল এসিএম আইসিপিসির ঢাকা পর্বের প্রতিযোগিতা।নর্থসাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এই বাছাইপর্বে প্রতিবারের মতো...

সৌজন্যে: প্রথম আলো ;)

যাহা বলিতেছিলাম, বুয়েঠ থেকে প্রতিবারই বিভিন্ন টিম এই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে। এইবারও করছিল। টিমে আমার দোস্তরাও ছিল, উহাদের কাছ থেকে শোনা (এবং পরবর্তীতে ব্লগে প্রকাশের জোড়াজোড়ির পরিপ্রেক্ষিতে ;)) কাহিনীটা এরকম: দুপূরে তাদের 'এইটুকু' একটা বার্গার আর ফ্রুটো দেওয়া হয় লাঞ্চ হিসেবে। নর্থসাউথের বন্ধুদের মারফত 'রাতে রেডিসন থেকে বিরিয়াণি আসিতেছে' প্রতিশ্রুতি প্রাপ্ত হয়ে আশায় শুধু বুক না, বুক পিঠ সবই বেধে ঐটুকু বার্গারই তারা গলাধ:করণ করে। রাতে অবশ্য বিরিয়ানী ই হয়েছে। বুফে স্টাইলে (রোস্ট নাকি একটাই ছিল) যাইহোক খানাপিনার কথাবার্তা বাদ, ইন্টারেস্টিং ছবিটা নিচেই দেখেন।



মানে, রিসাইক্লেবল বুফে সার্ভিস ;) বুফে সার্ভিস না বলে ঝুটা সার্ভিসও বললেও মনে হয় কেউ মাইন্ড করবে না ;) Click This Link

আইচ্ছা, এবার আমরা আবার ফিরে যাই মূল বক্তব্যে। যা বলছিলাম, দিনবলদের হুজুগ নিয়ে আর কয়দিন ফোকাসে থাকা যায়, তাই পর্থম আলুর নতুন চমক হচ্ছে 'নামবদল' । আমাদের কনটেস্ট টিমের আংরেজি নামগুলো রিপোর্টারের পছন্দ হয়নি, ফলাফলস্বরূপ তাহাদের প্রতিবেদনে টিমের অনেক সাধের আংরেজি নামগুলো যেরকম আকার ধারণ করলো -

Rand Ecliptic হয়ে গেল রেন্ড এক্লিপস

Integrity 'র নয়া নাম ইটিগ্রিটি

Avengers দাড়ালো এভনজারস... আর

Anonymous বদলে গিয়ে এনোনমাস

যাইহোক, ঐ টেক রিপোর্টারের মস্তিষ্কে ইংলিশ-ঠু-ভাংলা কনভার্সন তরিকা আমার দোস্তের (এবং ভুক্তভোগী ;)) মাথার উপরে দিয়া গেছে। সাধের টিমের নামের এই নতুন রূপ দেখে বেচারা নিজেই সবগুলো টিমের বাংলা নাম করলো, যা দেখে আমার আক্কেল গুডুম হয়নি। নতুন নামগুলো হয়েছে এরকম:

১. বুয়েট দৈবভাবে গ্রহনময়..........--BUET Rand Ecliptic

২. বুয়েট সাধুতা......................--BUET Integrity

৩. বুয়েট আনাড়ি....................--BUET Amateurs

৪. বুয়েট প্রতিহংসক.................--BUET Avengers

৫. বুয়েট নাম নাই.....................--BUET Anonymous


তবে, প্রতিযোগিতার বিচারকগণ এবং চ্যাম্পিয়ন ফুদান বিশ্ববিদ্যালয়ের নামগুলো ঠিকমতই এসেছে। judge রা সাংবাদিকদের কত টাকা ঘুষ দিয়েছেন সেই দিকে না গিয়ে আমরা বরং আমাদের গবেষণা এইখানেই ক্ষান্ত দিই।



গবেষণা করেছেন: দীপে রাঙা দিপল

(যার লেখার কিছুই ছিলনা, কিন্তু পরথম আলুর নামবদলের হুজুগে আজ সেও হাতে মলম থুক্কু কলম তুলে নিয়েছে। সেজন্য আলুরে একটা শুকনা ধইন্যাপাতা দেয়াই যায়)





সর্বশেষ এডিট : ০৩ রা নভেম্বর, ২০০৯ বিকাল ৪:৪২
২২টি মন্তব্য ২২টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

ফ্রিদা কাহলো এক ব্যতিক্রমী মানুষ

লিখেছেন রোকসানা লেইস, ০৭ ই জুলাই, ২০২০ রাত ১:১৪



নীল বাড়ির দূরন্ত মেয়েটি
"লা কাসা আসুল" যার অর্থ নীল ঘর। ১৯০৭ সালের ছয় জুলাই জার্মান বাবা আর স্প্যানিস মায়ের রক্তের সমন্বয়ে একটি মেয়ের জন্ম হয় ম্যাক্সিকো সিটির শহরতলীর একটি... ...বাকিটুকু পড়ুন

রেবতি

লিখেছেন রাজীব নুর, ০৭ ই জুলাই, ২০২০ রাত ২:৫৪



আগে আমার অবস্থানটা বর্ণনা করে নিই।
সকাল সাড়ে এগারোটা। ঝকঝকে সুন্দর পরিচ্ছন্ন একটি দিন। আমি দাঁড়িয়ে আছি- বসুন্ধরা মার্কেটের সামনে। আমার ডান হাতের একটা আঙ্গুল শক্ত করে ধরে আছে... ...বাকিটুকু পড়ুন

সমকামিতার স্বরূপ অন্বেষনঃ সমকামি এজেন্ডার গোপন ব্লু-প্রিন্ট - আলফ্রেড চার্লস কিনসে [পর্ব দুই]

লিখেছেন নীল আকাশ, ০৭ ই জুলাই, ২০২০ সকাল ১১:৪৮

অনেকদিন পরে আবার এই সিরিজ লিখতে বসলাম। লেখার এই পর্ব সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ। কারণ এখানে থেকে এর ব্যাপক বিস্তার ঘটানো হয়েছে খুব সুপরিকল্পিতভাবে। সারা বিশ্বের মতো আমাদের দেশেও এই জঘন্য আচরণের... ...বাকিটুকু পড়ুন

কমলাকান্তের কৃষ্ণ কন্যা (শব্দের ব্যবহার ও বাক্য গঠন চর্চার উপর পোস্ট)

লিখেছেন সাড়ে চুয়াত্তর, ০৭ ই জুলাই, ২০২০ বিকাল ৪:৫৯


শুধুমাত্র নির্দিষ্ট কোনও অক্ষর দিয়ে শুরু শব্দাবলি ব্যবহার করেও ছোট কাহিনী তৈরি করা যায় তার একটা উদাহরণ নীচে দেয়া হোল। এটা একই সাথে শিক্ষণীয় এবং আনন্দদায়ক।

কাঠুরিয়া... ...বাকিটুকু পড়ুন

আমার এই পোস্ট পড়ে কি মনে হয় আমি ইসলাম বিদ্বেষী?

লিখেছেন জাদিদ, ০৭ ই জুলাই, ২০২০ সন্ধ্যা ৬:৩০

আমি গতকাল ফেসবুকে একটি পোস্ট দেই। সেখানে আমাদের কতিপয় হুজুরদের বেহুদা জোসের বিরুদ্ধে আমি লিখেছিলাম। আমার পোস্টটি এখানে হুবহু তুলে দিলাম -

পৃথিবীতে ইসলাম রক্ষার দায়ভার একমাত্র বাংলাদেশী মুসলমানদের... ...বাকিটুকু পড়ুন

×