somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

পোস্টটি যিনি লিখেছেন

মাঈনউদ্দিন মইনুল
© মাঈনউদ্দিন মইনুল। কিছু তিক্ত অভিজ্ঞতার প্রেক্ষিতে বলছি, অনুমতি ছাড়া কেউ এব্লগ থেকে লেখা বা লেখার অংশ এখানে বা অন্য কোথাও প্রকাশ করবেন না।

লস্ট এন্ড ফাউন্ড ক্ষুদ্রঋণ প্রবক্তা

২৭ শে মার্চ, ২০১৩ রাত ৯:১৯
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :

তিনি এপ্রজন্মের আইকন, তার প্রমাণ পাওয়া গেলো যখন তারই গড়া প্রতিষ্ঠান থেকে অনেকটা আনসেরেমনিয়াসলি তাকে বের করে দেওয়া হলো। নিরপেক্ষ এবং নিঃশর্ত প্রতিবাদে তখন ফেটে পড়েছিলো দেশের তরুণ প্রজন্ম, যাদের লেজুড়বৃত্তি করার কোন প্রয়োজনই নেই। বর্তমান রাজনৈতিক অস্থিরতায় দেশের বিশিষ্ট এ নাগরিকের নীরবতা সেই তরুণদেরকেই আঘাত করেছে। নীরবতা যে কত নিষ্ঠুর হতে পারে, এখন বুঝিয়ে বলা সহজ হলো!

আজ যোদ্ধাপরাধের বিচার ও জামাতের অপরাজনীতির প্রতিরোধে যখন দেশের তরুণ সম্প্রদায় একটি নজিরবিহীন জনসমর্থনের সৃষ্টি করেছে; দেশের মানুষের একাত্মতাকে যখন মুক্তিযুদ্ধের সাথে তুলনার প্রয়াস পেয়েছে; যখন দেশের আবালবৃদ্ধবনিতা আবারও ‘জয় বাংলা’ স্লোগানে জাতীয় অস্তিত্বের সন্ধান পেয়েছে এবং যখন দেশের সকলেই আন্দোলিত হচ্ছে এদিক ওদিক – তখন একজন ব্যক্তিকে কোনদিকেই না পেয়ে সকলেই বিস্মিত। গত দু’মাসের উত্তাল গণজাগরণের দিনগুলোতে প্রায় সকল শ্রেণীর সকল পেশার মানুষকে উপস্থিত হয়ে একাত্মতা জানাতে দেখা গেছে। কেউ কেউ রাজনৈতিক কারণে বিরোধীতা করলেও প্রজন্ম চত্বরের আন্দোলনকে উপেক্ষা করতে পারে নি এর প্রধান প্রতিপক্ষও। হয় পক্ষে না হয় সুস্পষ্ট বিপক্ষে।

কিন্তু ক্ষুদ্রঋণে বৃহৎ খ্যাতি-পাওয়া জাতির কৃতী সন্তান আজ পর্যন্ত একটি শব্দও ব্যয় করেন নি। তাতে দেশের তরুণ সম্প্রদায় বিস্মিত ও আহত হয়েছে। এমন নয় যে, তিনি কথা কম বলেন বা রাজনৈতিক বক্তব্য এড়িয়ে চলেন। ২০০৭ সালের তৎকালীন রাষ্ট্রপতি যখন অযাচিতভাবে দেশের তত্ত্বাবধায়ক সরকারের ক্ষমতা গ্রহণ করেন, তখন তিনি তাৎক্ষণিক সমর্থন প্রকাশ করতে কুণ্ঠা করেন নি।


মহামান্য রাষ্ট্রপতির মৃত্যুতে সকল শ্রেণীর মানুষের শোক আমাদেরকে জাতি হিসেবে একত্রিত হবার সুযোগ করে দিলো। সরকার ও বিরোধী দলের নেতৃবৃন্দকে কিছু সময়ের জন্য হলেও একত্রিত হতে দেখা গেলো সেদিন। অল্পতেই খুশি দেশের হতভাগা জনগণ তবু স্বস্তিতে দীর্ঘশ্বাস ফেলেছে। সকল স্বস্তিকে ছাড়িয়ে গেছে আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন ও বিশ্বমানের সনদপ্রাপ্ত একজন ব্যক্তির আবির্ভাবে। শোকবার্তায় তার নামটি দেখে অনেকেই বিষ্মিত হয়েছেন।

ইন্টারনেটে প্রাপ্ত বিভিন্ন সূত্রমতে, তিনি এযাবত ৬৮টি দেশি-বিদেশি পুরস্কার, ১৫ টি সম্মাননা এবং বিভিন্ন দেশের বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ২৮টি সম্মানসূচক ডিগ্রি পেয়েছেন। তিনি কী পুরস্কার পান নি, সেটিই এখন অনুসন্ধানের বিষয়। কিন্তু হতাশার বিষয় হলো, দেশের দুর্যোগে দেশের এ কৃতি সন্তান প্রায় লাপাত্তা। ভালো যে, একটি মৃত্যু উপলক্ষে দূর পশ্চিমের কোন দেশ থেকে তার আওয়াজ পাওয়া গেলো। তিনি ভালো থাকুন তার পরাক্রমশালী বন্ধু আর বিশ্বব্যাপী সুনাম নিয়ে।
১টি মন্তব্য ১টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

সন্তানের স্বার্থপরতার বলি বেগম জিয়া!!!!

লিখেছেন মাহফুজ, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ৩:৩০




লেখাটা কে কিভাবে নেবেন আমি জানিনা তবে আমার লেখার উদ্দেশ্য মানবিক। আমি লিখছি আমার পয়েন্ট অফ ভিউ থেকে। আজ পর্যন্ত লেখালেখি করে অনেক আজেবাজে ট্যাগ পেয়েছি তবে এখন পর্যন্ত কেউ... ...বাকিটুকু পড়ুন

জীবন ও সমুদ্র ..........

লিখেছেন জুল ভার্ন, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ সকাল ১০:২৭

জীবন ও সমুদ্র ..........


‘আমি শুনেছি সেদিন তুমি
সাগরের ঢেউয়ে চেপে
নীল জল দিগন্ত ছুঁয়ে এসেছো,
আমি শুনেছি সেদিন তুমি
নোনা বালি তীর ধরে
বহুদূর বহুদূর হেঁটে এসেছো।’
মৌসুমী ভৌমিকের এ গান... ...বাকিটুকু পড়ুন

নিষিদ্ধ অপরাধ

লিখেছেন মোঃ মাইদুল সরকার, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ সকাল ১১:২৬



মিনারা বেগমের মনে সন্দেহ ঢুকছে। তার স্বামী নাকি ভাই কে হতে পারে অপরাধী। এত চোখে চোখে রেখেও কিভাবে এরকম ঘটনা ঘটে গেল সেটাই বুঝতে পারছেনা মিনারা বেগম।

রমিলা এই... ...বাকিটুকু পড়ুন

মানুষের ইতিহাস নিয়ে ভুল শিক্ষাঃ ইসলামে আদম/হাওয়া সত্য নাকি ব্লগার কালবৈশাখী'র জানা বিবর্তন?

লিখেছেন জ্যাকেল , ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ দুপুর ১:০৭

আমার গত পোস্টে কালবৈশাখী' মন্তব্য করেছেন যেইটা আবার গেছো দাদা অন্তর থেকে গ্রহণ করে রিপোস্ট করেছেন। এইদিকে আমার সময় দিতে না পারায় বড্ড দেরি হইয়া যাইতেছে। তাই আজকে ভাবলাম পুরোটা... ...বাকিটুকু পড়ুন

ব্লগ লিখেছি ১৩ বছর, বিবাহ হয়েছে ১০ বছর, বাচ্চাদের বয়স ৯ এবং ৭

লিখেছেন হাসান মাহবুব, ২৮ শে নভেম্বর, ২০২১ রাত ১০:২৪



প্রাককথন

২০০৮ সাল। বাসায় বসে আছি। ছাত্রজীবনে কিছু লিরিক, গল্প আর বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানের জন্যে নাটিকা লিখেছিলাম এই ভরসা নিয়ে অপেক্ষা করে আছি কবে হুট করে বড় লেখক হয়ে... ...বাকিটুকু পড়ুন

×