somewhere in... blog
x
ফোনেটিক ইউনিজয় বিজয়

" বিদায় ও ফিরে দেখা - সাল ২০২২ এবং সাদর সম্ভাষণ ২০২৩ " - আসুন দেখি এক নজরে ২০২২ সালের আলোচিত কিছু ঘটনাকে।

৩১ শে ডিসেম্বর, ২০২২ রাত ৯:৩৩
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :


ছবি - istockphoto.com

"যেতে নাহি দিব হায়,
তবুও যেতে দিতে হয়,
তবুও চলে যায়"-----

-- সৃষ্টির স্বাভাবিক নিয়মে দিন মাস গড়িয়ে বছর আসে এবং বছর যায় । সেই নিয়ম মেনেই আর কয়েক ঘন্টা বাদে আমাদের মাঝ থেকে বিদায় নিবে আরো একটি বছর যা ২০২২ নামে পরিচিত ছিল এবং আমাদের মাঝে আসবে নতুন এক বছর, সাল ২০২৩। নতুন এ বছর আমাদের সকলের জন্য নিয়ে আসুক অনেক আনন্দ এবং দূর করে দিক সকল ব্যর্থতার গ্লানি। নতুন বছরে আমাদের সকলের জীবন-দুনিয়া ভরে উঠুক শান্তি,ভালবাসা ও সাফল্যে এবং থেমে যাক মানুষে মানুষে সকল হানা-হানি,হিংসা বিদ্বেষ এবং দুনিয়া হয়ে উঠুক শান্তি-সন্ধি ও সম্প্রীতির আবাস। আমাদের সকলের সমস্ত স্বপ্ন সত্য হোক এবং পূরণ হোক সমস্ত আশা। পুরনো বছরের করা সমস্ত ভাল কাজের স্মৃতি মনে থাকুক এবং খারাপ কাজের বেদনা-স্মৃতি ভূলে সবার জীবন ২০২৩ সালে হয়ে উঠুক বিস্ময়কর ভাবে সুন্দর - শুভ নববর্ষ ২০২৩ ।


ছবি - hug2love.com

চলে যাবে ২০২২ সাল তবে তা আমাদের সবার মাঝে রেখে যাবে নানা রকম সুখ-দুঃখের স্মৃতি। বিদায়ী এ বছরে কিছু ঘটনা যেমন আমাদেরকে কাঁদিয়েছে,ব্যাথা দিয়েছে ,উপহার দিয়েছে হতাশা ঠিক তেমনি কিছু ঘটনা আমাদেরকে করেছে আনন্দিত। যুগিয়েছে সাহস,দিয়েছে সামনে এগিয়ে চলার প্রেরণা। আর মাত্র কয়েক ঘন্টা বাকি, তারপরেই ২০২২ সাল শেষ হয়ে আসবে ২০২৩। এই এক বছরে গোটা বিশ্বজুড়ে ঘটে গিয়েছে বহু ঘটনা-দুর্ঘটনা। কোথাও বেজেছে বেজেছে যুদ্ধের দামামা, কোথাও পড়েছে সরকার। কোথাও আবার হয়েছে জনবিক্ষোভ, তো কোথাও আবার সৃষ্টি হয়েছে নতুনের। এ বছরটিকে বলা যেতে পারে একটি যুগের শেষ এবং নতুন আরেকটি যুগের শুরু। এসময়ে ভয়াবহ এক যুদ্ধ ফিরেছে ইউরোপে যার ফলে ফিরে এসেছে পারমাণবিক হামলা চালানোর হুমকি। চীনের সঙ্গে যুক্তরাষ্ট্রের চাপা উত্তেজনা বৃদ্ধি পেয়েছে, দু দেশের সম্পর্কে দেখা দিয়েছে নানা জটিলতা। এ বছরেই এ যাবতকালের মধ্যে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় বৃটেনের সিংহাসনে আসীন রানী দ্বিতীয় এলিজাবেথ এবং ফুটবল সম্রাট পেলে প্রয়াত হয়েছেন। আসুন, বছরের শেষে একনজরে দেখে নেই ২০২২ সালের সেরা ও আলোচিত কিছু ঘটনাকে।

বাংলাদেশ - সাফল্য -




ছবি - dhakatribune.com

১। পদ্মা বহুমুখী সেতুর উদ্বোধন -

দীর্ঘদিনের প্রতিক্ষার অবসান ঘটিয়ে ২০২২ সালে চালু হয় পদ্মা বহুমুখী সেতু বা পদ্মা সেতু (Padma Bridge), যা পদ্মা নদীর উপর একটি দ্বি-স্তরের সড়ক-রেল সেতু। এটি মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলা এবং শরীয়তপুরের জাজিরা উপজেলায় স্থাপিত,যা দেশের স্বল্পোন্নত দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলকে উত্তর ও পূর্বাঞ্চলের সাথে সংযুক্ত করেছে। ২৫ জুন ২০২২ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ সেতুটি উদ্বোধন করেন। কোন রকম বিদেশী সাহায্য ছাড়াই এই সেতু নির্মাণ নির্মাণ করে বাংলাদেশ সরকার।

সেতুটিকে বাংলাদেশের ইতিহাসে সবচেয়ে চ্যালেঞ্জিং নির্মাণ প্রকল্প হিসাবে বিবেচনা করা হয়। দ্বিতলবিশিষ্ট এই সেতু কংক্রিট আর স্টিল দিয়ে নির্মিত হয়েছে যার উপরের স্তরে একটি চার লেনের মহাসড়ক এবং নীচের স্তরে একটি একক ট্র্যাক রেলপথ রয়েছে। সেতুটি ৪১ টি স্প্যান নিয়ে গঠিত, প্রতিটি ১৫০.১২ মিটার (৪৯২.৫ ফুট) লম্বা এবং ২২মিটার (৭২ ফুট) প্রস্থ, যার মোট দৈর্ঘ্য ৬.১৫ কিমি (৩.৮২ মাইল) এবং সেতুর পিলার সংখ্যা মোট ৪২টি। এটি বাংলাদেশের দীর্ঘতম সেতু, স্প্যান এবং মোট দৈর্ঘ্য উভয় দিক দিয়ে গঙ্গা (গঙ্গা) নদীর উপর দীর্ঘতম সেতু এবং যা সারা বিশ্বের দীর্ঘতম সেতু হিসাবে ১২২ তম স্থানে রয়েছে। এটি বিশ্বের গভীরতম সেতুও, যেখানে ১২৭ মিটার গভীরে পাইলিং স্থাপন করা হয়েছে। এই সেতু উদ্বোধনের ফলে সড়কপথে কলকাতার সঙ্গে ঢাকার দূরত্ব কমে যায় প্রায় দেড়শো কিলোমিটার। লিংক - Click This Link

সারা বিশ্ব -

২০২২ সালে বিশ্বব্যাপী ক্রমবর্ধমান মানবিক সংকট এবং সংঘাত অভূতপূর্বভাবে বৃদ্ধি পেয়েছে। উদ্বেগজনক ভাবে লক্ষ্য করা যায় যে,সারা দুনিয়ায় জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুতি বৃদ্ধি, দুর্ভিক্ষের পথে আরও বেশি মানুষ , ভ্যাকসিন বৈষম্য, জলবায়ু এবং ক্ষুধা-সংঘাতের মতো বিষয়গুলির বৃদ্ধি, কর্তৃত্ববাদি শাসনের উত্থান এবং সংঘর্ষ ও সহিংসতার বৃদ্ধি পেয়েছে।




ছবি - gettyimages.ca

১। রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ - এই বছরের একদম শুরুর দিকেই বিশ্বে বেজে ওঠে যুদ্ধের দামামা। চলতি বছরের ফেব্রুয়ারি মাসের ২৪ তারিখ ইউক্রেন আক্রমণ করে রাশিয়া,পাল্টা জবাব দিতে শুরু করে ইউক্রেনের সেনাও। ইউক্রেনের সমর্থনে আমেরিকা-ইউরোপ সহ বিশ্বের ৫০ টিরও বেশী দেশ অস্ত্র-অর্থ সহ অন্যান্য উপকরনের সাথে সাথে হাজারো নিষেধাজ্ঞা নিয়ে রাশিয়ার বিরুদ্ধে একজোট হয়েছে এবং বিশ্বের বেশিরভাগ দেশ আলোচনার পরিবর্তে এবং রাশিয়ার উদ্বেগ-চাওয়াকে উপেক্ষা করে যুদ্ধের মাধ্যমে সমস্যা সমাধানের চেষ্টা চালিয়ে যাওয়ার পরেও বাস্তবে রাশিয়াকে হারানো এখনও তা সম্ভব হয়ে ওঠেনি।এ যুদ্ধের ফলে সারা দুনিয়ায় খাদ্য-জ্বালানী ও দ্রব্যমূল্যের বৃদ্ধির পাশাপাশি বহু মানুষের মৃত্যু হলেও, যুদ্ধের ফলাফল ও সঠিক ক্ষয়ক্ষতির পরিমান কত তা এখনও অজানা।লিংক - Click This Link




ছবি - thehindu.com

২। শ্রীলঙ্কার অর্থনৈতিক ও রাজনৈতিক সংকট - প্রেসিডেন্টের পলায়ন, রাজাপাকসে পারিবারিক সাম্রাজ্যের পতন -

এ বছর বিশ্ব রাজনীতিতে সবচেয়ে আলোচিত ঘটনা ঘটেছে শ্রীলঙ্কায়। তেলের দাম বৃদ্ধি ও বৈদেশিক মুদ্রার অভাবের ফলে দ্বীপ রাষ্ট্রের অর্থনীতি ধবসে পড়ে এবং সরকারিভাবে দেশ দেউলিয়া হয়ে যায়। জনগণ নিষ্পেষিত হতে হতে উঠে দাঁড়ায় এবং রাজনৈতিক দলের বাইরে তারা রাজপথ দখলে নেয়। তাদের গণ-উত্থান দেখে ভয়ে দেশ থেকে পালিয়ে যান দোর্দণ্ড প্রতাপশালী প্রেসিডেন্ট গোটাবাওয়া রাজাপাকসে। বছরের মাঝামাঝি নাগাদ উঠে আসে শ্রীলঙ্কার চরম অর্থনৈতিক সংকটের খবর। যার জেরের দেশ জুড়ে শুরু হয় গণবিক্ষোভ। চলে লুঠপাট ও অগ্নিসংযোগ। রাস্তায় নেমে বিক্ষোভ দেখানে শুরু করেন দেশবাসী। গণ বিক্ষোভের মুখে পড়ে দেশ ছেড়ে পালাতে বাধ্য হন শ্রীলঙ্কার রাষ্ট্রপতি গোতাবায়া রাজাপক্ষে । প্রথমদিকে গোটাবাওয়া গভীর সমুদ্রে নৌবাহিনীর একটি জাহাজে আত্মগোপন করেন। সেখান থেকে ফিরে নৌবাহিনীর একটি বিমানে পালিয়ে প্রথমে যান মালদ্বীপে। সেখানেও বিক্ষোভের মুখে তিনি আশ্রয় নেন সিঙ্গাপুরে এবং তারাও তাকে ঠাঁই দেয়নি। পরে তিনি থাইল্যান্ড হয়ে দেশে ফেরেন। লিংক - Click This Link


ছবি - timesofisrael.com

৩। পাকিস্তানে ক্ষমতাচ্যূত ইমরান খান -

শ্রীলঙ্কার পাশাপাশি পাকিস্তানেও এই বছর ঘটে যায় ব্যাপোক রাজনৈতিক উত্থান-পতন। গত এপ্রিলে অনাস্থা ভোটে হেরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরতে হয় ইমরান খানকে। সেই বিষয়ে সম্প্রতি পাকিস্তানের প্রাক্তন সেনাপ্রধান জেনারেল বাজওয়ার বিরুদ্ধেও মুখ খুলেছেন ইমরান। তিনি বলেন, " প্রধানমন্ত্রী থাকাকালীন আমি পুরোপুরি অসহায় ছিলাম। আমি দেশের প্রধানমন্ত্রী ছিলাম, তবে আসল ক্ষমতা ছিল সেনাপ্রধান কামার জাভেদ বাজওয়ার হাতে"। গতমাসে ইমরানের মিছিলে গুলি চালানোর অভিযোগও ওঠে। ঘটনায় আহত হন ইমরান খান।পাকিস্তানকে অক্টোপাসের মতো আঁকড়ে ধরে রাজনৈতিক, অর্থনৈতিক এবং জলবায়ু বিষয়ক সংকট। এপ্রিলে অনাস্থা ভোটে পার্লামেন্টে ক্ষমতা হারান প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। তার এই ক্ষমতা হারানোর মধ্যদিয়ে পাকিস্তানের কোনো প্রধানমন্ত্রীই তাদের নির্ধারিত ক্ষমতার ৫ বছর সম্পন্ন করতে পারেননি। তবে ক্ষমতা হারালেও ইমরান খান অবসরে চলে যাননি। উল্টো তিনি রাজধানী ইসলামাবাদমুখী ধারবাহিক প্রতিবাদ বিক্ষোভ করতে থাকেন। তার উত্তরসূরি প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফের পদত্যাগ দাবি করেন। দৃশ্যত প্রতিশোধ নিতে তার বিরুদ্ধে আগস্টে দেশের সন্ত্রাসবিরোধী আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ আনে সরকার। নভেম্বরে লংমার্চকালে তাকে গুলি করা হয়। এজন্য তিনি প্রধানমন্ত্রী শেহবাজ শরিফ, সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তাদের দায়ী করেন এবং একই সঙ্গে আগাম নির্বাচন চেয়ে বসেন। লিংক - Click This Link




ছবি - rte.ie/news

৪। ইরানে হিজাব ও সরকার বিরোধী বিক্ষোভ - কুর্দি তরুণী মাসা আমিনির মৃত্যুকে কেন্দ্র করে সেপ্টেম্বর থেকে ইরানে বিক্ষোভ চলছে। ১৯৭৯ সালের ইসলামী বিপ্লবের পর থেকে ক্ষমতাসীন সরকার ইরানে সবচেয়ে কঠিন চ্যালেঞ্জে পড়েছে ২০২২ সালে। এর আগেও ইরানে বিক্ষোভ হয়েছে কিন্তু তা এই বিক্ষোভের মতো বিস্তৃতি ঘটাতে পারেনি। বিশেষ করে সেপ্টেম্বরে নৈতিকতা বিষয়ক পুলিশ রাজধানী তেহরানে মাথার চুল না ঢেকে রাখার জন্য মাহশা আমিনি নামে এক যুবতীকে আটক করে। তাদের হেফাজতে থাকাকালে তিনি মারা যান। পরিবারের সদস্যদের দাবি, তাকে নির্যাতন করে হত্যা করা হয়েছে যদিও পুলিশের দাবী হৃদপিন্ডে হঠাৎ আক্রমণে মারা যাওয়ার। এই খবর ছড়িয়ে পড়লে হাজার হাজার মানুষ এই মৃত্যুর নিন্দা জানিয়ে রাজপথে নেমে পড়েন। তারা নারীদের প্রতি দুর্ব্যবহারের প্রতিবাদ জানান। এই বিক্ষোভ দ্রুতই পুরো দেশে ছড়িয়ে পড়ে। অবশ্য এজন্য যুক্তরাষ্ট্র ও ইসরাইলকে দায়ী করেন ইরানের নেতারা। ডিসেম্বর নাগাদ রাজপথে বিক্ষোভ করা প্রায় ৪৫০ জনকে হত্যা করেছে ইরানের নিরাপত্তা রক্ষাকারীরা।এদিকে, সরকার প্রতিবাদ বিক্ষোভকারীদের নানা অভিযোগে প্রকাশ্যে মৃত্যুদণ্ড কার্যকর শুরু করেছে। লিংক - Click This Link





৫। যুক্তরাষ্ট্র-চীন উত্তেজনা বৃদ্ধি - প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের আমলের শুরু "আমেরিকা ফার্স্ট" নীতি ও তার ধারাবাহিকতায় চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে শক্তির প্রতিযোগিতা পুরোমাত্রায় চলেছে এ বছরেও। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ন্যাশনাল সিকিউরিটি স্ট্র্যাটেজি প্রকাশ করে এ বছর অক্টোবরে।সেখানে, চীন আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটকে ক্রমাগতভাবে তার দিকে ধাবিত করার চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ করা হয়। এই প্রতিযোগিতায় যুক্তরাষ্ট্রের বিজয়ী হওয়ার বাসনার কথাও বলা হয়। এতে দক্ষিণ চীন সাগরে বেইজিংয়ের সামরিকীকরণ, ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনে চীনের সমর্থন, তাইওয়ানকে চীনের ভীতি প্রদর্শনের চেষ্টাসহ বিভিন্ন বিষয়ে জোর দিয়ে তুলে ধরে যুক্তরাষ্ট্র। দুই দেশের মধ্যে কী পরিমাণে উত্তেজনা তা বোঝার জন্য দৃষ্টি ফেরাতে হবে আগস্টে মার্কিন কংগ্রেসের প্রতিনিধি পরিষদের স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির তাইওয়ান সফরের বিরুদ্ধে চীনের প্রতিক্রিয়া থেকে। অক্টোবরে কৃত্রিম বৃদ্ধিমত্তার ক্ষেত্রে আধিপত্য বিস্তারকারী আধা পরিবাহী চিপস এবং প্রযুক্তি পাওয়ার সুবিধা থেকে চীনের বিরুদ্ধে বড় পদক্ষেপ নেয় বাইডেন প্রশাসন। একই সঙ্গে চীনের বিরুদ্ধে একই রকম পদক্ষেপ গ্রহণ করতে বন্ধু এবং মিত্রদের প্রতি আহ্বান জানায় যুক্তরাষ্ট্র। লিংক - Click This Link এবং Click This Link


ছবি - townandcountrymag.com

৬। ভারতীয় বংশোদ্ভূতর হাতে ব্রিটেনের ক্ষমতা - এই বছর ব্রিটেনের রাজনীতিতেও তৈরি হল ইতিহাস। প্রথম ভারতীয় বংশোদ্ভূত হিসেবে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী হলেন হলেন ঋষি সুনক (Rishi Sunak)। ১৯৮০ সালের ১২ জুন ইংল্যান্ডের সাউথহ্যাম্পটনে জন্মগ্রহণ করেন তিনি। রাজনীতিতে আসার আগে ব্যবসা করতেন সুনক। প্রধানমন্ত্রীর কুর্সিতে ৪৫ দিন থাকার পর পদত্যাগ করেন লিজ স্ট্রাস। তারপরেই ওই পদে বসেন ঋষি সুনক। লিংক - Click This Link




ছবি - theupcoming.co.uk

৭। ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মহাপ্রয়ান - ২০২২ সালের সেপ্টেম্বর মাসে প্রয়াত হন ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথ (Queen Elizabeth Death)। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৯৬ বছর। স্কটল্যান্ডের বালমোরাল ক্যাসেলে চিকিৎসা চলছিল তাঁর। সেখানেই মৃত্যু হয় ব্রিটেনের সবচেয়ে দীর্ঘ মেয়াদী রানীর। ব্রিটেনের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করে গোটা বিশ্ব। লিংক - https://www.bbc.com/news/uk-61585886

খেলা - ফুটবল


ছবি - irishexaminer.com


ছবি - marca.com

১। স্মরণকালের সেরা বিশ্বকাপ উপহার দিয়েছে কাতার -

মধ্যপ্রাচ্যের প্রথম ও মুসলিম দেশ হিসেবে ২০২২ সালের ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজন করে মধ্যপ্রাচ্যের ক্ষুদ্র দেশ কাতার। ১৮ ই ডিসেম্বর ২০২২ লুসাইল স্টেডিয়ামে ফাইনালে টাইব্রেকারে ফ্রান্সকে ৪-২ গোলে হারিয়ে ৩৬ বছর পর বিশ্বকাপের শিরোপা ঘরে তুলে আর্জেন্টিনা। এবারের বিশ্বকাপে সমর্থকদের হাসি-কান্নার পাশাপাশি ছিল অনেক স্মরণীয় মুহূর্ত। ফ্যানদের দৃষ্টিতে এটি ছিল স্মরণকালের সেরা আসর। সমকামিতার অধিকার, বিদেশি শ্রমিকদের মৃত্যুসহ নানা বিষয়ে সমালোচনা আর প্রশ্নের মুখোমুখি হয়েছিল কাতার বিশ্বকাপ। সব বাধা পেরিয়ে শেষমেশ জাঁকজমকপূর্ণ বিশ্বকাপ উপহার দিয়েছে দেশটি।বিবিসির জরিপে গত ১০০ বছরের বিশ্বকাপ আয়োজনের ইতিহাসে সেরা বিশ্বকাপ হিসেবে সবচেয়ে বেশি ভোট পেয়েছে কাতার বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ আয়োজনের আগে থেকেই নানা আলোচনার জন্ম দিয়েছে কাতার। খেলার মাঠে বিয়ার বিক্রি নিষিদ্ধ, পোশাক-আশাকের সীমা নির্ধারণ নিয়েও আলোচনায় এসেছে দেশটি। এ নিয়ে পশ্চিমাদের ব্যাপক তোপের মুখে পড়তে হয়েছে সরকারকে। বিশ্বকাপ শুরুর আগমুহূর্তে কাতারের পক্ষ নিয়ে পশ্চিমাদের সমালোচনাও করেছেন ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো যা একথায় বিরলই বলা যায়। লিংক - Click This Link

যদিও কাতারের বিশ্বকাপের আয়োজন নিয়ে নানা গত ১২ বছর নানা সমালোচনা ছিল তারপরও কাতার সারা দুনিয়ার সকল সমালোচনা ও আশংকাকে উড়িয়ে দিয়ে মদ-যৌনতা-জ্যাম-ঘাম-দাংগা বিহীন এক চমতকার খেলা উপহার দিয়ে সারা দুনিয়ার সামনে এক নতুন কাতার ও মুসলিম সংস্কৃতিকে তুলে ধরেছে।অন্যদিকে এই টুর্নামেন্টটি রাজনৈতিক বার্তামুক্ত রাখতে চেয়েছে ফুটবলের সর্বোচ্চ নিয়ন্ত্রক সংস্থা ফিফাও। বিশ্বকাপ শুরুর আগে এলজিবিটিকিউপ্লাস ও অভিবাসী শ্রমিকদের প্রতি কাতারের আচরণ নিয়ে তীব্র সমালোচনা করে পশ্চিমা সংবাদমাধ্যমগুলো। তাদের এসব সমালোচনাকে ‘ভণ্ডামি’ বলে আখ্যা দিয়েছেন ফিফা সভাপতি জিয়ান্নি ইনফান্তিনো। কাতারের মানবাধিকার নিয়ে প্রশ্নে ফিফা সভাপতি বলেন, "তিন হাজার বছর ধরে ইউরোপীয়রা যা করে আসছে, তার জন্য আগামী তিন হাজার বছর ক্ষমা চাওয়া উচিত"। কাতারে বিশ্বকাপ ফাইনালের আগে বৈশ্বিক শান্তি নিয়ে ভাষণ দিতে ফিফার কাছে অনুরোধ জানিয়েছিলেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলদিমির জেলেনস্কি, তবে বিশ্ব ফুটবলের নিয়ন্ত্রক সংস্থাটি সাড়া দেয়নি সে অনুরোধে।
লিংক - https://www.arabnews.com/node/2217686/sport

ক্রিকেট -




ছবি - khela71.com

১। বাংলাদেশের ভারতের সাথে ঐতিহাসিক ওয়ানডে সিরিজ জয় -

২০২২ সালের বিজয়ের মাসে ক্রিকেট পরাশক্তি ভারতের সাথে তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজে এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ জিতে নেয় লাল-সবুজ টাইগার বাহিনী। দ্বিতীয় ম্যাচে বাংলাদেশ জয় পায় ৫ রানে। ৭ ডিসেম্বর, বুধবার মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে একটি ব্লকব্লাস্টার ম্যাচের সাক্ষী হলো ক্রিকেটবিশ্ব। টস জিতে শুরুতে ব্যাট করতে নেমে ৬৯ রানে ৬ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশকে ব্যাট হাতে অনিন্দ্য সুন্দর শতরানে ২৭১ রানের বিশাল সংগ্রহ এনে দিয়েছিলেন মেহেদী হাসান মিরাজ।বড় টার্গেট তাড়া করতে নেমে নিয়মিত বিরতিতে উইকেট হারানোর পর আঙুলে চোট নিয়েই খেলতে নেমে পড়েছিলেন টিম ইন্ডিয়া কাপ্তান রোহিত শর্মা। বাংলাদেশি ফিল্ডারদের ক্যাচ মিসের মহড়া কিংবা একের পর এক জীবন পেয়ে রোহিতের বাউন্ডারি হাঁকানো, ম্যাচের ভাগ্যটাও যেন দুলছিল তার সাথে সাথে। শেষ ৬ বলে ভারতের জয়ের জন্য দরকার ছিল ২০ রান। হাতে ছিল এক উইকেট। মুস্তাফিজের করা ওভারের প্রথম বলে ডট দেয়ার পর দুই চার ও এক ছক্কায় ভয় ধরিয়ে দিয়েছিলেন রোহিত। শেষ বলে সমীকরণ ছিল এক বলে ৬ রান। তবে কোনো রানই নিতে পারেনি। নির্ধারিত ওভারে ভারতের ইনিংস থেমেছে ৯ উইকেট হারিয়ে ২৬৬ রানে। সাত বছর আগে ২০১৫ সালের ঐতিহাসিক সিরিজ জয়ের পর দ্বিতীয়বারের মতো ভারতকে ধরাশায়ী করল বাংলাদেশ। আর দেশবাসী পেল বিজয়ের মাসে আরেকটি বিজয়ের আনন্দ। লিংক - Click This Link

কিছু জিনিস যা ২০২২ সালে বিশ্বে প্রথমবারের মতো ঘটেছিল


ছবি - au.finance.yahoo.com

১। প্রথম কোম্পানি হিসাবে অ্যাপলের স্টক মার্কেটের মূল্য $3 ট্রিলিয়ন -

এ বছরের জানুয়ারীতে, প্রথমবার অ্যাপলের মূল্য $3 ট্রিলিয়ন চিহ্নে পৌঁছেছে, যা এটিকে প্রথম সর্বজনীনভাবে ব্যবসা করা কোম্পানিতে পরিণত করেছে। এর মান তখন থেকে হ্রাস পেয়েছে, কারণ এটি এবং অন্যান্য সংস্থাগুলি এখনও কোভিড - ১৯ মহামারী এবং রেকর্ড মুদ্রাস্ফীতির প্রভাব থেকে ভুগছে এমন একটি মন্দা অর্থনীতির মুখোমুখি। অ্যাপলই প্রথম কোম্পানি যার মূল্য ২০১৮ সালে $1 ট্রিলিয়ন এবং ২০২০ সালে $2 ট্রিলিয়ন। লিংক - Click This Link




ছবি - darksitefinder.com/nikonusa.com

২। প্রথমবারের মত আমাদের গ্যালাক্সিতে তারার গঠন কিভাবে শুরু হয়েছিল তা বিজ্ঞানীরা চিহ্নিত করেন -

জানুয়ারিতে নেচারে প্রকাশিত একটি গবেষণাপত্র অনুসারে, বিজ্ঞানীরা প্রথমবারের মতো ব্যাখ্যা করতে পারেন যে মিল্কিওয়েতে তারার গঠনের সূত্রপাত কী হয়েছিল। গবেষকরা বলছেন যে প্রায় ১৪ মিলিয়ন বছর আগে সুপারনোভার একটি চেইন প্রতিক্রিয়া ১,০০০ আলোক-বছর-প্রশস্ত বুদ্বুদ তৈরি করেছিল, যার কেন্দ্রে রয়েছে আমাদের ছায়াপথ। যদিও বিজ্ঞানীরা এই বুদবুদটির অস্তিত্ব জানতেন, তারা সম্প্রতি আবিষ্কার করেছেন যে সমস্ত স্থানীয় তারা-গঠনকারী অঞ্চলগুলি এর পৃষ্ঠের উপর বসে আছে, কারণ চেইন প্রতিক্রিয়া বুদবুদের প্রান্তে নতুন তারা তৈরি করতে প্রয়োজনীয় ধুলো এবং গ্যাসকে দূরে ঠেলে দেয়। লিংক - Click This Link



৩। প্রথমবারের মত মানুষের রক্তে মাইক্রোপ্লাস্টিক সনাক্ত করা হয় -

মানুষের রক্তে প্রথমবারের মতো মাইক্রোপ্লাস্টিক দূষণ শনাক্ত হয়েছে। পরীক্ষায় প্রায় ৮০ শতাংশ মানুষের রক্তে এই ক্ষুদ্র কণা খুঁজে পেয়েছেন বিজ্ঞানীরা। মাইক্রোপ্লাস্টিকের কণাগুলো মানুষের শরীরে চলাচল করতে পারে এবং বিভিন্ন অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে জায়গা করে নিতে পারে বলে গবেষণায় দেখেছেন বিজ্ঞানীরা। মানব স্বাস্থ্যের ওপর মাইক্রোপ্লাস্টিকের প্রভাব এখনও জানা না গেলেও গবেষকরা গবেষণাগারে এরইমধ্যে এটা মানবকোষের ক্ষতি করে এমন প্রমাণ পেয়েছেন। এনভায়রনমেন্ট ইন্টারন্যাশনাল-এ মার্চ মাসে প্রকাশিত একটি গবেষণায় মানুষের রক্তে মাইক্রোপ্লাস্টিক পাওয়া গেছে। গবেষণায় অংশগ্রহণকারীদের প্রায় অর্ধেক পলিথিন টেরেফথালেট ছিল - একটি পলিমার যা পানির বোতল এবং খাদ্য প্যাকেজিং, অন্যান্য দৈনন্দিন জিনিসের মধ্যে ব্যবহৃত হয় - তাদের রক্তে। বিজ্ঞানীরা পূর্বে প্রতিষ্ঠিত করেছিলেন যে লোকেরা যে খাবার খায়, তারা যে জল পান করে এবং যে বাতাস তারা শ্বাস নেয় তার মাধ্যমে প্লাস্টিকের মাইক্রোস্কোপিক কণার সংস্পর্শে আসে। লিংক - Click This Link




ছবি -npr.org

৪। পূর্ব অ্যান্টার্কটিকায় একটি বরফের তাক ধসে পড়ে -

এবছরের মার্চ মাসে রোম শহরের সমান একটি বরফের টুকরা ভেঙে পড়ে। মহাসাগরের ওপর জড়িয়ে থাকা ধবধবে সাদা চাদর মুহূর্তের মধ্যেই লক্ষ লক্ষ টুকরো হয়ে যায়। স্যাটেলাইট থেকে প্রাপ্ত ছবিতে ভয়ংকর এ দৃশ্য ধরা পড়ে। মার্চের মাঝামাঝি পূর্ব অ্যান্টার্কটিকায় বরফের তাক ধসে পড়ে, ১৯৭৯ সালে স্যাটেলাইটগুলি সেখানে রেকর্ডিং কার্যকলাপ শুরু করার পর থেকে এন্টার্কটিকার পূর্ব অংশে এই ধরনের প্রথম ধস। বিশেষজ্ঞদের মতে, ৪৫০ বর্গ-মাইল প্রসারিত বরফের ধস প্রত্যাশিত সময়ের চেয়ে তাড়াতাড়ি ঘটেছিল, এবং মহাদেশের একটি অংশে যা জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাবের জন্য কম ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করা হয়। লিংক - Click This Link


ছবি - mpg.de




ছবি - techeblog.com

৫। প্রথমবারের মত বিজ্ঞানীরা মিল্কিওয়ে ব্ল্যাক হোলের একটি চিত্র ধারণ করেছেন -

জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা আমাদের নিজস্ব মিল্কিওয়ে গ্যালাক্সির কেন্দ্রে সুপারম্যাসিভ ব্ল্যাক হোলের প্রথম চিত্র উন্মোচন করেছেন। মে মাসে, বিজ্ঞানীরা ধনু রাশি A* এর প্রথম চিত্র উন্মোচন করেছিলেন, আমাদের ছায়াপথের কেন্দ্রে একটি ব্ল্যাক হোল। এটি ইভেন্ট হরাইজন টেলিস্কোপ প্রকল্প নামে পরিচিত একটি আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টার ফলাফল। ২০১৯ সালে, বিজ্ঞানীদের একই দল গ্যালাক্সি M87 এর কেন্দ্রে একটি ব্ল্যাক হোলের প্রথম চিত্র উন্মোচন করেছিল, যা ধনু A* এর চেয়ে 1,500 গুণ বড়। লিংক - Click This Link


ছবি - সি এন এন


ছবি - daily-sun.com

৬। বিশ্বের সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ শহর ঢাকায় প্রথম মেট্রো লাইন চালু -

বছরের একেবারে শেষের দিকে এসে দেশবাসী পেয়েছে এক সুখবর,বাংলাদেশ প্রবেশ করেছে মেট্রোর জগতে । যদিও এর পুরোপুরি সুফল পেতে ঢাকাবাসী তথা দেশবাসীকে অপেক্ষা করতে হবে আরো কয়েক মাস।২৭ ডিসেম্বর আনুষ্ঠানিক যাত্রা শুরু করেছে ঢাকার প্রথম মেট্রোরেল যেখানে একসময় মেট্রোরেলকে স্বপ্ন মনে করা হতো। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশে মেট্রোরেলের এই ঐতিহাসিক যাত্রার উদ্বোধন করেন, এর পর প্রধানমন্ত্রী দিয়াবাড়ী থেকে ট্রেনে উঠে আগারগাঁও আসেন এবং এর মধ্য দিয়ে মেট্রোরেল যুগে প্রবেশ করছে বাংলাদেশ। এখন উত্তরা থেকে আগারগাঁও পর্যন্ত চলবে মেট্রোরেল। লিংক - Click This Link


ছবি - tbsnews.net

৭। চীনে আবারও কভিডের হানা -

চীনে আবারও ধেয়ে আসছে কোভিড, একদিনে আক্রান্ত ৩.৭ কোটি। দেশটির শীর্ষ স্বাস্থ্য কর্মকর্তাদের হিসাব অনুযায়ী, চলতি ডিসেম্বরের প্রথম ২০ দিনেই দেশটিতে প্রায় ২৫০ মিলিয়ন বা ২৫ কোটি মানুষ করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। শুক্রবার (২৩ ডিসেম্বর) ব্লুমবার্গ নিউজ এবং দ্য ফিন্যান্সিয়াল টাইমসের প্রতিবেদনে উঠে এসেছে এ তথ্য। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে, চীনের জনসংখ্যার ১৮ শতাংশই কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন বিগত এই কয়েকদিনে। এর আগে, দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ ৪০ লাখ মানুষ কোভিডে আক্রান্ত হয়েছেন। আগামীতে এই পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হতে চলেছে বলে সতর্ক করা হচ্ছে। জানুয়ারি শুরু হতে হতে চীনে দৈনিক সংক্রমের হার ৪ কোটি ছুঁতে পারে বলে দাবি বিশেষজ্ঞদের। লিংক - Click This Link



ছবি - Getty Images

শোক সংবাদ - ফুটবল সম্রাট পেলের মহাপ্রয়াণ -

ডিসেম্বর ২৯,২০২২, ৮২ বছর বয়সে পৃথিবীর মায়া কাটিয়ে ওপারে পাড়ি দিলেন ফুটবলের রাজা ব্রাজিলের ফুটবল কিংবদন্তি পেলে। ক্যান্সারের সঙ্গে দীর্ঘদিন লড়াই শেষে স্থানীয় সময় বৃহস্পতিবার সাও পাওলোর আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালে শেষ নি:শ্বাস ত্যাগ করেন পেলে। ব্রাজিল কিংবদন্তি পেলের মেয়ে কেলি নাসিমেন্তো ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।মারণ রোগের বিরুদ্ধে দীর্ঘদিন ধরে যুদ্ধ করছিলেন পেলে। কেমোথেরাপি কাজ না করায় গত নভেম্বরে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এই কিংবদন্তিকে। কিন্তু অবস্থা খারাপের দিকেই যেতে থাকে। তাই তখন থেকেই ব্রাজিলের আলবার্ট আইনস্টাইন হাসপাতালেই তিনি চিকিৎসাধীন ছিলেন। চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৮২ বছর বয়সে পৃথিবীর মায়া ছেড়ে চলে গেলেন তিনটি বিশ্বকাপজয়ী বিশ্বের একমাত্র ফুটবলার পেলে।লিংক - Click This Link

নানা ঘটনা-দূর্ঘটনা,আশা-নিরাশার মাঝে বিদায় নিতে যাচছে ২০২২ সাল । সারা দুনিয়া অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছে নতুন বছর ২০২৩ সালকে বরণের জন্য। তার সাথে সাথে আশায় আছে নতুন বছর ভাল এবং নতুন কিছু নিয়ে আসবে আমাদের সবার জন্য।




ছবি - happyeventday.com

আর তাই সবার সাথে আমিও জানাই, স্বাগতম - ২০২৩

=================
তথ্যসূত্র ও সহযোগীতায় -

৪। 22 Things That Happened for the First Time in 2022 - Click This Link
৩। 5 GLOBAL ISSUES TO WATCH IN 2022 - Click This Link
২। স্মরণকালের সেরা বিশ্বকাপ উপহার দিয়েছে কাতার - Click This Link
১। রোমাঞ্চ শেষে বাংলাদেশের ঐতিহাসিক সিরিজ জয় - Click This Link
============================================
পূর্ববর্তী পোস্ট

২। "ফিরে দেখা - সাল ২০২১ " - Click This Link
১। "ফিরে দেখা - সাল ২০২০ " - Click This Link
সর্বশেষ এডিট : ০২ রা জানুয়ারি, ২০২৩ বিকাল ৪:৪৩
১১টি মন্তব্য ১১টি উত্তর

আপনার মন্তব্য লিখুন

ছবি সংযুক্ত করতে এখানে ড্রাগ করে আনুন অথবা কম্পিউটারের নির্ধারিত স্থান থেকে সংযুক্ত করুন (সর্বোচ্চ ইমেজ সাইজঃ ১০ মেগাবাইট)
Shore O Shore A Hrosho I Dirgho I Hrosho U Dirgho U Ri E OI O OU Ka Kha Ga Gha Uma Cha Chha Ja Jha Yon To TTho Do Dho MurdhonNo TTo Tho DDo DDho No Po Fo Bo Vo Mo Ontoshto Zo Ro Lo Talobyo Sho Murdhonyo So Dontyo So Ho Zukto Kho Doye Bindu Ro Dhoye Bindu Ro Ontosthyo Yo Khondo Tto Uniswor Bisworgo Chondro Bindu A Kar E Kar O Kar Hrosho I Kar Dirgho I Kar Hrosho U Kar Dirgho U Kar Ou Kar Oi Kar Joiner Ro Fola Zo Fola Ref Ri Kar Hoshonto Doi Bo Dari SpaceBar
এই পোস্টটি শেয়ার করতে চাইলে :
আলোচিত ব্লগ

নিশীরাতের ভিখারিনী

লিখেছেন সোনাগাজী, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ ভোর ৪:৩৬



এটি একজন দরিদ্র আফ্রিকান আমেরিকান মেয়ের কাহিনী।

আমি তখন নিউইয়র্ক শহর থেকে ১১০ মাইল উত্তরে এক গ্রামে একটি কোম্পানীতে কাজ করতাম; শনি, রবিবারে নিউইয়র্ক শহরে গিয়ে কিছু ছেলেমেয়েকে চাকুরীর... ...বাকিটুকু পড়ুন

বইমেলার কবিতার বই: পাঁচ বছরে বাজারে এসেছে প্রায় ছয় হাজার, মান নিয়ে বিতর্ক

লিখেছেন এম ডি মুসা, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ সকাল ১১:৫২

তবে কবিতার মান নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন গবেষণারাও। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধ্যাপক বায়তুল্লাহ কাদেরী বলেন,হ্যাঁ, কবিতার মান ঠিক নেই। কিন্তু এখন মান দেখার তো লোক নেই। যার যেমন... ...বাকিটুকু পড়ুন

পবিত্র মাহে রমজানের প্রস্তুতি -ঈষৎ সংশোধিত পুনঃপোস্ট

লিখেছেন নতুন নকিব, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ দুপুর ১২:৫৩

পবিত্র মাহে রমজানের প্রস্তুতি

ছবিঃ অন্তর্জাল হতে সংগৃহিত।

প্রাককথনঃ

দেখতে দেখতে পবিত্র মাহে রমজান-২০২৪ আমাদের দোড়গোড়ায় এসে উপস্থিত। রমজান, মুমিনের জীবনের শ্রেষ্ঠতম আনন্দের ক্ষণ, অফুরন্ত প্রাপ্তির মাস, অকল্পনীয় রহমতলাভের নৈস্বর্গিক মুহূর্তরাজি। রমজান... ...বাকিটুকু পড়ুন

বাপ-মেয়ের দ্বৈরথ

লিখেছেন রূপক বিধৌত সাধু, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ সন্ধ্যা ৬:৫৩


আমার দাদির ঝগড়াঝাঁটির স্বভাব কিংবদন্তিতুল্য ছিল। মা-চাচীদের কাছ থেকে শোনা কষ্ট করে রান্নাবান্না করলেও তারা নাকি নিজে থেকে কখনও মাছ-মাংস পাতে তুলে খেতে পারতেন না। দাদি বেছে বেছে দিতেন... ...বাকিটুকু পড়ুন

বৃষ্টি খাতুনই অভিশ্রুতি, এনআইডিতে নাম সংশোধনের আবেদন করেছিল। ধর্মান্তরিত হওয়ার পিছনে দায়ী কে?

লিখেছেন এম ডি মুসা, ০৩ রা মার্চ, ২০২৪ রাত ৮:৩৩





বেইলি রোডের সেইদিনের অগ্নিকাণ্ডে নিহত অভিশ্রুতি শাস্ত্রীর প্রকৃত নাম বৃষ্টি খাতুন। অভিশ্রুতি ও বৃষ্টি খাতুন নামে দুইজন একই ব্যক্তি বলে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ সূত্রে নিশ্চিত... ...বাকিটুকু পড়ুন

×